Ankur Bangla Magazine by arinbasu

VIEWS: 207 PAGES: 92

									weyil„Fn dueàga‡sb kimiFr inebdn

              A « ™r




sàbÕm˜l m˜elY iSeb sàbÕaàT saiDek|
SreNY ºYÜek ŸgOir narayiN nemaó¼et^

    ctuàT bàx, pãTm s„KYa - dueàga‡sb 2011
                           ANKUR
A publication by enthusiastic Bengalees in Wellington, New Zealand
                Fourth publication: Durgotsav, 2011

                            Front cover:
        Pratima (idol) as traditionally worshipped in Bengal
                             Back cover:
        ‘Ganesh Janani’ (Mother of Ganesh) by Soma Dutta

           Shloka on the front cover picture in English:

                Oh Gouri, the consort of Lord Shiva,
                Thou maketh all good things happen,
                      Thou granteth all boons,
                   We bow to Thee, Tryambaka.
                    Thou art the refuge for us,
                 Our salutations to Thee, Narayani.

                             Published by:




                  Wellington Durgotsav Committee
                     Wellington, New Zealand
                    Website: http://www.wdc-nz.org.nz
                  Email: wellington.durgapuja@gmail.com

               ‘Ankur’ is also available at the above website



          The editors are interested to get your feedback on Ankur.
   Please send your comments and suggestions to one of the joint editors:
                    Dilip Das dilipdas5591@gmail.com
            Debiprosad Majumdar Debi.Majumdar@dia.govt.nz
                                                                                                    অঙ্কুর, ২০১১ 
                                     সম্পাদেকর কিম্পউটার েথেক
সু িধ,
অেনক ঘাত-পৰ্িতঘাত এবং পিরবতর্েনর মধয্ িদেয় িবগত একিট বছর েপিরেয় মাতৃপূ জার শ‌ুভক্ষণিট আবার সমাগত।
িতন বছর আেগ এই উত্সেব ‘অঙ্কু র’ নােম েয পিতৰ্কার অঙ্কুেরাদ্গম, বহুজেনর অবদােন ও শ‌ুেভচ্ছায় আজ তা
পল্লিবত, পুিষ্পত। এই অল্প সমেয়র মেধয্ অঙ্কুর তার একিট িনজসব্ আিঙ্গক গেড় তুলেত সমথর্ হেয়েছ। পৰ্িত বছেরর
মত এবারও আমরা েচষ্টা কেরিছ িহন্দু শােস্তৰ্র উদ্ধৃিত িদেয় এবং েদবেদবীেদর িবষয়বস্তু কের িকছু েলখা অন্তভূ র্ক্ত
করেত। বতর্মান সংখয্ািটর শ‌ুরু ‘মাতৃ -বন্দনা’ িদেয়, েশষ ‘অকাল-েবাধন’এ। গত বছর িশব-মাহাত্ময্ বণর্নার পর
এবােরর িনেবদন লক্ষ্মী-নারায়ণ এবং নারেদর কািহনী। তাছাড়া এই সংখয্ায় েদবীদু গর্ার উত্স সন্ধােনর েচষ্টা আেছ।
আেছ িহন্দুধমর্ তথা দশর্েনর অবতরিণকা, সূ যর্ নমস্কােরর কথা এবং িনউিজলয্ােন্ড দু গর্াপূ জা পৰ্চলেনর ইিতহাস।

এবছর আমােদর আর একিট সেচতন পৰ্য়াস হল বাংলার কেয়কজন মনীষীর জীবন, কমর্ এবং বয্িক্তেতব্র িবেশষ িদক
তুেল ধের শৰ্দ্ধাঘর্য্ িনেবদন করা। এই সংখয্ায় চার জন মনীষীর উপর আেলাকপাত করা হেয়েছ। তাঁরা হেলন
                                   ু
কিবগ‌ুরু রবীন্দৰ্নাথ, আচাযর্য্ পৰ্ফল্লচন্দৰ্, কথািশল্পী শরত্চন্দৰ্ এবং অধয্াপক অম্লান দত্ত।

অঙ্কুেরর েকান েকান েলখক-েলিখকা বতর্মান পািরপািশর্ক ঘটনাপৰ্বাহ সম্পেকর্ যেথষ্ট সেচতন। তাঁেদর েলখায় তার
পৰ্িতফলন ঘেটেছ। গত বছেরর পূ েজার আেগ েথেকই বাের বাের ভূ িমকেম্প েকঁেপ উঠেছ কৰ্াইস্টচাচর্ শহেরর মািট।
তােত িবধব্স্ত উদয্ান-নগরী। ওিদেক জাপােন ভূ িমকেম্পর ফলশৰ্ুিত সু নািম, পারমাণিবক দু ঘর্টনা এবং মৃতুয্র িমিছল।
এর সেঙ্গ েযাগ হেয়েছ িবিভন্ন স্থােন মানু েষর ৈতরী যু দ্ধ-িবগৰ্হ এবং সন্তৰ্াসবাদী আকৰ্মণ। এই সব ঘটনার িকছু ধরা
পেড়েছ ‘েরৗরব ২০১১’ কিবতািটর েছাট পিরসের। ‘আেলা’ গল্পিটেতও কৰ্াইস্টচােচর্র ভূ িমকেম্পর ইিঙ্গত আেছ।

িনউিজলয্ােন্ড এবছর রাগিব িবশব্কােপর আসর বেসেছ। িকন্তু তাই িনেয় ওেয়িলংটন বা িনউিজলয্ান্ড-বাসী বাঙালীেদর
খুব েয একটা উত্সাহ-উদ্দীপনা আেছ তা মেন হয় না। তেব নতুন পৰ্জেন্মর এক-আধজন ইিতমেধয্ই িনউিজলয্ােন্ডর
িবশব্কাপ জেয়র সব্প্ন েদখেত শ‌ুরু কেরেছ, আর েসই সব্প্ন িদেয় গেড় তুেলেছ ‘The Final Try’।

ভারতবেষর্ েমেয়েদর অবেহলা একিট পৰ্াচীন সামািজক বয্ািধ। িবগত কেয়ক দশেক উন্নত পৰ্যু িক্তর অপবয্বহাের এিট
নূ তন মাতৰ্া েপেয়েছ। তার চরম অিভবয্িক্ত হল কনয্াভৰ্ূণ হতয্া। এই িনেয় একিট পৰ্বন্ধ ‘Missing girls...’ এবং
একিট কিবতা ‘মা হন্তু’ অঙ্কুের পৰ্কাশ করা হল। পৰ্বন্ধ এবং কিবতািট যিদ পাঠক-পািঠকােদর িচন্তা এবং কমর্েক
পৰ্ভািবত কের এই সামািজক বয্ািধিট দূ রীকরেণ উদব্ু দ্ধ কের তেব এগ‌ুিলর পৰ্কাশ সাথর্ক হেব।

উপির-উক্ত কিবতা ও রচনাগ‌ুিল ছাড়াও আেরা কতকগ‌ুিল উচ্চমােনর েলখায় অঙ্কুর ৈবিচতৰ্ময় হেয়েছ। তার মেধয্
ভৰ্মণকািহনী, েপৰ্েমর গল্প, সম্পূ ণর্ কল্পনািনভর্র বা ৈদনিন্দন জীবেনর ঘটনাবলীর পৰ্িতফলেন েলখা গল্প, পৰ্বন্ধ, কিবতা
ইতয্ািদ আেছ। এবছের একিট উেল্লখেযাগয্ বয্াপার হল অঙ্কুেরর উত্কষর্ সাধেন মিহলােদর অেনক েবশী অবদান।
অনয্িদেক েছাটেদর েলখা বা ছিব এবাের কম। আগামী বছেরর অঙ্কুেরর জনয্ েছেলেমেয়েদর েলখায় এবং আঁকায়
উত্সাহ িদেত মা-বাবােদর অনু েরাধ কির।

িনেজেদর পৰ্িতভা ও সৃ জনীশিক্ত িদেয় অঙ্কুরেক সমৃদ্ধ করার জনয্ সকল েলখক-েলিখকা, কিব ও িশল্পীেদর আন্তিরক
              ৃ
ধনয্বাদ ও কতজ্ঞতা জানাই। িবজ্ঞাপনদাতােদর সহেযািগতায় অঙ্কুেরর পৰ্কাশ সহজ হেয়েছ। এ জনয্ তাঁেদরও
ধনয্বাদ। অঙ্কুর পাঠক-পািঠকােদর আনন্দ িদেত সমথর্ হেল আমােদর পৰ্েচষ্টা সাথর্ক হেব।

                                          দু েগর্াত্সেবর শ‌ুেভচ্ছাসহ -
                                          ু
                                   িদলীপ কমার দাস ও েদবীপৰ্সাদ মজুমদার
                                                    যু গ্ম-সম্পাদক


                                                       1
                                                                                                    অঙ্কুর, ২০১১ 

                                                          সূ চীপতৰ্
মাতৃবন্দনা                                                            শৰ্ী শৰ্ী চন্ডী েথেক                   ৩
শৰ্ীদু গর্া অেষ্টাত্তর শতনাম েস্তাতৰ্ম্                               পৰ্াচীন িহন্দু শাস্তৰ্ েথেক            ৩
েদবী দু গর্ার উত্স সন্ধােন                                            সতয্বৰ্ত আইচ                           ৪
A brief introduction to Hinduism and the Goddess Durga                Jaysankar Shaw                         ৬
Surya Namaskar                                                        Aparna Roy                            ১০
িনউিজলয্ােন্ড দু গর্াপূ েজা                                                  ু
                                                                      িদলীপ কমার দাস                         ১১
নারায়ণ নারায়ণ                                                         সব্ামী পৰ্বরানন্দ িগির                ১৫
সাধর্শতবেষর্                                                          পৰ্দীপ                                ২১
আকাশ পৰ্দীপ                                                           রুমিক মজুমদার                         ২৬
Been there, Dundas                                                    Enakshi Chakravorty                   ২৭
পক্ষীরাজ                                                              দীপািনব্তা দাস                        ২৮
A gifted poet                                                         Debiprosad Majumdar                   ২৯
Two wolves                                                            Anonymous                             ২৯
Bias                                                                  Prithviraj Sharma                     ৩০
Durga Puja                                                            Piyali Sharma                         ৩১
শরত্চন্দৰ্                                                            অিমত েসনগ‌ুপ্ত                        ৩২
Safety at work place - a necessity after Mr Dumpty's accident         Spandan Mukherjee                     ৩৭
‘েহােতা যিদ আহা...’                                                   আদৃ তা মুেখাপাধয্ায়                   ৩৮
আিম িক একা?                                                           জয়শংকর শ                              ৪২
কিলযু েগর েদৰ্াণ                                                             ু
                                                                      িদলীপ কমার দাস                        ৪৩
অধয্াপক অম্লান দত্ত – িকছু অম্লান স্মৃ িতর শৰ্দ্ধাঘর্য্               শৰ্ীকান্ত চেট্টাপাধয্ায়               ৪৫
Missing girls – the dark faces of rising India                        Samir Narayan Chaudhuri               ৪৭
মা হন্তু                                                              জব্ালামুখী                            ৫০
ওরা কারা?                                                             করবী েঘাষ                             ৫১
েরৗরব ২০১১                                                            েদবীপৰ্সাদ মজুমদার                    ৫২
আেলা                                                                  অিরন্দম বসু                           ৫৩
মন                                                                    েগৗরীশঙ্কর                            ৫৫
Rabindranath Tagore: in his time and for our time                     Sekhar Bandyopadhyay                  ৫৯
েতামার নাম আমার নাম িভেয়ত্নাম িভেয়ত্নাম                               তাপস সরকার                            ৬২
The Final Try                                                         Dipanwita Das                         ৭০
Durga Puja 2011                                                       Riya Sarker                           ৭০
নীল েনৗেকার েদশ                                                       শাশব্ত বেন্দয্াপাধয্ায়                ৭১
পািখেদর স্নান                                                         শাশব্ত বেন্দয্াপাধয্ায়                ৭৬
িনঃসব্                                                                শাশব্ত বেন্দয্াপাধয্ায়                ৭৬
বলাই সােহব                                                                   ু
                                                                      িদলীপ কমার দাস                        ৭৭
সনাতন ভারতীয় েগাপালন                                                  অমল সানয্াল                           ৭৯
পৰ্তীক্ষা                                                             সু িজত দত্ত                           ৮০
Akal Bodhon – Durga Puja by Sri Ramchandra                            Sandhya Chatterjee                    ৮৩
িবজ্ঞাপন                                                                                 (েশেষর কেয়কিট পাতায়)


                                                             2
                                                                                                                              অঙ্কুর, ২০১১ 

                                                           মাতৃ-বন্দনা




সবর্মঙ্গল মঙ্গেলয্ িশেব সবর্াথর্ সািধেক।                                সবর্বাধা িবিনমুর্েক্তা ধনধানয্ সু তািনব্তঃ।
শরেণয্ তৰ্য্মব্েক েগৗির নারায়িণ নমঽস্তুেত।।                             মনু েষয্া মতপৰ্সােদন ভিবষয্িত নঃ সংশয়।।

শরণাগত-দীনাতর্-পিরতৰ্াণ-পরায়েণ।                                         জয়িন্ত মঙ্গলা কািল ভদৰ্কািল কপািলিন।
সবর্সব্ািতর্হের েদিব নারায়িণ নমঽস্তুেত।।                                দু গর্া িশবা ক্ষমা ধািতৰ্ সব্াহা সব্ধা নমঽস্তুেত।।

সবর্সব্রূেপ সেবর্েশ সেবর্শিক্তসমিনব্েত।                                 েদিহ েসৗভাগয্মােরাগং েদিহ েদিব পরং সু খম্।
ভেয়ভয্স্তৰ্ািহ েনা েদিব দু েগর্ েদিব নমঽস্তুেত।।                        রূপং েদিহ জয়ং েদিহ যেশা েদিহ িদব্েষা জিহ।।



                                            শৰ্ীদুগা অেষ্টাত্তর শতনাম েস্তাতৰ্ম্
                                                   র্

দু গর্া িশবা মহালক্ষ্মীমর্হােগৗরী চ চিন্ডকা।                            সু জয়া জয়ভূ িমষ্ঠা জাহ্নিব জনপূ িজতা।
সবর্জ্ঞা সবর্েলােকশী সবর্কমর্ফলপৰ্দা।।                                  শাস্তৰ্া শাস্তৰ্ময়া িনতয্া শ‌ুভা চন্দৰ্াধর্মস্তকা।।

সবর্তীথর্ময়ী পুণয্া েদবেযািনেযর্ািনজা।                                                                     ৃ
                                                                        ভারতী ভামরী কল্পা করালী কষ্ণিপঙ্গলা।
ভূ িমজা িনগ‌ুর্ণাধারশিক্তশ্চানীশ্চরী তথা।।                              বৰ্াহ্মী নারায়ণী েরৗদৰ্ী চন্দৰ্ামৃতপিরবৃ তা।।

িনগ‌ুর্ণা িনরহংকারা সবর্গবব্র্িবমিদর্নী।                                েজয্েষ্ঠিন্দরা মহামায়া জগত্সৃ ষ্টয্ািধকািরণী।
সবর্েলাকিপৰ্য়া বাণী সবর্িবদয্ািধেদবতা।।                                 বৰ্হ্মাণ্ডেকািটসংস্থানা কািমনী কমলালয়া।।

পাবর্তী েদবমাতা চ বনীশা িবন্ধয্বািসনী।                                  কাতয্ায়নী কলাতীতা কালসংহারকারণী।
েতেজাবতী মহামাতা েকািতসূ যর্সম্পৰ্ভা।।                                  েযাগিনষ্ঠা েযাগগময্া েযাগেধয্য়া তপিসব্নী।।

েদবতা বিহরূপা চ সেরাজা বণর্রূিপণী।                                      জ্ঞানরূপা িনরাকারা ভক্তাভীষ্টফলপৰ্দা।
গ‌ুণাশৰ্য়া গ‌ুণমধয্া গ‌ুণতৰ্য়িববিজর্তা।।                                ভূ তািত্মকা ভূ তমাতা ভূ েতশা ভূ তধািরণী।।

কমর্জ্ঞানপৰ্দা কান্তা সবর্সংহারকািরণী।                                  সব্ধানারীমধয্গতা ষডাধারািদবিধর্ণী।
ধমর্জ্ঞানা ধমর্িনষ্ঠা সবর্কমর্িববিজর্তা।।                               েমািহতাংশ‌ুভবা শ‌ুভা সূ ক্ষ্মা মাতৰ্া িনরালসা।।

কামাক্ষী কামসংহতৰ্র্ী কামেকৰ্াধিববিজর্তা।                               িনম্নগা নীলসংকাশা িনতয্ানন্দা হরা পরা।
শাঙ্করী শাম্ভবী শান্তা চন্দৰ্সূ যর্ািগ্নেলাচনা।।                        সবর্জ্ঞানপৰ্দানন্দা সতয্া দু লর্ভরূিপণী।।

                                               সরসব্তী সবর্গতা সবর্াভীষ্টপৰ্দািয়নী।
                                         ইিত শৰ্ীদু গর্া অেষ্টাত্তর শতনামেস্তাতৰ্ং সম্পূ ণর্ম্।।


                                                                   3
                                                                                                অঙ্কুর, ২০১১ 
                                         েদবী দুগার উত্স সন্ধােন
                                                 র্
                                                 সতয্বৰ্ত আইচ
                                                   (েকালকাতা)


িলখেত পৰ্য়াসী েদবী দু গর্ার ইিতকথা। রামচেন্দৰ্র             শ িট উচ্চারণ করেল একিট মাতৃভাব ফেট ওেঠ।
                                                                                                  ু
অকালেবাধনেক আশৰ্য় কের সমুজ্জব্ল পৰ্কিতর         ৃ           এসব আেলাচনা েথেক েযটা পিরষ্কার হয় তা হল
কয্ানভােস বাংলা, ভারত তথা িবেশব্র িবিভন্ন পৰ্ােন্ত          অিত পৰ্াচীনকােলই শ‌ুধু ভারেতই নয়, পিশ্চম ও মধয্
আমরা েদবী দু গর্ার আবাহেন রত। আজকাল িবেদেশ                  এিশয়ায় এবং ইউেরােপর িবিভন্ন জায়গায় এই
পৰ্বাসী বাঙালীরা তাঁেদর িনজ িনজ সু িবধা অনু যায়ী            েদবীর উেল্লখ বা অবস্থােনর িনদশর্ন পাওয়া যায়।
পূ েজার িদনক্ষণ িস্থর কেরন। েস যাই েহাক, বতর্মােন           আর এই েদবীর ৈবিশষ্টয্ হল িতিন শিক্তময়ী,
পূ েজার ধমর্ীয় রূপিটেক িপছেন েফেলেছ এর                      জগজ্জননী এবং কলয্াণরূিপনী।
সামািজক িদক। সবাই পূ েজার িদন ক’িট সমস্ত
দু ঃখ-েবদনা, েভদােভদ ভুেল আনেন্দ েমেত উিঠ।                  পৰ্শ্ন হল েদবী িসংহবািহনী হেলন েকমন কের।
তাই দু গর্াপূ েজা আজ দু েগর্াত্সেব রূপান্তিরত হেয়েছ।        অনু সন্ধান কের েদখা েগেছ ভারেতর বাইের, িবেশষ
আনেন্দর জনয্ দু গর্াপূ েজা কির িঠকই, িকন্তু আবার            কের খৃষ্টপূ বর্ পৰ্থম শতা ীর পূ েবর্ েয মাতৃরূপ
েঘার িবপদ, পৰ্বল সংকট েমাচেনর জনয্ ‘দু গর্া দু গর্া’        পৰ্চিলত িছল তােত বাহন িছল িসংহ, এবং েসই
নাম জপ কির, দু গর্ােস্তােতৰ্র আশৰ্য় িনই। চন্ডীেত                                                    ু
                                                            েদবী অসু র িনধেন রত। পরবত্তর্ীকােল কষাণসমৰ্াট
েদবতােদর সংকটকােল দু গর্ার আিবভর্াব। কথা হল                 কিণেষ্কর আমেল মুদৰ্ায় েদবী িসংহবািহনীরূেপ অিঙ্কত
শিক্তময়ী এই েদবীর উত্স েকাথায়। ভারেত পৰ্চিলত                হন।
                     ৃ
ধারণা েয সমগৰ্ পৰ্কিতই নারীসব্রূপা। েয শিক্তদব্ারা
          ৃ
এই পৰ্কিতর সৃ িষ্ট, েসই শিক্ত হল েদবীশিক্ত। িতিন
হেলন আিদ েদবী। ৈবিদক সািহতয্ অনু যায়ী অেনেক
মেন কেরন আিদ েদবী হেলন সরসব্তী। এই সরসব্তী
যখন দানবদলনী, তখন িতিন েদবীদু গর্া রূপ ধারণ
কেরন। িকছু িকছু ঐিতহািসেকর মেত ভারতবেষর্র
বাইের ‘ননা’ বেল এক েদবী িছেলন। হয়েতা েদবী
দু গর্ার ধারণার উত্স এই ননা েদবী েথেক। এই ননা
ইরাণ সহ েগাটা পিশ্চম ও মধয্ এিশয়ােত অসু রদলনী
েদবীরূেপ সমাদৃ তা িছেলন।

মাকর্েন্ডয় পুরােণর কািহনী অনু সাের েদবতােদর েতজ
েথেক ‘েদবী চিন্ডকা’ নােম এই েদবীর উদ্ভব। আবার
েতৰ্তা যু েগ শৰ্ীরামচন্দৰ্ েয েদবীর অকালেবাধেনর
আেয়াজন কেরিছেলন েসই েদবীর বণর্নার সেঙ্গ
মাকর্েন্ডয় পুরাণবিণর্ত েদবীর িমল েনই। কিব
কািলদােসর েলখনীেত দু গর্া ভারতললনা, পবর্তদূ িহতা
উমারূেপ বিণর্তা হেয়েছন। কথা হল এত নাম
থাকেত কিব উমা নামিট েকন বাছেলন। অেনক
িবদগ্ধজন মেন কেরন েয কষাণসমৰ্াট হুিবেষ্কর মুদৰ্ায়
                             ু
েয েদবীমূ িতর্ অিঙ্কত আেছ তার নাম ‘ওেম্মা’। উমা
নামিট হয়েতা এই ওেম্মা শ িট েথেক েনওয়া                                                             র্
                                                                    অসু রদলনী িসংহবািহনী েদবী দু গা
হেয়িছল। আবার েকউ েকউ বেলন েয পৰ্াচীন                                       (কালীঘােটর পট)
বয্ািবলেন মােক ‘উম্মু ’ বা ‘উম্মা’ নােম ডাকা হত।            েমেসাপেটিময়ায় ইশতার নােম এক িসংহবািহনী
উমা শে র উত্পিত্ত এখান েথেকও হেত পাের। উমা                  েদবীর সন্ধান পাওয়া যায়। অেনক ভাষাতত্তব্িবেদর



                                                       4
                                                                                                       অঙ্কুর, ২০১১ 

মেত িসংহবািহনী দু গর্ার কল্পনা এেসিছল পিশ্চম                       “তব্ং সবর্রূিপনী েদবী সেবর্ষণং জননীপরা।
এিশয়া ও গৰ্ীেসর েদবীমূ িত্তর্র অনু করেণ। অেনেক               তুষ্টায়াং তব্িয় েদেবিশ, সেবর্ষণং েতাষণং ভেয়ত্।। ”
আবার এই মত মানেত পােরনিন। তাঁরা বেলন েয
ৈবিদক যু েগ ঋেগব্েদ েদবী সরসব্তী শতৰ্ুদলনী,                 - েহ মহােদবী, তুিম সবর্রূিপনী, সকেলর পরমা
ভক্তেদর কলয্ােণর জনয্ যু দ্ধ কেরন। ‘জনায় সমরং               জননী। আমরা জািন তুিম তুষ্ট হেলই সবাই সন্তুষ্ট।
 ৃ
কেনািম অহম্’। চন্ডীেতও শ‌ুম্ভ-িনশ‌ুম্ভ ৈদতয্দব্য়েক বধ
                                                            দশমহািবদয্ারূেপ দু গর্া আিবভূ র্তা। তাঁর এই দশিট
কেরন মহাসরসব্তী। মহাভারেত শৰ্ীকষ্ণ অজুর্নেক
                                        ৃ
                                                            রূপ েকবল েয িবনাশকািরণী, ভয়ংকরী তা নয়, িতিন
িনেদর্শ িদেয়িছেলন দু গর্া েদবীর স্তব করেত। অজুর্ন
                                                            সংহার কেরন সৃ িষ্ট রক্ষােথর্, মানব ধেমর্র কলয্াণােথর্।
দু গর্াধয্ান শ‌ুরু করেলন সরসব্তীেক সেমব্াধন কের।
                                                            অিবশব্াসীরা বেলন পুতুল পূ েজায় ভুিরেভাজ আর
এর েথেক মেন হয় সরসব্তী হেলন আিদ েদবী, আর
                                                            নাচ-গানটাই সার, বািকসব তত্তব্কথা অসার, অলীক
দু গর্া তাঁর অসু রদলনী শিক্তময়ী রূপ।
                                                            কল্পনা। বত্তর্মােন িবশব্বয্াপী মানবতাবাদ ও েবােধর
                                                            অবনমন, পরাজয় েদেখও েতা এই শিক্তময়ী স্থানু র
                                                            মত ঠায় দাঁিডেয়। পৰ্তুয্ত্তের বলা যায় শিক্তময়ীেক
                                                            ডাকেল িতিন িনেজ সশরীের ধরা হয়েতা েদন না,
                                                            িকন্তু িনিশ্চতভােব িতিন ভীরু, কাতর, িনিদৰ্ত হৃদেয়
                                                            শিক্তর সঞ্চার কেরন। না হেল মানব সভয্তা অেনক
                                                            আেগই ধব্ংস হেয় েযত।

                                                            আজ িবশব্েজাড়া িহংসার হলাহল। ভদৰ্েবশী পিঙ্কলতা
                                                            সমাজ-সংসারেক আচ্ছন্ন কের েরেখেছ, চািরিদেক
                                                            যু েদ্ধর দামামা। নািগনীর িবষাক্ত িনশব্ােস অগিণত
                                                            মানু েষর পৰ্াণ ওষ্ঠাগত। এই সংকটকােল সবার
                                                            সিম্মিলত পৰ্াথর্না িনেবিদত েহাক এই মহাশিক্তর
                                                            রাতুল চরেণ –

                                                                          “অনাথসয্ দীনসয্ তৃষ্ণাতুরসয্
                                                                        ু
                                                                      ক্ষধাতর্সয্ ভীতসয্ বদ্ধসয্ জেন্তাঃ।
                                                                          তব্েমকা গিতেদর্িব িনস্তারকতৰ্র্ী
                                                                      নমেস্ত জগত্তািরিণ তৰ্ািহ দু েগর্।।”

                                                            - েহ েদিব, অনাথ, দীন, তৃষ্ণাতুর, ক্ষধাতর্, ভীত ও
                                                                                               ু
                                                            বদ্ধ জীেবর তুিমই একমাতৰ্ গিত ও িনস্তািরণী। েহ
                                                            জগত্তািরিণ, েতামায় নমস্কার, েহ দু েগর্ তুিম তৰ্াণ
    েমেসাপেটিময়ার িসংহবািহনী েদবী ‘ইশতার’                   কর।

সিতয্ কথা বলেত িক েদবীদু গর্ার সব্রূপিটর উত্স               নাচ-গান-আনেন্দর েকালাহেলর মেধয্ও েকািটকেণ্ঠর
সম্পেকর্ সবর্জনগৰ্াহয্ েকান মত পাওয়া দু স্কর। যু েগ         এই কাতর পৰ্াথর্না িনশ্চয়ই এই শিক্তময়ীর কােন
যু েগ, কােল কােল পিন্ডেতরা, পৰ্ত্নতত্তব্িবেদরা নানা         েপঁৗছেব। মিহষাসু রমিদর্নী দু গর্া আসেল েতা মা -
মতামত বয্ক্ত কের েগেছন। িকন্তু সব মতামেতর                   েস্নহময়ী জননী, সবর্দুঃখনািশনী। তাঁর উত্পিত্ত
পযর্য্ােলাচনায় েয বাত্তর্ািট অটুট তা হল েদবী দু গর্ার       েকাথায় েকমন কের েহাল – থাক না পেড় েসসব
উত্পিত্তর উত্স যাই েহাক না েকন িতিন                         েখাঁজার েচষ্টা। মা - তুিম যু েগ যু েগ, কােল কােল
বরাভয়দািয়নী, মিহষাসু রমিদর্নী। েদবী এই ভয়ংকর                এক অন্তহীন অিস্ততব্, শিক্তর আধার, েস্নেহর অিবরাম
রূপিট ধারণ কেরন দু েষ্টর দমনােথর্। উেদ্দশয্ িশেষ্টর         সহসৰ্ধারা। েতামার চরণপেদ্ম জানাই শতেকািট
পালন। তাই িতিন জগজ্জননী, বরদাতৰ্ী, কলয্াণদাতৰ্ী।            পৰ্ণাম।




                                                        5
                                                                                              অঙ্কুর, ২০১১ 

          A brief introduction to Hinduism and the Goddess Durga
                                           Jaysankar Shaw
                                              (Wellington)




                                    The holy Hindu symbol ‘Om’

Hinduism is a religion where there is no conflict between reason and faith. Hence there is no conflict
between philosophy and religion in the usual sense of these terms. Philosophy deals with certain basic
questions such as, ‘What is truth? What is meaning? What is knowledge? What is good? What is
beauty? What is the purpose of life? What is the nature of ultimate reality?’ etc. Philosophy tries to
justify a particular view or a set of views on rational grounds as opposed to some religions which
justify a particular view on grounds of faith, or a set of beliefs. Hinduism justifies religious doctrines
on rational grounds. Hence, philosophy and religion in Hinduism are not opposed to each other, rather
the one supplements the other. Hinduism tries to justify on rational grounds our duties towards other
human beings, creatures or nature at large. Hence it is a religion without any dogma. It is also called
‘Sanatana Dharma’. The word ‘Sanatana’ means ‘eternal’ or ‘everlasting’ and the word ‘Dharma’ is
derived from the root ‘Dhr’ which means ‘to hold’ or ‘to sustain`. Hence, the term ‘Sanatana Dharma’
may be interpreted as ‘the eternal rules or laws which promote the well-being of the whole world,
including mankind’.

The Vedas (literally ‘knowledge’), the Upanisads (treatises on philosophical discourse, although
literally ‘sitting near’), Bhagavad-Gita (literally ‘the Song of God’), the two great epics - the
Ramayana and the Mahabharata, of which Bhagavad-Gita is a part, and the Puranas (literally ‘ancient
tales’) are some of the basic scriptures of the Hindus. It is claimed that Bhagavad-Gita contains the
essence of Hinduism. Hence, almost all the streams of Hinduism refer to this holy book. Moreover, all
systems of Hindu philosophy have their roots in some of these scriptures, especially the Vedas and the
Upanisads, and derive inspiration from them.

Religion or Dharma is an integral aspect of Hindu philosophy. Different Hindu philosophical systems
differ with regard to the nature of reality or the nature of the relation between man and ultimate
reality, but they do not differ in respect of the ultimate goal of human beings. Liberation or freedom
from bondage and suffering (Moksa) is considered the summum bonum (the highest good) or the
ultimate goal of life. Dharma or religion is a means towards the attainment of this ideal. In course of
the realisation of this ultimate goal of life, earthly pleasures (kama) or possessions such as wealth
(artha) have not been negated. They are accepted as possible means for promoting human well-being.
Hence, Hinduism cannot be identified with asceticism. Hinduism takes a positive, not a negative,
attitude towards life, existence and the world.

Hinduism tries to justify that there is a distinction between good and evil, justice and injustice, truth
and falsehood, knowledge and ignorance, virtue and vice, love and hatred, unselfish and selfish
actions, and between being and non-being in this world. Moreover, all streams of Hinduism
emphasise the promotion of good, justice, virtue, love, knowledge and truth. It is also claimed that we


                                                    6
                                                                                             অঙ্কুর, ২০১১ 
cannot achieve the ultimate goal without promoting these ideals and negating their opposites. In this
sense there is identity-in-difference among the different streams of Hinduism or even among the
different systems of Hindu philosophy.

In relation to other aspects of religion such as what sort of deity is to be worshipped or what sort of a
ritual is to be performed, there is diversity among the different streams of Hinduism or even among
the members of the same stream. Each individual is free to worship a deity of his or her own choice.
Hence Hinduism recognises individuality or the freedom of each individual. If personhood lies in
differences, then Hinduism treats every individual as a person. At the same time, Hinduism does not
discriminate between individuals on the basis of gender, race, caste or creed. In this sense it is a
religion for the whole mankind or human race. Even a Christian, a Jew, a Muslim or a Marxist can be
a Hindu, so long as she/he is committed to these basic ideals.

Hinduism does not claim that the essence of religion lies in certain ritualistic activities or in certain
types of food an individual consumes or in a certain deity one worships. It gives us a general direction
for these functions. The activities which are conducive to the promotion of certain basic ideals such as
goodness, justice or well-being are prescribed and hence encouraged. The activities which are
hindrances to the promotion of these ideals are forbidden and hence discouraged. The activities which
do not come under any one of these categories are permissible. Hinduism emphasises our
commitment to these ideals which are for the well-being of all and to promotion of these ideals.

As regards the paths for the realisation of the ultimate goal, Bhagavad-Gita has mentioned three paths
for the achievement of Moksa (freedom from bondage). These are called ‘the path of devotion (or
love)’, ‘the path of knowledge' and `the path of holy (or unselfish) work`. Different streams of
Hinduism and different systems of Hindu philosophy emphasise these paths in varying degrees. Some
even claim that each of these paths will lead an individual to the ultimate goal. But a closer
examination of Bhagavad-Gita reveals that they are not alternative or independent paths, and each of
them refers to the rest. Hence knowledge without any holy work or devotion will not amount to
wisdom or lead to freedom from bondage. Similarly, devotion without any holy work, which
presupposes knowledge, will not lead to the ultimate goal. Again, an action which does not
presuppose knowledge and devotion cannot be distinguished from a mechanical action, and hence
cannot be holy or unselfish. But an action, which is enlightened by knowledge and is dedicated to the
Almighty becomes unselfish and thereby holy. Let us quote a few passages from Bhagavad-Gita in
favour of this interpretation:
        4.33: Wisdom is in truth the end of all holy work.
        5.4: Ignorant men, but not the wise, say that Sankhya and Yoga are different paths; but he
        who gives all his soul to one reaches the end of both.
        11.55: He who works for me and all the creation with love, whose End Supreme is me, who is
        free from attachment to all things, in truth comes into me.

From the above quotes it follows that since Sankhya and Yoga are not different paths, the path of
knowledge and the path of unselfish action are also not different paths. Similarly, if a person loves
God, she/he works for Him, and she/he loves His creation and works for It. Therefore, each of the
paths will ultimately involve the rest, and the difference between them is initial but not final.
Hinduism, thus, does not prescribe or preach renunciation of action but renunciation in action, as our
actions are to be enlightened by knowledge and are to be considered as offerings to the Almighty.

Since Hinduism emphasises both action and knowledge, it is not opposed to science or the
experimental method. As a matter of fact, it relies heavily on science which gives us knowledge about
the empirical world for the performance of a good, just, or a virtuous action. If science gives us
knowledge of means and ends, or in other words, how phenomena are related to each other, then
scientific knowledge would be a prerequisite for the successful performance of an action which will
be holy if unselfish.


                                                   7
                                                                                                অঙ্কুর, ২০১১ 
Again, since Hinduism emphasises the rational justification of our actions and thereby removes doubt,
there is no scope for thoroughgoing scepticism which doubts everything. If a thoroughgoing sceptic
claims that there is no distinction between truth and falsehood, good and evil or existence and non-
existence, then Hinduism claims that the position of the sceptic is self-destructive and hence cannot
even be stated or maintained as a tenable position. Since this view of the sceptic is self-destructive, it
cannot be claimed to be better than the one which is non-self- destructive. Moreover, since Hinduism
aims at the well-being of the entire creation, it is certainly better than the one which falls short of this
ideal. Hence Hinduism cannot be refuted by a sceptic or replaced by any other doctrine or ideal which
falls short of Hinduism.

In my discussion so far, I have tried to state the essence of Hinduism without mentioning how it is
being practised among the Hindus in modem times. Let me now say a few words about how it is
being practised and the significance of some of the rituals or pujas (worships).

In modem times, most of the elaborate Vedic rituals are being replaced by image worship of gods and
goddesses, social ceremonies such as wedding, rites such as death (sradhya), and sacred festivals such
as Holi or Durga Puja. Different gods and goddesses represent different aspects of the Ultimate
Reality or the Almighty. One of the main purposes of these worships (pujas) is the meditative
identification of the worshipper with the divine presence in and through the image of the deity. It is an
occasion for our commitment to our ideals and their promotion. Let us consider Durga Puja - the
biggest and the most popular festival in Bengal and in certain parts of North India.

The word ‘Durga' means ‘one who dispels danger or misery`, although literally it means
`inaccessible'. Durga is one of the manifestations of the Ultimate Reality. Durga the goddess is also
known as ‘Uma` or `Parvati’. Durga represents the power (sakti) to eliminate evil, danger, injustice,
suffering and distress. She is depicted as slaying the buffalo-demon Mahisasura who is the
embodiment of evil or injustice. According to our Puranas (ancient tales), Durga was created for the
purpose of slaying the demon. To her enemies, she presents a menacing form, but to her devotees she
appears as a kindly mother, and is the expression of goodness, grace and virtue. She is also known as
the wife of Lord Siva, who is another manifestation of the Ultimate Reality and is known as `the god
of creation and reproduction’. Durga is perceived as a goddess, riding a lion and holding ten weapons
in her ten hands. She received these weapons from different gods so that she could fight against the
buffalo-demon. Since a lion is a courageous animal, it becomes Durga’s carrier in the battle against
the demon.

Since Durga is said to have four children, they are also worshipped along with her. They represent the
different aspects of the Ultimate Reality. Kartika (or Kartikeya) and Ganesa are the two sons of Siva
and Durga. Kartika is the first-born son, and he is a symbol of courage and bravery. Hence he is
considered as the god of war. According to one legend Kartika was born to destroy the demon
Taraka. Kartika is also called `Kumar' (an adolescent boy) as he was never married. Since he is the
god of courage and strength, he holds a bow and arrows in his hands.

The other son Ganesa is considered the remover of obstacles. He is invoked at the beginning of any
worship or a new enterprise. He is depicted as a man with the head of an elephant which is a symbol
of keen intelligence or sagacity. But according to another legend, he lost his head in battle. When Siva
came to know about this, he promised to cut off the head of the first living creature he would come
across and join it to the body of Ganesa. Since the first living creature was an elephant, Ganesa got
the head of an elephant.

Laksmi and Sarasvati are considered daughters of Siva and Durga (or Parvati). Laksmi is the goddess
of good fortune and prosperity. She is also known as ‘Padma', ‘Kamala` or ‘Sri`. She is the wife of
Lord Vishnu who is the preserver of the world or creation. Sarasvati is the goddess of learning and
art. Hence she is represented as holding a manuscript in one hand and a lute (Veena) in the other.


                                                     8
                                                                                                 অঙ্কুর, ২০১১ 
These are symbols of learning and art respectively. She is widely worshipped by the students and the
scholars all over India. She is considered the wife of Brahma - the creator of this world. Similarly,
other gods and goddesses represent other aspects or manifestations of the Ultimate Reality, and the
ideals they stand for are the basic values of human beings which we cherish and strive for. Worship is
a commitment and devotion to these values. The promotion and realisation of these values will
eventually lead us to Moksa (liberation).




                         Durga with her children fighting the Buffalo demon

Now let us say a few words about the relevance of Hinduism to contemporary issues such as equality
between men and women, equal pay for equal work, class struggle or exploitation and nuclear
proliferation. Since Hinduism establishes equality between man and woman, between different races
or between different peoples, it is totally opposed to any form of discrimination or exploitation based
on gender, caste, creed or the country of origin. Since there are as many goddesses as there are gods,
gender distinction which leads to discrimination has no place in Hinduism. Hence Hinduism
condemns any form of discrimination, and it is our sacred duty to eliminate all forms of
discrimination and injustice from our society. Similarly, the protection of animals or rare species and
our duties towards them, and the protection of the environment including the establishment of nuclear
free zones and total nuclear disarmament directly follow from the very essence of Hinduism. As we
have certain duties towards our fellow human beings, we have certain duties towards other creatures
as well as nature and the environment. Hence, Hinduism is not only consistent with current
movements but also seeks to promote these for the betterment of human beings and the world at large.
Hinduism was relevant in ancient days, it is relevant today, and it will remain relevant so long as
human beings are rational and strive for the basic values of life and existence. In this sense it is
Sanatana Dharma.

From the discussion above, it follows that Hinduism is a religion without any dogma. It is a religion
for the whole of mankind. It seeks to achieve truth, virtue, justice, and goodness at both individual
and social levels. It is a religion for believers as well as non-believers or atheists and agnostics. It is a
religion which emphasises our duties towards the whole creation. It is a religion which looks forward,
not backward, and gives hope to everyone. It is a religion of freedom and bliss.


                                                Om Shanti.




                                                     9
                                                                                        অঙ্কুর, ২০১১ 


                                     Surya Namaskar
                                          Aparna Roy
                                           (Wellington)




Surya Namaskar or salutation to the sun is an important yogic practice which has been practised in
India since time immemorial. It is a combination of twelve asanas (physical postures), pranayama,
mantras and meditation. In yogic terms Surya Namaskar awakens the solar aspect of an
individual’s nature and releases vital energy for the development of higher awareness. There are
numerous references in the Vedas praising the Sun to enhance good health and prosperity. This
indicates that Indians knew the importance of sun in the solar system and in our life from ancient
times.

Surya Namaskar gives profound stretch to the whole body. The alternating backward and forward
bending asanas make the spine supple and strong and give innumerable benefits to the body
including glandular, circulatory, muscular and other systems. The spine is like the trunk of a tree
which supports the entire body structure including the brain. The physical stimulation from each
asana enhances prana and allows the yogi to focus and concentrate on physical and mental energies
at the chakras. There are seven major chakras or psychic centres in our body. The chanting of the
twelve sun mantras during each asana induces peace and subtle energy. Its performance in a
steady, rhythmic way represents the rhythm of the universe. The Suryopanishad states that people
who worship the sun as Brahman become powerful, intelligent and active and live a long and
healthy life.

Surya Namaskar, like most yogasanas must be performed only on an empty stomach. Shavasana is
practised at the end of practice for rest. Breathing (pranayamas) is synchronized with asanas.
Mantras are pronounced at the start of each Surya Namaskar.

In a traditional Hindu context, Surya Namaskar is always performed facing in the direction of the
rising or setting sun. There are no age limitations for Surya Namaskar. It is very useful for
children. A prayer to the Sun in Brihadaranakya Upanishad is quoted below:

                                  ‘O Lord and essence of light
                               Lead me from the unreal to the real
                                     From darkness to light
                                  From death to immortality’.


                                                10
                                                                                                          অঙ্কুর, ২০১১ 

                                            িনউিজলয্ােন্ড দুগাপূ েজা
                                                             র্
                                                        ু
                                                 িদলীপ কমার দাস
                                                     (ওেয়িলংটন)

েসই েকান পৰ্াচীনকােল শৰ্ীরামচেন্দৰ্র অকালেবাধেনর, পরবত্তর্ীকােল অজুর্েনর এবং আরও পের েমধস মুিনর পরামেশর্
সু রথরাজা আর সমািধৈবেশয্র মহাশিক্তর আরাধনার পর গঙ্গা-যমুনা-বৰ্হ্মপুতৰ্ িদেয় অেনক জল বেয় েগেছ। বঙ্গেদশ
সহ ভারতবেষর্র িবিভন্ন অঞ্চেল িভন্ন িভন্ন উপচাের এবং ঘরানায় এই মহাশিক্তর পূ জা চালু হেয়েছ। এই মহাশিক্ত
বঙ্গেদেশ দু গর্া, পিশ্চম ভারেত অমব্ামাতা, আর অনয্তৰ্ অনয্ নােম পূ িজতা হন। পৰ্থমিদেক বাংলায় এই মহাশিক্তর
আরাধনার আদলিট বতর্মান দু গর্াপূ জার মত িছল না। তা িছল ঘেটপেট ন’িদনবয্াপী আড়মব্রহীন পূ েজা। মুসলমান
আমেলর েশেষর িদেক কিতপয় বাঙালী িহন্দু রাজা এবং জিমদার অবক্ষয়ী িহন্দু সমােজর উজ্জীবেনর মানেস
পুতৰ্কনয্াসহ মিহষাসু রমিদর্নীরূেপ দু গর্ামাতার চারিদনবয্াপী আড়মব্রপূ ণর্ পূ জা চালু কেরন। েসই পরম্পরািটই এখনও
চেল আসেছ। এরমেধয্ কােলর িববত্তর্েনর সােথ সােথ মাতৃ-আরাধনার ধারািটেতও এেসেছ পিরবত্তর্ন। এক সময় যা
িছল রাজা, জিমদার বা িবত্তবান পিরবােরর পেক্ষই সম্ভব, কালকৰ্েম তা িবত্তশালীেদর মন্ডেপর সীমাবদ্ধতা ছািড়েয়
বােরা ইয়ােরর পূ েজা হেয় উঠল। আর ইদািনংকােল এই বােরায়ারী পূ েজার আড়মব্ের পািরবািরক পূ েজাগ‌ুেলা চাপা
পেড় েগেছ। বতর্মান বােরায়ারী পূ েজার জাঁক-জমক েদেখ েবাঝা মুিস্কল পূ েজাটা িকেসর – পয্ােন্ডেলর, না
আেলাকসজ্জার, না িথেমর, না জগন্মাতার! িবগত অধর্শতেক দু গর্াপূ েজার পরম্পরায় যু ক্ত হেয়েছ ভারত উপমহােদেশর
বাইেরর পূ েজা। বাংলার বােরায়ারী তথা সবর্জনীন পূ েজা এখন িবশব্জনীন বাঙালীর পুেজা। যতদূ র জািন দু গর্াপূ জার
এই িবশব্ায়ন িবেলত-আেমিরকায় শ‌ুরু হয়। তারপর পৃিথবীর আনয্ানয্ েদেশ তা পৰ্সার লাভ কের।

ষােটর দশক েথেক বাঙালীরা িবেদেশ – িবেশষত আেমিরকা-ইউেরােপ – পাকাপািকভােব বসবাস করেত শ‌ুরু
কেরন। তার আেগ তাঁরা েয িবেদেশ েযেতন না তা নয়। তেব তখন মুখয্ উেদ্দশয্টা িছল উচ্চিশক্ষােথর্ িবেদশ গমন –
পৰ্ধানত িবেলেত। িবজ্ঞান, পৰ্যু িক্ত, আইন, িচিকত্সা ইতয্ািদ িবদয্ায় বুত্পিত্ত লাভ কের তাঁেদর েবশীর ভাগই েদেশ
িফের এেস িনজ িনজ েপশায় িনযু ক্ত হেতন। ষােটর দশক েথেক বাঙালীর িবেদশ গমেনর চিরতৰ্টা বদলােত শ‌ুরু
কের। উচ্চিশক্ষা লাভ করার পর অেনেকই িবেদেশ, িবেশষত আেমিরকায় পাকাপািকভােব থাকা মনস্থ কেরন এবং
েসেদেশর স্থায়ী বািসন্দা হন বা নাগিরকতব্ গৰ্হণ কেরন। এর ফেল আেমিরকায় (এবং ইউেরােপর িবিভন্ন েদেশ)
স্থায়ীভােব বসবাসকারী এবং আিথর্কভােব িবত্তশালী বাঙালীর সংখয্া বাড়েত থােক। এই পৰ্বাসী বঙ্গসন্তানেদর উত্সােহ
এবং উেদয্ােগ িবেদেশ পুতৰ্কনয্াসহ মা দু গর্ার বাত্সিরক পূ জা শ‌ুরু হয় এবং কৰ্মশ সম্পৰ্সািরত হয়।

পিশ্চেম দু গর্াপূ েজা চালু হবার পের ভারতবেষর্র পূ বর্িদেকর এক ভূ খন্ড অেষ্টৰ্িলয়ায় পৰ্থম দু গর্াপূ জা অনু িষ্ঠত হয় িসডিন
শহের, ১৯৭৫ সােল। অেষ্টৰ্িলয়ার অনয্ানয্ শহের পূ েজা শ‌ুরু হয় আেরা পের। আিশর দশক েথেক বঙ্গসন্তােনরা আেরা
পূ বর্িদেকর ভূ খন্ড িনউিজলয্ােন্ড স্থায়ীভােব বসবাস করেত শ‌ুরু কেরন। পেরর দু ই দশেক এই পৰ্বণতািট বৃ িদ্ধ পায়।
িনউিজলয্ােন্ড বাঙালীর অিভবাসেনর টৰ্ািডশনিট আজও অবয্াহত। আিশর দশেক েয সমস্ত বাঙালী স্থায়ীভােব
িনউিজলয্ােন্ড বসবাস শ‌ুরু কেরন, তাঁেদর অেনেকই িবশব্িবদয্ালেয়র িশক্ষক। পেরর দু ই দশেক তথয্পৰ্যু িক্তিবদ,
ডাক্তার, ইিঞ্জিনয়ার এবং আেরা অনয্ অেনক েপশার েলাকজন আসেত শ‌ুরু কেরন। সংখয্া বৃ িদ্ধর সেঙ্গ সেঙ্গ এেদেশ
দু েগর্াত্সব পালেনর ইচ্ছা এবং সম্ভাবনািট বাঙালী মানেস কৰ্মশ পৰ্বল হেয় ওেঠ।

িনউিজলয্ােন্ড দু গর্াপূ জা পৰ্থম শ‌ুরু হয় এেদেশর সবেচেয় বড় শহর অকলয্ােন্ড। অনয্ানয্ শহেরর তুলনায় এখােনই
বাঙালীর সংখয্া েবশী। ১৯৯২ সােলর শীেত অকলয্ােন্ড এক সান্ধয্ আড্ডায় দু েগর্াত্সব পালেনর সম্ভাবনািট আেলািচত
হয়। তার আেগ ওেয়িলংটেন পূ জার সম্ভাবনা খিতেয় েদখা হেয়িছল। িকন্তু ওেয়িলংটেনর তত্কালীন সব্ল্পসংখয্ক
বাঙালীরা দু েগর্াত্সব পালেনর দািয়তব্ েনবার অবস্থায় িছেলন না। যাই েহাক, ঐ সান্ধয্ আড্ডায় অকলয্ােন্ড েস বছর
দু েগর্াত্সব পালেনর িসদ্ধান্ত হয়। এয়ার ইিন্ডয়ার অকলয্ান্ড অিফেসর তত্কালীন ময্ােনজার মঞ্জু সরকােরর
সহেযািগতায় কলকাতা েথেক মূ িতর্ আনার বয্বস্থা হয়। মােয়র ইচ্ছায় পূ েজার সব আেয়াজন খুব দৰ্ুত িনিবর্েঘ্ন সম্পন্ন

                                                          11
                                                                                                        অঙ্কুর, ২০১১ 

হেত থােক। অকলয্ান্ডবাসী বাঙালীেদর সােথ ওেয়িলংটন, পামারস্টন নথর্ এমনিক ডােনিডনবাসী বাঙালীরাও
উত্সােহর সেঙ্গ িনউিজলয্ােন্ডর এই পৰ্থম দু েগর্াত্সব পালেন বৰ্তী হন। যাঁরা এ বয্াপাের অগৰ্ণী হেয়িছলন তাঁরা হেলন
সমীর ও বনানী দাশগ‌ুপ্ত, সু নীল ও ঊষসী মুেখাপাধয্ায়, অিমত ও নিন্দতা েসনগ‌ুপ্ত, েদেবশ ও শয্ামলী ভট্টাচাযর্য্, শৰ্ীকান্ত
ও সন্ধয্া চেট্টাপাধয্ায়, ইন্দৰ্িজত্ ও মঞ্জু সরকার, দীেপন ও িশউলী মুেখাপাধয্ায়, ৈসকত ও রঞ্জনী চেট্টাপাধয্ায় এবং
আেরা অেনেক। দু একিট অবাঙ্গালী ভারতীয় পিরবারও এই পূ েজায় সিকৰ্য় ভূ িমকা গৰ্হণ কেরন।

িনউিজলয্ােন্ডর পৰ্থম এই দু গর্াপূ জা েদেবশ ভট্টাচােযর্য্র েপৗেরািহেতয্ তাঁরই বাড়ীর নীেচর তলার ঘের অনু িষ্ঠত হয়।
                                                              ু
পূ েজায় তাঁর সহকারী িছেলন অকলয্ােন্ডর সবর্জনীন ‘কাক’ অিমত েসনগ‌ুপ্ত। শ‌ুরু েথেক গত ঊিনশ বছর ধের
েদেবশবাবু এই পূ েজার েপৗেরািহতয্ কের আসেছন। পৰ্থম িতন বছর তাঁর বাড়ীেত পুেজা হবার পর জনসমাগম
বৃ িদ্ধর জনয্ আেরা বড় পিরসেরর দরকার হয়। তাই চতুথর্ বত্সর েথেক সু িবধাজনক েকান স্কল বা কিমউিনিট হেল
                                                                                           ু
এই পূ েজা অনু িষ্ঠত হেয় চেলেছ। এখােন একটা কথা উেল্লখ কির। ভারতবেষর্র বাইের অনয্ অেনক জায়গার মত
িনউিজলয্ােন্ডও িতিথ েমেন পূ েজা হয় না। সাধারণত েদেশ পূ েজার িদনগ‌ুেলার িঠক আেগর বা পেরর সপ্তাহােন্ত
(শ‌ুকৰ্বােরর সন্ধয্া েথেক রিববােরর সন্ধয্া পযর্ন্ত) পূ েজা সম্পন্ন হয়। এেদেশর কমর্জীবেনর সােথ তাল িমিলেয় এবং
‘পৰ্বােস িনয়েমা নািস্ত’ পৰ্বাদিটেক িভিত্ত কের এই বয্বস্থা।

দু েগর্াত্সেবর দু িট অিবেচ্ছদয্ কমর্সূিচ হল খাওয়া-দাওয়া এবং সাংস্কৃিতক অনু ষ্ঠান। অকলয্ােন্ড পূ েজার পৰ্থম িতন-চার
বছর মিহলারা েভাগ সহ সমস্ত রান্নাবান্নার দািয়তব্ িনেয়িছেলন। পূ েজার অেনক আেগই রান্না কের খাবার ডীপ িফৰ্েজ
েরেখ েদওয়া হত যােত কের পূ েজার সময় রান্নাবান্না িনেয় কাউেক বয্স্ত থাকেত না হয় এবং সকেলই পূ েজা
সমানভােব উপেভাগ করেত পােরন। পূ েজার িদনগ‌ুেলায় ঐ খাবার িফৰ্জ েথেক েবর কের গরম কের এবং পৰ্েয়াজন
হেল িকছু মশলাপািতেযােগ িফিনিশং টাচ্ িদেয় পিরেবশন করা হত। বয্বস্থািট খুব কােজর হেয়িছল। পের অবশয্
পূ েজা যখন আেরা বড় হল তখন পুরুেষরা রান্নাবান্না এবং খাবার সরবরােহর দািয়তব্ িনেলন, েভাগরান্নার দািয়তব্
মিহলােদরই রইল। পূ েজার মূ ল সাংস্কৃিতক অনু ষ্ঠানিট হয় শিনবােরর সন্ধয্ায়। পৰ্থম বছর সঙ্গীত, আবৃ িত্ত ছাড়াও
রবীন্দৰ্নােথর ‘িচতৰ্াঙ্গদা’র িকছু নৃ তয্ পিরেবিশত হয়। পেরর বছরগ‌ুিলেতও একই ধারা চেল এেসেছ। এছাড়া
                                                               ৃ
শ‌ুকৰ্বাের েদবীর েবাধেনর সন্ধয্ায় আকাশবাণীখয্াত শৰ্ী বীেরন্দৰ্কষ্ণ ভেদৰ্র মিহষাসু রমিদর্নী েবতার আেলখয্ অনু সরেণ
একিট গীিত-নৃ তয্ানু ষ্ঠান আেয়ািজত হয়। মহালয়ার িদন এবং তার পেরর সপ্তাহােন্ত এই েবতার আেলখয্িট
অকলয্ােন্ডর দু িট েবতারেকন্দৰ্ েথেকও পৰ্চািরত হয়।

েয পূ েজা ঘেরায়াভােব শ‌ুরু হেয়িছল, কেয়ক বছেরর মেধয্ই েসিট এবং অনয্ানয্ বাঙালী সাংস্কৃিতক অনু ষ্ঠানগ‌ুিল
পিরচালনার জনয্ এবং িবিভন্ন সরকারী ও েবসরকারী সংস্থা েথেক আিথর্ক ও অনয্ানয্ সু েযাগ-সু িবধা পাবার জনয্
‘পৰ্বাসী’ নােম একিট সংস্থা নিথভূ ক্ত করা হয়। ১৯৯৮ সাল েথেক দু গর্াপূ েজা ‘পৰ্বাসী’র তত্তব্াবধােনই হেয় আসেছ।
এিদেক িনউিজলয্ােন্ডর তত্কালীন অিভবাসন নীিতেত বঙ্গভাষী জনসংখয্া উত্তেরাত্তর বৃ িদ্ধ েপেত লাগল। নবব্ই এর
দশেকর েশেষর িদেক বাংলােদশী িহন্দুরা ‘পূ জাসংঘ’ পৰ্িতষ্ঠা কের তাঁেদর িনজসব্ পূ েজা চালু করেলন। পৰ্থম েথেকই
পূ জাসংেঘর পূ েজা পৰ্বাসীর পূ েজার পেরর সপ্তাহােন্ত অনু িষ্ঠত হেয় আসেছ। তাঁেদর িনজসব্ সাংস্কৃিতক অনু ষ্ঠানও হয়।

বাঙালী চিরেতৰ্র একিট ৈবিশষ্টয্ হল িনেজেদর মেধয্ েঘাঁট পাকােনা, দলাদিল করা। ওেয়িলংটনবাসী েশখর
বেন্দয্াপাধয্ায় ২০০৯ সােলর ‘অঙ্কু র’-এ (অঙ্কু র-এর কথা পের বলিছ) তাঁর ‘বাঙালীর দলাদিল’ পৰ্বেন্ধ এ সম্পেকর্
িবশদ আেলাচনা কেরেছন। যাই েহাক, বাঙালী চিরেতৰ্র সব্াভািবক পৰ্বণতায় দু গর্াপূ জােক েকন্দৰ্ কের দলাদিল শ‌ুরু
হল। তার ফলশৰ্ুিত হল ‘নন্দন’ নােম আর একিট সংস্থার পৰ্িতষ্ঠা এবং তার পিরচালনায় ২০০২ সাল েথেক
অকলয্ােন্ড আর একিট দু গর্াপূ জা।

ওেয়িলংটন এবং পামারস্টন নথর্ েথেক অকলয্ােন্ড পূ েজায় েযাগ েদওয়া েবশীর ভাগ েলােকর পেক্ষই শৰ্মসাধয্ (আট-
দশ ঘন্টার ডৰ্াইিভং) বা বয্য়বহুল িছল। তাই পামারস্টন নেথর্র বাঙালীরা ওেয়িলংটেনর বাঙালীেদর সহেযািগতায়
পামারস্টন নেথর্ আর একিট পূ েজা চালু করেলন। এবয্াপাের উেদয্াগী িছেলন িদলীপ ও সু িমতা েঘাষ, শান্তনু ও

                                                         12
                                                                                                          অঙ্কুর, ২০১১ 

িজনীতা দাস, রােজশ ও শৰ্াবণী চেট্টাপাধয্ায়, শৰ্ীকান্ত ও সন্ধয্া চেট্টাপাধয্ায়, সু ভাষ ও কশািন্ত মুেখাপাধয্ায়, সু পৰ্তীম ও
                                                                                        ৃ
সু বণর্া মুেখাপাধয্ায়, সমীর ও বনানী দাশগ‌ুপ্ত, তাপস ও সু িমতৰ্া সরকার এবং আেরা অেনেক। সু তরাং ১৯৯২ সােল
শ‌ুরু হেয় ১০ বছেরর মেধয্ অকলয্ােন্ড িতনিট এবং সারা িনউিজলয্ােন্ড চারিট পূ েজা চালু হল। সবগ‌ুেলাই এখন
চলেছ।

কােছ-দূ েরর শহের যখন অেনকগ‌ুেলা পূ েজার বািদয্ েশানা যােচ্ছ তখন ওেয়িলংটেনর বাঙালীরা সারাবছের বাংলা
নববষর্, িবজয়া সিম্মলনী এবং সরসব্তী পূ জা এই িতনিট অনু ষ্ঠান পালেনই সীমাবদ্ধ িছেলন। এর মেধয্ এখােন
বঙ্গসন্তানেদর সংখয্া েবেড়েছ। পু্রেনা এবং নতুনেদর েকউ েকউ একিট নিথভূ ক্ত সংস্থার মাধয্েম অনু ষ্ঠানগ‌ুিলেক
সংহত করা এবং আেরা সাংস্কৃিতক (েযমন রবীন্দৰ্জয়ন্তী) এবং ধমর্ীয় (িবেশষ কের দু গর্াপূ জা) অনু ষ্ঠান আেয়াজন
করার তািগদ অনু ভব করেলন। তার জনয্ ভাবনা-িচন্তা এবং তকর্-িবতকর্ শ‌ুরু হল। অবেশেষ ‘সৃ িষ্ট’ নােম একিট
সংস্থার সৃ িষ্ট হল। িকন্তু এেক েকন্দৰ্ কের এখােনও বাঙালীর দলাদিল মাথা চাড়া িদেয় উঠল। ওেয়িলংটেন দু েগর্াত্সব
আেয়াজেনর পৰ্েশ্ন এমন অনাসৃ িষ্ট হল েয, ‘সৃ িষ্ট’ িস্থিতশীল হবার আেগই লয়পৰ্াপ্ত হল। তেব তােত কের দু েগর্াত্সব
পালেনর ইচ্ছািট চাপা পড়ল না। আর একিট নতুন সংস্থা ‘ওেয়িলংটন দু েগর্াত্সব কিমিট’-র ছতৰ্ছায়ায় ২০০৭ সােল
এখােন দু গর্াপূ ্জার পত্তন হল। যাঁরা এবয্াপাের উেদয্াগ িনেয়িছলন তাঁরা হেলন জয়দীপ ও অলকানন্দা ভট্টাচাযর্য্, সঞ্জন
ও সু িস্মতা কর, জগদীশ ও মনীষা গ‌ুিড়য়া, মীরা চকৰ্বতর্ী, জয়শংকর ও িশপৰ্া শ, তাপস ও রুনু ভাদু ড়ী, রিঞ্জত্ ও
নীলা সরকার, েদবীপৰ্সাদ ও রুমকী মজুমদার, পল্লব ও রূপালী শমর্া, অিমতাভ ও িরমা েসন, রাহুল ও েমৗ েহামরায়,
আমার স্তৰ্ী মধু িমতা (েসামা), আিম এবং আেরা অেনেক।




                                      ওেয়িলংটেন দু গাপুজার শ‌ুভারম্ভ – ২০০৭
                                                    র্

িনউিজলয্ােন্ডর অনয্ানয্ পূ েজাগ‌ুিলর মত ওেয়িলংটেনর পূ েজােতও সাংস্কৃিতক অনু ষ্ঠান এবং খাওয়া-দাওয়ার বয্বস্থা
থােক। সাধারণত, শ‌ুকৰ্বােরর সন্ধয্ায় উেদব্াধনী সঙ্গীত এবং বাচ্চােদর দু -একিট অনু ষ্ঠান থােক। শিনবােরর সন্ধয্ায় হয়
                               ৃ
নাচ, গান, আবৃ িত্ত, নাটক, বক্ততা ইতয্ািদ সহেযােগ মূ ল সাংস্কৃিতক অনু ষ্ঠানিট। পৰ্থম েথেকই সদয্ রান্না কারা খাবার
বাইের েথেক আনার বয্বস্থা চালু হেয়েছ। েবশীরভাগ সময়ই খাবার এেসেছ ইস্কেনর ‘হেরকষ্ণ’ েরষ্টুেরন্ট েথেক।
                                                                                            ৃ
ওেয়িলংটেনর বাইের েথেকও অেনেকই এই পূ েজা েদখেত আেসন।

িবেদেশ পূ েজার েশেষ সাধারণত মূ িতর্ িবসজর্ন েদওয়া হয় না। একই মূ িতর্র পূ েজা একািদকৰ্েম পর পর কেয়ক বছর
ধের করা হয়। অকলয্ােন্ডর বাঙ্গালীরা পূ েজা শ‌ুরুর পর কেয়ক বছর বয্বধােন আেরা দু িট নতুন মূ িতর্ কলকাতা েথেক
আনান। তাঁেদর পৰ্থম মূ িতর্িট পামারস্টন নেথর্র বাঙ্গালীরা িনেয় যান। আর িদব্তীয় মূ িতর্িট ওেয়িলংটেন আনা হয়।
অকলয্ােন্ডর বাইেরর পূ েজার একিট বড় পদেক্ষপ মূ িতর্ সংগৰ্হ এভােব সহেজই সম্পন্ন হেয়িছল। িতন বছর পর

                                                          13
                                                                                                        অঙ্কুর, ২০১১ 

পামারস্টন নেথর্ পুরেনা মূ িতর্িট িবসজর্ন িদেয় কলকাতা েথেক আর একিট নতুন মূ িতর্ আনা হয়। পূ েজার আেয়াজেন
অনয্ েয বড় কাজ তা হল েপৗেরািহেতয্র জনয্ উপযু ক্ত দক্ষতা সম্পন্ন কাউেক রাজী করােনা। ‘নন্দন’ যখন
অকলয্ােন্ড পূ েজা শ‌ুরু কের তখন ওঁরা স্থানীয় কাউেক পুেরািহত িহসােব পানিন। ওেয়িলংটন েথেক ওঁরা সমব্ল
ভট্টাচাযর্য্েক িনেয় যান েপৗেরািহেতয্র জনয্। পৰ্থম িতন বছর ‘নন্দন’-এর পূ েজা সমব্লবাবুই কেরন। যখন
ওেয়িলংটেন পূ েজা শ‌ুরু হল তখন িতিন বয্িক্তগত কারেণ পূ েজা করেত অপারগ হেলন। তখন অকলয্ান্ড েথেক
শ‌ুকেদব মুেখাপাধয্ায়েক আনা হল। িতন বছর পূ েজা করার পর শ‌ুকেদববাবু কেমর্াপলেক্ষয্ অেষ্টৰ্িলয়ায় পািড় িদেলন।
তখন আবার নতুন পুেরািহেতর েখাঁজ চলল। েশেষ েদবীপৰ্সাদ মজুমদার েপৗেরািহেতয্ রাজী হেলন। িতিন দু গর্াপূ জায়
আেগ কখনও পৰ্ধান পুেরািহেতর দািয়তব্ পালন কেরনিন। যাইেহাক সমব্লবাবুর িনেদর্শনায় িতিন চতুথর্ বত্সেরর
(২০১০) পূ েজা সম্পন্ন করেলন। িবেদেশ পুেরািহেতর খুব চািহদা। পূ েজার উেদয্াক্তােদর মেধয্ েকউ েপৗেরািহতয্
করেত পারেল ভাল। না হেল খুব অসু িবধায় পড়েত হয়। অকলয্ােন্ড পৰ্বাসীর পূ েজায় েদেবশবাবু এবং পামারস্টন
নেথর্র পূ েজায় সু ভাষ মুেখাপাধয্ায় পৰ্থম েথেকই েপৗেরািহতয্ কের আসেছন। পামারস্টন নেথর্ শ‌ুরুেত সু পৰ্তীম
মুেখাপাধয্ায় সহকারী পুেরািহত িছেলন। িকন্তু ‘নন্দন’ এবং ওেয়িলংটেনর পূ েজায় পৰ্থম িদেক পুেরািহেতর সন্ধােন
অেনক কাঠ-খড় েপাড়ােত হেয়েছ। পূ জাসংেঘর পূ েজায় িবিভন্ন বছের িবিভন্ন জন (অবাঙ্গালী সেমত) েপৗেরািহতয্
কেরেছন।

যাই েহাক, ১৯৯২ সােল শ‌ুরু হেয় দু ই দশেকরও কম সমেয় (২০১০-এ) সারা িনউিজলয্ােন্ড পাঁচিট সবর্জনীন
দু গর্াপূ েজা চালু হেয়েছ। তার সবগ‌ুিলই উত্তর দব্ীেপ। দিক্ষণ দব্ীেপর কৰ্াইস্টচােচর্ েকউ েকউ বয্িক্তগতভােব তাঁেদর
বাড়ীেত পূ েজার িদনগ‌ুেলায় চন্ডীপাঠ ইতয্ািদ কেরন। এই অনু ষ্ঠােন স্থানীয় আেরা িকছু মানু ষ েযাগ েদন। ২০০৩
সােল কৰ্াইস্টচােচর্র বাঙালীরা একবার হল ভাড়া কের অকলয্ােন্ডর েদেবশবাবুর উপেদশ অনু সাের পেট দু গর্াপূ েজাও
কেরিছেলন। তেব দিক্ষণ দব্ীেপ এখনও পযর্ন্ত মূ িতর্স্থাপন কের সাংস্কৃিতক অনু ষ্ঠানসহ পৰ্চিলত বােরায়ারী পূ েজার
আদেল দু গর্াপূ েজা হয়িন। ইদািনং কৰ্াইস্টচােচর্র েকান েকান বঙ্গসন্তােনর অবেচতন মেন দু েগর্াত্সব পালেনর
আকাঙ্খািটর আনােগানা শ‌ুরু হেয়েছ। তার ইিঙ্গত ২০১০ সােলর ‘অঙ্কু র’-এ অিরন্দম বসু র গল্প ‘মিহষাসু রমিদর্নী
পালা’েত। তাছাড়া ২০১০ সােলর ওেয়িলংটেনর দু গর্াপূ েজায় কৰ্াইস্টচাচর্বাসী একদল নবাগত বঙ্গসন্তান সব্তঃস্ফুতর্ভােব
েযাগ েদন। তাঁেদর উত্সাহ উদ্দীপনা েদেখ মেন হেয়িছল িনউিজলয্ােন্ডর দিক্ষণদব্ীেপ সবর্জনীন দু েগর্াত্সব পালন
হয়েতা শ‌ুধু মাতৰ্ সমেয়র অেপক্ষা। িকন্তু ইিতমেধয্ একািধক ভয়াল ভূ িমকম্প কৰ্াইস্টচাচর্েক লন্ডভন্ড কের িদল।
এখন ওখােন পূ েজা েহাক বা না েহাক, জগজ্জননী পৰ্সন্ন হেয় ধিরতৰ্ীেক যিদ শান্ত কেরন তেব আমরা বাঁিচ।

িনউিজলয্ােন্ডর দু েগর্াত্সেবর একিট আনু ষিঙ্গক বয্াপার হল পূ েজােকিন্দৰ্ক সািহতয্চচর্া – অথর্াত্ পিতৰ্কা পৰ্কাশ। পৰ্থম
পূ েজার সময় েথেকই পামারস্টন নেথর্র সমীর দাশগ‌ুপ্ত পৰ্ায় একক পৰ্েচষ্টায় ‘পৰ্ািন্তক’ নােম একিট পিতৰ্কা সম্পাদনা
ও পৰ্কাশ কেরন। পৰ্থম দু -এক বছর িতিন হােত েলখা গল্প, কিবতা, পৰ্বন্ধ ইতয্ািদ ফেটাকিপ কের পৰ্কাশ করেতন।
পের যখন বাংলায় ওয়াডর্ পৰ্েসিসং সফটওয়য্ার সহজলভয্ হল এবং িতিন ওয়াডর্ পৰ্েসিসংএ দক্ষতা লাভ করেলন
তখন ‘পৰ্ািন্তক’ ছাপা অবস্থায় পৰ্কািশত হওয়া শ‌ুরু হল। দু -এক বছর ‘পৰ্ািন্তক’-এর নববষর্ সংখয্াও পৰ্কািশত
হেয়িছল। অকলয্ােন্ড ‘পৰ্বাসী’-র তরফ েথেক ২০০৩ এবং ২০১০ সােল পূ েজা সু য্েভিনর পৰ্কাশ করা হয়।
েসগ‌ুিলেতও িকছু পৰ্বন্ধ, গল্প, কিবতা ইতয্ািদ স্থান পায়। ওেয়িলংটেনর পূ েজার িদব্তীয় বছের (২০০৮ সােল) ‘অঙ্কু র’
নােম একিট পিতৰ্কা পৰ্কােশর িসদ্ধান্ত হয়। আমােক েসিটর সম্পাদনা এবং পৰ্কাশনার দািয়তব্ েদওয়া হয়। পেরর
বছর েথেক েদবীপৰ্সাদ মজুমদার যু গ্ম-সম্পাদক িহসােব েযাগ েদন। তথয্পৰ্যু িক্তর েদৗলেত পৰ্থম েথেকই ‘অঙ্কু র’
ইন্টারেনেট ওেয়িলংটন দু েগর্াত্সব কিমিটর ওেয়বসাইেট (http://www.wdc-nz.org.nz/) পাওয়া যায়। গ‌ুণগত
উত্কেষর্র জনয্ ‘অঙ্কু র’ ইিতমেধয্ই েদেশ-িবেদেশ পৰ্শংসা লাভ কেরেছ।

এই হল িনউিজলয্ােন্ড দু গর্াপূ েজা পত্তেনর সংিক্ষপ্ত িববরণ। বাঙালীর মজ্জাগত দলাদিল এই উত্সেবর উদয্মেক দমন
কেরিন, বরং তােক পৰ্সািরতই কেরেছ। উত্সেবর উেদয্াগ ও আেয়াজেনর িপছেন, িবেশষত পূ েজা চালু হবার পেরর
বছরগ‌ুিলেত আেরা অেনক মানু েষর অবদান আেছ। তাঁেদর সকেলর নােমােল্লখ সম্ভব হয়িন। এজনয্ মাজর্না চাইিছ।


                                                         14
                                                                                                            অঙ্কুর, ২০১১ 

                                                 নারায়ণ নারায়ণ
                                               সব্ামী পৰ্বরানন্দ িগির
                                                      (গ‌ুজরাত)




                                                                    ু
                ওঁ নারায়ণায় িবদ্মেহ বাসু েদবায় ধীমিহ তেন্না িবষ্ণঃ পৰ্েচাদয়াত্। ওঁ িবষ্ণেব নমঃ।।
                                        ু
             ওঁ মহালৈক্ষ্মঃ িবদ্মেহ িবষ্ণপৈত্নঃ চ ধীমিহ তেন্না লক্ষ্মীঃ পৰ্েচাদয়াত্। ওঁ মহালৈক্ষ্মঃ নমঃ।।

পৰ্ভু শৰ্ীিবষ্ণর িনেদর্েশ িতৰ্েলাক ভৰ্মেণ েবিড়েয়েছন নারদ। মােঝ মােঝ তাঁেক এরকম করেত হয়। তেব এবার
              ু
িতনেলাক নয়, মুখয্ যাতৰ্া একিট েলােক। অনয্ দু িট েলাক েগৗণ। েবেরােনার আেগ নারদ মেন মেন গায়তৰ্ী মন্তৰ্দু েটা
আউেড় িনেলন। বৰ্হ্মার মানসপুতৰ্ নারদ। তাঁর েকান গভর্ধািরণী মা েনই। এছাড়া িতিন িচরজীবী। সতয্-েতৰ্তা-দব্াপর-
কিলেত তাঁর অবাধ িবচরণ। িতিন ধু রন্ধর িবষ্ণভক্ত। ‘নারায়ণ’ ‘নারায়ণ’ ছাড়া মুেখ অনয্ েকান নাম েনই। মেন মেন
                                              ু
পৰ্ভুর নাম জেপ চেলন সবর্ক্ষণ আর বীণা বাজান। িবষ্ণ এবং লক্ষ্মীেক িতিন িপতৃমাতৃজ্ঞােন ভিক্ত কেরন।
                                                    ু

    ু
িবষ্ণর িনেদর্শ – “সব্গর্ আর পাতালটা খািল একবার চক্কর েমের িনও। মেতর্য্র ভৰ্মণটাই আসল। আজকাল এই
                                             ু
কিলকােল িতনেট েলােকর মেধয্ সব্েগর্ েকান ঝট-ঝােমলা েনই। আর পাতােলর অসু ররা তােদর েলাক েছেড় সবাই
মতর্য্েলােক জমােয়ত হেয় তােক মৃতুয্েলাক বািনেয় েছেড়েছ। পাতােল েসই সু েযােগ গয্াস, খিনজ েতল, আগ‌ুন আর
আেগ্নয়িগিররা সিকৰ্য় হেয়েছ। মােঝ মােঝই যতৰ্ততৰ্ ভূ িমকম্প আর অগ্নু য্ত্পাত ঘটােচ্ছ। অসু রেদর জমােয়েতর ফেল
মতর্য্েলােক সন্তৰ্াস, ঝগড়াঝাঁিট, মারামাির, কাটাকািট অতয্িধক বৃ িদ্ধ েপেয়েছ। ক’বছর আেগ সন্তৰ্াসবাদী হানায়
আেমিরকার িবশব্ বািণজয্ েকেন্দৰ্র সু উচ্চ অট্টািলকা ধব্ংস হেয়েছ। এখন অসু ররা এখােন ওখােন েরলগাড়ীেত
আকৰ্মণ ও দু ঘর্টনা ঘটােচ্ছ। ভারতবেষর্র সংসদসহ িবিভন্ন জায়গায় তারা আকৰ্মণ এবং হতয্াকান্ড ঘিটেয়েছ।
অসু রেদর সন্তৰ্াসবাদী কাজকমর্ েথেক আেমিরকা, ইউেরাপ, এিশয়া, অেষ্টৰ্িলয়া, আিফৰ্কা েকান মহােদশই বাদ েনই।
এসব করেত তারা অতয্াধু িনক দূ রিনয়িন্তৰ্ত পৰ্যু িক্তও বয্বহার করেছ। তুিম এসব ভাল কের েদেখ, শ‌ুেন, ছিব তুেল
িনেয় এেস আমােক িরেপাটর্ েকােরা। আমােক আবার বৰ্হ্মা আর মেহশব্েরর সােথ পেরর িমিটং-এ এসব িনেয়
আেলাচনা করেত হেব।

“কতিদন হেয় েগল েসই সতয্নারায়েণর রূপ ধের মতর্য্েলােক েগিছ সতয্েদেবর মাহাত্ময্ পৰ্চার করেত। খবর িনও
এখন মানু েষরা েসসব উপেদশ পালন কের িকনা। আর হয্াঁ, একটা কথা বেল িদই। মানু েষর কাছাকািছ েগেল সূ ক্ষ্ম
শরীর ধারণ কের অদৃ শয্ হেয় সব িকছু েদখেব শ‌ুনেব। বলা যায় না কখন িক ঘেট, িদনকাল যা খারাপ মতর্য্েলােক।

                                                         15
                                                                                             অঙ্কুর, ২০১১ 

আর েতামার লয্াপটপ এবং িডিজটয্াল কয্ােমরাটা সেঙ্গ িনেত ভুেলা না। েমাবাইল েফানটাও। আপত্কােল আমােক
স্মরণ করেত এিট ধয্ােনর েথেক অিধক কাযর্করী।”

যাই েহাক, ঋিষবর নারদ এখন অষ্টপৰ্হর বয্স্ত িপতৃবর শৰ্ীিবষ্ণর জনয্ খবর সংগৰ্েহ। মতর্য্েলােকর িবিভন্ন স্থান
                                                         ু
পিরভৰ্মণ কের পৰ্ভুর কাছ েথেক েশানা কথাগ‌ুিলর সতয্তার অেনক পৰ্মাণ েপেলন। িডিজটয্াল কয্ােমরায় েতালা
ছিবসহ খবরগ‌ুিলর পুঙ্খানু পুঙ্খ িববরণ লয্াপটপবন্দী করেত থাকেলন। একিদন সন্ধয্ােবলায় আকাশমােগর্ বাংলার
িবষ্ণপুর নগেরর উপর িদেয় যািচ্ছেলন। নগেরর নামিট জানেতই িতিন ভিক্তেত আপ্লু ত হেলন। আহা, এ নগর েয
    ু
পৰ্ভুর শ‌ুভনামধনয্ ! নগরেকেন্দৰ্ আেলািকত এক বড় মঞ্চ তাঁর দৃ িষ্ট আকষর্ন। েসখােন আবালবৃ দ্ধবিনতা শান্ত হেয়
                                          ু
বেস একমেন কথকতা শ‌ুনেছন। কথকঠাকর বেস দাঁিড়েয় েনেচ েবশ নাটকীয় পিরেবশ সৃ িষ্ট কেরেছন এবং মােঝ
মােঝ সু লিলত কেন্ঠ পৰ্ভুর নামগান করেছন। পােশ নানারকম বাদয্যন্তৰ্ িনেয় বাদয্কেররা গােনর সােথ সঙ্গত
করেছন। েশৰ্াতারা ভাগবত্ কথা এবং িবিভন্ন সামািজক িবষয় িনেয় কথকতা খুব উপেভাগ করেছন। তাঁরা কখেনা
হােসন, কখেনা গম্ভীর হন, আবার কখেনা ভিক্তরেসর আেবেশ কাঁেদন। েদবিষর্ নারদ েদখেলন েবশ মজার বয্াপার
                                        ু
েতা। তাঁরই েবশ ধারণ কেরেছন কথকঠাকর, হােত বীণািটও আেছ। শ‌ুধু েঢঁিকটা েনই। েবাধহয় ওড়ার দরকার হেব
না তাই। নারদ িঠক করেলন এখানকার বয্াপারটা ভােলা কের পৰ্তয্ক্ষ করেত হেব। তক্ষিণ পৰ্ভুর অদৃ শয্ হওয়ার
                                                                                 ু
উপেদশিট মেন পড়ল। েঢঁিকটা মঞ্চ েথেক একটু দূ ের অন্ধকাের একটা গােছর আড়ােল েরেখ িনেজ অদৃ শয্ হেলন।
তাঁেক েকউ েদখেত েপল না। িকন্তু িতিন সব েদখেত, শ‌ুনেত পািচ্ছেলন।

          ু
কথকঠাকর তখন সামািজক িবষয় িনেয় কথকতা শ‌ুরু কেরেছন। বলেছন – “বাবা মােয়রা, সকােল উেঠই েতামােদর
পৰ্থম চাই চা – তাই না? তা ভক্তেদর িজেজ্ঞস করেল উত্তর েদেব েয তারা চা পান কের শাস্তৰ্ীয় িবিধই িনখুঁতভােব
পালন কের। শােস্তৰ্ বেলেছ – ‘িনেবদয়ািম চাত্মানং তব্ং গিতঃ পরেমশব্র।’ মােন চা িনেবদন করেত হেব আত্মােক,
তেবই তার গিত পরেমশব্েরর িদেক হেব ! ভক্তেদর কােছ এ হল শােস্তৰ্র িনেভর্জাল অথর্। এটা তারা কদাচ অবেহলা
কের না। বাবারা, চােয়র সােথ েতামােদর চাই িবিড় বা ধূ মপােনর বস্তু। বড়-েছাট অেনেকই এেত আসক্ত। েছাটরা
েতা বাবা-দাদা, মামা-কাকারা যা কেরন েসটােকই িঠক বা সব্াভািবক বেল মেন ক’ের তার অনু করণ কের। আর
একবার অভয্াস হেয় েগেল েসিটেক ছাড়েত পাের না। তখন অনয্ েকউ ধূ মপান করেছ েদখেল তােদরও মেন হয়
আমরাও দু েটা টান িদই। এই েয িবিড়, তা হল ধূ মপানকারীেদর কােছ সব্েগর্র িসঁিড়। সব্েগর্ িগেয় েক না সু খ েভাগ
করেত চায়? িবিড় েখেয় যিদ সব্গর্সুেখর বয্বস্থা হেয় যায় তেব েক ছােড়? িবিড় েয সব্েগর্র িসঁিড় তা িনেয় অেনক গান
                                                                              ু
চেল বাজাের। শ‌ুনেব েতমন গান? অমিন বাজনদারেদর তান শ‌ুরু হল। কথকঠাকর বীণা বািজেয় গান ধরেলন
সু মধু র কেন্ঠ। সু রটা বাউল সঙ্গীেতর।

                                িবিড় সব্েগর্র িসঁিড় ের ভাই, িবিড় সব্েগর্র িসঁিড়।
                                                                                 ু
                     তামাক সব্েগর্র েদমাক, মেদর েনশা সব্েগর্র িভসা – পাঠায় কালকঠুরী।
                                িবিড় সব্েগর্র িসঁিড় ের ভাই, িবিড় সব্েগর্র িসঁিড়।
                                বুক ঝাঁঝরা, েপট ঝাঁঝরা, ঝাঁঝরা েদেহর নািড়,
                                  তবু িবিড় ছাড়েব না ভাই, িবিড় সব্েগর্র িসঁিড়।
                                  গড়গড়ােত তামাক নাই, ঢুেকেছ েস পাউেচ,
                                েজায়ান-বুেড়া েসসব সদা িচেবায় েনেচ েনেচ।
                               িকছু না েপেল সকালেবলায় েখেত যায় েয তািড়,
                                   েনশা কের ঘের বেসই সব্েগর্ েদেব পািড়।
                                িবিড় সব্েগর্র িসঁিড় ের ভাই, িবিড় সব্েগর্র িসঁিড়।

                   আর এসব েদেখ অন্তযর্ামী ভগবান িক কেরন? িতিন হােসন। তাই বিল –

                                                   16
                                                                                          অঙ্কুর, ২০১১ 

                                   যতই েনশা কর তুিম খুবই দামী দামী
                                  বেস বেস সবই েদেখ হােসন অন্তযর্ামী।
                             বেলন – আয়ের েতারা, দব্ার খুেল িদই নরেকর,
                               পুিড়েয় েদহ, খুইেয় মন কত্তা হিব সড়েকর।
                                                         ু
                    এেতা েগল ভগবােনর ডাক। আর েনশােখার জবােব িক বেলন শ‌ুনু ন –
                        সড়েক মরব, নরেক যাব, তবু ছাড়েবা না মদ তামাক িবিড়।
                         ঘর যােব, জিম যােব, িখেদয় েছেলরা ভুঁেয় েদেব গড়াগিড়।
                              তবু িবিড় আমার সব্েগর্র িসঁিড়, আহা মির মির।
                              িবিড় সব্েগর্র িসঁিড় ের ভাই, িবিড় সব্েগর্র িসঁিড়।

আর গ‌ুরু িক বেলন? পৰ্থেম িতিন েনশােখােরর রােয় রা েমলান। কাউেক িঠক করেত হেল পৰ্থেম তার সােয় সায়
িদেত হয়। তারপর ধীের ধীের উপেদশ িদেত হয়। িতিন বেলন –
                              জল পাউেচ, ৈখিন পাউেচ, মদও পািব পাউেচ।
                           িবিড়ও পািব পাউেচ পাউেচ, ওের িবিড় সব্েগর্র িসঁিড়।
                          পাউেচ যিদ সব্গর্ পাস, তেব েকন সব্েগর্ েযেত হুেড়াহুিড়?

তারপর গ‌ুরু িনেজর কথাটা েঘারােলন। েভেব েদখেত বলেলন েনশােখারেক। িশেষয্র েনশা ছাড়ােনা েয তাঁর পরম
কতর্বয্। বলেলন, েনশার ফল িক হেব জািনস? –
                       একবার েভেব েদখ্, সব্েগর্ েযেত হেব না, না েযেত হেব নরেক।
                         এইখােনেতই সব্গর্-নরক, তুই েরােগ মরিব তড়েপ তড়েপ।
                                     এখেনা সময় আেছ শরীরটােক বাঁচা
                                  েদহ বাঁচেল মন বাঁচেব কথাটা খুব সাচা।
                                সব্েগর্র কথা তুই ভািবস না, তার আশা নাই
                                  নাম িনেয় উদ্ধার হ, বলের েগৗর-িনতাই।
                                   িবিড় সব্েগর্র িসঁিড় নয়ের, মরেণরই েবিড়
                                    মদ িবিড় তামাক েছেড় ধর েগৗরহির।
                        েনশা ছােড়া, সব্াস্থয্ ধেরা, কেরা শ‌ুদ্ধ মন ের, কেরা শ‌ুদ্ধ মন।
                         েগৗর-িনতয্ানেন্দ কেরা জীবেনরই ধন ের, জীবেনরই ধন।

        ু
কথকঠাকর এরপর পৰ্সঙ্গ পিরবতর্ন করেলন। শ‌ুরু করেলন গৃহেস্থর িদনচচর্ার কথা। সব্ামী-স্তৰ্ী দু জেনই সংসােরর
কােজ বয্স্ত। এর মেধয্ স্তৰ্ীর িচন্তা িক কের পছন্দসই শাড়ী, গয়নাগাঁিট আদায় করা যায়, িক কের পিতেদবতািটেক
বেশ রাখা যায়। তার কলােকৗশল নারদ মুিন মা লক্ষ্মীেক িশিখেয়িছেলন।

হঠাত্ িনেজর নাম শ‌ুেন নারদ চমিকত হেলন। মেন পড়ল অেনক িদন আেগর কথা - েসই সতয্যু েগর। ৈদতয্রাজ
                                  ু
বিলর তখন দােনর দাপট চলেছ। িবষ্ণ ভাবেলন এ দাপট খবর্ করেত হেব। ‘অিত’ সব বয্াপােরই খারাপ - দােনও।
                             ু
সবর্মতয্ন্তং গিহর্তম্। কথকঠাকেরর কথকতার সূ েতৰ্ এেক এেক েসই ঘটনার দৃ শয্াবলী নারেদর মনশ্চেক্ষ উদয় হল।

                                               ******

                                                                                        ু
েদবিষর্ নারেদর িচরকােলর অভয্াস সকাল েবলায় ঘুম েথেক উেঠ পৰ্াতঃকতয্, স্নান-আিহ্নক েসের ৈবকেন্ঠ িগেয়
                                                               ৃ
শৰ্ীহিরর দশর্ন করা। তারপর েসখােনই ভরেপট পৰ্াতঃরাশিট সারা। েসিদন সকােল অবশয্ পৰ্ভুেক দশর্ন করেত
যাওয়া হেয় ওেঠিন। খুব েভার েভার উেঠ পৰ্ভুরই এক জরুরী কােজ তাঁেক একবার ৈকলােস েদবািদেদেবর কােছ
                                              17
                                                                                                 অঙ্কুর, ২০১১ 

েযেত হেয়িছল। সন্ধয্ােবলায় িফের সেব আিহ্নেক বেসেছন এমন সময় অদ্ভুত দৃ শয্। সামেন েদখেছন পৰ্ভুেক –
দােরায়ােনর েবেশ দন্ডহােত দরজায় দাঁিড়েয় পাহারা িদেচ্ছন। অবাক হেলন নারদ। এ আবার িক ! জায়গাটাও েতা
ৈবকন্ঠ নয়। এেতা ৈদতয্রাজ বিলর রাজদব্ার। পৰ্ভুর গ‌ুপ্তচরিগির করার সু বােদ জায়গাটা আেগ দু একবার েদখা
     ু
আেছ। মুখ িদেয় েবিরেয় পড়ল – ‘পৰ্ভু এিক লীলা !’ পৰ্ভু মুষেড় আেছন। বলেলন, ‘নারদ, ভীষণ িবপেদ পেড়িছ।
দু পুর েথেক বিলর রাজবাড়ীর েগেট লািঠহােত পাহারা িদিচ্ছ। সব কথা ধয্ােন বলা যােব না। তুিম এক্ষিণ একবার
                                                                                             ু
সশরীের এখােন চেল এস।’ পৰ্ভুর িবপদ শ‌ুেন নারেদর তখন মাথা ঘুরেছ, মুেখ রা েনই। যাইেহাক, পিড় িক মির
কের েঢঁিকেত চেড় সেঙ্গ সেঙ্গ পািড় িদেলন। েয েকান পৰ্কাের যত শীঘৰ্ সম্ভব পৰ্ভুর কােছ েপঁৗছেত হেব পাতােল।
েসখােন েসানার রাজবাড়ী। তার িসংহদব্াের হানা িদেত হেব !

েবশী েদরী হল না অকস্থেল েপঁৗছেত। েপঁৗেছই নারদ েকঁেদ েফলেলন পৰ্ভুেক েদেখ। তেব স্তব করেত ভুলেলন না –
                  ু
                                              ু
                          শঙ্খচকৰ্ং সকীিরটকন্ডলং সপীতবস্তৰ্ং সরসীরূেহক্ষণম্।।
                        সহাসবক্ষঃস্থল েকৗস্তভিপৰ্য়ম্, নমািম িবষ্ণংিশরসা চতুভূ র্জম্।।
                                                                  ু
                তেদবলগ্নং সু িদনং তেদব, তারাবলং চন্দৰ্বলং তেদব, িবদয্াবলং ৈদববলং তেদব,
                                     লক্ষ্মীপেত েতঽঙ্ঘৰ্ীযু গং স্মরািম।।

                  ু
উদাসেনেতৰ্ িবষ্ণ দাঁিড়েয় আেছন, হােতর লািঠটা উেল্টপােল্ট দীঘর্িনশব্াস েফলেছন। বলেলন, “েদখ নারদ এখন
কান্নটান্না রােখা”। পৰ্থেম সব ঘটনা, তারপর উদ্ধােরর পিরকল্পনা েশানােলন।
                                                   ******

                             ু
তখন গভীর রাত। িবষ্ণ ৈবকেন্ঠ শয়নকেক্ষ শযয্ায় মা লক্ষ্মীর পােশ শ‌ুেয় ঘুেমােচ্ছন। একসময় নানািবধ েভাজয্দৰ্েবয্র
                         ু
সু গেন্ধ শয়নকক্ষ পূ ণর্ হেয় েগল। িবষ্ণর ঘুম েভেঙ্গ েগল। মা লক্ষ্মী তখনও গভীর ঘুেম আচ্ছন্ন। লু িচ, েপালাও,
                                       ু
                                            ু
পােয়স, সেন্দশ, হালু য়া ইতয্ািদর সু গন্ধ িবষ্ণর মাথায় েনশা ধিরেয় িদল। েসইসব সু গিন্ধ সু খােদয্র কােছ েরাজ েরাজ
লক্ষ্মীর হােতর ছয্াঁচ্ড়া, শাকচচ্চিড় আর পান্েস েঝাল-ভাত েকাথায় লােগ? দূ র দূ র ! ভাবেলন তার েথেক েরহাই
                                                                  ু
েপেত হেব। মা লক্ষ্মীেক ঘুমন্ত অবস্থায় েরেখ মাঝরােত চুিপচুিপ ৈবকন্ঠ েথেক েবেরােলন িতিন। গেন্ধর টােন েসাজা
ভৃগ‌ুকেচ্ছ যজ্ঞবাড়ীেত েপঁৗেছ েগেলন। ওের বাবা ! এলািহ কান্ড ! বড় বড় তপ্ত কটােহ হেরক রকম সু খাদয্ পিরপক্ক
হেচ্ছ। সারা যজ্ঞবাড়ী রান্নার সু গেন্ধ ম ম করেছ। মাথা িঠক রাখাই দায় ! পরিদন িদব্পৰ্হের যেজ্ঞর পূ ণর্াহুিতর পর
েভাজন সমােরাহ হেব, দান েদওয়া হেব বৰ্াহ্মণ, মুিন আর তপসব্ীেদর। সব বয্বস্থা কেরেছন দানবীর ৈদতয্রাজ বিল।

িবষ্ণ েদখেলন এখােন েদবতার েবশ চলেব না। চুিপসাের িতিন বামনরূপ ধারণ করেলন। হােত একিট িবশাল ছাতা,
     ু
মুিন্ডত মস্তেক েদাদু লয্মান বড় একিট িশখা। গলার েমাটা উপবীতিট যােত সবার নজের পেড় তার ওপর িবেশষ
মেনােযাগ িদেলন। মধয্ােহ্ন দীয়তাম্ ভূ জয্তাম্ েভাজন ভালই হল। দান চাইবার সময় চতুরতা কের চাইেলন িতৰ্পদ
ভূ িম। পা-েক এমন বড় করেলন েয দু ই পােয় সব্গর্-মতর্য্-পাতাল েঢেক েগল। এখন তৃতীয় পদিট রাখেবন েকাথায়?
                                                                ু
সেঙ্গ সেঙ্গ বিল কাপড় িদেয় েঢেক িনেজর মাথািট েপেত িদেলন। িবষ্ণ সহেষর্ বিলর মাথায় পা রাখেত সব দখল
করা হেয় েগল। সব্গর্ মুক্ত হল ৈদেতয্র হাত েথেক। তাঁর িনেদর্শ েমেন বিলেকই পাতােল রাজতব্ করেত বলেলন।
আর মাথা তুেলানা, বাবা !

দান গৰ্হেণর একিট িনয়ম আেছ - দােন সন্তুষ্ট হেল বর িদেত হয়। েভাজন এবং দােন তুষ্ট ছদ্মেবশী িবষ্ণর মুখ
                                                                                             ু
েথেক সব্তস্ফুতর্ভােব েবিরেয় এল – ‘বর চাও। যা চাইেব তাই েদব’। আর এইখােনই ঘটল িবপদটা, যা িবষ্ণর   ু
কল্পনাতীত িছল। বিল েতা খুব ভিক্ত সহকাের হাতেজাড় কের বলল, ‘পৰ্ভু , আপনার সািন্নধয্ মােনই েতা অেভদয্,
                                  ৃ
অকাটয্, অিবনশব্র সু রক্ষা। আপনার কপা আমায় রক্ষা করুক এই পৰ্াথর্না। আপিন আমার দরজায় িচরকােলর জনয্
                                                                                ু
পাহারা িদন।’ এই বেল চাকরেক িদেয় েলাহা বাঁধােনা েমাটা একিট দন্ড এেন ছদ্মেবশী িবষ্ণর হােত ধিরেয় িদল।

                                                     18
                                                                                                      অঙ্কুর, ২০১১ 

িনেজর ভুল বুঝেত েপের িবষ্ণর তখন কালঘাম ছু টেছ। আর বামেনর েবেশ থাকেত পারেলন না। আসল রূপিট
                             ু
েবিরেয় পড়ল। বিল তখন মেন মেন হাসেছ। বামনেদবই হও আর িবষ্ণ ভগবানই হও, এখন েতা তুিম
                                                                            ু
পৰ্িতশৰ্ুিতবদ্ধ। িতন পা জায়গার নােম িতৰ্েলাক হািতেয় িনেয়ছ ! এখন িবষ্টু দােরায়ান হেয় দাও পাহারা !

    ু
িবষ্ণ আর িক কেরন? সু ড়সু ড় কের ডান্ডাহােত পাহারা েদওয়া শ‌ুরু করেলন। এিদেক বিল তখন স্তব শ‌ুরু কেরেছন
–
                           নেমাঽস্তব্নন্তায় সহসৰ্মূ ত্তর্েয় সহসৰ্পাদািক্ষিশেরারুবাহেব
                          সহসৰ্নােম্ন পুরুষায় শাশব্েত সহসৰ্েকািট যু গধািরেণ নমঃ।
                নমঃ কমলনাভায় নমেস্ত জলশািয়েন নমেস্ত েকশবানন্ত বাসু েদব নেমাঽস্তুেত।

                                              ু
              (েহ সহসৰ্মূ িতর্ধারী, সহসৰ্পদচক্ষমস্তকধারী, হাজার েকািট যু গ ধের বতর্মান শাশব্তপুরুষ,
                 েহ পদ্মনাভ, েহ সিললশািয়ত, েহ েকশব, েহ অনন্ত বাসু েদব, েতামােক নমস্কার।)

সব শ‌ুেন নারদ শ‌ুেধান – ‘পৰ্ভু , এখন উপায়? বিল েতা এক িঢেল দু ই পাখী েমেরেছ। আপনােক ৈবকন্ঠছাড়া কেরেছ,
                                                                                                 ু
আবার িনেজর ভৃতয্ বািনেয় িনেয়েছ।’ িবষ্ণ বলেলন, ‘আেছ নারদ, একটা উপায় আেছ। ঘুমন্ত অবস্থায় লক্ষ্মীেক
                                             ু
েছেড় আসার ফল আিম হােড় হােড় েটর পািচ্ছ। এখন একমাতৰ্ লক্ষ্মীই আমােক উদ্ধার করেত পারেব।’ এরপর
ফসফস কের গ‌ুপ্ত মন্তৰ্ণা করেলন নারেদর সেঙ্গ। সব বুিঝেয় িদেলন। রওনা হবার আেগ বার বার কের বলেলন,
 ু ু
‘ভু েলা না নারদ – লক্ষ্মী সমুদৰ্কনয্া, ৈদতয্রা সমব্েন্ধ তার ভাই। আগামীকাল রাখীপূ িণর্মা। বিলেক রাখী বাঁধেত লক্ষ্মী
অবশয্ই েযন আেস।’ পৰ্ভুর িনেদর্শ িনেয় নারদ যাতৰ্া করেলন ৈবকেন্ঠর িদেক।
                                                                 ু
                                                         ******

মা লক্ষ্মী মাঝরােত হঠাত্ ঘুম েভেঙ্গ েদখেলন পােশ নারায়ণ েনই। ভাবেলন হয়েতা বাথরুেম েগেছন। িকন্তু
অেনকক্ষণ অেপক্ষা করার পরও িতিন িফরেলন না। তখন িবছানা েছেড় উেঠ অনয্ ঘরগ‌ুেলা েদখেলন, বাইের
বাগানটায় খুঁজেলন। না, েকাথাও েনই িতিন। িক হল? লক্ষ্মী ঘাবেড় েগেলন। অেনক উেল্টাপাল্টা িচন্তা এল মাথায়।
ভাবেলন, ‘সব্ামীেক এতিদেনও িচনেত পারলাম না। িতিন েকমন সব্ভােবর ! রােত আমােক েছেড় আবার অনয্ কােরা
কােছ েগেলন না েতা? আিম সমুদৰ্-মন্থন েথেক যখন উঠলাম, তখন কত বড় বড় মুিন ঋিষ েদবতারা সার িদেয়
দাঁিড়েয়িছেলন আমার বরমালয্ পাবার জনয্। আিম তােদর কাউেক পাত্তা না িদেয় মনেমাহন মদনেমাহন রূপ েদেখ
িবষ্ণর গলায় মালা িদলাম। আর এখন তাঁর এই বয্াভার ! আিম েজেগ না েগেল জানেতই পারতুম না। কখন িফের
    ু
এেস পােশ আবার টুপ কের শ‌ুেয় পড়ত। আিম আর ঘুমুিচ্ছ না। এই পাহারায় বসলু ম। িফের আসু ক একবার। তখন
একটা েহস্তেনস্ত করেবা।’

                                                 ু
লক্ষ্মী বৃ থাই বািক রাত অেপক্ষায় রইেলন, িবষ্ণ িফরেলন না। পরিদনও না। সকাল হেতই লক্ষ্মী সম্ভাবয্ সকল
জায়গায় সন্ধােনর জনয্ েলাক পাঠােলন। িনেজ ৈবকেন্ঠর সব আড্ডাগ‌ুিল খুঁেজ েদখেলন। না, েকাথাও িবষ্ণেক পাওয়া
                                                   ু                                        ু
েগল না। িঠক েসিদনই আবার নারদ ৈকলােস েগেছ। স্নানাহার ভুেল লক্ষ্মী সারািদন উেদব্েগর মেধয্ কািটেয়
সন্ধয্ােবলায় নারেদর পৰ্তয্াবতর্েনর পৰ্তীক্ষায় রইেলন।

যথাসমেয় েদবিষর্ বীণাহােত ‘নারায়ণ’ ‘নারায়ণ’ করেত করেত মা লক্ষ্মীর সকােশ উপিস্থত হেলন। একটু আেগই
বিলর রাজদব্াের পৰ্ভুেক দশর্ন কের এেসেছন। িতিন ঘটনা সবই জােনন। িকন্তু এমন ভাণ করেলন েযন িকছু ই
জােনন না। তাঁর সব্ভাবই হল মেন মেন পয্াঁচ কষা আর ফিন্দ িফিকর েবর করা। লক্ষ্মীেক েদেখই তাঁর মেনর অবস্থা
বুেঝ েগেলন। লক্ষ্মী িকছু বলার আেগই তাঁর স্তব শ‌ুরু কের িদেলন –
                      যা শৰ্ীঃ সব্য়ং সু কিতনাং ভবেনষব্লক্ষ্মীঃ পাপাত্মনাং কতিধয়াং হৃদেয়ষু বুিদ্ধঃ।
                                         ৃ                                 ৃ
                                   ু
                    শৰ্দ্ধাসতাং কলজন পৰ্ভবসয্ লজ্জা তাং তব্াং নতাঃ স্ম পিরপালয় েদিব িবশব্ম্।।

                                                       19
                                                                                                        অঙ্কুর, ২০১১ 


 (িযিন পুণয্াত্মার ঘের সব্য়ং লক্ষ্মীরূেপ, পাপীেদর ঘের অলক্ষ্মী বা দিরদৰ্তারূেপ, শ‌ুদ্ধঅন্তঃকরণীেদর হৃদেয় বুিদ্ধরূেপ,
 সত্পুরুষেদর মেধয্ শৰ্দ্ধারূেপ এবং কলীনেদর মেধয্ লজ্জারূেপ িনবাস কেরন, েসই িবশব্পািলনী েদবীেক নমস্কার।)
                                         ু

নারদেক েদেখ লক্ষ্মীর বুেক বল এল। বলেলন, ‘এই িবপেদর িদেন, বাবা, একমাতৰ্ তুিমই আমার ভরসা। কাল
মাঝরাত েথেক আমােদর পৰ্ভু িনরুেদ্দশ। সারািদন কত েখাঁজাখুঁিজ করলাম, িকন্তু সন্ধান েপলাম না। এখন তুিম
এেসছ। আিম জািন, তুিম িঠক খুঁেজ েবর করেত পারেব পৰ্ভুেক’। তারপর িনেজর সেন্দেহর কথা বলেলন। িজেজ্ঞস
করেলন, ‘তু িম িক জােনা, কােরা কােছ যান নািক িতিন?’ তারপেরই বলেলন, ‘আমার সেন্দেহর কথা েযন আর
কাউেক েবােলা না, পৰ্ভুেক েতা নয়ই। তুিম আবার পৰ্ভুর যা ভক্ত !’

নারদ েদখেলন এই সু েযাগ। পৰ্ভুর মুিক্তর বয্বস্থা করা হেব, আর মা লক্ষ্মীেকও েশখােনা পড়ােনা যােব। বলেলন,
‘মা, অপরাধ েনেবন না। এতিদন ঘর-সংসার করেলন আর সব্ামীেক িক কের বেশ রাখা যায় েসই েকৗশলটা জানা
হল না? আপনার সেন্দেহর েকান কারণ েনই - পৰ্ভু আপনার বেশই আেছন। িকন্তু তাঁর েনালাটা বেশ েনই – তা
জােনন? আপিন িদেনর পর িদন শাকচচ্চিড়, ছয্াঁচ্ড়া আর পান্েস েঝাল-ভাত খাইেয় পৰ্ভুর েনালািট চট্েক িদেয়েছন।
এই অবস্থায় যিদ েকাথাও িফৰ্েত ছাপ্পান্ন েভাগ পাওয়া যায় তেব েনালা শক্শক্ করেব না? আমােদর পৰ্ভুর হেয়েছ
তাই। যিজ্ঞবাড়ীেত ভরেপট ভালমন্দ েখেয় বর িদেয় ভক্ত বিলরাজার হােত বন্দী হেয়েছন িতিন।’ এরপর লক্ষ্মীেক
িবশেদ ঘটনার িববরণ িদেলন।

তারপর িবষ্ণর িনেদর্শমত নারদ লক্ষ্মীেক বলেলন বিলরাজার কােছ িগেয় পৰ্ভুেক ছািড়েয় আনেত। লক্ষ্মী হেলন বিলর
            ু
পাতােনা েবান। ইেন্দৰ্র ভেয় অসু েররা যখন সমুেদৰ্র িভতর লু িকেয় িছল তখন তারা সমুদৰ্েকই িপতা বেল েমেন
েনয়। আর লক্ষ্মীও সাগরকনয্া, সমুদৰ্ মন্থেনই তাঁর উদ্ভব। নারদ লক্ষ্মীেক একিট রাখী িদেয় বলেলন পাতােল িগেয়
েসিট বিলরােজর হােত েবঁেধ িদেত। তারপর বিল যখন পৰ্তুয্পহার িদেত চাইেব তখন পৰ্থেম তােক পৰ্িতশৰ্ুিতবদ্ধ
কিরেয় পৰ্ভুর মুিক্ত চাইেত হেব। যাইেহাক, নারেদর এই কট-েকৗশেল িবষ্ণর মুিক্ত হল। তখন েথেকই মা লক্ষ্মী
                                                        ূ              ু
পৰ্িতজ্ঞা করেলন পৰ্ভুর রসনা তৃিপ্তর বয্াপাের িতিন আর কখনই অবেহলা করেবন না !

                                     ******

       ু
কথকঠাকর বলেলন, ‘আমােদর মা জননীেদর ভালমন্দ রান্নার কায়দািট অজানা
নয়।’ এবার তাঁর উপেদশ, ‘যখনই েদখেব েখেয়েদেয় পিতেদবতািটর মুেখ তৃিপ্তর
ছাপ তখন কথািট পাড়েব – ‘ওেগা শ‌ুনেছা, এবাের পূ েজার সময় একেজাড়া
কানপাশা চাই িকন্তু – নতুন িডজাইেনর !’ পিতেদবতার মুেখর ‘হাঁ’ ‘হয্াঁ’ হেত
েবশী েদরী হেব না। আর পিতেদর পৰ্িত তাঁর উপেদশ, ‘মা জননীেদর কােজর
                  ু
কদর করেব। শৰ্ীিবষ্ণর মত িবপেদ পড়েল তারাই িকন্তু উদ্ধার করেব।’

নারদ এতক্ষণ কথকতায় মেজ িছেলন। খুশীেত ডগমগ। মেন মেন বলেলন, ‘বৃ দ্ধ
বয্াসেদব সব কািহনী িলেখ না েগেল এসব কথা েকউ মেন রাখেতা না। পৰ্ভু, মা
লক্ষ্মী আর আমার কথা েকউ জানত না এতযু গ পের। এখন কথকতার আসর
েছেড় আবার যাতৰ্া কির, মতর্য্েলাকভৰ্মণ অেনকটাই বাকী আেছ’।

‘নারায়ণ, নারায়ণ!’

                                                      ******


                                                         20
                                                                                                         অঙ্কুর, ২০১১ 

                                                   সাধর্শতবেষর্
                                                       পৰ্দীপ




দু জেনরই আিবভর্াব েদড়েশা বছর আেগ। একজেনর সাধারেণর কােছ পিরচয় েদওয়ার পৰ্েয়াজন হয় না, তাঁেক
আমরা ভােলাভােবই িচিন। আর অনয্জেনর শূ নয্ েথেক পূ ণর্তার সাধনা িদেয় পিরচয় করােত হয়। একজেনর কােছ
িছল ভাবেলােকর কােবয্র েঝারা, আর অনয্জেনর হােত েচনা-অেচনা িজিনষেক লয্াবেরটিরেত রসািয়ত কের
সাজেগােজ েমাড়া, বােক্স েপারা। পৰ্থমজন ৈবরাগী-বাউেলর আখড়ায় আেলাড়ন েতােলন, আর িদব্তীয়জন মানু েষর
হােত যেন্তৰ্র হাতল ধিরেয় সব্চ্ছলতার সাধনা কেরন। পৰ্থমজন ছন্দ আর সু েরর কারবারী, িদব্তীয়জন নানা রেঙর,
                                                                     ু
নানা রূেপর রসায়েনর বয্াপারী। একজন রবীন্দৰ্নাথ, আর একজন পৰ্ফল্লচন্দৰ্। একই বছের জন্ম। রিব কিব িতন
মােসর বড় পৰ্ফল্ল িবজ্ঞানীর েচেয়। আচাযর্ পৰ্ফল্লচন্দৰ্ রায় - িবজ্ঞানতপসব্ী, ছাতৰ্দরদী িশক্ষক, িশেল্পােদয্াগী, িহন্দু
                ু                           ু
                         ু
রসায়েনর উদ্ধারকতর্া, িচরকমার, সমাজেসবী, িহন্দু গেবর্ গিবর্ত েদশেপৰ্মী।

পৰ্ফল্লচেন্দৰ্র জন্ম ১৮৬১ সােলর ২রা আগষ্ট, অিবভক্ত বাংলার যেশাহর েজলার (বতর্মান বাংলােদেশর খুলনার) রাড়লী
     ু                                                                                                   ু
গৰ্ােম। েছাটেবলায় চত    ু থর্ েশৰ্ণী পযর্ন্ত পড়েলন গৰ্ােমর স্কেল। তারপর েকালকাতার েহয়ার স্কেল ভিতর্ হন ১৮৭১
                                                             ু                            ু
                                            ু
সােল। ১৮৭৬-এ েগেলন অয্ালবাটর্ স্কেল। ছাতৰ্জীবেন দু বছর িতিন সংস্কৃত, লয্ািটন, গৰ্ীক ও ফরাসী ভাষা েশেখন।
১৮৮০ েত িগলকৰ্াইষ্ট স্কলারিশপ িনেয় িবেলত েগেলন িবজ্ঞান পড়েত। এিডনবরা িবশব্িবদয্ালয় েথেক িবজ্ঞােন স্নাতক
হেলন। ১৮৮৭ েত গেবষণা কের D Sc উপািধ পান। ১৮৮৯ সােল িবেলত েথেক েকালকাতায় পৰ্তয্াবতর্ন। এই
সমেয়ই িতিন বৰ্াহ্মসমােজর ধািমর্ক িবচারেক েযাগয্ েমেন িনেয় এই ধমর্ গৰ্হণ কেরন।

রামেমাহন রায় বুেঝিছেলন িবজ্ঞানই জািতর উন্নিতর পথ। িতিন ফৰ্ািন্সস েবকেনর িচন্তাধারােক মানেতন। েরেনসাঁ
যু েগর বিঙ্কমচন্দৰ্, মেহন্দৰ্লাল, রােমন্দৰ্সু ন্দর – ডারউইেনর িববতর্নবাদ এঁেদর সিঠক বেল মেন হয়িন। ঊিনশ শতেকর
বাংলার িচন্তািবদ্েদর এটা িবশব্াস হয়িন েয েকান এক েকন্দৰ্ীয় কারণ ছাড়া সৃ িষ্ট সম্ভব বা েকান মহত্ উেদ্দশয্ না
থাকেল জীবজগত্ চলেত পাের। এটা হয়েতা ভারতীয় অৈদব্তবােদর বা ফৰ্ািন্সস েবকেনর ‘িডভাইন মাইন্ড’এর ধারণার
পৰ্ভাব। এই আবেহ মেহন্দৰ্লাল সরকার ১৮৭৬ সােল বয্িক্ত ও সমাজ জীবেন িবজ্ঞােনর চচর্া অতয্ন্ত পৰ্েয়াজন েভেব
‘Indian Association for the Cultivation of Science’ নােম এক পৰ্িতষ্ঠান ৈতরী করেলন। এর মাধয্েম
িবদব্ত্সমাজ িবজ্ঞানচচর্ায় উদব্ু দ্ধ হল। জগদীশচন্দৰ্ বসু ও পৰ্ফল্লচন্দৰ্ তখন স্কেল উঁচু ক্লােসর ছাতৰ্। িবজ্ঞানচচর্ার এই
                                                                 ু             ু
িবকাশশীল পিরেবেশর পৰ্ভাব তাঁেদর উপরও পেড়িছল।

                                                         21
                                                                                                       অঙ্কুর, ২০১১ 

িহন্দু রসায়নিবদয্ােক িবজ্ঞানী পৰ্ফল্লচেন্দৰ্র আেগ েক জানত? েসিট িহন্দু শােস্তৰ্র গ‌ুহার অন্ধকাের অবেহলায় অবরুদ্ধ
                                  ু
                                                                      ৃ
িছল। এই িবদয্ােক অন্ধকার েথেক আেলােক এেন দৃ শয্মান করার কিততব্ েতা একটা েলােকরই। নীরব, েজদী,
উেস্কাখুেস্কা চুলদািড়ওয়ালা, বাঙ্গােল ধু িতপরা, নারেকাল-েছালা-শশা-মুিড়র ভক্ত একটা েলাক, যাঁেক েদেখ েবাঝাই
েযত না এতবড় ৈবজ্ঞািনক িতিন। জিড়বুিট, গাছপালা, েশকড়বাকড়, পাঁকপাথর, হাড়িপঞ্জরেক লয্াবেরটিরর সম্পদ
কের জগত্েক চমেক িদেয়েছন। ধনয্ তাঁর সাধনা, ধনয্ তাঁর িহন্দুয়ািন আর বাঙ্গালীয়ানা।

ইউেরােপ যখন িশল্পিবপ্লব ঘেটেছ, ভারতবেষর্ তখন বা তারও আেগ ৈবিদক সভয্তার সু মহান ঐিতহয্ থাকা সেত্তব্ও
িবজ্ঞান-পৰ্যু িক্তিবপ্লব ঘটল না েকন? অেনেক বেলন ভারতবেষর্ মুসলমান আকৰ্মণই এর জনয্ দায়ী। িকন্তু পৰ্ফল্লচন্দৰ্ ু
বেলন, জাতপােতর অিতিরক্ত কড়াকিড় িবজ্ঞানচচর্ােক রুদ্ধ কের েদয়। েবৗদ্ধযু েগর পর বৰ্াহ্মণয্বােদর পুনজর্াগরণ হল।
বৰ্াহ্মণেদর সম্মান, পৰ্তাপ, পৰ্িতপিত্ত বাড়ল। তারা মড়া ঘাঁটাঘাঁিটর িবরুেদ্ধ। অস্পৃশয্তা তখন তুেঙ্গ। পরীক্ষা-িনরীক্ষায়
িনস্পৃহ হেয় তারা িবজ্ঞানেক দূ ের সরাল। অনু সিন্ধত্সা থাকল না। ‘িক’ ও ‘েকন’ িজজ্ঞাসা করার মন পাওয়া েগল
না। িবজ্ঞান-পৰ্যু িক্তর চচর্া উেঠ েগল। ভারতবেষর্ বেয়ল, িনউটন, েডকাটর্ জন্মােনার সম্ভাবনা হািরেয় েগল।

                                                                              ু
জাতপাত েছাঁয়াছু ঁিয়র েবড়ােক েঝঁিটেয় িবেদয় কের িবপ্লবী মানিসকতার পৰ্ফল্লচন্দৰ্ পৰ্াচীন ভারতীয় শাস্তৰ্ েঘঁেট
িহন্দুেদর রসায়ন িবজ্ঞান উদ্ধার করেলন। সংস্কৃেতর মােন বুিঝেয় িদেত এিগেয় এেলন পিন্ডত নবকান্ত কিবভূ ষণ।
আচাযর্ রচনা করেলন পৰ্াচীন ভারেতর রসায়নিবদয্ার ইিতহাস – A History of Hindu Chemistry। এই
                                                        ু
অসামানয্ গৰ্ন্থিট আজও আমােদর েগৗরেবর। এেত পৰ্ফল্লচন্দৰ্ েদিখেয়েছন ভারতবষর্ এই িবদয্ায় িবেশব্ পথপৰ্দশর্ক।
আলেকমীর জ্ঞােনর উত্পিত্ত ভারতবেষর্। বহু পৰ্াচীন গৰ্ন্থ যথা অষ্টাঙ্গহৃদয়, রসরত্নাকর, রসাণর্ব, রসরত্নসমুচ্চয়,
রেসন্দৰ্িচন্তামিণ ইতয্ািদ েঘঁেট িতিন ভারতবেষর্র আয়ু েবর্দ রসায়েনর যু গিববতর্েনর একটা স্পষ্ট ছিব তুেল ধেরেছন।
চরক, সু শৰ্ুত, েভল, জাতুকণর্, পরাশর, হারীত, ক্ষারপািন, মাধবাকর, বাগ্ভট, চকৰ্পািন, ঢুন্ঢুকনাথ, নাগাজুর্েনর কিত
                                                                                                           ৃ
খুঁেজ েবর কের িতিন এইসব যু েগর িববরণ েদন।

                                ু
১৮৮০-র দশেক ছাতৰ্াবস্থােতই পৰ্ফল্লচন্দৰ্ এিডনবরা িবশব্িবদয্ালেয়র েকিমকয্াল েসাসাইিটর সহসভাপিত। েসই পেদর
েদৗলেত িবেদেশ অেনক রাসায়িনক কারখানা ঘুের বুঝেলন েয েদেশর পৰ্গিত িবজ্ঞান এবং িশেল্পর উপরই
িনভর্রশীল। ভারত এ বয্াপাের অেনক িপিছেয়। মাথায় এল েদশবাসীেক চাকরীর েমাহজাল েথেক মুক্ত কের বয্বসা-
                                         ৃ
বািণেজয্ উদব্ু দ্ধ করার এবং বাংলার পৰ্াকিতক সম্পদেক রসায়ন ও িশেল্পর কােজ লাগােনার ইচ্ছা। তাঁর সারা
কমর্জীবন িতিন েসই সাধনাই কের েগেছন। িবেলত েথেক িফের এেস িতিন িবিলিত েপাষাক েছেড় সব্েদশী ধু িত
চাদর ধরেলন। তখন েথেকই িতিন সব্েদশী িবজ্ঞানী। ইংেরজরা আমােদর পরাধীন কের েরেখেছ বেল ইংেরজী
েকতার েপাষাক-পিরচ্ছদ তাঁর মেন জব্ালা ধরােতা।

বাংলায় বৰ্াহ্মসমাজীরা বুিদ্ধজীবীর এক বড় েগাষ্ঠী উপহার িদেয়িছল - তাঁরা েরেনসাঁর পৰ্জ্জব্িলত মশালটা বহন কের
                     ু
িনেয় চেলিছেলন। পৰ্ফল্লচন্দৰ্ িছেলন েসই েগাষ্ঠীর একজন। যা হেচ্ছ েহাক, েয যা করেছ করুক, আিম িবজ্ঞান িনেয়ই
থািক – এই মেনাভাবেক সবর্সব্ কের সমাজ েথেক িবিচ্ছন্ন হনিন িতিন। িবজ্ঞানেক গেবষণাগােরর রুদ্ধদব্ার েথেক মুক্ত
কের িনেজর হােত িশল্প বািণেজয্র েগাড়াপত্তন কের সমােজর সমৃিদ্ধর, েদেশর পৰ্গিতর পথিনেদর্শ কের েগেছন।

                                          ু
১৮৯০ সােল কলকাতায় ৯১ নং আপার সাকর্লার েরােডর ভাড়া বাড়ীেত িনেজর মাস মাইেন ২৫০ টাকা সমব্ল কের
    ু
পৰ্ফল্লচন্দৰ্ রসায়ন িশেল্পর পত্তন করেলন। সালিফউিরক, সাইিটৰ্ক, নাইিটৰ্ক ইতয্ািদ এিসড এবং ফসফরােসর েযৗগ
                    ৃ                        ু
ৈতরী করেলন পৰ্াকিতক উপাদােনর িবিকৰ্য়ায়। কেচা েলাহা আর সালিফউিরক এিসেডর িবিকৰ্য়ায় হীরাকস, বাজােরর
েলবু েথেক সাইিটৰ্ক এিসড আর পাহােড় পাওয়া সািজমািট েথেক েসাডা ৈতরী হল তাঁর হােত। িকন্তু িবকৰ্ী করেত
িগেয় েদখেলন িজিনষ ৈতরীর খরচ েবশী পড়েছ, বাজাের এত দাম চলেব না। বদলােলন রীিত। জীবজন্তুর হােড়র
ওপর নজর েগল। কসাইখানা েথেক কম দােম গরু ছাগল েভড়ার হাড় িকেন শ‌ুিকেয়, পুিড়েয় আর সালিফউিরক
এিসেডর সােথ িবিকৰ্য়া কের ৈতরী হল সু পার ফসেফট অফ লাইম। জিমর উবর্রতা বৃ িদ্ধেত যা নতুন িদগন্ত খুেল
                                                   22
                                                                                                         অঙ্কুর, ২০১১ 

িদল। অপিরেশািধত যবক্ষার কমদােম িকেন েশাধন কের পয্ােকটস্থ করা চলল। এর পর আর িপছন িফের তাকােত
হয়িন।

১৮৯২ সােল ৭০০ টাকা পুঁিজ িনেয় পৰ্ফল্লচন্দৰ্ েবঙ্গল েকিমকয্াল এন্ড ফামর্ািসউিটকয্াল ওয়াকর্স্ স্থাপনা করেলন।
                                          ু
েপৰ্িসেডন্সী কেলেজর িবজ্ঞােনর অধয্াপক হেলন িশেল্পােদয্াগী। এই পৰ্িতষ্ঠােনর ৈতরী এটিকনস্ িসরাপ, কালেমঘ
          ু
বিড়, কিচর্র আরক ও সার, বাসক িসরাপ, েজায়ােনর আরক তখনকার িদেনর পৰ্িতিষ্ঠত িচিকত্সকেদর
পৃষ্ঠেপাষকতায় ঘের ঘের আদৃ ত হল। তাঁর সু েযাগয্ ছাতৰ্রা গ‌ুরুর কেমর্াদয্েম আকষ্ট হেলন। পৰ্থেম কািতর্ক েবাস,
                                                                                ৃ
পের রাজেশখর বসু (সািহিতয্ক পরশ‌ুরাম), সতীশচন্দৰ্ দাশগ‌ুপ্ত, ডাঃ হীেরন্দৰ্নাথ দত্ত, এ েক হাজরা, সতীশচন্দৰ্ েসন,
সেতয্ন্দৰ্নাথ বসু , জগদীন্দৰ্নাথ লািহড়ী, েমঘনাদ সাহা পৰ্ভৃিত এই কমর্যেজ্ঞ সািমল হন। ১৯০১ সােল পৰ্িতষ্ঠানিট
‘েবঙ্গল েকিমকয্াল’ নােম এক িলিমেটড েকাম্পানীেত রূপান্তিরত হল।

                   ু
িশেল্পােদয্াগী পৰ্ফল্লচন্দৰ্ যন্তৰ্ ৈতরীেত হাত িদেলন পৰ্েবাধচন্দৰ্ চেট্টাপাধয্ােয়র পরামেশর্। অিক্সেজন যন্তৰ্, রাসায়িনক
তুলাযন্তৰ্, গয্াস বানর্ার, ফায়ার িকং (আগ‌ুন েনভােনার যন্তৰ্), সািজর্কয্াল যন্তৰ্পািত, আলকাতরার পাতনযন্তৰ্, ফটিকিরর
উত্পাদন যন্তৰ্, উচ্চমােনর সালিফউিরক এিসড প্লয্ান্ট ইতয্ািদ ৈতরী শ‌ুরু হল। ১৯২৯ সােল িতিন ৈজব রসায়েন
মেনােযাগ িদেলন। পৰ্াণীেদেহর ওভাির, েটিষ্টস, থাইরেয়ড, িপটুইটাির গ্লয্ান্ড েথেক িনযর্াস িনেয় ৈতরী হল িবিভন্ন
হরেমান। ১৯৩৪-এ উন্নত মােনর গােয় মাখা সাবান, কাপড়কাচা সাবান, জীবাণু দূ র করার তরল সাবান, দািড়
কামােনার সাবান, সু গন্ধী েকশেতল, টয্াল্কম পাউডার, েফস পাউডার ইতয্ািদ পৰ্সাধন সামগৰ্ী বাজাের আনেলন।
উত্পন্ন দৰ্েবয্র তািলকায় িফনাইল এবং নয্াপথিলন যু ক্ত হল। আচােযর্র কমর্সাধনায় উদব্ু দ্ধ হেয় আেরা অেনক বাঙালী
নতুন নতুন িশল্প ও বািণেজয্র পত্তন করেলন।

েবঙ্গল েকিমকয্ােলর বয্বসােক পৰ্ফল্লচন্দৰ্ মুনাফা েলাটার েকেন্দৰ্ পিরণত করেত চানিন। গ‌ুরু যিদ দিক্ষণা আর েভট
                                 ু
েনবার চক্কের পেড় যায় তেব সব ইজ্জত্ যােব আর েচলারাও হয়েতা ‘সব্েস বড়া রূৈপয়া’ সূ তৰ্টােক ধের ‘পহ্েল
ৈপসা বাদ েম কাম’-এর ভজনা শ‌ুরু করেব। তােত িশল্প-বািণেজয্র উেদ্দশয্ আদশর্ভােব রূপািয়ত হত না। েসই
েভেবই এই অবস্থান। তখনকার বঙ্গভঙ্গ আেন্দালেনর েপৰ্িক্ষেত এই সব্েদশী বয্বসায় আচাযর্ সেচতন েথেকেছন লাভ
না বাড়ােত। েকাম্পানীর েবাডর্ তা সব্ীকার কেরিন। এমনিক েবােডর্ থাকা তাঁর ছাতৰ্ েমঘনাদ সাহাও না। আচাযর্
িনেজর নীিতেত অটল েথেক েবাডর্ েথেক পদতয্াগ কেরেছন। পদতয্াগ পেতৰ্র েশেষ িলেখেছন – “An evicted and
homeless stranger in the land (i.e., Bengal Chemical) he once called his own.” অিত আদেশর্র আেবেশ
লক্ষ্মীেক অবেহলা করার এই পৰ্বণতায় শািন্তিনেকতেন রবীন্দৰ্নাথও টাকা-পয়সার বয্াপাের অসু িবধায় পেড়িছেলন। েস
অবস্থায় মহাত্মা গান্ধীর সাহাযয্ শািন্তিনেকতনেক বাঁচায়। িকন্তু েস েক্ষতৰ্টা িছল আলাদা। আচােযর্রটা িছল অথর্
উপাজর্েনর েক্ষতৰ্। আচাযর্ েসখােন সবাইেক সব্াধীনতা িদেয় িনেজ সের আেসন। িনেজর আদশর্ বা নীিত েথেক িতিন
িবচুয্ত হেত চানিন।

                                        ু
অধয্াপনা এবং িশেল্পােদয্ােগর সােথ পৰ্ফল্লচন্দৰ্ উচ্চমােনর েমৗিলক গেবষণাও চািলেয় িগেয়িছেলন। েদেশ িবেদেশ
                                                                 ৃ
িবিভন্ন ৈবজ্ঞািনক জানর্ােল পৰ্কািশত তাঁর গেবষণা িবদব্জ্জেনর সব্ীকিত ও পৰ্শংসা লাভ কেরেছ। ১৯২৪ সাল েথেক
িতিন ইিন্ডয়ান েকিমকয্াল েসাসাইিটর পৰ্িতষ্ঠাতা সভাপিত। এই েসাসাইিটর জানর্ােল তাঁর েলখা অেনক পৰ্বন্ধ
পৰ্কািশত হেয়েছ।

                                                                                        ু
১৮৮২ সােল ছাতৰ্াবস্থায় ২১ বছর বয়েস এিডনবরা িবশব্িবদয্ালেয়র এক পৰ্বন্ধ পৰ্িতেযািগতায় পৰ্ফল্লচন্দৰ্ ‘India
before and after mutiny’ নােম এক সমােলাচনা মূ লক অিগ্নগভর্ পৰ্বন্ধ েলেখন। তােত ভারতীয়েদর েশাষণ কের
িবৰ্েটেনর সম্পদ বৃ িদ্ধ, লবণ আইেনর অমানু িষক পৰ্েয়াগ আর ইংেরজরা পূ বর্তন ভারতীয় শাসেকর সেঙ্গ েয শঠতা
কের তার সমােলাচনা কেরন িতিন। ইংেরেজর িবেরািধতা িছল বেল পৰ্িতেযািগতায় এিট পুরস্কার পায়িন। িকন্তু এক
ইংেরজ পৰ্কাশনা সংস্থা এর কদর করল অনয্ভােব। তারা একটা পুিস্তকা আকাের এই বড় পৰ্বন্ধটা েছেপ িবেলাল
                                                    23
                                                                                                  অঙ্কুর, ২০১১ 

সবর্তৰ্। েলখেকর নাম িদল – By an Indian student. েসই কম বয়েস ইংেরেজর েদেশ বেস তাঁর কলম েথেক িক
রকেমর িনভর্ীক িনেঘর্াষ েবিরেয়িছল তার একটু নমুনা।

“The lamentable condition of India at present is due to England’s culpable neglect of and gross
apathy to the affairs of that England has hitherto failed grievously, failed in the discharge of her
sacred duties to India. It is you, the rising generation of Great Britain and Ireland, that we look for
the inauguration of a more just, generous and humane policy to India – a policy which will not
seek a justification in such platitude as inevitable course ‘non-possumoss’ and eternal fitness of
things but are whose sole issue will be a clear union between India and England. In you are
centered all our hopes.” (By an Indian student).

     ু
পৰ্ফল্লচন্দৰ্ সরাসির রাজৈনিতক আেন্দালেন েযাগ েদনিন। িকন্তু অেনক েক্ষেতৰ্ই েনতারা তাঁেক রাজৈনিতক মেঞ্চ েটেন
িনেয় েগেছন। ১৯১৯ সােল েফবৰ্ুয়ারী মােস টাউনহেল এক সভায় রাওলাট আইেনর িবেরািধতা কের িচত্তরঞ্জন
দােশর সােথ িতিন েজারদার বক্তবয্ রােখন। জাতীয় জীবেন তখন িবপদ এেসেছ। অমৃত বাজার পিতৰ্কা িলখল –
“So great was the danger to our national life that even Dr. P.C. Roy left his work in laboratory and
joined the voice of protest against the obnoxious Bill.” পৰ্তয্ক্ষ রাজনীিত েথেক দূ ের থাকার একটা কারণ
হল িতিন চানিন ইংেরজ েকান অজুহােত তাঁর িশক্ষােক্ষেতৰ্র, িশেল্পােদয্ােগর এবং েলাকিহেতর কাজেক আটেক িদেয়
সব্েদেশর ক্ষিত করুক। তেব সব্রােজর জনয্ িতিন সবসময়ই িছেলন েসাচ্চার। বেলেছন – “Science can afford to
wait, but Swaraj cannot.” ময্ােঞ্চষ্টার গািডর্য়ান পিতৰ্কায় এক পৰ্বেন্ধ েলখা হয়, ‘যিদ গান্ধী েকান পৰ্কাের আেরা
                                                                                     ু
দু িট িপ িস রায় সৃ িষ্ট করেত পারেতন (মােন উত্তর ও দিক্ষণ ভারেত; েকননা পূ েবর্ পৰ্ফল্লচন্দৰ্ এবং পিশ্চেম গান্ধী
িনেজই িছেলন) তেব েদশ এক বছেরই সব্রাজ েপেয় েযত।’

মহাত্মা গান্ধী িখলাফত্ আেন্দালেনর সমথর্ক। তাঁর সব্েদশীয়ানার সােথ একমত হেলও আচাযর্ আিলগেড় জািময়া
িমিলয়া ইসলািময়ার সমাবতর্ন অনু ষ্ঠােন গান্ধীর নাম না কের কেঠারভােব তাঁর নীিতর িবেরািধতা কেরন। বেলন–
“We must not allow our loyalty to the mother country to be swamped by the wave of
extraterritorial patriotism. India must not be a spoke in the Khilafat wheel gyrated from Istanbul.
……… I am swadeshi and swadeshi is my religion……”

              ু
ছাতৰ্দরদী পৰ্ফল্লচন্দৰ্ সব্ভােব িছেলন েছেলমানু ষ। তাঁর ছাতৰ্ িদলীপ রায় স্মৃিতচারণায় িলেখেছন েয িতিন েকিমিষ্টৰ্
পছন্দ করেতন না। আচােযর্র সেঙ্গ েথেক িবষয়টায় উত্সাহ জােগ। েশষ অবিধ ৭৭% নমব্র েপেয় িতিন তৃতীয় বেষর্
                                ু
পৰ্থম হন। খবরটা শ‌ুেন পৰ্ফল্লচন্দৰ্ লাফ িদেয় িদলীপ রােয়র উপর চেড় পড়েলন, তাঁর সরু পা দু িট ছােতৰ্র েকামর
                              ু                                   ু
িঘের ধরল। একসময় পৰ্ফল্লচন্দৰ্ পৰ্ায়ই জগদীশ বসু র আপার সাকর্লার েরােডর বািড়েত িবেকেল চা েখেত েযেতন।
অবশয্ পরবতর্ীকােল চােয়র অপকািরতা উপলি কের চা পানেক িবষপান বেল িনেজ চা পিরহার কেরেছন এবং
অনয্েদর তা করার উপেদশ িদেয়েছন। যাইেহাক, বসু পত্নী তাঁেক চােয়র সােথ জলখাবার েখেত িদেল ‘কাল সকােল
েছেলরা খােব’ বেল েস জলখাবার েবঁেধ বাসায় িনেয় আসেতন। একবার িবেলেত তাঁর সম্মােন েভাজ েদওয়া হেচ্ছ।
    ু
পৰ্ফল্লচন্দৰ্ থাকেত থাকেত হঠাত্ উধাও। েখাঁজ েখাঁজ। আওয়াজ শ‌ুেন সবাই বাথরুেমর সামেন জেড়া। দরজা বন্ধ
কের আর খুলেত পােরনিন িতিন। এমন মজার বয্াপার আেরা আেছ। িবেলেতর রাস্তায় টুিপওয়ালার স্টয্ােন্ড ছাতার
বাঁট েলেগ নীেচ টুিপর ছড়াছিড় হেয় েগল। েদাকানদােরর েচাখমুখ েদেখ িতিন ঘাবেড় েগেলন। েশেষ নগদ নারায়ণ
িদেয় দু েটা টুিপ িকেন েদাকানদারেক শান্ত করেলন। তাঁর ছাতৰ্ চারুচন্দৰ্ ভট্টাচাযর্ িলেখেছন, িনেজর েকােটর কাপেড়ই
কেলেজর েবয়ারার েকাট বািনেয় িদেয়েছন। অধয্াপক আর েবয়ারা একই ধরেণর েকাট পের ক্লােস এল। সবাই
েদেখ হাঁ !

েসযু েগ দু িট মানু ষ েমধাবী বাঙ্গালী ছাতৰ্েদর খুব আকষ্ট কেরিছেলন। কাবয্-সািহেতয্র রবীন্দৰ্নাথ আর িবজ্ঞােনর
                                                       ৃ
পৰ্ফল্লচন্দৰ্। তাঁেদর মেধয্ সময় সময় অিভেযাগ-পৰ্তুয্ত্তেরর েকৗতুকপূ ণর্ মিসযু দ্ধ হত। এই ঘটনািট পরশ‌ুরাম অথর্াত্
    ু
                                                         24
                                                                                                     অঙ্কুর, ২০১১ 

সািহিতয্ক রাজেশখর বসু েক িনেয়। িতিন তখন েবঙ্গল েকিমকয্ােলর ময্ােনজার। এিদেক আবার গড্ডিলকা, কজ্জলী,
ভুশন্ডীর মােঠ িলেখ পৰ্িসদ্ধ। পৰ্ফল্লচেন্দৰ্র আশঙ্কা, তাঁর হােতগড়া এই রসায়নিবদিট িবজ্ঞানসরসব্তীর সাধনা েছেড়
                                 ু
পুেরাপুির সািহতয্সরসব্তীর ভজনা করেত শ‌ুরু না কেরন। এই িনেয় িবজ্ঞানগ‌ুরু আর সািহতয্গ‌ুরুর মেধয্ পতৰ্কলহ।

    ু
পৰ্ফল্লচন্দৰ্ রবীন্দৰ্নাথেক িলখেলন –
            …… সম্পৰ্িত েদিখেতিছ আপিন সতয্ সতয্ই আমার ক্ষিত কিরেত পৰ্বৃ ত্ত হইয়ােছন। “গড্ডিলকার” পৰ্থম
            সংস্করণ িবকৰ্য় হইয়া িগয়ােছ। িকন্তু যখন েদিখ সািহতয্সমৰ্াট সব্য়ং তাহার সমােলাচনায় পৰ্বৃ ত্ত হইয়ােছন,
            তখন অিচের পর পর আেরা হাজার কিপ েয িবকৰ্য় হইেব তিদব্ষেয় সেন্দহ নাই। েসিদন গৰ্ন্থকার
            পরশ‌ুরামেক বিললাম, এ পৰ্কার েসৗভাগয্ কদািচত্ েকােনা েলখেকর ঘিটয়া থােক। এখন তাঁহার মাথা না
            িবগড়াইয়া যায়। িতিন আমারই হােতর ৈতয়ারী একজন রাসায়িনক এবং আমার িনিদর্ষ্ট েকােনা িবেশষ কােযর্
            অেনকিদন যাবত্ বয্াপৃত। িকন্তু এখন িতিন বুিঝেলন েয িতিন সািহতয্েক্ষেতৰ্ও একজন “েকষ্টিবষ্টু ”। সু তরাং
            আমােক অসহায় রািখয়া তয্াগ কিরেত ইচ্ছুক হইেত পােরন।
                                                                                                         ভবদীয়
                                                                                                      ু
                                                                                            শৰ্ী পৰ্ফল্লচন্দৰ্ রায়
উত্তের শািন্তিনেকতন েথেক রবীন্দৰ্নাথ িলখেলন –
            বেস বেস Scientific American পড়িছলু ম, এমন সময় িচিঠর খােমর েকােণ িবশব্িবদয্ালেয়র
            িবজ্ঞানসরসব্তীর পদাঙ্ক েদখেত েপেয় সেন্দহ হল আমার হৃত্পদ্ম েথেক কাবয্সরসব্তীেক িবদায় কের িতিন
            সব্য়ং আসন েনেবন এমন একটা চকৰ্ান্ত চলেচ। …………

        আমার কথা যিদ বেলন – আপনার িচিঠ পেড় আিম অনু তপ্ত হইিন; বরঞ্চ মেনর মেধয্ একটু গ‌ুমর হেয়েচ।
        এমনিক ভাবিচ সব্ামী শৰ্দ্ধানেন্দর মেতা শ‌ুিদ্ধর কােজ লাগব, েয সব জন্মসািহিতয্ক েগালেমেল লয্াবেরটিরর
        মেধয্ ঢুেক পেড় জাত খুইেয় ৈবজ্ঞািনেকর হােট হািরেয় িগেয়েছন তাঁেদর েফর একবার জােত তুলব। আমার
        এক একবার সেন্দহ হয় আপিনও বা েসই দেলর একজন হেবন, িকন্তু আপনার আর েবাধ হয় উদ্ধার েনই।
        যাই েহাক আিম রস যাচাইেয়র িনকেষ আঁচড় িদেয় েদখেলম আপনার েবঙ্গল েকিমকয্ােলর এই মানু ষিট
        এেকবােরই েকিমকয্াল েগাল্ড নন, ইিন খাঁিট খিনজ েসানা।

        এ অঞ্চেল যিদ আসেত সাহস কেরন তাহেল েমাকািবলায় আপনার সেঙ্গ ঝগড়াঝাঁিট করা যােব। ইিত -
                                                                                             আপনার
                                                                                                  ু
                                                                              শৰ্ী রবীন্দৰ্নাথ ঠাকর

পৰ্ফল্লচন্দৰ্ ১৯০০ সােল এডুেকশন েসাসাইিট নােম এক সংস্থা পৰ্িতষ্ঠা কেরন। জন্মস্থান রাড়লীেত কেপাতাক্ষ তীের
    ু                                                                                ু
                               ু                                                 ৃ
৫০ িবেঘ জিমেত এক িবশাল স্কলভবন িনমর্াণ কেরন। ইচ্ছা িছল তাঁর দােন এক কিষিবদয্ালয় গড়ার, িকন্তু তা
বাস্তবািয়ত হয়িন। গৰ্ােম েগেল িশক্ষক ছাতৰ্েদর েডেক েডেক খাওয়ােনার বয্বস্থা করেতন, িশক্ষকেদর নতুন
জামাকাপড় ও টাকা িদেয় উত্সািহত করেতন। এ েযন িছল তাঁর এক বৰ্ত। সবাই তাঁর গৰ্ােম আসার অেপক্ষায়
থাকত। জীবেনর েশষ িদন পযর্ন্ত িনেজর জামাকাপড় েকেচ শ‌ুিকেয় ভাঁজ কের েরেখ ‘িনেজর কাজ িনেজ করা’
েশখােতন ছাতৰ্েদর। তাছাড়া িনেজর কােছ েরেখ িবজ্ঞান পড়ােনা েশখােনা েতা িছলই। আবার অেনক িবপ্লবী ছাতৰ্
পুিলেশর নজর এিড়েয় তাঁর আশৰ্েয় িদন কািটেয় েগেছ।

পৰ্াচীন িহন্দু রসায়েনর েগৗরবেক েয িবজ্ঞানী আকােশর উচ্চতায় তুেলেছন, েসই িতিনই িহন্দুর েগাঁড়ামীেক সেজাের
                                                                                   ু
আঘাত কেরেছন। বলেলন – ‘জাতপাত ভােঙ্গা, মানু েষর রেঙ্গ সবাইেক রােঙ্গা (রাঙ্গাও)।’ কলীনতােক তীবৰ্ ভাষায়
বয্ঙ্গ কেরেছন। িহন্দুেদর িনেজেদর মেধয্ অসবণর্ িবেয় করােক উত্সািহত কেরেছন। স্তৰ্ীিশক্ষার উেদয্াগ িনেয়েছন,
নারীকলয্াণ সিমিত কের নারীেদর সামািজক ও অথর্ৈনিতক উত্থান েচেয়েছন। সামািজক ভােব িপিছেয় পড়া িহন্দুেদর
                                                   25
                                                                                                     অঙ্কুর, ২০১১ 

অন্ধকার ভিবষয্ত্ আশঙ্কা কের বেলেছন, “ছু ত্মাগর্গৰ্স্ত উচ্চবেণর্র িহন্দুিদেগর অবজ্ঞা ও উদাসীনতার ফেল অবনত
েশৰ্ণীর েলােকরা দেল দেল মুসলমান ও খৃষ্টান ধমর্ গৰ্হণ কিরেতেছ। েকনই বা কিরেব না? ইসলাম ধেমর্ সাময্বােদর
পরাকাষ্ঠা িবদয্মান। (েয েকউ) ইসলাম ধমর্ গৰ্হণ কিরয়া সমস্ত সামািজক অিধকার অেনয্র সিহত সমভােব েভাগ
কের। …….. (খৃ ষ্টান হেল) খৃষ্টান িমশনারীরা তাহােদর িশক্ষা, িচিকত্সা ও ভাবী জীিবকা অজর্েনর যেথষ্ট সহায়তা
কেরন। …….. িহন্দুসমাজ েকবল পােয় েঠিলেত পাের, েকােল টািনয়া আিনবার শিক্ত তাহার নাই। …….. িহন্দু
                                     ৃ
জািত ধব্ংেসর পেথ চিলয়ােছ – েসব্চ্ছাকত আত্মহতয্া কিরেতেছ। এখনও যিদ আমােদর েমাহিনদৰ্া না ভােঙ্গ তাহা
হইেল ২০০/২৫০ বত্সেরর মেধয্ িহন্দুজািত ধরাপৃষ্ঠ হইেত িবলু প্ত হইেব।” (১৯২৫ খৃষ্টাে ফিরদপুর পৰ্ােদিশক
িহন্দুসভায় সভাপিতর আসেন আচােযর্র ভাষণ।)

৭২তম জন্মবািষর্কীেত আচাযর্ ঋিষেক জয়গােন মুখিরত করার মহাপুরুষেদর মেধয্ রবীন্দৰ্নাথও িছেলন। তাঁর বাণীর
উদ্ধৃিত িদেয় পৰ্বন্ধিট েশষ কির। “সংসাের জ্ঞানতপসব্ী দু লর্ভ নয়, িকন্তু মানু েষর মেনর মেধয্ চিরেতৰ্র িকৰ্য়া পৰ্ভােব
তােক িকৰ্য়াবান করেত পােরন েতমন মনীষী সংসাের কদাচ েদখেত পাওয়া যায়। আচাযর্ িনেজর জয়কীিতর্ স্থাপন
কেরেছন উদয্মশীল জীবেনর েক্ষেতৰ্ – পাথর িদেয় নয়, েপৰ্ম িদেয়। আমরাও তাঁর জয়ধব্িন কির।”

যাঁেদর বই ও েলখা েথেক ঋণী –
        ু                                             ু
(১) পৰ্ফল্লচন্দৰ্ রায় (আত্মজীবনী), (২) রবীন্দৰ্নাথ ঠাকর, (৩) চারুচন্দৰ্ ভট্টাচাযর্, (৪) িদলীপ রায়, (৫) িনমাইদাস
                                           ু                     ু
রায়েচৗধু রী, (৬) নীিলমা েঘাষ, (৭) সু নীত কমার েঘাষ, (৮) পৰ্সন্ন কমার রায়, (৯) অধয্াপক েদবীপৰ্সাদ রায়, (১০)
িনমাইচন্দৰ্ মন্ডল, (১১) সব্াতী ভট্টাচাযর্।



                                                আকাশপৰ্দীপ
                                               রুমিক মজুমদার
                                                  (ওেয়িলংটন)


িনরবিচ্ছন্ন আকােশর িনেচ দাঁিড়েয় রেয়িছ শেতকবষর্।
আর ভাবিছ িচর-হিরত্ বৃ েক্ষর সাির যিদ কখেনা েডেক বেল,
‘এতিদন েকাথায় িছেল?’
   ৃ
অকিতৰ্ম, অযািচত, পৰ্তীিক্ষত রেয়িছ অনন্ত, অগস্তয্।
আর ভাবিছ আকােশর েশষ সািরেত েমঘগ‌ুিলর আবতর্ন কেব েশষ হেব।

পৰ্িতষ্ঠা আর আত্মিবশব্াস – এরই অনয্ নাম হয়ত পৰ্তয্াশা।
অতঃপর পৰ্িতষ্ঠাই িক হেব েশষ আেলাকবিতর্কা?
      ু
িচরকমারী নারীরা সবর্দাই িক হেব উেপিক্ষতা?
তাহেল অেপক্ষার অিন্তম েকাথায়?

িচরবসন্তী বাসিন্তকা অথবা বলাকার বাহুবল্লরী েকশবাস –
এই িদেয়ই িক তেব রিচত হেব কােবয্ উেপিক্ষতা?
আজ নয়, কাল নয়, পরশব্ও নয়,
এই িক তেব ভরা আিশব্েনর েশষ সমাধান?



                                                       26
                                                                                             অঙ্কুর, ২০১১ 

                                     Been there, Dundas
                                       Enakshi Chakravorty
                                             (Wellington)


I like to think I’m an optimist, but in reality I’m a realist, which I suppose is the optimistic term for
a pessimist. When it comes to tramping though: the glass is always empty. Truth be told, I’m more
city-slicker than bush-basher. Last year when I voluntarily signed my happiness away in a 6-tramp
lifetime bond, I had no idea I was doing so. Now I know that tramping is the deliberate shunning
of personal comforts and basic necessities so one can be more like a homeless person, who needs
both but has neither. Wandering about like a vagabond getting close and personal with Mother
Nature just hasn’t given me the satisfaction so many New Zealanders seem to get in the bush –
unless you count the satisfaction of accumulating several weeks’ worth of grime in a mere few
days, possible pestilence, chronic negativity and an outstanding blister collection to boot. Not for
me is the whisper of the trees, the scuffle of possums or the raw, earthy scent of secluded forest.
Give me the refined aroma of petrol and cheerful bustle of civilised metropolis any day.

But of course where I’m headed now, twinkling city lights and metallic magnificence are hard to
come by. I’m travelling to The Place That God Forgot, Putara Road End. Instead of idly glancing
out of the van windows to observe the dense, green basin and blue sky whisking past me, I’m
being forced to watch the scenery against my will; my nose in close intimacy with the cold
windows; my whole body crushed against the side doors. Here in the wheezing school van, I
actually have to fight with jostling, oversized canvas packs, pushy carbon-fibre poles and
occasionally airborne hydration bladders for breathing space. My emotional landscape is possibly
more rugged than the temperamental Rimutakas winding higher and higher beneath us, and I’m
finding it difficult to compose my epitaph with each spluttering jerk of the school van, struggling
valiantly up the mountain. Soon we’ll be tramping in the Dundas Ridge area of the Tararua
mountain range, where incidentally, I spent the worst nights of my life during last year’s tramp. I
thought travelling is about progress; moving forward both literally and figuratively. Going back to
the Tararuas isn’t achieving either.

At least today there are no escaped gunmen on the prowl and the weather seems to be on our side.
Instead of wantonly pummelling us to pieces, the wind adopts a more compassionate approach,
caressing away the sweltering heat that would have otherwise branded our skin. Gone are the
malignant grey thunderheads of last year and in their place an azure sky, unmarred by any trace of
cirrus clouds. After a quick stop at the Masterton New World to startle residents with our knee-
high woolly socks and to hoard provisions, it is back to State Highway 2. Not half an hour later
Mrs. Denver directs the van into the Putara Road End turn-off. The drive is just as jarring as I
remember it; the course gravel making it difficult to distinguish between road and road kill. I’m
just waiting for when the road stops unceremoniously at the foot of the mountain to say Here You
Go: No Further, when Lucy points out the unfortunate bush she vomited on last year. Finally the
van shudders to a stop at the drop-off point, where gravel fuses with mud and leaf. Behind me, the
last few electricity lines quiver back and forth in the wind, as if to wave sorrowfully.

Soon we’re marching through the green foliage, wobbling dangerously with the extra height of our
packs. It’s hard to identify the hellish thicket and raging torrent that characterised the first 5 hour
slog from last year. Here with the sunlight shimmying through the leaves; the gentle, steady
rhythm of the brook and a visibility range of many metres as opposed to millimetres, make for an
entirely different experience. Instead of wading through mud pools and falling unexpectedly into
subterranean areas, I find I am able to differentiate between log, stone and mire. More surprising
still, the fern, twigs, sludge and mud aren’t as monotonous as before, and instead of trudging
dejectedly with the goal of finding my way back to the dilapidated school van alive, I find myself
                                                   27
                                                                                           অঙ্কুর, ২০১১ 
striding briskly, keeping in time with Tash’s regular footsteps. Of course being blessed with more
than my fair share’s worth of clumsiness, I misjudge a few tree roots and plant my bottom into the
brambly undergrowth. However as a pleasant substitute for last year, when I was left behind
weighed down by my enormous pack, arms and legs flailing helplessly, Chelsea and Millie both
hoist me up off my back and spur me to motion. Before long I’m warbling gaily along to Lady
Gaga and Sean Kingston, not caring that our discordant voices will probably scare the Wetas and
Huhu grubs we have for company.

When Roaring Stag Lodge beckons from around the corner of the last stretch of wilderness, we
approach the ramshackle hut warily, barely daring to hope that there will be bunks free. Our
prayers are answered and I actually let out whoop of hysterical jubilation. Tonight I won’t have to
grate my back against jagged rocks embedded specifically in sleeping areas around the hut, nor
will I have to hold down a sopping wet tent with my bare hands as it beats about in typhoon
conditions. We claim our bunks and roll sleeping bags out with a triumphant flourish. Halfway
through the third round of Ps and As, Mrs Denver thumps her aluminium mug down on the hut
table, wriggling her eyebrows suggestively and motioning her head towards the formidable peak of
Cattle Ridge. ‘So,’ she says, smacking her lips, eyes gleaming, and rubbing her palms together,
‘who wants to climb Cattle Peak?’

Next thing I know I’m hauling myself from tree root to tree root up the 1138m treacherous
ascension I swore I’d never do again if my life depended on it. As I’m climbing up the near
vertical mountain side, I can’t help but think back to last year, when I’d tried to tell whoever it was
that was merrily impersonating a laryngitic donkey to cease at once, not realising the culprit was
me. Then after staggering up the mountain side through a thick blanket of fog and rain and finally
collapsing onto alpine gorse I hadn’t felt any sense of achievement. On the contrary, when I had
reached the peak, somewhat reminiscent of drowned rat, quietly gasping in the posture of an old
crone, I glared balefully at my surroundings. Absent was the sense of elation at seeing Wairarapa
in miniature, spread out around me like an used towel lying on the bathroom floor.

This time though, it’s different. I’m still panting and puffing after exceeding my annual exercise
quota in the space of three hours, but sandwiched between Chelsea and Tash, I watch the glowing
sun leave behind a fiery trail of blazing pinks, crimsons and magentas as it sinks down into the
horizon. All around the undulating green land is bathed in fresh light and new colour.

Dreamily staring into the hut fireplace, absent-mindedly twirling my burnt marshmallow in the
dancing flames, I’m thinking that I could probably get used to this: the cosy warmth of a hut, the
prospect of a comfortable bunk, the company of good friends and the pleasant, tired feeling of a
hard day’s work. I must have mentioned this aloud, because Mrs Denver laughs, eyes twinkling as
always, saying: Watch out Enakshi, it sounds like you might actually like tramping after all.
Hearing this I nearly choke on the smore I just popped into my mouth – whether due to consuming
a high proportion of crispy charcoal? I’m not sure. Spluttering, I earnestly assure Mrs Denver that
she must be mistaken, because it can’t be can it? I don’t like tramping; I can’t have changed my
outlook on tramping in the space of a day, surely? To be honest, I’m not sure of the answer
anymore, but I suppose it doesn’t matter really. After all, I’ve still got four more tramps to look
forward to.

                                              পক্ষীরাজ
                                            দীপািনব্তা দাস
                                             (ওেয়িলংটন)


                                                  28
                                                                                         অঙ্কুর, ২০১১ 

                                        A gifted poet
                                    Debiprosad Majumdar
                                           (Wellington)

                                                  1
When Arani met the rather plain-looking Madhura on his first day at college, it was love at first
sight - on his part at any rate. He didn't have a clue about what Madhura thought of him: he just
went on churning out reams and reams of semi- delirious poetry in the spirit of the truest lover the
world had ever witnessed.

                                                  2
One fine morning, Arani was reciting one of his poems (that took one whole night to see the light
of the day) in the company of some of his closer friends at the college canteen. Madhura and two
other girls were sitting quietly at a corner and listening to him. Arani was simply over the moon
when Madhura stopped him at the corridor the next day and said, "Arani, the poem you were
reciting at the canteen yesterday was absolutely out of the world!"

                                                  3
Arani and Madhura started seeing each other every day without fail. Arani would read out his
poems and Madhura keep listening with rapt attention - appearing to be thoroughly engrossed, if
not completely mesmerised. Arani was only too happy when on the day before the summer
vacation Madhura asked for the exercise book that contained all the poems he had written so far.
Arani thought Madhura looked way more romantic than Suchitra Sen in 'Harano Sur' when she
said in a trembling voice, "Arani, how I wish to read these poems in the moonlight – with the
constellations flickering in the distant horizon…”

                                                   4
Arani was on the way to college after the summer vacation when he heard a very familiar voice
from behind - asking him to stop. Turning around, he saw Madhura - accompanied by an
immaculately dressed young man whom even Barbara Cartland wouldn't hesitate for a moment to
describe as 'tall, dark and handsome'. All smiles and glowing, Madhura said, "Arani, meet Angshu
- he lives in London and works as a GP there. And you know what, we're engaged and going to get
married early next month!" Angshu shook hands with Arani and said, "You must be extremely
proud of your friend, Arani - she's such a gifted poet, isn't she?"


                                         Two Wolves
                                         (Anonymous)

One evening an old Cherokee told his grandson about a battle that goes on inside people. He said,
"My dear, the battle is between two wolves inside us all.

"One is evil. It is anger, envy, jealousy, sorrow, regret, greed, arrogance, self-pity, guilt,
resentment, inferiority, lies, false pride, superiority and ego.

"The other one is good. It is joy, peace, love, hope, serenity, humility, kindness, benevolence,
empathy, generosity, truth, compassion and faith."

The grandson thought about it for a minute and then asked his grandfather, "Which wolf wins?"
The old Cherokee simply replied, "The one you feed."

                                                29
                                                                                           অঙ্কুর, ২০১১ 

                                                Bias
                                        Prithviraj Sharma
                                            (Wellington)



Recently, I watched a documentary called ‘The Cove’. It was a truly moving documentary which
brought to attention the mass culling of dolphins and other small cetaceans (sea mammals) in the
fishing town of Taiji in Japan. It followed the endeavours of several determined activists who
worked to spread awareness of the happenings in this small cove. The video comprises of
controversial footage of the inhumane murder of dolphins that are tortured, slaughtered and
captured to fuel a cruel and sadistic trade.

The film received much praise and picked up a myriad of awards including the U.S. Audience
Award at the 25th Annual Sundance Film Festival as well as an Academy Award for Best
Documentary Feature. There was no doubt that the documentary had been a great one but it made
me wonder, had the animals in question not been beautiful and graceful dolphins but instead ugly
dugongs, would society have appreciated this documentary in the same way? Or even if the
massacres had been committed under the American government and not the Japanese, would this
video have been allowed to be filmed? Although social biases and stereotypes are often thought to
be a thing of the past, this documentary has proved to me that this is not the case and that bias and
discrimination is still in our system and will be forever.

Much of the documentary is spent depicting the beauty and the often understated acumen of
dolphins. For example, the scenes showing dolphins understanding and responding to sign
language and images of dolphins leaping out of the water are used to create emotive feelings
within the audience. The explicit nature of the dolphin slaughtering is also used to induce
sympathy. Had the animals being slaughtered been chickens, hardly anyone would have cared.
Dolphins aren’t even endangered, yet we cringe when they tell us that 23,000 dolphins are killed
annually. Why? Because of two clear reasons.

The first is that we simply like dolphins better. Had chickens been smart and able to perform
tricks, I am sure far less people would kill, let alone eat chickens. But because they cannot, we
continue to consider chickens as a source of nutrition and nothing more. We value the
entertainment and cuteness factors that dolphins boast over chickens; the latter have no value to us,
except as food. This is the same way in which we treat humans; we are biased towards smarter,
stronger or better-looking people.

The second reason is that we do not want to embrace Japanese culture. It may sound a bit harsh but
it is the truth and if you disagree, try the following quiz. Do you use chopsticks when you eat
takeaway noodles at home? Do you wear a Kimono often, if at all? Do you know any Japanese
words apart from Sushi and Toyota? Do not deny the facts, I know the answer is no. The
documentary portrays the Japanese fisherman as irritable, unintelligent and even violent. As this is
an American film it is plausible to think that parts of the film have been used to make the Japanese
in Taiji look bad. I am not saying that it is alright to condone the heinous acts committed in this
cove but it is easy to see how biased the video truly is. Much of the scenes containing the Japanese
fisherman are taken out of context as although it appears as if the fisherman are shouting and
pushing of their own accord, this is not the full picture. What the video fails to show is the
instigation and aggravation by the activists. Because the western world fails to see past its view of
Japanese people as small ‘yellow people’ with a knack at making electronics and cars, they do not
make an effort to try and understand that the Japanese lead very different lives. As Japan has very
little land in comparison to its vast population, there is no space for agriculture and it looks to the
                                                  30
                                                                                             অঙ্কুর, ২০১১ 
sea to find meat. But, due to the reduction in global fisheries and the banning of whaling, they have
been forced to exploit other sources. Because stereotypes continue to linger in the minds of
westerners, people view the documentary as a fair and unbiased representation of the Dolphin
slaughtering in Taiji. This is not a justification of the Japanese cause but an insight into the way
westerners think and because of their biased nature they do not look at the viewpoint of people
who are too ‘different’.

This brings us to the topic of racism, a cultural taboo. Although racism is no longer as a much of
an issue as it was fifty years ago, it will never truly disappear, it will be nigh on impossible. By
simply differentiating someone from someone else because they have a different skin colour, you
are still being racist, albeit at a minute level. When we argue that people of African ethnicity are
better at basketball and that ‘Asians’ are great at maths we are being racist. If humanity manages to
somehow lose this mindset or if all humans one day look exactly the same, only then will racism
no longer exist.

But racism is merely a form of bias and there are many other forms that will take its place. One
such form, that Indians are surely familiar with, is casteism. If that is resolved than people will still
find a way to treat each other differently, for example, in terms of their intelligence. This is evident
today in classes with streaming systems that allow students of different ability a better, more suited
education. Even if we all have the same aptitude, bias will carry on. The simple act of making and
maintaining friends is a bias as our brain consciously decides to appreciate some people more than
others.

If you haven’t already realized, it is evident that only one thing is common with all forms of social
bias - opinion. When we think of racism, sexism, and other prejudices over age, disability, wealth,
size, intelligence, and religion, we think of separate problems that we have, but are all in fact
different versions of the same thing. It’s like Vanilla Coke, Raspberry Coke and Cherry Coke; they
may taste different but they are all parts of the same franchise. All those biases are based on
decisions made by your brain to create an opinion. So how do we get rid of all these things? Do we
take away the right to have an opinion, the right to think? Do we all become robots and become the
same? Well what a boring world that would that be...wouldn’t it?

When you watch this award-winning documentary and cry when you see these evil Japanese
fishermen, turning the sea red to quench their thirst for dolphin blood, think about the decisions
your brain is making and what opinions you are forming. Look at things from someone else’s
perspective, someone who is probably not so different to you.




                     Durga Puja
                     Piyali Sharma
                       (Wellington)


D – Dazzling decorations
U – Unbelievable fun                                    P – Performing with excitement
R – Running around and having good time                 U - United in Prayer
G – Gorgeous looking Goddess                            J – Jolly good fun
A – Awesome and delicious food                          A – An event to look forward to

                                                   31
                                                                                                    অঙ্কুর, ২০১১ 


                                                   শরত্চন্দৰ্
                                                অিমত েসনগ‌ুপ্ত
                                                   (অকলয্ান্ড)

শরত্চেন্দৰ্র জীবন বড় ৈবিচতৰ্ময়। পৰ্থম জীবেন তাঁর অেনকটা সময় েকেটেছ ছন্নছাড়াভােব। অনাহাের কাটােত
হেয়েছ িদেনর পর িদন। িতিন িনেজই বেলেছন, ‘এমন িদন েগেছ যখন দু -িতন িদন অনাহাের অিনদৰ্ায় কািটেয়িছ।
                                           ু ু
এ গৰ্াম েস গৰ্াম ঘুের েবিড়েয়িছ। কত বািড়েত ককর েলিলেয় িদেয়েছ - তারা ভদৰ্েলাক। কত হািড়-বাগিদর বািড়েত
আহার কেরিছ। তারপর খুব ভাল কের েদেখ িনেয়িছ পল্লীগৰ্াম ও পল্লী-সমাজ।’

শরত্চন্দৰ্ সন্নয্াসী হেয়, সন্নয্াসীর দেল িভেড় ভারেতর নানাস্থােন ঘুের েবিড়েয়েছন। চাকিরর জনয্ বমর্ায় িগেয়,
েসখােনও গৰ্ােম-গেঞ্জ ঘুেরেছন। একািধক নারীর পৰ্ণয়-পৰ্াথর্ী হেয় বয্থর্ হেয়েছন। ‘নারীর ইিতহাস’ িলখেত িগেয়
                                                           ু
অেনক পিততালেয় িগেয়েছন এবং তার জনয্ পৰ্চুর দু নর্াম কিড়েয়েছন। িতিন ‘সমাজচু য্ত’ হেয়েছন, ‘একঘের’
হেয়েছন। কংেগৰ্েস েযাগ িদেয় িতিন েদেশর কােজ েমেতেছন। আবার কংেগৰ্েসর অিহংস সংগৰ্ামী হেয়ও সন্তৰ্াসবাদী
িবপ্লবী দেলর সেঙ্গ েযাগােযাগ েরেখেছন এবং তােদর িবিভন্ন ভােব সাহাযয্ কেরেছন। যা িলেখেছন তার জনয্ পৰ্চুর
গালাগািল ও পৰ্শংসা দু ইই কিড়েয়েছন। েদেশর একদল েলাক তাঁেক মাথায় তুেল িনেয়েছন, আবার একদল তাঁেক
                                 ু
অপাঙেক্তয় কেরেছন।

                                                             ু
শরত্চন্দৰ্ িছেলন েখয়ািল, আত্মেভালা, মজিলিশ, অিতিথপরায়ণ, বন্ধবত্সল ও মানবদরদী। ১৯৩৬ সােল ঢাকা
িবশব্িবদয্ালয় তাঁেক িড-িলট উপািধ িদেয় সম্মািনত কের। এর আেগ কলকাতা িবশব্িবদয্ালয় তাঁেক জগত্তািরণী
সব্ণর্পদক েদয়। কলকাতা িবশব্িবদয্ালয় তাঁেক একবার িব এ পরীক্ষার পৰ্শ্নকতর্াও িনযু ক্ত কেরিছল। এ সব ছাড়াও
েদশবাসী তাঁেক ‘অপরােজয় কথািশল্পী’ আখয্ায় িবভূ িষত কেরন।

শরত্চন্দৰ্ েকবল সািহিতয্ক, গায়ক, বাদক, অিভেনতা ও িচিকত্সকই িছেলন না, তাঁর আরও অেনক গ‌ুণ িছল। িতিন
সাপুেড়েদর মত অনায়ােসই িবষধর সাপ ধরেত পারেতন। তাঁর চিরেতৰ্র েয ৈবিশষ্টয্িট সবার আেগ েচােখ পেড়, তা
হল - মেন পৰ্ােণ িতিন িছেলন একজন দরদী মানু ষ। মানু েষর, এমনিক জীবজন্তুর দু ঃখ-দু দর্শা েদখেল বা তােদর
দু ঃেখর কািহনী শ‌ুনেলও িতিন অতয্ন্ত িবচিলত হেয় পড়েতন। জীবজন্তুর পৰ্িত েস্নহবশত িতিন বহু বছর িস-এস-িপ-
িস-এ অথর্াত্ কলকাতা পশ‌ুেক্লশ িনবারণী সিমিতর হাওড়া শাখার েচয়ারময্ান িছেলন। িতিন কতটা পশ‌ু-দরদী িছেলন
তা ‘মেহশ’ গল্পিট পড়েলই েবাঝা যায়। গল্পিট েলখার জনয্ শরত্চেন্দৰ্র উপর িহন্দু জিমদাররা চেট িগেয়িছেলন,
এমন িক অেনক মুসলমান জিমদারও খুব েরেগ িগেয়িছেলন। তেব গল্পিটর জেনয্ িহন্দু মুসলমান যারাই শরত্চেন্দৰ্র
উপর চটুক না েকন, আিম বলেত েকানও িদব্ধা করেবা না েয মূ ক পৰ্াণীেক িনেয় এমন সাথর্ক ও সু ন্দর গল্প বাংলা
সািহেতয্ েতা েনইই, পৃিথবীর অনয্ েকান ভাষার সািহেতয্ও আেছ িকনা সেন্দহ।

হুগলী েজলার েদবানন্দপুর নােম েছাট্ট একিট গৰ্ােমর এক দিরদৰ্ পিরবাের ১৮৭৬ সােলর ১৫ই েসেপ্টমব্র শরত্চেন্দৰ্র
জন্ম। তাঁর বাবার নাম িছল মিতলাল চেট্টাপাধয্ায় ও মা ভুবেনেমািহনী েদবী। পৰ্ভাসচন্দৰ্ ও পৰ্কাশ চন্দৰ্ নােম তাঁর দু ই
েছাট ভাই এবং অিনলা েদবী (িদিদ) ও সু শীলা েদবী নােম দু ই েবান িছেলন। শরত্চেন্দৰ্র বাবা িছেলন অিস্থরিচত্ত ও
ভবঘুের পৰ্কিতর মানু ষ। তাই অল্প িকছু িদন চাকির করা ছাড়া আর িকছু ই কেরন িন। ভাল গল্প-উপনয্াস-কিবতা-
           ৃ
নাটক িলখেতন, িকন্তু অিস্থরিচত্ততার জনয্ েকান েলখাই সম্পূ ণর্ কেরন িন। শরত্চন্দৰ্ উত্তরািধকার সু েতৰ্ তাঁর বাবার
কাছ েথেক সািহতয্ানু রাগ লাভ কেরিছেলন। িতিন যখন স্কেল খুব িনচু ক্লােস পড়েতন, তখনই বাবার েদরাজ েথেক
                                                      ু
তাঁর েলখা গল্প-উপনয্াস বার কের লু িকেয় লু িকেয় পড়েতন। এ সমব্েন্ধ শরত্চন্দৰ্ িনেজই বেলেছন, ‘এবার আর


                                                       32
                                                                                                 অঙ্কুর, ২০১১ 

েবােধাদয় নয়, বাবার ভাঙ্গা েদরাজ েথেক খুঁেজ বার করলাম ‘হিরদােসর গ‌ুপ্তকথা’ আর েবর হল ‘ভবানী পাঠক’। েস
সব লু িকেয় লু িকেয় পড়ার জনয্ ঠাঁই কের িনেত হল আমােদর বািড়র েগায়াল ঘের।’

শরত্চন্দৰ্ তাঁর বাবার েলখা অসমাপ্ত উপনয্াস, নাটক, গল্প ও কিবতাগ‌ুিল পৰ্ায়ই পড়েতন। এ সমস্ত অসমাপ্ত
েলখাগ‌ুিলর েশষাংেশ কী হেত পারত তাই িনেয় িচন্তা করেত করেত েছেলেবলায় িনেজর মেন কল্পনার জাল বুেন
িবিনদৰ্ অবস্থায় রােতর পর রাত কািটেয়েছন। কল্পনার এই সূ তৰ্ ধেরই শরত্চন্দৰ্ েছেলেবলায় গল্প িলখেত শ‌ুরু
কেরিছেলন। িতিন িনেজই বেলেছন, ‘িপতার িনকট অিস্থর সব্ভাব ও গভীর সািহতয্ানু রাগ বয্তীত উত্তরািধকার সু েতৰ্
আর িকছু ই পাই িন। িপতৃদত্ত পৰ্থম গ‌ুণিট আমােক ঘরছাড়া কেরিছল - অল্প বয়েস সারা ভারত ঘুের এলাম। আর
িপতার িদব্তীয় গ‌ুেণর ফেল জীবনভের আিম েকবল সব্প্ন েদেখই েগলাম। আমার িপতার পািণ্ডতয্ িছল অগাধ।
েছাটগল্প, উপনয্াস, নাটক, কিবতা - এক কথায় সািহেতয্র সব িবভােগই হাত িদেয়িছেলন। িকন্তু েকানটাই িতিন েশষ
করেত পােরন িন। এগ‌ুিল েশষ কের যান িন বেল কত দু ঃখই না কেরিছ। অসমাপ্ত অংশগ‌ুিল িক হেত পাের ভাবেত
ভাবেত অেনক িবিনদৰ্ রজনী েকেট েগেছ। এই কারেণই েবাধ হয়, সেতর বত্সর বয়েসর সময় আিম গল্প িলখেত
শ‌ুরু কির।’

শরত্চেন্দৰ্র যখন পাঁচ বছর বয়স েসই সময় তাঁর বাবা তাঁেক গৰ্ােমর পয্ারী পিণ্ডেতর পাঠশালায় ভিতর্ কের েদন।
                                                                  ু            ু
পয্ারী পিণ্ডেতর পাঠশালায় দু ই বছর পড়ার পর িতিন ভিতর্ হন বাংলা স্কেল। এই স্কেল িতিন িতন বছর পেড়ন। এই
সময় শরত্চেন্দৰ্র িপতা িডিহিরেত একিট চাকরী পান। িতিন িডিহিরেত চেল যাওয়ার সময় স্তৰ্ী-পুতৰ্-কনয্া সবাইেক
ভাগলপুের শব্শ‌ুরবািড়েত েরেখ যান। ভাগলপুের এেস শরত্চন্দৰ্ ছাতৰ্বৃ িত্ত ক্লােস ভিতর্ হন। ভাগলপুেরর স্কল েথেক
                                                                                                     ু
                                 ু                  ু
ছাতৰ্বৃ িত্ত পাশ কের িতিন েজলা স্কেল ভিতর্ হন। এই স্কেল যখন িতিন েফাথর্ ক্লােস ওেঠন তখন তাঁর বাবার িডিহিরর
চাকরীিট চেল যায়। তখন মিতলাল সব্পিরবাের েদবানন্দপুের িফের আেসন এবং শরত্চন্দৰ্েক হুগলী বৰ্য্াঞ্চ স্কেল েফাথর্
                                                                                                   ু
                                                                                           ু
ক্লােসই ভিতর্ কের েদন। ১৮৯২ সােল ফাস্টর্ ক্লােস পড়ার সময়, অভােবর জনয্ তাঁর বাবা আর স্কেলর মািহনা িদেত
                ু
না পারায় স্কেলর পড়া েছেড় শরত্চন্দৰ্েক ঘের বেস থাকেত হয়। এই সমেয়ই শ‌ুরু হয় শরত্চেন্দৰ্র সািহতয্ সাধনা
                                              ু
এবং এই সমেয়ই সেতর বছর বয়েস তাঁর স্কেলর সহপাঠী কাশীনােথর নাম িনেয় ‘কাশীনাথ’ নােম একিট গল্প
েলেখন।

েদবানান্দপুের মিতলােলর অথর্াভাব কৰ্মশ তীবৰ্ হওয়ায়, িতিন বাধয্ হেয় সব্পিরবাের আবার ভাগলপুেরর শব্শ‌ুরবািড়েত
চেল যান। ভাগলপুের এেস শরত্চন্দৰ্ আবার স্কেল ভিতর্ হবার জনয্ পৰ্বল আগৰ্হািনব্ত হন। িকন্তু আগৰ্হ থাকেল িক
                                               ু
                       ু
হেব, হুগলী বৰ্য্াঞ্চ স্কেলর বেকয়া মািহনা িমিটেয় টৰ্য্ান্সফার সািটর্িফেকট আনার টাকা েকাথায় পােবন? পের সািহিতয্ক
ও সাংবািদক পাঁচকিড় বেন্দয্াপাধয্ােয়র েচষ্টায় শরত্চন্দৰ্ েতজনারায়ণ জুিবিল কেলিজেয়ট স্কেল ভিতর্ হন। পাঁচকিড়বাবু
                                                                                       ু
তখন ভাগলপুেরর েতজনারায়ণ জুিবিল কেলিজেয়ট স্কেল িশক্ষকতা করেতন। েসই স্কল েথেকই ১৮৯৪ সােল
                                                           ু                             ু
শরত্চন্দৰ্ িদব্তীয় িবভােগ এন্টৰ্ান্স পাশ কেরন। পরীক্ষার আেগ িফ এবং বাকী কয় মােসর মািহনার জনয্ তাঁর েছাট
মামা িবপৰ্দাসেক স্থানীয় মহাজেনর কােছ হয্ান্ডেনাট িলেখ টাকা ধার করেত হেয়িছল। এর পর িতিন দু িট িটউশিন
কের কেলেজ ভিতর্র টাকা েজাগাড় কেরন। কেলেজ পড়ার সময় টাকার অভােব িতিন পাঠয্বই িকনেত পােরন িন।
তাঁর সহপাঠীেদর কাছ েথেক বই েচেয় এেন রাত েজেগ পেড়, সকােলই েসই বই েফরত িদেয় আসেতন। কেলেজ
                                                                          ু
এভােব দু ই বছর পেড়ও েটস্ট পরীক্ষার পর এফ-এ পরীক্ষার িফ মাতৰ্ কিড় টাকা িদেত না পারায়, িতিন আর েসই
পরীক্ষা িদেতই পােরন িন। শরত্চন্দৰ্ তাঁেদর েসই সময়কার দারুণ অভােবর কথা উেল্লখ কের পের এক সময়
লীলারাণী গেঙ্গাপাধয্ায়েক িচিঠেত িলেখিছেলন, ‘বড় দিরদৰ্ িছলাম, ২০িট টাকার জনয্ এগজািমন িদেত পাই িন। এমন




                                                     33
                                                                                                  অঙ্কুর, ২০১১ 

িদন েগেছ, যখন ভগবানেক জানাতাম, েহ ভগবান আমার িকছু িদেনর জনয্ জব্র কের দাও, তা হেল দু েবলা খাবার
ভাবনা ভাবেত হেব না।’

শরত্চন্দৰ্ কেলেজর পড়া েছেড় ভাগলপুেরর আদমপুর ক্লােব অিভনয় ও েখলাধু লা কের িদন কাটােত লাগেলন। িতিন
একজন ভাল অিভেনতা হেলও অিভনয় অেপক্ষা সংগীেতর পৰ্িত তাঁর েবশী েঝাঁক িছল। তাঁর কন্ঠসব্র িছল অিত
িমিষ্ট। িতিন যখন মামার বািড়েত থাকেতন, েসই সময় পৰ্িসদ্ধ গায়ক ও েলখক সু েরন্দৰ্নাথ মজুমদার শরত্চেন্দৰ্র
মামার বািড়র কােছই থাকেতন। এই সু েরনবাবু্র বািড়েত পৰ্ায়ই গান ও সািহেতয্র আসর বসত। সংগীত ও
সািহেতয্র পৰ্িত শরত্চন্দৰ্ সব্াভািবক আকষর্েণর বেশ পৰ্ায়ই সু েরনবাবুর বািড়েত েযেতন। ওঁর কােছ শরত্চন্দৰ্ িকছু িদন
তািলমও িনেয়িছেলন। এই সময়ই সু েরনবাবুর ভাই রােজন্দৰ্নােথর সেঙ্গ তাঁর আলাপ হয়। ভাগলপুেরর িনভর্ীক,
পেরাপকারী, মহাপৰ্াণ আদশর্ যু বক রােজন মজুমদােরর সেঙ্গ িমেশ শরত্চন্দৰ্ পেরাপকারমূ লক কােজর সঙ্গী হেলন।
পের ‘শৰ্ীকান্ত’ উপনয্ােস এই রােজনেকই িতিন ইন্দৰ্নাথরূেপ িচিতৰ্ত কের েগেছন। রােজন বা রাজু খুব ভাল বাঁিশ,
হারেমািনয়াম, তবলা আর েবহালা বাজােত পারত। শরত্চন্দৰ্ রাজুর কাছ েথেক সমস্ত যন্তৰ্ অল্প-িবস্তর বাজােত
িশেখিছেলন। রাজু েয যন্তৰ্-সংগীেতই পারদশর্ী িছল তা নয়, নানা রকম দু ঃসাহিসক কােজও েস ওস্তাদ িছল। রাজুর
এই সব কােজ শরত্চন্দৰ্ িছেলন তার একজন সঙ্গী এবং সহায়ক। িবভুিতভূ ষণ ভেট্টর বািড়েত িতিন িনেজর একটা
আস্তানাও কেরিছেলন এবং েসখােন বেস িদন-রাত অজসৰ্ গল্প-উপনয্াস পড়েতন ও িলখেতন। এই সমেয়ই িতিন
মাতুল সু েরন্দৰ্নাথ, িগরীন্দৰ্নাথ, এঁেদর বন্ধ েযােগশচন্দৰ্ মজুমদার ও িবভুিতভূ ষণ ভট্টেক িনেয় একটা সািহতয্ সভা
                                            ু
গঠন কেরিছেলন। সািহতয্ সভায় ‘ছায়া’ নােম হােত েলখা এক মুখপতৰ্ও িছল। তখনই শরত্চন্দৰ্ তাঁর বড়িদিদ,
েদবদাস, চন্দৰ্নাথ, শ‌ুভদা ইতয্ািদ উপনয্াস এবং অনু পমার েপৰ্ম, আেলা ও ছায়া, েবাঝা, হিরচরণ ইতয্ািদ গল্প রচনা
কেরিছেলন। তেব এগ‌ুিল তখনও পৰ্কািশত হয়িন।

অভােবর তাড়নায় শরত্চেন্দৰ্র বাবা এই সময় মাতৰ্ ২৫০ টাকায় তাঁর েদবানন্দপুেরর ঘরবািড় সব িবিকৰ্ কের েদন
এবং এর ওর কাছ েথেক েচেয়িচেন্ত েকান রকেম সংসার চালােতন। শরত্চন্দৰ্ এই সময় বেনলী রাজ এেস্টেট অল্প
িকছু িদেনর জেনয্ একটা চাকির কেরন। িকন্তু হঠাত্ একিদন বাবার উপর অিভমান কের চাকির েছেড় িনরুেদ্দশ হেয়
যান এবং সন্নয্াসী হেয় েদেশ েদেশ ঘুেড় েবড়ােত থােকন। এভােব ঘুরেত ঘুরেত একিদন িতিন বাবার মৃতুয্ সংবাদ
পান এবং ভাগলপুের িফের আেসন। েকানরকেম বাবার শৰ্াদ্ধ সম্পন্ন কের, েছাটভাই দু িটেক আত্মীয়েদর কােছ এবং
েছাট েবানিটেক বািড়র মািলক মিহলািটর কােছ েরেখ ভাগয্ােনব্ষেণ কলকাতায় চেল আেসন। এর আেগই শরত্চেন্দৰ্র
িদিদ অিনলা েদবীর িবেয় হেয় েগেছ। কলকাতায় িবেশষ সু িবধা না হওয়ায় শরত্চন্দৰ্ চাকিরর সন্ধােন েরঙ্গুেন চেল
যান। েরঙ্গুেন েবশীর ভাগ সময়ই িতিন েথেকেছন শহেরর উপকেন্ঠ েবাটাটং-েপাজনডং অঞ্চেল। এখােন পৰ্ধানত
থাকত শহেরর কল-কারখানার িমস্তৰ্ীরাই। শরত্চন্দৰ্ তােদর সেঙ্গ অবােধ েমেলেমশা করেতন। িতিন তােদর চাকিরর
দরখাস্ত িলেখ িদেতন, িববাদ-িবসংবাদ িমিটেয় িদেতন, অসু েখ িবনামুেলয্ েহািমওপয্াথী িচিকত্সা করেতন, িবপেদ
আপেদ সাহাযয্ও করেতন। েস কারেণ তারা তাঁেক অতয্ন্ত শৰ্দ্ধা-ভিক্ত করত এবং ডাকত ‘দাদাঠাকর’ বেল। ু
শরত্চন্দৰ্ এেদর িনেয় একিট সংকীতর্েনর দলও গেড়িছেলন।

এই িমস্তৰ্ী পল্লীেত থাকার সময় শরত্চন্দৰ্ শািন্ত েদবীেক িবেয় কেরন। এঁেদর একিট িশশ‌ুপুতৰ্ও হয়। পুেতৰ্র বয়স
যখন এক বছর, েসই সময় েরঙ্গুেনই েপ্লেগ আকৰ্ান্ত হেয় তাঁর স্তৰ্ী এবং পুতৰ্ উভেয়রই মৃতুয্ হয়। স্তৰ্ী-পুতৰ্েক হািরেয়
শরত্চন্দৰ্ খুব েশাকাহত হেয় পেড়ন। এর কেয়ক বছর পর েরঙ্গুেনই িতিন েমাক্ষদা েদবীেক িবেয় কেরন। িবেয়র পর
িতিন েমাক্ষদা েদবীর নাম বদল কের নাম েদন িহরণ্ময়ী েদবী এবং েসই েথেক এই নামই পৰ্চিলত হয়। িহরণ্ময়ী
েদবী যখন েরঙ্গুেনর িমস্তৰ্ী পল্লীেত তাঁর বাবার কােছ থাকেতন েসই সময় শরত্চেন্দৰ্র সেঙ্গ তাঁর বাবার িবেশষ পিরচয়
হয়। এই িবেশষ পিরচেয়র েজােরই িহরণ্ময়ী েদবীর বাবা একিদন তাঁর েমেয়েক িনেয় শরত্চেন্দৰ্র কােছ এেস তাঁেক


                                                      34
                                                                                                  অঙ্কুর, ২০১১ 

বেলন, ‘আমার েমেয়র িবেয়র বয়স হেয়েছ। আপিন যিদ অনু গৰ্হপূ বর্ক আমার এই েমেয়িটেক গৰ্হণ কের আমার
দায়মুক্ত কেরন েতা বড় উপকার হয়। আর একান্তই যিদ না িনেত চান েতা আমােক িকছু টাকা িদন, আিম েমেয়েক
িনেয় েদেশ িফের যাই। েদেশ িগেয় েমেয়র িবেয় িদই।’ িহরন্ময়ী েদবীর বাবা শরত্চেন্দৰ্র কােছ টাকার কথা বলেলও
িতিন িবেশষ ভােব শরত্চন্দৰ্েক অনু েরাধ কেরন িতিনই েযন েমেয়িটেক গৰ্হণ কেরন। শরত্চন্দৰ্ পৰ্থেম অরাজী হেলও
িহরন্ময়ী েদবীর বাবার একান্ত অনু রেধ িতিন িহরন্ময়ী েদবীেক িবেয় কেরন। িহরন্ময়ী েদবী িনঃসন্তান িছেলন। িবেয়র
সময় পযর্ন্ত িতিন েলখাপড়া জানেতন না। পের শরত্চন্দৰ্ তাঁেক িলখেত ও পড়েত িশিখেয়িছেলন। িহরন্ময়ী েদবী
িছেলন শান্ত-সব্ভাবা, েসবাপরায়ণা ও ধমর্শীলা। শরত্চন্দৰ্ তাঁেক িনেয় জীবেনর েশষিদন পযর্ন্ত সু েখ শািন্তেতই কািটেয়
েগেছন।

১৯১২ সােল এক মােসর ছু িট িনেয় শরত্চন্দৰ্ েদেশ িফের আেসন। তখন ‘যমু না’-সম্পাদক ফণীন্দৰ্নাথ পােলর সেঙ্গ
তাঁর আলাপ হয়। পিরচয় হেল ফণীবাবু শরত্চন্দৰ্েক িবেশষভােব অনু েরাধ কেরন তাঁর কাগেজ েলখার জনয্। শরত্চন্দৰ্
েরঙ্গুেন িগেয় েলখা পািঠেয় েদেবন বেল কথা েদন। েসই অনু যায়ী েরঙ্গুেন িগেয় ‘রােমর সু মিত’ গল্পিট পািঠেয় েদন।
ফণীবাবু এই গল্পিট তাঁর কাগেজ িডেসমব্র মােসর সংখয্ায় পৰ্কাশ কেরন। শরত্চন্দৰ্ এই একিট গল্প িলেখই একজন
মহাশিক্তশালী েলখক িহসােব সািহিতয্ক ও পাঠক মহেল পিরিচত হেয় যান। ইিতমেধয্ ১৯০৭ সােল ভারতী পিতৰ্কায়
‘বড়িদিদ’ পৰ্কািশত হেয়িছল। িবভূ িতভূ ষণ ভট্টর বন্ধ েসৗরীন্দৰ্েমাহন মুেখাপাধয্ায় ভাগলপুের শরত্চেন্দৰ্র েলখার খাতা
                                                  ু
েথেক ‘বড়িদিদ’ (শরত্চেন্দৰ্র পৰ্থম পৰ্কািশত উপনয্াস) নকল কের এেনিছেলন এবং শরত্চন্দৰ্েক না জািনেয়ই তা
ভারতী পিতৰ্কায় পৰ্কাশ কেরন। ‘রােমর সু মিত’ পৰ্কািশত হওয়ার পর ‘ভারতবষর্’ ও ‘সািহতয্’ পৰ্ভৃিত পিতৰ্কাও
শরত্চেন্দৰ্র কােছ েলখা চাইেত থােক। এই সময় ‘ভারতবষর্’ পিতৰ্কার জেনয্ই শরত্চন্দৰ্ িবেশষভােব িলখেত থােকন।
এবং ‘ভারতবষর্’ পিতৰ্কার মািলক গ‌ুরুদাস চেট্টাপাধয্ায় তাঁর বই পৰ্কাশ করেত শ‌ুরু কের েদন।

১৯১৬ সােল শরত্চন্দৰ্ হঠাত্ দু রােরাগয্ পা েফালা েরােগ আকৰ্ান্ত হনএবং িস্থর কেরন অিফেস এক বছেরর ছু িট িনেয়
কলকাতায় কিবরাজী িচিকত্সা করােবন। িকন্তু অিফেস ছু িট না েদওয়ায় িতিন চাকিরেত ইস্তফা িদেয় পাকাপািক ভােব
েরঙ্গুন েছেড় কলকাতায় চেল আেসন। কলকাতায় এেস িতিন পৰ্থেম হাওড়া শহেরর বােজিশবপুের বািড় ভাড়া েনন।
হাওড়ায় িবিভন্ন জায়গায় িতিন পৰ্ায় দশ বছর থােকন। এর পর সামতােবেড় জিম িকেন বািড় ৈতির কের ১৯২৬
                                                                         ৃ
সােল েসই বািড়েত চেল আেসন। এর মেধয্ তাঁর েমজভাই পৰ্ভাসচন্দৰ্ রামকষ্ণ িমশেনর সন্নয্াসী হেয়িছেলন। সন্নয্াস
জীবেন তাঁর নাম িছল সব্ামী েবদানন্দ। েছাটভাই পৰ্কাশচন্দৰ্েক শরত্চন্দৰ্ িনেজর কােছ েরেখ তাঁর িবেয় িদেয় তাঁেক
সংসারী কের েদন।

হাওড়া শহেরর বাজিশবপুের থাকার সমেয়ই শরত্চন্দৰ্ তাঁর বহু গৰ্ন্থ রচনা কেরন। এই সময়টােকই তাঁর সািহিতয্ক
                                                                   ু
জীবেনর সব্ণর্যুগ বলা েযেত পাের। তেব সািহতয্ সাধনায় শরত্চেন্দৰ্র কঁেড়িমর েশষ িছল না। েলখার বয্াপাের
শরত্চন্দৰ্ েয কতটা অলস িছেলন, তা মািসক কাগেজর সম্পাদকরা মেমর্ মেমর্ অনু ভব করেতন। েকানও কাগেজর
জেনয্ েলখা েপেত হেল সম্পাদকেক েয কতবার বৃ থা তাঁর বািড়েত েযেত হত তার সীমা িছল না। সাধারণ কাগেজর
কথা দূ ের থাক, েয ‘ভারতবষর্’-এ পৰ্ধানত তাঁর উপনয্াস ধারাবািহক ভােব েবেরাত তার সম্পাদকেক মােস অন্তত
          ু
পেনর-কিড় িদন শরত্চেন্দৰ্র বািড় িগেয় ধণর্া িদেয় পেড় থাকেত হত।

শরত্চেন্দৰ্র একটা েলখা পাওয়ার জেনয্ ‘িবজলী’ সম্পাদক নিলনীকান্ত সরকার সপ্তােহ অন্তত একিদন কেরও
একটানা দু ই বছর যাতায়াত কেরিছেলন শরত্চেন্দৰ্র বািড়েত। যখন দু ’বছেরও েলখা েপেলন না, তখন অনয্ভােব
মতলব কের িতিন েলখা আদায় কেরিছেলন। েস বয্াপাের নিলনীকান্ত সরকার িনেজই িলেখেছন, ‘আিম কাতরভােব
বললাম, ‘দাদা এই সম্পাদিক কের যা মাইেন পাই, তােত সংসার চেল না, তার জেনয্ পৰ্াইেভট িটউশিন করেত হয়।


                                                      35
                                                                                                  অঙ্কুর, ২০১১ 

শ‌ুনলাম রামকষ্ণপুের একজেনর বািড়েত একটা িটউশিন খািল আেছ। এও শ‌ুেনিছ, িতিন আপনার খুব পিরিচত।
                ৃ
আপিন দয়া কের যিদ আমােক সেঙ্গ িনেয় একটু বেল কেয় েদন।’ দু ঃখী-দরদী শরত্চন্দৰ্ আমার কথা েশষ না করেত
িদেয়ই বলেলন, ‘চল এখুিন যাব।’ একিট খদ্দেরর েবিনয়ান পেড় ও একগািছ লািঠ িনেয় উেঠ পড়েলন। আিম
একরকম েজার কেরই তাঁেক টয্ািক্সেত তুললাম। টয্ািক্স চেলেছ সেবেগ। রামকষ্ণপুর পার হেয় টয্ািক্স যখন হাওড়া
                                                                         ৃ
ময়দােন, তখন উিন বেল উঠেলন, ‘ওেহ রামকষ্ণপুর েয ছািড়েয় এল।’ আিম বললাম, ‘চলু ন না।’ শরত্দা এবার
                                            ৃ
একটু বয্স্ত হেয় বলেলন, ‘েকাথায় যাচ্ছ বলেতা?’ আিম েকান উত্তর িদলান না। টয্ািক্স এেস ঢুকেলা পটুয়ােটালা
েলেন। টয্ািক্সর ভাড়া চুিকেয় শরত্দােক িনেয় েসই বািড়েত উঠলাম েদাতলার একিট কামরায়। িতিন িজজ্ঞাসা
করেলন, ‘েকাথায় আনেল বল েতা?’ েসই ঘেরর মেধয্ তাঁেক একখািন েচয়াের বিসেয়, সামেনর েটিবেল দু খািন
েটাস্ট্, দু িট িডম, এক পয্ােকট িসগােরট, এক েপয়ালা চা, একখািন েদশলাই, একখািন রাইিটং পয্াড ও েদায়াত
কলম িদেয় বললাম, ‘েলখা হেল িনষ্কৃিত।’ বেল দরজা বন্ধ কের বাইের েথেক তালা লািগেয় িদলাম। এইেট আমার
েমস। েমস শ‌ুদ্ধ েলাক শরত্চেন্দৰ্র বিন্দদশার কািহনী শ‌ুনেত লাগেলন। পৰ্ায় িতন ঘন্টা পের দরজায় ধাক্কা লািগেয়
িতিন িচত্কার শ‌ুরু কের িদেয়েছন, ‘ওেহ নিলনী, দরজা েখাল, েতামার েলখা হেয়েছ।’ ঘের ঢুেক েদিখ সিতয্ই এক
অপূ বর্ েলখা হেয়েছ। পৰ্তািরত হওয়ার জনয্ রাগ েনই, বন্দী হেয় থাকার জেনয্ িবরিক্ত েনই, বরং সব্ভাব-সু লভ
হাসয্পিরহাস করেত করেত আমােক িনেয় তাঁর িশবপুেরর বািড়েত িফের েগেলন।’

বােজ িশবপুের থাকার সমেয়ই তাঁর সেঙ্গ রবীন্দৰ্নােথর পৰ্থম আলাপ হয়। পিরচয় হেয়িছল েজাড়াসাঁেকায়
   ু
ঠাকরবািড়েত িবিচতৰ্ার আসের। রবীন্দৰ্নােথর অনু েরােধ িতিন িবিচতৰ্ার আসের তাঁর ‘িবলাসী’ গল্পিট পেড়িছেলন। পের
উভেয়র মেধয্ আরও ঘিনষ্টতা হেয়েছ। শরত্চন্দৰ্ একািধকবার নানা পৰ্েয়াজেন শািন্তিনেকতন ও েজাড়াসাঁেকার
বািড়েত েগেছন কিবর সােথ েদখা করেত। েশষ বয়েস শরত্চন্দৰ্ কলকাতায় বািড় করেল েসখােন অনু িষ্ঠত এক সভায়
কিব একবার িগেয়িছেলন। কিবর সত্তর বছর পূ িতর্েত েদশবাসী যখন কলকাতার টাউনহেল তাঁেক অিভনন্দন জানায়,
েসই অিভনন্দন সভার িবখয্াত মানপতৰ্িট রচনা কেরিছেলন শরত্চন্দৰ্। কিব িনেজও একবার তাঁেক অিভনন্দন
জািনেয়িছেলন। বােজিশবপুর েছেড় যখন শরত্চন্দৰ্ সামতােবেড়েত বাস করেত থােকন, তখন েথেক েসই অঞ্চেলর
দিরদৰ্ েলােকেদর অসু েখ িচিকত্সা করাটা তাঁর এক কাজ হেয় দাঁড়ায়। েরাগী েদেখ িতিন শ‌ুধু দাতবয্ করেতন না,
অেনেকর পথয্ও িকেন িদেতন। বােজিশবপুের থাকার সময়ও এই কাজিট করেতন। তাছাড়া, িতিন সামতােবেড়েত
অেনক দু ঃস্থ পিরবারেক, িবেশষ কের অনাথ িবধবােদর মািসক অথর্ সাহাযয্ িদেতন। তেব েসখােন থাকাকালীন িতিন
৩/৪িটর েবশী গৰ্ন্থ রচনা করেত পােরন িন।

১৯৩৪ সােল শরত্চন্দৰ্ কলকাতার বািলগেঞ্জ একিট বািড় ৈতির কেরন। তখন েথেক িতিন কখনও কলকাতায় এবং
কখনও সামতােবেড়েত িদন কাটােতন। জীবেনর েশষিদেক তাঁর শরীর েমােটই ভাল যািচ্ছল না। ১৯৩৭ সােলর
েসেপ্টমব্র মােস িতিন ভীষণ অসু েখ পড়েলন। তাঁর পাকাশেয়র পীড়া েদখা িদল। এই সময় িতিন সামতােবেড়র
বািড়েত থাকেতন। েসখান েথেক িচিকত্সা করাবার জনয্ িতিন কলকাতার বািড়েত এেলন। কলকাতার ডাক্তাররা
                            ৃ
এক্সের কের েদখেলন, তাঁর যকেত কয্ান্সার হেয়েছ। এ সময় িতিন উইল কের তাঁর যাবতীয় সম্পিত্ত স্তৰ্ী িহ্রণ্ময়ী
েদবীেক দান কেরন। িহরণ্ময়ী েদবী শরত্চেন্দৰ্র মৃতুয্র পের ২৩ বছর েবঁেচ িছেলন।

কলকাতার তত্কালীন েশৰ্ষ্ঠ িচিকত্সেকরা - ডাঃ িবধানচন্দৰ্ রায়, ডাঃ কমুদশঙ্কর রায় পৰ্ভৃিত - শরত্চন্দৰ্েক েদেখ িস্থর
                                                                 ু
কেরন তাঁর েপেট অপােরশন করা ছাড়া েকান উপায় েনই। শরত্চন্দৰ্েক একিট ইউেরাপীয়ান নািসর্ং েহােম িনেয়
যাওয়া হয়। িকন্তু েসখােন তাঁর েনশার বস্তু িসগােরট েখেত না েদওয়ায় িতিন কষ্ট েবাধ কেরন। নািসর্ং েহােম িনিদর্ষ্ট
সময় ছাড়া কাউেকই েদখা করেত েদওয়া হত না। এ ছাড়া ইউেরাপীয় নাসর্রা এেদশীয় বেল শরত্চেন্দৰ্র সেঙ্গ নািক
ভাল বয্বহার করত না। এই কারেণ দু ই িদন পের, েসখান েথেক চেল এেস িতিন তাঁর আত্মীয় ডাঃ সু শীল চয্াটাজর্ীর


                                                      36
                                                                                        অঙ্কুর, ২০১১ 

‘পাকর্ নািসর্ং েহােম’ ভিতর্ হন। েসই সময়কার িবখয্াত সাজর্ন লিলতেমাহন
বয্ানাজর্ী তাঁর অেস্তৰ্াপচার কেরন। িকন্তু তােতও তাঁেক বাঁচােনা সম্ভব হয়িন।
অেস্তৰ্াপচােরর চার িদন পের তাঁর মৃতুয্ হয়। মৃতুয্কােল তাঁর বয়স হেয়িছল ৬১
বছর চার মাস। রবীন্দৰ্নাথ তাঁর মৃতুয্সংবাদ শ‌ুেন ইউনাইেটড েপৰ্েসর
পৰ্িতিনিধেক বেলন, ‘িযিন বাঙালীর জীবেনর আনন্দ ও েবদনােক একান্ত
সহানু ভুিতর দব্ারা িচিতৰ্ত কেরেছন, আধু িনক কােলর েসই িপৰ্য়তম েলখেকর
মহাপৰ্য়ােণ আিমও েদশবাসীর সেঙ্গ গভীর মমর্েবদনা অনু ভব করিছ।’ এর
কেয়কিদন পর তাঁর মৃতুয্েত কিব েলেখন —
                           যাহার অমর স্থান েপৰ্েমর আসেন
                         ক্ষিত তার ক্ষিত নয় মৃতুয্র শাসেন।
                         েদেশর মািটর েথেক িনল যাের হির
                         েদেশর হৃদয় তাের রািখয়ােছ বির।

                               *********


      Safety at work place - a necessity after Mr Dumpty's accident
                                         Spandan Mukherjee
                                               (Wellington)

The kings` working egg has an accident! Mr. Dumpty works for the king. He is a builder. As of
now, nobody knows what exactly had happened. There have been many different witnesses. Mary
said, “I saw the cow kick Mr. Dumpty off the wall while jumping over the moon."


                                         There could be other reasons too-
                                         • He may have tripped while climbing the wall. Maybe the
                                            security rails were insecure, which caused Mr. Dumpty’s
                                            fall.
                                         • Another reason could be that the wall which Mr. Dumpty
                                            was climbing was too thin to support his weight. The
                                            wall broke and he fell.
                                         • The last possible reason could be that someone other
                                            than the cow who had a grudge against him pushed him.
                                            Someone who did not like and probably hated him.



These are the few possible reasons which might
have caused Mr. Dumpty’s fall. Well, nobody
can be sure of what happened, until and unless
Mr. Dumpty recovers from his coma. A safe
workplace for people, especially people like Mr.
Dumpty is really necessary.




                                                     37
                                                                                                 অঙ্কুর, ২০১১ 

                                         ‘েহােতা যিদ আহা...’
                                            আদৃ তা মুেখাপাধয্ায়
                                                (ওেয়িলংটন)

বাইের যখন হুহু কের বইেছ িসেধ দিক্ষণ েমরু েথেক েতেড় আসা কনকেন হাওয়া, আর আপনার েছাট্ট ঘেরর মেধয্
পুেরাদেম চলেছ অেয়ল কলাম িহটার, িঠক েসই সময় আরামেকদারায় িপঠ এিলেয় িদেয় সু গিন্ধ চােয় চুমুক িদেত
িদেত মনটােক লাগামছাড়া কের িদন। কল্পনা করুন এই দৃ শয্গ‌ুেলা:

দৃ শয্ এক
েকাটর্িন েপ্লস। শীেতর সকাল, ঝকঝেক েরাদ্দুর। নয্াড়া গােছর ডােল ডােল িশিশেরর েফাঁটা িঝকিমক করেছ েযন
হীেরর কিচ। েযসব আিপেসর বাবুেদর অেভয্স সাতসকােল েবিরেয় পড়া, তাঁরা ছাড়া খুব একটা েকউ রাস্তায়
          ু
নােবনিন এখেনা। একটা দু েটা হলু দ রেঙর িটিকওয়ালা বাস েহলেত দু লেত চেলেছ। ফাঁকা রাস্তার পােশ এক
জায়গায় িকন্তু একটা জটলা। আপিন ওেয়িলংটেন নতুন বাঙালী, মািঙ্ক কয্াপ আর ওভারেকাট মুিড় িদেয় েভােরর
শহর েদখেত েবিরেয়েছন – েকৗতূ হলবেশ এিগেয় েগেলন জটলার িদেক। কােছ আসেতই চমক। বাস স্টয্ােন্ডর পােশ
                                                              ু
েছাট্ট একটা চালাঘর, মাথায় ফ্লয্ােক্সর ছাউিন। চালাঘেরর মাথায় ঝলেছ বাংলায় েলখা টকটেক লাল সাইনেবাডর্:
                                                     ৃ
‘নয্াপাদার িবশ‌ুদ্ধ বাঙালী চােয়র েদাকান’। আপিন চমত্কত্। নয্াপাদা িবশ‌ুদ্ধ বাঙালী, না চা-টা িবশ‌ুদ্ধ বাঙালী –
ভাবেত ভাবেত গ‌ুিট গ‌ুিট এিগেয় েগেলন।

েদাকােনর িভতের সামেনই লাগােনা রেয়েছ েমনু । হরফটা ইংিরিজ, িকন্তু ভাষাটা বাংলা। িঠক েযমন ফয্াশেনব্ল্
                                                                    ু
ফরাসী েরেস্তারাঁেত েদখেত পাওয়া যায়। েমনু েত আেছ ‘েলেড়া িবস্কট’, ‘মাখম েটাস্ট’, ‘মামেলট’, ‘িডম েটাস্ট’,
‘কচু ির’ ইতয্ািদ েলাভনীয় বস্তু। েমনু েবােডর্র সামেন েসানালী, কােলা, সাদা, বাদামী সবরকেমর মাথার ভীড়।
সােহবদাদারা এখেনা িঠক গ‌ুঁেতাগ‌ুঁিতর ফাইন আটর্টা আয়ত্ত করেত পােরনিন, কােজই এখােন একটু মৃদুসব্ের
‘এক্সিকউজ িম’ আর ‘কয্ান আই জাস্ট...’ চালাচািল হেচ্ছ। েদাকােনর েশষপৰ্ােন্ত রান্না হেচ্ছ। দু েটা বড় বড়
েকেরািসন েস্টােভ ভাজা হেচ্ছ িডম েটাস্ট আর মামেলট, সস্তা েরপিসড েতেলর গেন্ধ চািরিদক আেমািদত। এখােন
খেদ্দররা ৈধযর্ ধের লাইেন দাঁিড়েয় অেপক্ষা করেছন অডর্ার েদবার জনয্। কাউন্টােরর িপছেন রেকেটর গিতেত কাজ
করেছন একজন ভদৰ্েলাক – তাঁরও মাথায় মািঙ্ক কয্াপ েদেখ আপিন িনেমেষ বুেঝ েগেলন েয ইিনই আপনার েফেলা
বাঙালী, অঁতৰ্েপৰ্িনয়র সু িপৰ্ম নয্াপাদা। নয্াপাদা চাঁছােছালা গলায় ডাকেলন, “েনক্সট”। একিট েবচাির েগােছর ব্লন্ড
সােহব নাভর্াস েহেস বলেলন, “কয্ান আই িপ্লজ হয্াভ এ কাপ্ল্ অফ ‘ময্াকাম েটাষ্টস’?” নয্াপাদা ঝাঁকড়া ভুরুর তলা
েথেক তীক্ষ্ণ দৃ িষ্টেত তািকেয় বলেলন, “ইট ইজ নট ‘ময্াকাম’, মাই িডয়ার বয়, বাট ‘মাখম’। টৰ্াই, টৰ্াই, ইউ উইল
সাকিসড। পৰ্য্াকিটস েমকস্ পারেফক্ট। িথ্ৰ ডলারস িফফিট িপ্লজ।”

েদাকােনর ভীড়টা একটু হালকা হেল আপিন এিগেয় েগেলন। নয্াপাদা দু ই, চার, ছয়, দশ কের ডলার গ‌ুনিছেলন,
আপনার গলা খাঁকরািনর আওয়ােজ মুখ তুেল তাকােলন। তারপেরই মধু র হািসেত তাঁর মুখ ভের েগল। ‘েগাঁফ িদেয়
যায় েচনা’-র মতন, মািঙ্ক কয্াপ িদেয় যায় েচনা।

“দাদা িক শহের নতুন?” নয্াপাদা েচাখ মটেক িজেজ্ঞস করেলন। “েকমন েদখেছন?”

আপিন উচ্ছিসত হেয় বলেলন েয এরকম আপিন কল্পনাও করেত পােরনিন, েহায়াট েবঙ্গল িথঙ্কস টুেড দা ওয়াল্ডর্
িথঙ্কস টুমেরা, ইতয্ািদ ইতয্ািদ। নয্াপাদা সন্তুষ্ট হেয় বলেলন, “বসু ন, চা খান। একটা মামেলট িদেত বিল?” তারপর
গলা নািমেয় বলেলন, “কচু িরটা বািস, নাহেল ওটাই খাওয়াতাম। সকােলরটা এখেনা ভাজা হয় িন িকনা।”

                                                     38
                                                                                             অঙ্কুর, ২০১১ 

“বািস কচুির িবকৰ্ী করেবন?” আপিন ভেয় ভেয় িজেজ্ঞস করেলন। “মােন এেদেশ েতা িঠক...।”
“আের রাখুন মশাই,” বলেলন নয্াপাদা। “সব িকছু র জেনয্ই খেদ্দর আেছ। আমার বািস কচুিরর খেদ্দর এই এল
বেল। েরাজ সকােল আলাদা কের েরেখ িদেত হয়। নাহেল এমন হাঙ্গামা কের...।”

বলেত না বলেতই েদাকােনর দরজায় আিবভর্াব হল নয্াপাদার বািস কচুিরর খেদ্দেরর। “হাই নয্াপ্স্, হাউ আর ইউ
                         ু
মাইট (েমট), িদস িবউিটফল মিনর্ং?” বেল নয্াপাদার িপেঠ এক িবরাট থাবড়া েমের থপ কের বেস পড়ল মািটেত।
“অয্ান্ড েহায়য্ার আর মাই কাছু িরস?”

নয্াপাদা িপেঠ হাত েবালােত েবালােত েদঁেতা হািস হাসেলন। “কািমং আপ, েবন্, কািমং আপ। ডু ইউ ওয়ান্ট সাম
চাটিন উইথ ইট?” তারপর আপনার িদেক ঘুের বলেলন, “বু ঝেলন না, পেড়িছ যবেনর হােত... িক আর করা।”

িমিনট পাঁেচক পের আপিন যখন নয্াপাদােক গ‌ুডবাই কের এবং আবার আসার পৰ্িতশৰ্ুিত িদেয় েবিরেয় যােচ্ছন,
নয্াপাদার বািস কচুিরর েরগ‌ুলার খেদ্দর ওেয়িলংটেনর িবখয্াত ব্লয্াংেকটময্ান েবন হানা তখন মািটেত আসনিপঁিড় হেয়
তার ব্লয্াংেকেটর ওপর বেস আরােম কচুির িচেবােচ্ছ। নয্াপাদা িসিড েপ্লয়ার অন কের িদেলন, েজাের েজাের েবেজ
                       ৃ
উঠল “হির হরেয় নম কষ্ণ যাদবায় নম...।” আপিন েবেরােত েবেরােত শ‌ুনেলন ব্লয্াংেকটময্ান হােতর েতেলা িদেয়
উরুেত েঠকা মারেত মারেত গ‌ুন গ‌ুন করেছ, “হয্াির হয্ারােয় নয্ােমা...।”

দৃ শয্ দু ই
আপনার বাঙালী পৰ্িতেবশী বীেরনবাবু একিদন সকােল বাগােনর েবড়ার ওপর িদেয় ডাকেলন, “শ‌ুনেছন, জবর খবর।
আমােদর পাড়ার উলওয়াথর্েস মােছর বাজার বসেছ সপ্তােহ দু -িদন।”
“এ আবার জবর খবর িক?” আপিন অবাক হেয় বলেলন। “মাছ েতা উলওয়াথর্েস সবসমেয়ই িবকৰ্ী হয়।”
“আের না মশাই,” িজভ িদেয় িছক্ কের আওয়াজ কের বলেলন বীেরনবাবু। “এ েস নয়। পৰ্পার মােছর বাজার।
আমােদর েদেশর মত। উলওয়াথর্েসর িঠক বাইের একটা চাতাল আেছ না, েসইখােন উইকএেন্ড মাছওয়ালারা বসেছ।
যােবন েতা?”

অবশয্ই। বাঙালী হেয় এতবড় তীথর্স্থােন যােবন না? অতএব পেরর শিনবার সকাল সকাল বাজােরর থিল হােত
 ু
ঝিলেয় আপিন হািজর হেলন উলওয়াথর্েস। েবলা েবশী হয় িন, িকন্তু মােছর বাজার জমজমাট। সমস্ত জায়গাটােত
মােছর গন্ধ ভুরভুর করেছ। পােয়র তলায় জল এবং অল্প অল্প কাদা। চাতােলর চারধার িঘের সাির সাির বেস েগেছ
লু িঙ্গ আর েগিঞ্জ পরা নানান সাইেজর অেথনিটক বাঙালী মাছওয়ালারা। তােদর সামেন প্লািস্টেকর শীট পাতা, তার
ওপর গাদা করা মাছ, এবং িবশাল সাইেজর মাছ কাটার বঁিট। একটু দূ ের লাইন িদেয় বেস আেছ িকছু েছাকরা,
তারা হল মাছওয়ালােদর অয্ািসস্টয্ান্ট, তােদর কাজ মাছ েকেট িপস কের েদওয়া। তার জনয্ আপনােক িদেত হেব
খুচেরা পয়সা – যত বড় মাছ, তত েবশী পয়সা। িকন্তু েহায়াইটেবইট েবেছ েদবার জনয্ সবেথেক েবশী পয়সা
লাগেব – েকননা তােত খাটুিন েবশী, মােন েমৗরলার মত। েচনা পিরেবশ। আেশপােশ এত সােহব না থাকেল
জগ‌ুবাবুর বাজার বেল চািলেয় েদওয়াই েযত।

আপিন একটু এেগােতই চািরিদক েথেক িছটেক এল:
“এই েয দাদা, িক চাইেলন? ভােলা েমািক িছল, েদখেবন নািক একবার?”
“এিদেক আসু ন, দাদা, জয্ান্ত মােলট, েচাখ বুেজ েখেল মেন হেব পাক্কা ইিলশ – েদখােবা নািক?”
“গলদা, গলদা... েস্পশাল েরট...।”


                                                   39
                                                                                         অঙ্কুর, ২০১১ 

হঠাত্ সাঁ কের ভীেড়র মেধয্ িদেয় একটা ছাই রেঙর িকছু তীেরর মেতা এেস খপাত কের একটা মাছ তুেল িনেয়
পালাল। একটা িবশাল হুেলা েবড়াল। েয মাছওয়ালার ওপর বাটপািড় হেয়েছ, েস িবিড় টানিছল বেল একটু
অনয্মনস্ক িছল, এখন গালাগাল িদেত িদেত েবড়াল তাড়া করল। আপিন েমািক েনেবন না মােলট (িগন্নী সেষর্ বাটার
ঝালটা ভারী ভােলা রাঁেধন) ভাবেত ভাবেত এেগােচ্ছন, এমন সময় েদখেলন এক িসেল্কর পাঞ্জাবী পরা েমাটা
বড়েলাক বাবু িপছেন চাকর িনেয় বাজার করেত এেসেছন, চাকেরর মাথায় িবরাট ধামা। বাবুর দশ আঙু েল দশটা
আংিট, মুেখ পান, পেকেট ডলােরর েগাছা। আপিন পৰ্মাদ গ‌ুনেলন। এই ভদৰ্েলাক একাই সারা বাজার িকেন েফলেত
পােরন, ইিন শ‌ুরু করার আেগই আপনােক কাজ সারেত হেব। বড়েলাক বাবু েযই গলদার সামেন দাঁিড়েয় েমজােজ
মাছওয়ালােক িজজ্ঞাসা কেরেছন, “কত কের িদিচ্ছস্?”, আপিন উেল্টািদেক হাঁটা িদেলন। মােলটটাই িকেন েফলা
যাক, িগন্নী খুশী হেবন, েভেব িগেয় দাঁড়ােলন মাছওয়ালার সামেন। আেরা দু -িতনজন ভদৰ্েলাক নীচু হেয় মােছর েপট
িটেপ িটেপ পরখ করেছন মাছ কতটা েফৰ্শ।

“মােলট কত কের?” আপনার পােশর পাজামা পরা দািড়-না-কামােনা ভদৰ্েলাক িজেজ্ঞস করেলন।
“দশ, বাবু,” মাছওয়ালা বলল। “ও আর েদখেত হেব নােকা, েচাখ বন্ধ কের িনেয় যান। কড়াইেত েদবার পেরও
লাফােব।”
“দশ? ওিদেক েতা আেট িদেচ্ছ।”
মাছওয়ালা িনেমেষর মেধয্ েগাঁসা মুখ কের ভদৰ্েলােকর হাত েথেক মােলট েকেড় িনল। “তেব ওিদক েথেকই িনন।
কানেকা েদেখেছন, েকমন লাল? আমনার ওই ওিদেকর মােছর কানেকা এমন লাল?”
“নাও, নাও, েতামার কথাও থাক, আমার কথাও থাক। নয় নাও, েকমন?”
মাছওয়ালা, েযন কত ক্ষিত হেয় েগল এমন ভাব কের দাঁিড়পাল্লায় মাছটা তুলল। “আজ বেল তাই েপেয় েগেলন,
সামেনর হপ্তায় আর হেবিনেকা। জামাইষষ্ঠী আসেছ, জামাই খােব, শাউড়ী খােব – দাম সব িতন ডবল হেয় যােব,
হয্াঁ।”

আপিন ভাবেলন, দামটা যখন েনেমেছ, এই মওকায় িকেন েফলা যাক। েবশ নধর েদেখ একটা মাছ েবেছ েযই
মাছওয়ালার িদেক এিগেয় িদেত েগেছন, হঠাত্ িপছন েথেক একটা িবশাল হাত এেস খপ কের আপনার মাছটা ধের
েফলল। হােতর কি আপনার হােতর ডবল চওড়া, চামড়ার তলায় মাস্েলর অপরূপ কারুকাজ। তার ওপর সারা
হাত জুেড় উিল্ক, অথর্াত্ টয্াটু। আপিন েস্লা েমাশেন ঘাড় েঘারােলন। হােতর মািলেকর সেঙ্গ েচাখােচািখ হল। এক
মাওির ভাই, সাইজ এক্সটৰ্া লাজর্। মাথা চকচেক কের কামােনা, েমাটা েঠাঁট, লাল েচাখ, িনঘর্াত্ রাগিব েখেল।
“হাই ইয়া েবৰ্া,” ঘড়ঘেড় গলায় িকং কং বলল আপনােক, “ইয়া িস্টল ওয়ান দয্া িফশ, ময্ান?”
                                             ু
আপিন হাসেত েচষ্টা করেলন, হািসটা িঠক ফটল না। আপনার েপেটর মেধয্ গ‌ুড়গ‌ুড় করেছ, কােনর মেধয্ ফিড়ং
লাফােচ্ছ। “েনা, েনা,” আপিন শ‌ুকেনা গলায় বলেলন। “েটক ইট, েটক ইট।” েবঁেচ থাকেল অেনক মাছ েখেত
পােবা, েভেব পােয় পােয় িপিছেয় েচােখর আড়াল হওয়া মাতৰ্ েটেন েদৗড়। ‘থািকেত চরণ মরেণ িক ভয়, িনেমেষ
েযাজন ফরসা।’ এেকবাের বাড়ী েপঁৗেছ হাঁপােত হাঁপােত েসাফায় বেস পেড় িগন্নীেক বলেলন, “এক গ্লাস জল দাও
েতা। আর সামেনর েরাববার সতয্নারােণর িসিন্ন লাগাও, আজ মস্তবড় ফাঁড়া েগেছ।”

দৃ শয্ িতন
আপনার পাড়ার কিমউিনিট িনউজেপপাের এই েনািটশিট েবিরেয়েছ :
“ওেয়িলংটেনর অিধবাসীগেণর জনয্ িবেশষ সূ চনা। আগামী মােসর পয়লা তািরখ হইেত ওেয়িলংটন ও জনসনিভেলর
মেধয্ পাবিলক বাস চালু হইেতেছ। িবেদেশ বিসয়া েদেশর অিভজ্ঞতা অজর্ন করুন! পৰ্থম পঁিচশ জনেক িবশাল ছাড়
েদওয়া হইেব। আসু ন! েদখুন!! পরীক্ষা করুন!!!”


                                                 40
                                                                                                 অঙ্কুর, ২০১১ 

আপিন উত্সািহত হেয় মােসর পৰ্থম িদন িগেয় বাস িডেপােত লাইন িদেলন। বাস িডেপার বাইের সাির সাির িটেনর
বাস দাঁিড়েয় আেছ। সবকিটর েচহারা একরকম – একটু েতাবড়ােনা, রং চটা, আর বােসর িপছেন েলখা রেয়েছ:
‘ওেক’, ‘টা টা’ আর ‘েদখেল হেব, খরচা আেছ’। বােসর েচহারাগ‌ুেলা েচনা েচনা লাগেত হেব েতা। কাউন্টার েখালা
মাতৰ্ লাইন টাইন েভেঙ সবাই হুমিড় েখেয় পড়ল। এিদেক বাইের আিবভর্াব হেয়েছ হাফপয্ান্ট, েগিঞ্জ আর হাওয়াই
চিট পরা কন্ডাক্টরেদর, হােতর আঙু েলর ফাঁেক েনােটর েগাছা, কাঁধ েথেক েঝালান চামড়ার বয্াগ। তারা িনেজর
িনেজর বােসর গােয় েপটােত েপটােত পয্ােসঞ্জার েযাগাড় করার জেনয্ তারসব্ের িচত্কার আরম্ভ করল। আপিন
ধাক্কাধু িক্ক সামেল বােস উেঠ একটা িসেট বসা মাতৰ্ এক মিহলা চয্াঁ কের উঠেলন, “েলিডজ িসট, উঠুন, উঠুন। েচােখ
েদেখন না নািক? েকাথাকার অসভয্ েলাক ের বাবা!” আপিন তাড়াতািড় উেঠ বােসর িপছন িদেক িগেয় দাঁড়ােলন।
ওপেরর হয্ােন্ডল ধের হাঁপ ছাড়েত না ছাড়েতই বনয্ার জেলর মতন েলাক উেঠ বাস ভিতর্ হেয় েগল। কন্ডাক্টর
েকামের হাত িদেয় দাঁিড়েয় েদখিছল, যখন বাস ঠাসা ভিতর্ হেয় েগল, েস আেরা চার পাঁচ জনেক েঠলা েমের দরজা
            ু                 ু
েথেক ঝিলেয় িদেয় িনেজও ঝেল পড়ল। তারপেরই বােসর িটেনর েদওয়ােল এক রাম চাঁিট, এবং এক িনদারুণ
ঝাঁকািন। ডৰ্াইভার বাস েছেড় িদল।

বাস চেলেছ েমাটরওেয় িদেয় জনসনিভেলর িদেক। েমাটরওেয় পৰ্ায় ফাঁকা – কলকাতার বাস চলেব বেল
                                                                                  ু     ু
ওেয়িলংটেনর েলােকরা েবাধহয় ভেয় ভিক্তেত দূ ের সের আেছ। কন্ডাক্টর দরজা েথেক ঝলেত ঝলেত চয্াঁচােচ্ছ, “েজ-
িভল, েজ-িভল, েজ-িভল।” আপিন েদখেত েপেলন, পােশর েলেনর নীল গািড়র চািলকা এক মাঝবয়সী েমমসােহব
আচমকা েচঁচািনেত ভয়ানক ভড়েক িগেয় িসগনয্াল না িদেয়ই সাঁ কের সব েথেক দূ েরর েলেন পািলেয় েগেলন।
পিররুয়া-জনসনিভেলর েমাটরওেয়র েমােড় েপঁৗেছ বাস দাঁিড়েয় েগল। আপিন আঁতেক উেঠিছেলন – েমাটরওেয়র
ওপর গাড়ী দাঁড়ােনা েয বারণ! আপনার পােশর বুেড়া ভদৰ্েলাক বুিঝেয় িদেলন, কলকাতার বােসর জনয্ িবেশষ
বয্বস্থা - বাস ডৰ্াইভারেদর ইউিনয়ন িসিট কাউিন্সেলর সেঙ্গ ঝগড়া কের আদায় কেরেছ। এখােন িতনজন বাস েথেক
                                   ু
নামল, আর উঠল দশজন – ফেল ঝলন্ত েস্টটােসর েকােনা পিরবতর্ন হল না। বাস ছাড়া মাতৰ্ আর এক অপূ বর্
অিভজ্ঞতা হল আপনার। হঠাত্ শ‌ুনেত েপেলন ফাটা কাঁিসর মত গলায় গান: “একবার িবদায় েদ মা, ঘুের আিস।”
অন্ধ িভিখরী এবং তার হাত ধের হাফপয্ান্ট পরা বাচ্চা, সবার জামা েটেন ধের িভক্ষা চাইেছ। আপিন একটা কিড়     ু
েসন্ট বার কের িদেত েগেলন, িভিখরীর অয্ািসস্টয্ান্ট বাচ্চা আপনার িদেক অিগ্নদৃ িষ্টেত তািকেয় েসটা েফরত িদেয়
           ু
িদল। “কিড় েসন্ট িনই না,” বলল েস। “আমােদর েরট েগাল্ড কেয়ন।”

বােসর েভতের ভীেড় আপিন খােপ খােপ আটেক আেছন, নড়াচড়ার িবেশষ েস্কাপ েনই। িকন্তু হঠাত্ িবশাল েহঁচকা
টান িদেয় ডৰ্াইভার স্পীড িদব্গ‌ুণ কের িদল - িঠক েযন ঠাসা মুিড়র িটেন ঝাঁকিন লাগল। আপিন আপনার সহযাতৰ্ীেদর
                                                                        ু
সেঙ্গ হুড়মুড় কের পেড় িগেয়িছেলন, অেনক কসরত কের উেঠ দাঁড়ােলন। আপনার চািরিদেক ডৰ্াইভার আর
কন্ডাক্টেরর উেদ্দেশয্ গালাগািলর বনয্া বিষর্ত হেচ্ছ। েঢউ েখলােনা চুেলর এক েরাগা পটকা েছাঁড়া সরু গলায় েচঁচােচ্ছ,
“পয়স্সা িদেয় িটিকট িকেনিচ িক ইয়ািকর্ মারার জেনয্? চল্ স্সালা েজ-িভেল একবার, েপঁিদেয় বােপর নাম ভুিলেয়
েদাব, হয্াঁ।” িকেসর জেনয্ হঠাত্ এই িনদারুণ গিত, তা েবাঝার জেনয্ বাইের রাস্তার িদেক তািকেয়ই আপিন পৰ্েশ্নর
উত্তর েপেয় েগেলন। পােশর েলেন পিড়মির কের েদৗেড়ােচ্ছ একই রুেটর আইেডিন্টকাল এক িটেনর বাস – তারই
সেঙ্গ মরণপণ পৰ্িতেযািগতার ফেল আপিন ও আপনার সহযাতৰ্ীরা েহঁচকা টান েখেয়েছন। ইষ্টনাম জপেত আরম্ভ করা
মাতৰ্ শ‌ুনেত েপেলন েপছন েথেক েতেড় আসা েচনা আওয়াজ েপাঁ-ও-ও-ও...। “মামু -উ,” খুব খুশী হেয় বলল
আপনার পােশর েরাগা-পটকা েছাঁড়া, “েবস্স্ হেয়েচ স্সালা, এইবার েবাঝ ঠয্ালা।”

পুিলেশর গাড়ী বােসর সামেন এেস রাস্তা আটেক দাঁড়ােনােত আপনােদর ডৰ্াইভার বাধয্ হেয় বাস থামাল। আপিন
েভেব েদখেলন একবার যখন েথেমেছ, েনেম পড়াই মঙ্গল – বােসর িভতের থাকেল েজ-িভল েপঁৗছেবন িক েসাজা
সব্েগর্, তার েকােনা ভরসা েনই। বাস েথেক নামেতই েদখেলন, আপনার আেগ কন্ডাক্টরও েনেমেছ, আর এিগেয় যােচ্ছ
                                                     41
                                                                                              অঙ্কুর, ২০১১ 

পুিলেশর গাড়ীর িদেক। আপনার েকৗতূ হল হল, ভাবেলন, েদিখ েতা িক কের। “হয্ােলা, সয্ার,” হাত কচেল বলল
কন্ডাক্টর, “িমসেটক, সয্ার। সির, েভরী সির। ফরিগভ, ইেয়, একটু এিদেক আসু ন না দাদা...।” আর তারপর
আপনার িবস্ফািরত েচােখর সামেন েস হাত িদেয় আড়াল কের পুিলশ অিফসােরর িদেক এিগেয় িদল একটা কিড়    ু
ডলােরর েনাট। আপিন আর দাঁড়ােলন না। “িবেদেশ বিসয়া েদেশর অিভজ্ঞতা” আপনার েষােলা আনা পাওয়া হেয়
েগেছ - পয়সা উশ‌ুল।

উপসংহার
সব্প্ন বেল মেন হেচ্ছ? সব্প্নই। আমরা সবাই আমােদর ওেয়িলংটেনর এই েচনা জগেতর মেধয্ িনেজেদর মতন কের
বািনেয় িনেয়িছ পৰ্বাসী বাঙালীর আর একটা েছাট্ট জগত্। েসখােন আমরা জেড়া কেরিছ অেনক িকছু ই যা আমােদর
মেন কিরেয় েদয় েদেশর কথা। িকন্তু েসই জগেত েকােনািদন আসেব না িটেনর বাস িকমব্া নয্াপাদার চােয়র েদাকান।
কখেনা বসেব না উলওয়াথর্েস কলকাতার মােছর বাজার, জামাইষষ্ঠীর জেনয্ হাড্ডাহািড্ড দরাদির হেব না েসখােন।

িকন্তু মােঝ মােঝ িক আমােদর সবারই মেন হয় না, মন্দ হত না যিদ এক ঝকঝেক িদেন কেরাির পােকর্ বসত
কলকাতার বইেমলা, অগ‌ুিন্ত বইেয়র স্টেল ঘুরেত ঘুরেত জানা-অজানা বইেয়র ভীেড় হািরেয় েযতাম? পােয় পােয়
ধু েলা উড়ত, পােশর চালাঘেরর মেতা েদাকানটা েথেক িকেন িনতাম েবগ‌ুনী িকমব্া এগ্েরাল, আর সেন্ধয্েবলা হাত
ভের বই িনেয় ক্লান্ত পােয় বাড়ী িফরতাম। মন্দ হত না যিদ েপাহুটুকাওয়ার পাশাপািশ নীল আকােশর গােয় আগ‌ুেনর
                                ৃ
আলপনা এঁেক িদত আমােদর কষ্ণচূ ড়া; িকমব্া বসেন্তর সন্ধয্ােবলায় মাতাল হাওয়ার সেঙ্গ েভেস আসত এক ঝলক
ছািতম ফেলর গন্ধ। মন্দ হত না যিদ েকাটর্িন েপ্লেসর েমাড় ঘুেরই েদখেত েপতাম পাকর্ স্টৰ্ীেটর েসই খুব েচনা
          ু
েছাটেবলার স্মৃ িত জড়ােনা ফ্লিরেজর সাদা বাড়ীটা। জািন, সব্েপ্ন ছাড়া এ েকােনািদন হবার নয়। তা িনেয় দু ঃখ কেরও
                           ু
লাভ েনই। তার েচেয় আসু ন, মােঝ মােঝ িনেজেদর জেনয্ একটু সময় আলাদা কের িনেয় মেনর মেধয্ গেড় িনই
আমােদর িপৰ্য়, িচরকােলর েচনা কলকাতােক।
                                  “হবার-যা-নয় তার িবহেন আর িক কাঁিদ ?
                                    ‘েহােতা-যিদ-আহা’র বরং গল্প ফাঁিদ।”
                                               (েপৰ্েমন্দৰ্ িমতৰ্)




                                              আিম িক একা?
                                                   জয়শংকর শ
                                                   (ওেয়িলংটন)


          আিম িক একা, শ‌ুধু কিবর ছিব?                                  তবুও আিম িক একা?
     আিম িক থািক শ‌ুধু েতামার ঐ পথ েচেয়?                          েতামরা চেলছ পৰ্াণ হেত পৰ্ােণ
     তুিম পিথক, পথভৰ্ান্ত, পথশৰ্ান্ত শ‌ুধু পিথক।                 গান হেত গােন, যু গ হেত যু গােন্ত
           আিম পেথর ধাের েচেয় থািক                                 সবার মােঝ আিম িক মূ ক?
              পিথেকর পােথয় হেয়।                                     আিম েতা মুখেরর উত্স।
          আিম িক ছিব, শ‌ুধু কিবর ছিব?                                কিবর পৰ্ােণ আিম কাবয্
         আিম কিবর পৰ্ােণ িনঝর্িরণীর ধারা                            সু েরর মােঝ আিম সু রিভ।
             আিম সবার মােঝ সবুজ                                  আিম িক একা, শ‌ুধু কিবর ছিব?




                                                       42
                                                                                                        অঙ্কুর, ২০১১ 
                                               কিলযুেগর েদৰ্াণ
                                                      ু
                                               িদলীপ কমার দাস
                                                   (ওেয়িলংটন)

হালিফেলর িকছু খবর েথেক আমার ধারণা হেয়েছ েয                   বহাল হেয় ‘েদৰ্াণাচাযর্’ হেলন। তাঁর অথর্সংকটও দূ র
এই কিলকােল নব নব কেলবের েদৰ্ােণর পুনরািবভর্াব                হল। ধৃ তরাষ্টৰ্ আর পান্ডু – দু ই ভাইেয়র েছেলরাই তাঁর
হেচ্ছ। কিলর এই ‘েদৰ্াণ’ বড় ৈবিচতৰ্ময় বস্তু। তার              কােছ অস্তৰ্িশক্ষা করত। তাঁেদর মেধয্ অজুর্ন িছেলন
অেনক রূপ, অেনক কাযর্কািরতা। তেব একমাতৰ্ যু েদ্ধর             ধনু িবর্দয্ায় িবেশষ পারদশর্ী – েদৰ্ােণর সবেচেয় িপৰ্য়
সেঙ্গ সম্পকর্ আর নােমর িমল ছাড়া আসল েদৰ্ােণর সেঙ্গ                            ু
                                                             ছাতৰ্। যখন করুপান্ডেবর যু দ্ধ েবেধ েগল তখন েদৰ্াণ
তার েকান েযাগােযাগ েনই। কিলর েদৰ্ােণর কািহনী                 ঘটনাচেকৰ্ েকৗরব পেক্ষ েযাগ িদেলন। শরশযয্ায়
কীতর্ন করার আেগ আসল েদৰ্ােণর কথা একটু বেল িনই,               ভীেষ্মর মৃতুয্র পর িতিন েকৗরব েসনাপিতও
যিদও তা অেনেকরই জানা। তেব আবার অেনেকই না-ও                   হেয়িছেলন। যাই েহাক, যু েদ্ধ পান্ডেবরা েকৗশেল তাঁেক
জানেত পােরন, তাই এই চিবর্ত-চবর্ণ।                            ‘অশব্ত্থামা হত/ ইিত গজঃ’ বেল িনধন করেলন। এই
                                                             হল সংেক্ষেপ আসল েদৰ্ােণর কািহনী। মহাভারেত
আসল েদৰ্াণ িছেলন দব্াপর অথর্াত্ মহাভারেতর যু েগর             এসব আেছ।
মানু ষ। ভরদব্াজ বৰ্াহ্মেণর ঘের তাঁর আিবভর্াব।
েছাটেবলায় গ‌ুরুগৃেহ শাস্তৰ্ অধয্য়েনর সােথ শস্তৰ্িশক্ষায় –    কিলর েদৰ্াণাচাযর্রা (বলা ভাল ‘েডৰ্ানাচাযর্রা’) মানু ষ নন,
িবেশষত ধনু িবর্দয্ায় িছল তাঁর আগৰ্হ। গ‌ুরু পরশ‌ুরােমর        এমনিক জীবও নন। তাঁরা হেলন মনু ষয্সৃষ্ট নেভাচারী
তত্তব্াবধােন কেঠার অধয্বসােয়র সােথ অনু শীলন কের                                       ু
                                                             একপৰ্কার যন্তৰ্। িবষ্ণর দশ অবতােরর মত তাঁেদরও
িতিন এই িবদয্ায় িবেশষ পারদশর্ী হেয় উঠেলন। িকন্তু             কেয়কিট অবতাররূপ আেছ। েটিলিভশেন, খবেরর
িশক্ষা েশেষ তা িদেয় অথর্করী েকান কমর্ জুটল না।               কাগেজ এখন মােঝ মােঝই েডৰ্ােনর (Drone) কথা
ছাতৰ্াবস্থায় ভিবষয্ত দৰ্ুপদরাজার মত েলােকর সােথ              েশানা যায়। এগ‌ুিল হল দূ র-িনয়িন্তৰ্ত চালকিবহীন
বন্ধতব্ হেলও িতিন হতদিরদৰ্ হেয়ই রইেলন। িশশ‌ুপুতৰ্
   ু                                                         িবমান - চুিপচুিপ শতৰ্ুপেক্ষর লক্ষয্বস্তুর উপর েবামা
অশব্ত্থামার জনয্ সামানয্ দু ধটুকর বয্বস্থাও করেত পােরন
                                ু                            েফলেত ওস্তাদ। আেমিরকা এখন পৰ্ায়ই আফগািনস্তান-
িন। দু েধর বদেল তােক িপটুলী েগালা (চালবাঁটা)                 পািকস্তান সীমােন্ত তািলবািন েডরায় এগ‌ুিল েথেক েবামা
খাওয়ােত হত।                                                  েফলেছ। তােত অেনক িনরীহ মানু ষ মারা যােচ্ছ,
                                                             তােদর ঘরবাড়ীও ধব্ংস হেচ্ছ। সাফাই েদওয়া হেচ্ছ
েসইসময় হিস্তনাপুের করুবংেশর রাজতব্। যু িধিষ্ঠর-
                             ু                               েসগ‌ুিল collateral damage in the fight against
দু েযর্াধনািদ খুড়তুেতা-জয্াঠতুেতা ১০৫ ভাই ৈশশব েথেক          terrorism! আবার তািলবানরা দু -একিট েডৰ্ানেক
ৈকেশাের উত্তীণর্ হেচ্ছ। তােদর যু দ্ধিবদয্ায় পারদশর্ী         ঘােয়ল কের মািটেত নািমেয়েছ এমন খবরও পাওয়া
করেত হেব, অস্তৰ্িশক্ষা দরকার। িকন্তু উপযু ক্ত িশক্ষেকর       যায়। এই েডৰ্ানই হল কিলর েদৰ্াণাচােযর্র আিদরূপ
সন্ধান িমলেছ না। এই রকম সমেয় রাজপুেতৰ্রা একিদন               (নীেচর িচতৰ্ দৰ্ষ্টবয্)।
             ু
েগালক (ফটবল!) িনেয় মােঠ েখলা করিছল। েখলেত
                                           ূ
েখলেত েগালকিট মােঠর পােশ একিট কেয়ার মেধয্ পেড়
যায়। অেনক ভাবনা-িচন্তা কেরও েসিটেক কেয়া েথেক    ূ
িক কের েতালা যায় তা রাজপুেতৰ্রা িঠক করেত পারল
না। েসই সময় েদৰ্াণ মােঠর পাশ িদেয় যািচ্ছেলন। িতিন
রাজপুতৰ্েদর সমসয্ার কথা শ‌ুেন েগালকিটর উদ্ধাের                                        েডৰ্ান
এিগেয় এেলন। পৰ্থেম একিট শর িদেয় েগালকিটেক
আলেতাভােব িবদ্ধ করেলন। তারপর এেকর পর এক                      েবামা েফলা ছাড়া আর েয কেমর্ এিট দক্ষ তা হল
শর িনেক্ষপ কের একিট শেরর িপছেন অনয্িট জুেড়                   তথয্সংগৰ্হ এবং গ‌ুপ্তচরবৃ িত্ত। হেরক রকম কয্ােমরার
একিট ‘শরিশকল’ ৈতরী করেলন এবং েসই িশকল ধের                    মাধয্েম আকাশ েথেক শতৰ্ুপেক্ষর সেন্দহভাজন বা
েটেন েগালকিটেক কেয়া েথেক তুলেলন। রাজপুেতৰ্রা
                         ূ                                   গ‌ুরুতব্পূ ণর্ স্থােনর ছিব তুেল েসগ‌ুিল িনয়ন্তৰ্কেদর
েখলা েশেষ বাড়ী িফের ভীষ্মদাদু েক ঘটনািট বেল। সব              কিম্পউটাের           েপঁৗেছ েদওয়ার    মাধয্েম     এই
শ‌ুেন ভীেষ্মর মেন হল এই েলাকিটই রাজপুতৰ্েদর                                                              ু
                                                             েগােয়ন্দািগিরিট করা হয়। তার জনয্ যত ক্ষদৰ্ অবয়ব
অস্তৰ্গ‌ুরু হবার উপযু ক্ত। সু তরাং েদৰ্াণ অিচেরই েসই পেদ     ধারণ করা যায় ততই সু িবেধর। সু তরাং যু দ্ধাস্তৰ্
                                                        43
                                                                                                           অঙ্কুর, ২০১১ 
                    ু
গেবষকরা েডৰ্ােনর ক্ষদৰ্ সংস্করণ বানােত উেঠ পেড়                  েদেখ িকভােব পিরিস্থিতর েমাকািবলা করা হেব েস
লাগেলন। বছর পাঁেচক আেগ বাংলা খবেরর কাগেজ                                                                 ু
                                                                বয্াপাের িসদ্ধান্ত েনন। যন্তৰ্িটর বয্াস ফট দু েয়ক হেব
পেড়িছলাম জাপািন ৈবজ্ঞািনেকরা এই িবমানাবতােরর                    বেল মেন হেয়িছল। আর অিফসারিট যন্তৰ্িট হােত তুেল
                         ু
একিট আধেসরী এবং দু -ফিট বামনাবতার সৃ িষ্ট কেরেছন                েদখািচ্ছেলন। তােত অনু মান ওিট েবশ হালকাই। িতিন
(নীেচ িচতৰ্সহ সংবাদপেতৰ্র উদ্ধৃিত দৰ্ষ্টবয্)।                   আেরা জািনেয়েলন যন্তৰ্িট জামর্ানীেত ৈতরী।




                                                                           েডৰ্ানাচােযর্র বামনাবতার (জামর্ান)

                                                                জাপান এবং জামর্ানী যখন েডৰ্ানাচােযর্র বামনাবতার
                                                                ৈতরী কের েফেলেছ তখন ‘বড়দাদা’ আেমিরকা িক
                                                                িপিছেয় থাকেত পাের? যিদও দাদা সাধারণত বৃ হেতর
                                                                ভক্ত, তেব এই েক্ষেতৰ্ েগােয়ন্দািগিরর লেক্ষয্ তার
                                                                               ু
                                                                পছন্দ অিতক্ষেদৰ্। অেনয্রা যিদ মাইেকৰ্ােডৰ্ান ৈতরী
                                                                কের তেব েস বানােত চায় নয্ােনােডৰ্ান! আর কেরেছও
                                                                তাই। িকছু িদন আেগর খবর আেমিরকা ‘নয্ােনা
                                                                হািমংবাডর্’ নােম েডৰ্ানাচােযর্র িবহঙ্গাবতার বািনেয়েছ
                                                                (নীেচর িচতৰ্ দৰ্ষ্টবয্)। েস জয্ান্ত হািমংবােডর্র মত উড়েত
                                                                পাের এবং অবয়বিট খুব েছাট হবার জনয্ তার
                                                                ‘েহিলপয্াড’ িহসােব হােতর তালু ই যেথষ্ট।
                                                                Wikipedia েত তার িবশদ িববরণ আেছ।
অেনকটা এই রকম একিট বামনাবতার দশর্ন করার                         িবহঙ্গাবতােরর ওড়ার িভিডেয়াও আেছ Internet এ।
                                                                http://en.wikipedia.org/wiki/AeroVironment_Nano_Hummingbird
সু েযাগ আমার হেয়িছল। তেব েসই অবতােরর উেদ্দশয্
িছল মহত্। ২০০৯ সােল দু গর্াপূ জার িঠক আেগ িবেলেত
Health Protection 2009 Conference এ েযাগ িদই।
েসখােন       অেনক           presentation,        discussion,
exhibition ইতয্ািদর মেধয্ একটা demonstration িছল
incident management এবং rescue এর উপর।
বড়সড় েকান ঘটনার — তা েস পৰ্াকিতক দু ঘর্টনা,  ৃ
         ৃ
মনু ষয্কত অৈনিচ্ছক দু ঘর্টনা বা সন্তৰ্াসবাদীেদর আকৰ্মণ
যাই েহাক না েকন — েমাকািবলার পৰ্স্তুিত িকভােব                           হািমংবাডর্ বা গ‌ুনগ‌ুিনয়া পাখীর আদেল
েনওয়া হেচ্ছ তা আমােদর েদখােনা হল। তখন েদখলাম                                                            ু
                                                                       ‘নয্ােনা হািমংবাডর্’ নােমর অিতক্ষদৰ্ েডৰ্ান
microdrone নােম helicopter এর আদেল েছাট যন্তৰ্িট
(নীেচর িচতৰ্ দৰ্ষ্টবয্)। িবৰ্িটশ িমডলয্ান্ড ফায়ার সািভর্েসর     এখন েশানা যােচ্ছ এই েডৰ্ানাচােযর্র আেরা ক্ষদৰ্        ু
এক অিফসার জানােলন েয তাঁরা এই ক্ষদৰ্ েডৰ্ানেদর ু                সংস্করণ পতঙ্গাবতার ৈতরীর জনয্ পৰ্চুর অথর্বয্েয় েজার
দু ঘর্টনার উদ্ধারকােজ বয্বহার কেরন। এেদর েপেটর                  গেবষণা চলেছ। এবং তার মূ ল উেদ্দশয্িট হল
নীেচ িডিজটয্াল, ইনফৰ্ােরড, িভিডও ইতয্ািদ িবিভন্ন                গ‌ুপ্তচরবৃ িত্ত, উদ্ধারকােযর্র জনয্ তথয্সংগৰ্হ নয়। বুঝন ু
ধরেণর কয্ােমরা লাগােনার বয্বস্থা আেছ। ঘটনাস্থেলর                বয্াপার। েপাকামাকড় িদেয় েগােয়ন্দািগির! অেনয্র
আকােশ উেঠ এরা িবিভন্ন দৃ িষ্টেকাণ েথেক ছিব তুেল                 উপর আিধপতয্ িবস্তার এবং তা কােয়ম রাখার জনয্
পাঠায়। আর িনেচ ঘটনা সামলােনার কতর্ারা েসই ছিব                   মানু েষর িক িনরলস পৰ্য়াস!
                                                           44
                                                                                        অঙ্কুর, ২০১১ 

                      ADYapk Aßan d¹ W ikCu Aßan sMâitr SãÁaàGY
                                        SãIkaÇ» ce´apaDYay
                                          (pamarñn nàT)




캡bar 19 ŸS ŸPbã›yair 2010 skael †-Ÿml Kulet† duWs„badiF njer pRl - klkata ŸTek …k VtMIy
jaineyeCn ŸZ "ADYapk Aßan d¹ Vr Ÿn†'| …† Ÿta bar idn Veg sYaerr se˜ ŸdKa ker …lam| Ÿs† Vegr
mt kiP ker Kawyaeln| se˜r imiñFa iney rHsY ker bleln "ik jain wFa ik, teb ŸKet ŸbaDHy Karap
lageb na'| sYaerr …† "ŸbaDHy' S×iFr bYbHar Vmaedr braberr ŸkOtuekr ŸKarak iCl| ikǼ wFa Hyt
sYaerr Zui¹¡badI menr† Vr …kiF biHWpãkaS iCl, Ÿkan ibxey suiniëct ViBmt na Ÿdwya!

ˆinSeSa p‚aS-xaeFr dSekr ibSÿibdYaleyr CaºjIben ŸZ sb iSQk ba icÇ»kek ba„lar ŸmDa-mnn …b„
s„ôáit jg‡ Velaikt kret ŸdeKiC Aßanbabu tƒaedr pueraBaeg iCeln| ikǼ Aßanbabur pircy ìDumaº
icÇ»aSIl, supi¨t manux iHeseb idel ta AsÚpuàN Heb| itin …kjn AsmsaHsI, ibebkban, dirÅ-drdI,
VtMpãcaribmuK, ineàmaH bYi¹¡ iCeln| ŸZ sb ba˜alI mnIxIr nam Aßanbabur mueK pãayS† ìntam tƒaedr meDY
ibdYasagrmSa† Taketn| ibdYasagerr mt† Aßanbabuw "ZaHa ibSÿas kretn taHa paln kret' ŸpCúú-pa
Hetn na|

dIàG pãbasjIben ŸdeS ŸPrar ŸZ sb VkàxN Taek tar meDY ikCu manuexr se˜ Vr …kbar ŸdKa Hwyar
VnÆdFa Aenksmy pãaDanY pay| …ƒedr meDY VtMIy-bÉ™ra† saDarNt ŸbSI Taekn, ikǼ AnatMIy,
§r›jnóùanIy Aenekw Taekn| ta† ZKn† klkatay iPeriC, sYaerr se˜ ŸZagaŸZag ker ŸdKa krar Ÿcña
keriC| Ÿs† r›iFn - skael …kFa ŸFilePan, "sYar, Vim SãIkaÇ» bliC; Vpin Bal VeCn?' sYar blebn,
"tuim ŸkaTay? Vim ViC ŸmaFamuiF'| sÉYay …kFa smy ifk ker Haijr Hwya| se˜ saDarNt …k VDjn AnY
bÉ™w Takeb, sYar drja Kuel ÷agt janaebn sba†ek| …† ŸPbã›yairr ŸSx ŸdKaFaw Ÿkan bYitº¡mI iCl na|
se˜ iCl bÉ™, Ÿgaey«a kelejr ADYapk hW suijt ray| sYaerr se˜ tƒar …† pãTm caQ™x pircy|

sYaerr se˜ Vlapcairta kKn† ikǼ inCk BÅta-ibinmey sIimt Takt na| ŸdeSr, ibeSÿr, nana GFna, nana
bYi¹¡gt AiB¯ta …b„ ˆpliØr Vdanpãdaen Aæp smeyr Abióùit Ber ˆft sbsmy†| …kbar ŸdeS
ŸBaFaBuiFr meDY ŸdKa kret Ÿglam †knim¤ ihpaàFemeÆF, kƒaFakel| ije¯s kreln "ŸBaF idel?' Vim
bllam, "na sYar, kiÏFinˆ†„ Ÿrisehnúis Ÿn†, ta† idet parb na'| sYar bleln, "Aenek Ÿrisehnúis


                                                45
                                                                                       অঙ্কুর, ২০১১ 

Taketw ŸBaF Ÿdy na| Vbar Aenek …kaiDkbar Ÿdwyay gRpRta kt ŸBaF pRl ŸsFa ŸmaFamuiF ifk†
ŸdKay! Hyt ŸdKeb Ÿtamar naemw ŸBaF peReC'!

l¸en …kbar Aæpsmeyr ŸnaiFes sYarek ŸHaeFl ŸTek Vmar baiRet iney …lam| Vmar ó½Iw sYaerr purena
CaºI| VHaerr bYbóùar ApãacueàZY itin sl° maàjna inebdn kreln, "sYar, Vpin Vsebn তা Ÿta jantam
na। ta† Vmra inejra Za Ka†, ta† Vpnaekw idi¬C'| sYar bleln, "ta Hel Ÿta Bal† keriC Veg na
jainey| janael, Ÿtamra Za Kaw na, ŸbaDHy Vmaek Kawyaet'!

du Hajar itn sael †eÆdaeniSyar bailet …kFa knPaernúes sYarek AnYtm pãDan b¹¡a iHeseb inmǽN krb
bel mnóù ker ŸFilePan krlam| ˆin …kFu †tó»t ker bleln, "Vim …ka ŸZet …kFu Hyt AsuibDay pRet
pair, ta† Vr Ÿkˆ Zid se˜ Zay, Ÿta Brsa pab'| ŸbS keykjn ŸdS ŸTek …k se˜ Zawyay sYarw Zan,
…b„ AtYÇ» mUlYban …b„ mena¯ …kiF BaxN Ÿdn|

Vnuòaink kaj keàmr Paƒek Pƒaek sYaerr dIàG, kàmmy, bàNazY jIbenr nana kaiHnI, tƒar Aæpbyesr
pairbairk jIbn, ibeSxt tƒar maeyr Ak™lan Abóùar meDY suinpuN s„sar calaenar kaiHnIr sSãÁ bàNna
Vmaedr AiBBUt keriCl bel men pReC|

sYaerr Aenk ŸlKaet† gaÉIij …b„ rbIÆÅnaeTr pãasi˜ktar kTa VeC| …ƒra du'jn sYaerr jIbenr Dã›btara
iCeln bla Zay| tƒar inejr jIbenr pãcur pãitkšl pirióùitet itin gaÉIijr mt† inàBIktar pircy ideyeCn
… kTa Aenek† jaenn| durœH kaej …† ÷æpBaxI manuxiF inejr kifn pircy idet kKnw By Ÿpetn na|

gt keyk bCr piëcmba„lay ŸZ Asuóù, Aióùr, …b„ siH„s rajnIitr iSkar HeyeCn pãcur saDarN manux, ta
Aßanbabuek pãc¸ naRa …b„ pIRa ideyiCl … kTa itin bar bar bletn| mydaen pãitbadI manuexr Abóùan
…b„ AnSen itin Ÿ÷Cay ŸZagdan ker Aenekr inÆdaBajn HeyiCeln| tƒar kaeC … kajFa ŸZ …kFa nIit-
iBi¹k bYapar iCl, dl-iBi¹k ny, …Fa Zƒara Aßanbabur cirº jaenn tƒara sHej† bueJ Takebn| … ibxey
tƒar se˜ Vim Velacna krar sueZag ŸpeyiClam bCr itn Veg ZKn ŸdKa kret Za†| ˆin jim AiDgãHN ŸZ
Baeb kra HeyeC Ÿs sÜeÉ A÷ió» pãkaS kern …kjn saDarN nagirk iHeseb| …kjn ibd© smajib¯anI
iHeseb ˆin beln ŸZ †„lYae¸ ba AnY Ÿkan ˆÊt ŸdeS AtIet káixjim iney iSæp óùapn HeyiCl KainkFa|
ikǼ jnbûl, dairÅY-Bra, káixinàBr piëcmba„lay tar pãeZajYta ktFa VeC tar ˆpr Velacna …b„
ibteàkr AbkaS inëcy VeC| ta CaRa jim AiDgãHN pÁit Vrw ÷C …b„ inrepQ Hwya ˆict iCl bel itin
mt pãkaS keriCeln bel men pReC| itin pirNt byesr SarIirk A÷ió» ˆepQa ker nÆdIgãam igeyiCeln
saDarN manuexr kTa ìnet …b„ taedr paeS daƒRaet|

kaelr AemaG inyem sba†ek† …kidn ibday inet Hy| Aßanbabu pirNt byes ŸmaFamuiF suóù SrIer ibday
ineln …Fa …k idek ŸZmn saÇ»Ônar kTa, AnY idek ZKn men He¬C ŸZ sYaerr pã¯a, inàBIk smaj-sectn
Abióùit piëcmba„la, ba„laedS tTa Baretr manux Vr paeb na, tKn mnFa BarI Hey ˆfeC| gt bCr sYaerr
kaC ŸTek ibday Ÿnbar smy bllam, "sYar Bal Takebn'| ˆin bleln, "gt bCr pƒcaiS Ÿpirey ŸgeC, kt
Vr Bal Taka sÝb'| Ÿkn jain na Vim bel ŸPllam, "sYar, Vpin cel Ÿgel Vmaedr ŸdeSr …kFa
pãitòan cel Zaeb, …kFa suóù Dara AenkFa ìikey Zaeb'| Vim jain Aßanbabu ó»abktar Dar Daern in kKnw|
ta† taRataiR …Faw bllam, "sYar, Vpnaek Vmar ó»abkta krar Ÿta pãeyajn Ÿn†, ta† kriCw na| menr
kTaFa ìDu blet ŸceyiClam, ta† bllam'|

sYar cel ŸgeCn| …Kn men He¬C BaigY kTaFa beliClam|

                                               46
                                                                                                                  অঙ্কুর, ২০১১ 

                               Missing Girls – The Dark Faces of Rising India
                                                              Samir Narayan Chaudhuri
                                                                         (Kolkata)

According to the provisional census figures released in April 2011, the population in India is now
1.2 billion. This is almost 17% of the people living on this planet, having increased by 181 million
since the last census in 2001. On the positive side, our population growth rate is slowing down as
previously the increase was 230 million between 1991 and 2001. Women’s literacy (65%), although
still lower than men’s (82%), is narrowing the gap much faster than before (visit
www.censusindia.govt.in for more details).

A serious demographic concern for all is the sharp decline in the sex ratio in the 0-6 year age group
at 914 (the number of girls compared to 1,000 boys aged 6 years or under). This sex ratio has been
falling steadily from 976 in 1961 (see the chart below) and has now registered the sharpest fall ever
recorded since independence. In West Bengal, the 0-6 year sex ratio stands at 950, much better
compared to our national average, but registers as low as 830 and 846 in Haryana and Punjab
respectively. It is alarming to note that in two districts of Haryana, namely Jhajjar and
Mahendragarh, the 0-6 year sex ratio is 774 and 778 respectively.


                                                             Declining child sex ratio in India

                                               1000
              Number of girls aged 0-6 years




                                                      976
                 for every 1,000 boys




                                                980
                                                                  964         962
                                                960
                                                                                          945
                                                940
                                                                                                    927

                                                920                                                        914


                                                900
                                                      1961        1971       1981        1991       2001   2011

                                                               Data source: Indian Census reports



Although there are no large-scale studies revealing the causes behind the diminishing number of girl
children in our society, the following factors may largely explain the phenomenon.

   1. Preference for boys and neglect of girls
       This is a well known phenomenon which many of us have grown up with. We have seen how
       families look forward to, and celebrate with aplomb, the birth of boys and virtually go into
       mourning when girls are born. In many parts of India, families pay more to midwives
       delivering boys. There are incidences of girls throttled and poisoned to death at birth. Not
       long ago, a desperate mother threw her newborn girl child from the first floor of a hospital
       down to the rubbish dump below.

       It is common for families to neglect the illness of girl children, often trying out home
       remedies only or taking them to the local quacks, while their boys almost always receive the
       best affordable treatment. During mealtimes, boys often get the food of their choice while
       girls are provided with low quality diet.
                                                                             47
                                                                                             অঙ্কুর, ২০১১ 
   2. Low status of women
       This is evidenced by the relegation of women to the background in the family relating to the
       decisions taken around education of children, choice of professions, selection of marriage
       partners and any other issues involving financial outlay. Women are often paid lower wages
       for the same job done by men. Even in some religious ceremonies, women are barred from
       performing the major rituals if men are available.

   3. Prevalence of dowry
       This has become customary even among the well-educated irrespective of their religion.
       Many families start saving soon after a girl child is born to ensure the availability of a dowry.
       Several villagers often have to sell their meagre land holdings to secure dowry after which
       they have no other alternative but to migrate to cities and live in slums there. Many instances
       of ‘dowry death’ take place in different parts of India. Women often commit suicide due to
       constant harassment by their husbands’ family for more dowry even long after marriage.

   4. Pre-natal sex determination
       Pre-natal sex determination (for selective abortion of female foetus) is illegal, and this
       message is prominently displayed in signposting in many government hospitals, private
       clinics and nursing homes. With the tacit compliance of medical professionals, sex
       determination soon after pregnancy is easily available for a price both in large cities and
       small towns all over India. In the opinion of many sociologists and demographers, this is the
       main reason behind a drastic fall in the sex ratio in states like Haryana where income levels
       are high enough to pay for such unethical practices. The abortions that follow are most often
       listed as ‘miscarriage; threatening the life of the mother’.

When girls go missing

During a field visit to a remote village in Murshidabad, I came across an incident where a local
village girl was married off to a prospective suitor from Haryana. Numerous local women said that
they had come across many such ‘go between’ or agents approaching poor families to consider
marrying their daughters off to residents from such far-flung places as UP and Haryana. Large sums
of money, of course, change hands in the form of ‘bride price’ for such marriages to take place.

In China, where there has been a strict ‘one child’ policy in place for a few decades, and where there
is a preference for male children, social unrest is being reported as there are not enough brides for
eligible young men. It has been found that only the rich and smart are able to get a wife, leaving the
socially handicapped far behind. Are we going to bring about this kind of a situation in our society
by selectively having boys? This will indeed lead to a dark future for our country despite an
economic boom. Maybe in future we would have to be prepared to pay ‘bride price’ for our
prospective daughters-in-law.

What can be and is being done?

First of all, attitudinal change has to take place within each of us. I know of many educated couples
asserting that they are not keen to find out the sex of their unborn child and would equally welcome
a girl or a boy. This will send a strong message to the elders in the family that nature’s will should be
respected despite the difficult options one might have to face later. There is a need to spread this
message far and wide.


                                                   48
                                                                                          অঙ্কুর, ২০১১ 
Second, steps should be taken to ensure that girls are not discriminated against in their own families
or in society at large. This does not usually happen in a loving family environment. But social
pressures force parents to ‘fall in line’, raising their girl children with little or no education and
getting them married early with the help of a large dowry. Giving or taking dowry is a criminal
offence in India, but this goes undetected most of the time. Parents of marriageable daughters must
try to resist all vile efforts on the part of prospective in-laws to grab as much dowry as possible by
hook or by crook. Voluntary organisations and community groups should organise video and stage
shows on a regular basis against the evil practice of dowry. Exemplary punitive measures need to be
undertaken by law enforcement agencies against those who harass married women for dowry.

There is a need for a greater role of women in decision making in family matters and at higher
levels. Some constitutional changes in India are currently being implemented, such as reservation of
the one third seats for women in elected bodies starting from the Panchayat (village council) level.

Some state governments have introduced a few schemes of ‘positive discrimination’ benefitting
girls. In Tamil Nadu, for example, the government provides a lump sum for girls when they are born,
and this is invested for a long term to provide for higher education and for discouraging early
marriage. In Bihar, school-going girls are given free bicycles for regular school attendance and for
protection from physical abuse while covering long distances to schools. Such schemes are now
being piloted in many other states.

Job opportunities for young women have been opened up through many newly launched central
government funded health and child welfare programmes all over the country. Hundreds of
thousands of young women are being provided with jobs in the villages and cities, bringing in a
second income for poor families. Most notable are the ASHA programme under the National Rural
Health Mission of the Ministry of Health and Family Welfare and the Integrated Child Development
Services (ICDS) programmes sponsored by the Ministry of Woman and Child employing
Anganwadi workers, helpers and supervisors. Apart from income, such jobs provide young women
with a few years of schooling and basic training in health, hygiene and communication among other
skills which improve their confidence and self-esteem. These women go from home to home to
improve the caring skills of their poor and less educated sisters. The latter then begin to tackle
different types of gender violence, such as wife beating and sexual harrassment which they used to
suffer in silence earlier.

In my field visits to remote villages in West Bengal, I now come across female members in local
self-help groups who come together to set up income generation activities, with loans easily
available from banks under micro-credit schemes. Regular income is bolstering their confidence in a
big way and their menfolk are slowly realising that ‘woman power’ is a force to be reckoned with.
Once this realisation grows stronger, gender discrimination against girl children will hopefully
diminish over time.

                                       ****

(Editors’ note - Samir Narayan Chaudhuri is a Child Specialist and the Co-founder
and Director of Child In Need Institute (CINI) situated near Kolkata, India. For the
past four decades CINI is engaged in improving the condition of poor children and
women through various health and developmental activities. Please visit CINI’s
website www.cini-india.org for details.)




                                                 49
                                                                        অঙ্কুর, ২০১১ 

                                মা হন্তু
                               জব্ালামুখী

   আমার এ দীঘর্শব্ােস িবধাতার অিভশাপ েনেম আেস পৃিথবীর বুেক
   শত-লক্ষ কনয্াভৰ্ূণ অঙ্কুেরই উত্পািটতা – িক বীরতব্! হায়ের পুরুষ!
      েয জননীজঠেরর মাতৃরেস সঞ্জীিবত, পিরপুষ্ট েতার কেলবর
                                   ৃ
  তার পৰ্িত েনই েকােনা দু বর্লতা? কতজ্ঞতা? এত িপৰ্য় নারীর রুিধর?

    জন্মলেগ্ন েদিখ, িপতা অিত, অিত মুহয্মান এবং জননী কৰ্ন্দমানা
                               ু
 পুরুেষর উিচ্ছেষ্ট েমেট আমার ক্ষধা ও তৃষ্ণা, কখেনা বা েরাগগৰ্স্ত হেল
    পৰ্ায় িবনা দিক্ষণায় েদেহর উত্তাপ মােপ অপদাথর্ হাতুেরর তালু
   মৃতুয্ হেল, একটানা কৰ্ন্দেনর অন্তরােল সব্িস্তর িনশব্াস হয়েতা বা!

     আিম েমধািবনী, তবু িশক্ষা সমাপন হয় অষ্টম েশৰ্ণীর সূ চনায়
    পৰ্ায়শ িবকৰ্ীতা হই িববােহর ছেল – দূ ের, বহুদূ ের উত্তর ভারেত
 পিরবাের অকস্মাত্ অথর্াগম, একেজাড়া বলদ বা মাছধরা জােলর রসদ
 েকাথায় হািরেয় িগেয় ক’ েফাঁটা েচােখর জল েপিল বল েদিখ হতভাগী!

  মােক েদিখ িচরকাল পিরশৰ্ম কের েযেত, কাকেভার েথেক মধয্রাত
  িবিনমেয় েখেত পায় দু মুেঠা দু েবলা, তাও পুরুেষর খাওয়া সারা হেল
েনই তার মতামেত কােরা েকােনা পৰ্েয়াজন, বল, েসিক আর েবােঝ িকছু ?
    গিভর্ণী তনয়া তার আত্মঘাতী অতয্াচাের, তবুও েস পাথরপৰ্িতমা!

    জেন্মর পূ েবর্ িলঙ্গ িচেন েনওয়া যায় অিত আধু িনক পৰ্যু িক্তর গ‌ুেণ
     অতঃপর গভর্পাত, সেঙ্গাপেন, অল্পমূ েলয্ কনয্াভৰ্ূণ িনরুিপত হেল
  ঈষত্ েশব্তাভ হেয় ঘের িফির – শব্শৰ্ূমাতা েদেখও েদেখনা একবারও
    বংশধর উত্পাদেন অপারগ বধূ িটর মুখ েদখেল িপত্ত জব্েল তার!

        এবার উেঠিছ েজেগ, িকছু কথা বিল েশােনা, পুরুষপৰ্বর
        আমােক উেপক্ষা কের অবেহলাভের তুিম চেল যাও যিদ
         িনেজরই িবপদ হেব, নারী আজ আর নয় অত হীনবল
    সমাজ সব্ীকার কের তার দায়বদ্ধতা, রােষ্টৰ্রও রেয়েছ অঙ্গীকার।

              ৃ
      আিম পৰ্কিতর অংশ, েতামােদর সৃ িষ্ট কির অেক্লেশ, েহলায়
েযভােব, েসভােব, েজেনা, হেত পাির েতামােদর ধব্ংেসর অশিন-সংেকত
       অনায়ােস, তাই বিল, সাময্ ও ৈমতৰ্ীর িনিবড়, অটুট বন্ধেন
   এেসা, আগ‌ুয়ান হই একেযােগ, অনয্ এক সমুজ্জব্ল পৃিথবীর িদেক।


                                   50
                                                                                          অঙ্কুর, ২০১১ 


                                              ওরা কারা?
                                              করবী েঘাষ
                                               (কৰ্াইস্টচাচর্)

(এই কিবতাটা আমার শৰ্দ্ধাঞ্জিল। েদশ কাল পাতৰ্ এেত িভন্ন। জীবেনর চাকা ঘুের ঘুের, নানান রেঙ আমােদর রািঙেয়
েশষেবলায় যখন েপঁৗছােব – আজেকর চারপােশ তার ছিব আমরা অহরহ েদিখ। কােলর হােত আমরা কালেকর
                                                                   ৃ
পিরণিত েমেন িনই। আমােদর স্মৃিত, আমােদর শৰ্দ্ধা-ভালবাসা, আমােদর কতজ্ঞতা, আমােদর আজেকর বড় হওয়া,
আমার বােরা বছেরর কােজর অিভজ্ঞতা, সব িমিলেয় কিবতার ছতৰ্ হেয় রূপ েপেয়েছ।)

                                ওরা কারা? - ঐ যারা সাির সাির শ‌ুেয় আেছ
                               েলাহার খােটর েরেলর মােঝ, অসহায়, অক্ষম,
                                     অপিরিচত হেয়ও, অিত পিরিচত
                                    েতামার আমার কালেকর পিরণিত।

                                  কত েয বসন্ত এেসেছ জীবেন এেদর
                                কত আনন্দ, কত গান, কত ছন্দ, কত তান,
                                সব সিতয্ বাঁধােনা ঐ েদওয়ােল সাির সাির,
                                   ছিবর হািসমুখ, জরা ছাড়া অনয্ মুখ
                                       তুিম আিম েদিখিন যােক।

                              অস্পষ্ট দৃ িষ্টেত নতুন আনন্দ আেন পুরেনা স্মৃ িত
                                          গভীর িনশব্ােস ভরা ঘরখানা
                                      গভীর ঘুেমর মােঝ জড়ােনা কথা
                                     িনেজর কােছও আজ যা স্পষ্ট নয়
                                            এমনই সব না বলা কথা।

                                          আনমেন সারািদন বেস বেস
                                    িক েয েভেব চেল, েদেখ যায় এরা।
                                   িনিলর্প্ত মুখ, কখনও বা অনািবল হািস,
                               েমাহমুক্ত, সমেয়র হােত িনেজেক তুেল েদওয়া
                                িবজয়ী সমরী সব, আজ মহাপৰ্স্থােনর পেথ।

                           এই িছল আর েনই, কাল েয থাকেব েকউ িক তা জােন
                                এরা িক েভেবেছ – পুরেনা আত্মীয় েছেড়
                             নতুন আত্মীয় মােঝ িবদায় েনেব িচরিদেনর মত।

                             এেদর অবদান, এেদর কীিতর্, ইিতহাস সবই আজ
                                    আজ এরা সতয্ আমার কােছ
                                     কাল এরাই হেব ইিতহাস।




                                                    51
                                                                      অঙ্কুর, ২০১১ 


                        েরৗরব ২০১১
                     েদবীপৰ্সাদ মজুমদার
                           (ওেয়িলংটন)
                                ১
         সমুদৰ্-দানব এেস অকস্মাত্ মুেছ েদয় ঋদ্ধ জনপদ
     েযখােন বসিত িছল, িববণর্ পৰ্ান্তর আজ, েপৰ্তেলাক েযন
     আচিমব্েত পােয় েঠেক িছন্নিভন্ন পেড় থাকা পুতুেলর ধড়
         েস িক পৰ্াণ েপেতা েকােনা িশশ‌ুর হােতর স্পেশর্?
                          েস িশশ‌ু েকাথায়?
                                   ২
   উিদত সূ েযর্র েদশ মূ হুেতর্েক জরাগৰ্স্ত পারমাণিবক হলাহেল
ফসল-ফলােনা মািট বন্ধয্া, েযন েকােনা এক অপেদবতার অিভশােপ
   শ্মশান-সঙ্গীত বােজ - কৰ্েম কালরািতৰ্ েনেম আেস নগরীেত
               েয রিক্তম েভাের িছল উজ্জব্ল িদেনর সব্প্ন
                          েস েভার েকাথায়?
                                   ৩
     ঈশব্েরর এই েদেশ মািট েকঁেপ েফেট যায় েবলা িদব্পৰ্হের
        বাসু কীর রুদৰ্েরােষ িবচূ িণর্তা অপরূপা উদয্ান-নগরী
      ধব্স্ত পৰ্াচীেরর িনেচ নামহীনা মানবীর গেল যাওয়া শব
              যার নীল দু িট েচাখ আেশ্লেষ িনিবড় হেতা
                          েস েচাখ েকাথায়?
                                   ৪
 েগাধূ িল গগন জুেড় কালান্তক মারণােস্তৰ্ অশিন-সংেকত অিবরত
  পূ িতগন্ধময় মরু - অফরান নরমাংেস তৃপ্তা গৃিধনীর েভাজসভা
                           ু
    েমদ-মজ্জা-িলপ্ত মুেখ তীবৰ্ তীক্ষ্ণ িশবাধব্িন ক্ষীণ চন্দৰ্ােলােক
                    এত রক্ত েকন? এত রক্ত েকন?
                       এ পৰ্েশ্নর উত্তর েকাথায়?




                                52
                                                                                             অঙ্কুর, ২০১১ 

                                                 আেলা
                                              অিরন্দম বসু
                                               (কৰ্াইস্টচাচর্)

খুব েছাটেবলা েথেকই আিম ভীষণ রকেমর সঞ্চয়ী। এেককিট েছাট িশশ‌ু হয় না, খুব যত্ন কের িনেজর িজিনষপতৰ্
গ‌ুিছেয় রােখ। এেদর িকছু ই পৰ্ায় বলেত হয় না, ঘর েথেক েবেরােনার সময় িনয়ম কের আেলা িনিভেয়, পাখা বন্ধ কের
িদেয় যায়। আিম েসই রকম িছলু ম েছাট েথেক। েস সব্ভাব আজও েথেক েগেছ। িকপ্েট নই, িকন্তু টাকা-পয়সা,
িজিনষপতৰ্ বুেঝ চলবার েচষ্টা কির, যতটুক পাির। েমােটর ওপর আিম সাবধানী মানু ষ। িকন্তু মুশিকল হল, পৃিথবীর
                                       ু
আর পাঁচ জন িঠক আমার মতন নয়। েস অিফেস বলু ন, বািড়েত বলু ন, েদিখ অেনেকই অপচয় করেত ভােলাবােস।
েকউ েকউ একটু আলােভালা েগােছর েলাক, অতশত গ‌ুিছেয় রাখেত পাের না। এসব েদখেল আমার সিতয্ বলেত িক
একটু রাগই হেয় যায়। কত েলাকেক েদেখিছ খাবােরর অডর্ার িদেয় তারপর স্তূপীকত খাবার না েখেয় েফেল িদেয় চেল
                                                                      ৃ
যায়, েযখােন েসখােন দামী দামী বইপতৰ্ েফেল রােখ েখয়াল না কের, ঘন্টার পর ঘণ্টা বাগােন জল িদেয়ই যােচ্ছ,
েদাকােন বািড়েত রােত অনাবশয্ক আেলা জব্ািলেয় রােখ। এসব আপনােদর েচােখ পেড় না? আমার পেড় এবং আিম
অতয্ন্ত অপছন্দ কির। আমার মেন হয়, এ সব িবশৰ্ী অপচয়। িকছু মানু ষ েয অপচয় করেত িক ভােলাবােস, িক বলব!

আমার আেরকটা বয্াপার ভারী অপছেন্দর - সমেয়র অপবয্বহার ও সময়জ্ঞােনর অভাব। কত েলাকেক েদেখিছ
এমিনেত খুবই কতর্বয্পরায়ণ, সারাক্ষণ িনেজর কােজর মেধয্ থােক, ভারী িমিষ্ট আচার-বয্বহার। িকন্তু িক জােনন,
সমেয়র েকানও িহেসব রাখেত পাের না। ধরুন দশটায় িমিটং েরেখেছ, সােড় দশটায় এেস হািজর হ’ল। অথবা হয়েতা
এেস উঠেতই পারল না। আিম িনেজ সারা জীবন রুিটন েবঁেধ ঘিড় ধের কাজকমর্ কির। সময়ানু বিতর্তার অভাব কারও
মেধয্ েদখেল একদম সহয্ করেত পাির না। কী করব, এটাই আমার সব্ভাব।

আমার এক বন্ধ িছেলন, ডক্টর খািলদ। শ‌ুধু বন্ধ নন, ভদৰ্েলাক আমােদর পািরবািরক িচিকত্সকও িছেলন। খুব ভাল
                 ু                            ু
মানু ষ, তেতািধক ভদৰ্ নমৰ্ বয্বহার, সদাহাসয্ময়। ডাক্তার বেল নামও িছল খুব। পােশর বািড়েতই থাকেতন। যাতায়াত
েয খুব িছল তা হয়েতা নয়, এ সমস্ত েদেশ েয রকম সচরাচর হেয় থােক। ডাক্তার-েপেশন্ট সমব্ন্ধ ছািড়েয়ও একটা
   ু
বন্ধেতব্র সম্পকর্ হেয় েগিছল। তেব ওই। সমেয়র েকানও িহসাবজ্ঞান েনই। এমন আত্মেভালা মানু ষ েয রুগীর সেঙ্গ গল্প
কেরই যােচ্ছ্ন। এেকই অয্াপেয়ন্টেমন্ট পাওয়া দু রূহ, তার ওপের এই সময়-জ্ঞান! িতনেটয় সময় িদেল সােড় িতনেটর
আেগ ডাক্তারবাবুেক েদখােনার েকানও সম্ভাবনা েনই। েনহাত বন্ধেলাক, তায় ডাক্তার। তাই িকছু বিল না। অনয্ েলাক
                                                             ু
হ’েল িদতাম একিদন দু কথা শ‌ুিনেয়।

ডাক্তারবাবুর িক্লিনকিট িছল শহেরর মাঝখােন নদীর ধার েঘঁেষ ভারী সু ন্দর ও মেনারম একটা জায়গায়। একটা েবশ
বড় পুেরােনা আমেলর িতনতলা বািড়র ওপেরর তলায় ডাক্তারবাবুর েচমব্ার িছল। বািড়টার েদাতলা আর একতলায় িছল
েবশ কতগ‌ুেলা েছাট েছাট অিফস।

একিদন িক হেয়েছ শ‌ুনু ন। েসিদন ডাক্তারবাবুর সেঙ্গ িবেকল পাঁচটার সময় েদখা করার কথা। যথারীিত পাঁচটার একটু
আেগ েপঁৗেছ েদিখ, বািড়িটর সামেন গািড় পাকর্ করার েকানও জায়গা খািল েনই। একটা গািড়র সামেনর আেলা জব্লেছ
                                    ু
েদেখ ভাবলাম, েস গািড়টা হয়েতা এক্ষিন েবিরেয় যােব। িকন্তু িমিনট দু েয়ক তার কাছাকািছ অেপক্ষা করার পর
বুঝলাম েস গািড়র মািলক েহডলাইট জব্ািলেয় েরেখ েকাথাও কােজ েগেছন। বাবুর েফরার আর নামিট েনই। েসিদন
এমিনেতও একটু েমঘলা িছল। অেনেকই েদেখিছ একটু েমঘ করেল আেলা েজব্েল গািড় চালায়। হয়েতা ইিনও তাই
কেরেছন। তেব ইিন আেলা েজব্েল গািড় চািলেয়ই ক্ষান্ত হন িন। আেলািট েনভােতও ভুেল েগেছন। এই েদখুন িকরকম
অপচয়!

যাই েহাক, বহু কেষ্ট গািড়টােক একটা যায়গায় পাকর্ কের যখন ডাক্তারবাবুর িক্লিনেক েপঁৗছলাম, তখন পাঁচটা েবেজ
দু ই। আমার েতা ভারী খারাপ লাগিছল, সিতয্ বলেত িক িনেজর ওপর িবরক্তই লাগিছল। িকন্তু িগেয় শ‌ুনলাম তখনও


                                                    53
                                                                                                 অঙ্কুর, ২০১১ 
                             ু               ু
আমার ডাক আসেত অন্তত িমিনট কিড় েদির আেছ। বুঝন কান্ড, এই হল খািলদ ডাক্তার। ওই িদনটাই ওরকম িছল।
এেক েঢাকবার মুেখ গািড়েত আেলা জব্লেত েদেখ মেন মেন েবশ চেটিছ, এসব অপচয় েমােটই পছন্দ নয় আমার।
তার ওপর খািলদ সােহেবর সময় িনেয় এই আলগা ভাব! মেন মেন গজ গজ করেত করেত ময্াগািজেনর পাতা
ওল্টািচ্ছ, এমন সময় েসই ভয়ংকর কাণ্ডটা ঘটল।

পৰ্থেম ঘট ঘট শ কের ঘরটা েকঁেপ উঠল, পৰ্থমটায় আিম বুঝেতই পািরিন িক হেত চেলেছ। তারপর রবীন্দৰ্নােথর
বিণর্ত েসই “কিলকাতা চিলয়ােছ নিড়েত নিড়েত” মাকর্া এক সাংঘািতক রকেমর দু লুিন শ‌ুরু হল। আমার েচােখর
সামেন একটা সু ন্দর ছিব েভেঙ পড়ল। সামেনর েদয়ালটােত একটা ফাটল এর দাগ েদখা িদল। সামেনর জানালার
কাঁচ চুরমার হেয় েভেঙ পেড় েগল। আর হঠাত্ আেলা চেল েগল। সমস্ত জায়গাটােত তখন তুমুল হই হট্টেগাল। আমরা
েয েয িদক িদেয় পারলাম, েবিরেয় এলাম। বািড়টার িসঁিড় িদেয় েবরেনার একটা জায়গা িছল। িসঁিড় িদেয় সবাই
হুেড়াহুিড় কের নামিছ, তখন আেরক পৰ্স্থ কম্পন হল। সব িমিলেয় পিরতৰ্াহী অবস্থা। িসঁিড়টা এেক আেলা চেল িগেয়
অন্ধকার, তার ওপর েকাথাও একটা পাইপ েফেট জল পড়েছ, পা সামেল রাখা দায়। ভািগয্স িনেচর গািড়র েহডলাইট
েথেক একটা আেলা এেস পেড়িছল িনেচর িদকটায়, না হ’েল পৰ্ায় িকছু ই েদখা েযত না। েসই গািড়র েহডলাইেটর
আেলাটুকই যা ভরসা েসিদন। েকানমেত বািড়টা েথেক েবিরেয় রাস্তায় এেস উদ্ধর্শব্ােস িনেজর গািড়র িদেক িগেয় বাঁিচ।
         ু
িক েয ভয়ংকর িদন েগেছ িক বলব। সব েথেক খারাপ লাগিছল ডাক্তারবাবুর কথা েভেব। যখন িনেজর পৰ্াণ বাঁচােত
েবিরেয় এলাম, কই একবার ও েতা ভাবলাম না ডাক্তারবাবুর িক অবস্থা। এমনই িহেসবী েলাক আিম! আর েয মানু ষটা
ভুল কের গািড়েত আেলা জব্ািলেয় চেল েগিছল, তার কথাটা ভাবুন। ভািগয্স ভদৰ্েলাক (নািক ভদৰ্মিহলা?) আেলাটা
জব্ািলেয় েরেখ িছেলন। যিদ ওই ভুলটা না করেতন? ওই আেলাটুক িছল বেলই না পৰ্ায় মৃতুয্পুরী েথেক েবিরেয় এলাম!
                                                       ু
িকভােব েয েসিদন কাঁপেত কাঁপেত বািড় িফেরিছলু ম তা আিমই জািন।

এর পেরর িদেনর ঘটনা। আমরা চার-পাঁচ জন ডাক্তারবাবুর বািড়েত বেস আিছ। কাল েথেক িতিন বািড় েফেরন িন।
েমাবাইল েফােন বারবার েচষ্টা কেরও েকানও খবর পাওয়া যােচ্ছ না। খািলদ সােহব িনেজ েথেকও বািড়েত েকানও
েযাগােযাগ কেরন িন। শহর জুেড় পৰ্চুর পৰ্াণহািনর খবর পাওয়া যােচ্ছ। ডাক্তারবাবুর িক্লিনেকর বািড়টা েভেঙ পেড়
েগেছ। েসখান েথেক যিদও েবশ কেয়কজনেক উদ্ধার করা হেয়েছ, তােদর মেধয্ ডাক্তারবাবু েনই। বািড়র পিরেবশ
থমথেম। িকন্তু তখনও অবিধ আমােদর মেনর মেধয্ একটা ক্ষীণ আশা িছল েয েকানও এক সময় আমরা ডাক্তারবাবুর
উদ্ধােরর একটা সংবাদ পাব।

শহেরর এক জায়গােত পুিলশ ও পৰ্শাসেনর তরেফ খবরাখবর েদওয়া েনওয়ার একটা অিফস ৈতির করা হেয়েছ।
েসখােন খুব িভড়। সবাই িগেয় েয যার িনেজেদর হািরেয় যাওয়া মানু েষর েখাঁজ-খবর করেছ। েসিদন িবেকেল
ডাক্তারবাবুর এক ভাই, ও আেরকজন আত্মীেয়র সেঙ্গ আিমও েগলাম খবর িনেত।

েকানও খবর েনই, েকউ িকছু জােন না ডাক্তারবাবুর িক অবস্থা। পুিলশ িকছু টা আশব্াস িদেয় বলল েখাঁজ চালু আেছ,
ওরা যতটা পারেছ েচষ্টা করেছ। ওই বািড় েথেক এখেনা িকছু িকছু মানু ষেক উদ্ধার করা হেচ্ছ। কােজই আমােদর
একটু ৈধযর্য্ েতা ধরেতই হেব। পুিলশ ভদৰ্েলাক একথা েসকথা বলার পর বলেলন, তেব ডাক্তারবাবুর বয্াপাের একটা
কথা সব্ীকার করেতই হেব আমােদর। আপনােদর ডাক্তাবাবুেক আমরা িকভােব, কেব ও েকাথা েথেক উদ্ধার করেত
পারব জািন না। িকন্তু ডাক্তারবাবুর কলয্ােণ বহু মানু ষেক পৰ্থম দফায় আমরা পৰ্ােণ বাঁিচেয় উদ্ধার কেরিছ। েয সময়টায়
আমােদর এখােন আেলা িছল না, ডাক্তারবাবুর গািড়র েহডলাইেটর আেলার েদৗলেত অেনকটা সাহাযয্ হেয়িছল। যতক্ষণ
েপেরিছ আমরা গািড়র বয্াটাির আর আেলাটােক কােজ লািগেয়িছ। সিতয্ িকভােব েয মানু ষ মানু েষর উপকাের লােগ।

খািলদ ডাক্তার িফের আেসন িন। আর কখেনা িফের আসেবনও না। এ ঘটনার এক মাস পের তাঁর স্তৰ্ী ও পুতৰ্ এই
শহর েছেড় অনয্তৰ্ চেল েগেছন। তাঁরাও এ শহের আর কখেনা নাও িফরেত পােরন। ডাক্তারবাবুর গািড়টার সমব্েন্ধও
আিম আর িকছু জািন না। িকন্তু আিম একটা বয্াপার জািন। আমার আজন্মপািলত, অিত সযেত্ন লািলত িমতবয্িয়তা ও
সময়ানু বিতর্তার বয্াপাের গবর্েবাধ আর েনই। েসখােন অনয্ রকেমর একটা আেলা পেড়েছ।



                                                     54
                                                                                                  অঙ্কুর, ২০১১ 


                                                      মন
                                                  েগৗরীশঙ্কর

জীবন েহাল িনেজেক িনরন্তর আিবষ্কার করার সাধনা। এ জগেত যত কাজ আেছ তার মেধয্ জীবন-গঠনই সবেচেয়
বড় কাজ, সবেচেয় কিঠন কাজ। কােজই এর জনয্ সবেচেয় েবশী েচষ্টা, যত্ন, উদয্ম ও অধয্বসায় পৰ্েয়াজন। েচষ্টা,
যত্ন, উদয্ম ও অধয্বসায়ই সাফলয্ লােভর েশৰ্ষ্ঠ উপায়। েচষ্টা-যত্ন থাকেল সবই হয়। যার েচষ্টা-যত্ন আেছ, তার সবই
আেছ। তার জীবেন সবই সম্ভব। আর যার তা েনই তার জীবেন িকছু ই হেত পােরনা। এ জগেত েকউ কাউেক িকছু
কের িদেত পাের না। সকলেকই সব িকছু িনেজ কের িনেত হয়। যখন েদিখ আমরা (আিম িনেজ এবং আমার ঘিনষ্ঠ
বন্ধ-বান্ধেবর মেধয্ অেনেকই) পৰ্িত মুহূেতর্ িনেজেদর মেধয্ হাজার হাজার ভুল-ভৰ্ািন্ত-েদাষ-তৰ্ুিটর পাহাড় গেড় তুলিছ
    ু
এবং তার জেনয্ জীবেন অশািন্ত ও ভীষণ কষ্ট পািচ্ছ, তখন খুব দু ঃখ হয়। িনেজেক পৰ্শ্ন করেত ইচ্ছা হয় - এই
দু ঃখ-অশািন্ত দূ র করার িক েকান উপায় আেছ ?

                          ৃ
উপায় আেছ। ভগবান শৰ্ীকষ্ণ শৰ্ীমদ্ভগবতগীতায় আমােদর েস সমব্েন্ধ যা উপেদশ িদেয় েগেছন, তা যিদ আমরা িঠক
মত পালন করেত পাির তা হেলই সমস্ত অশািন্ত দু ঃখ-দু দর্শার হাত েথেক িনশ্চয়ই িনষ্কৃিত ও মুিক্ত পাওয়া যােব।
ভগবান শৰ্ীকষ্ণ শৰ্ীমদ্ভগবতগীতায় এ সমব্েন্ধ যা জ্ঞান-উপেদশ িদেয় েগেছন, এর পর আর কারুর নতুন কের জ্ঞান
           ৃ
েদওয়ার পৰ্েয়াজন বা অবকাশ আেছ বেল আমার মেন হয় না। কােজই আিম েকান নতুন কথা বলার দাবী করিছ না,
েচষ্টাও করিছ না। আমার সামানয্ বুিদ্ধ িদেয়, আিম শ‌ুধু শৰ্ীকেষ্ণর েদওয়া উপেদশ ও জ্ঞােনরই পুনরাবৃ িত্ত করব। েচষ্টা
                                                          ৃ
                        ু
করব িনেজেক এবং বন্ধ-বান্ধবেদর তা মেন কিরেয় িদেত। অবশয্ তা সেত্তব্ও আিম যিদ েবশী বড় বড় কথা বলিছ
বেল মেন হয়, তেব পাঠেকরা িনজগ‌ুেণ আমােক ক্ষমা কের েদেবন।

আমরা সবাই জািন েয অস্তৰ্গ‌ুরু েদৰ্াণাচােযর্র িশষয্েদর মেধয্ অজুর্েনর মেনাসংেযাগ িছল সবার েথেক েবশী। অথচ,
করুেক্ষেতৰ্র যু দ্ধ শ‌ুরু হবার আেগ েসই অজুর্নই শৰ্ীকষ্ণেক বেলিছেলন, “েহ মধু সুদন! তুিম সবর্তৰ্ সমদশর্নরূপ
 ু                                                    ৃ
েযােগর েয উপেদশ িদেল, মেনর চঞ্চল সব্ভাববশত আিম তার স্থায়ী িস্থিত েদখেত পািচ্ছ না। মন অতয্ন্ত চঞ্চল,
শরীর ও ইিন্দৰ্য়ািদর িবেক্ষপ উত্পাদক, দু দর্মনীয় এবং অতয্ন্ত বলবান। তাই তােক িনগৰ্হ করা, বায়ু েক বশীভুত
করার েথেকও অিধকতর কিঠন বেল আিম মেন কির।”

                          ৃ
তখন পরেমশব্র ভগবান শৰ্ীকষ্ণ তার উত্তের বলেলন, “েহ মহাবােহা! মন েয দু দর্মনীয় ও চঞ্চল তােত েকান সেন্দহ
েনই। িকন্তু, কৰ্মশ অভয্াস ও ৈবরােগয্র দব্ারা মনেক বশীভূ ত করা যায়। যাঁর মন সংযত এবং িযিন যথাথর্ উপায়
অবলমব্ন কের মনেক বেশ আনেত েচষ্টা কেরন, িতিন অবশয্ই িসিদ্ধ লাভ করেত পােরন।”

                            ৃ
শৰ্ীমদ্ভগবতগীতায় ভগবান শৰ্ীকষ্ণ আরও বেলেছন -
                                   ঊদ্দব্েরদাত্মনাত্মানং নাত্মানমবসাদেয়ত্।
                                 আৈত্মব হয্াত্মােনা বন্ধরাৈত্মব িরপুরাত্মনঃ ।।
                                                        ু

অথর্াত্ মানু েষর কতর্বয্ তার মেনর দব্ারা িনেজেক জড় জগেতর বন্ধন েথেক উদ্ধার করা। মেনর দব্ারা আত্মােক
                                                        ু
অধঃপিতত করা কখনই উিচত নয়। মনই জীেবর অবস্থা েভেদ বন্ধ ও শতৰ্ু হেয় থােক।

                                    মন এব মনু ষয্াণাং কারণাং বন্ধেমাক্ষেয়াঃ ।
                                    বন্ধায় িবষয়াসেঙ্গা মুৈক্ত িনবর্ষয়ং মনঃ ।।

অথর্াত্ মনই মানু েষর বন্ধন এবং মুিক্তর কারণ। ইিন্দৰ্েয়র িবষেয়র পৰ্িত মেনর তন্ময়তা হেচ্ছ বন্ধেনর কারণ এবং
িবষেয়র পৰ্িত মেনর অনাসিক্ত হেচ্ছ মুিক্তর কারণ।


                                                       55
                                                                                                অঙ্কুর, ২০১১ 

                                     ু
                                  বন্ধরাত্মাত্মনস্তসয্ েযনাৈত্মবাত্মনা িজতঃ ।
                                  অনান্তনস্তু শতৰ্ুেতব্ বেতর্তাৈত্মব শতৰ্ুবত্ ।।

                                                 ু
অথর্াত্ িযিন তাঁর মনেক জয় কেরেছন, মন তাঁর পরম বন্ধ। িকন্তু িযিন তা করেত অক্ষম মনই তাঁর পরম শতৰ্ু।

মানু েষর জীবেনর যাবতীয় দু ঃখ-সমসয্ার মূ ল এবং েবাধহয় একমাতৰ্ কারণ েহাল মানু েষর মন - অসংযত, অবাধয্
মন। মানু েষর জীবেন যা িকছু , তা মন িনেয়। উদ্ধর্গামী বা অেধাগামী সবই ঐ মন িনেয়। আমরা মেনর কারাগাের
বদ্ধ। এই কারাগারিট আমরাই সৃ িষ্ট কেরিছ, আমােদর মন িদেয়। মায়ার জােল মন আবদ্ধ হেয় আেছ। কিচন্তা-        ু
 ু                                                                                ু
কভাবনাই মানু েষর পরম শতৰ্ু। এর েথেক বড় শতৰ্ু মানু েষর আর েনই। একবার যিদ কিচন্তা মেনর েভতর পৰ্েবশ
কের তা হেল তা দু ষ্ট কীেটর মত মানু েষর জীবনেক এেকবার ধব্ংস কের েদয়। যারা দু িশ্চন্তাগৰ্স্ত তারা সব সময়ই
িনেজর সেঙ্গ যু দ্ধ কের চেলেছ। সমসয্া ছাড়া তারা থাকেত পােরনা। সমসয্া তােদর সাথী। েছাট-বড় সব িকছু র
                                                                             ু
মেধয্ই তারা অশ‌ুভ িদকটাই আেগ েদেখ। েদাষ-দশর্ন তােদর সব্ভাব হেয় দাঁড়ায়। কিচন্তােক, দু িশ্চন্তােক কখনই পৰ্শৰ্য়
িদেত েনই। যতই দু িশ্চন্তােক পৰ্শৰ্য় েদওয়া যায়, ততই দু িশ্চন্তা মেনর গভীর অবেচতেন তার স্থানিট পাকা কের েনয়।
                                              ু
সহেজ মানু ষেক ছাড়েত চায় না। দু িশ্চন্তা বা কিচন্তায় অভয্স্ত মন, এক রকেমর মানিসক বয্ািধ। দু রােরাগয্ বয্ািধ।
সহেজ ভাল হেত চায় না। আর িঠক িবপরীতভােব সু িচন্তােক পৰ্শৰ্য় িদেল, তােক শৰ্দ্ধাপূ ণর্িচেত্ত মেনর মেধয্ িনেত
পারেল, মেনর গভীর অবেচতেন সু িচন্তা তার স্থানিট পাকা কের িনেত পাের।

           ৃ
ভগবান শৰ্ীকষ্ণ বেলেছন, “েতামার মন িদেয় মনেক উদ্ধার কর। েতামার আত্মার শিক্তেত েতামার আত্মােক উপলি
কর। তুিম ছাড়া েক েতামার বন্ধনমুক্ত করেব? মনই েতা বদ্ধ। বদ্ধ অবস্থা একটা ধারণা মাতৰ্, েস ধারণা মেনর।”
তাই এই ধারনার পিরবতর্ন মেনর মাধয্েমই করেত হেব। এই মনই েতা শািন্ত ও আনন্দধােমর দু য়ার। অনু শীলেনর
মাধয্েম ঐ মনেকই দু ঃেখর সঙ্গ েছেড় শািন্ত ও সফলতার সঙ্গ িদেত পারা যায়। মনেক সব্বেশ আনার েচষ্টা করেত
হেব। মনেক সব্বেশ আনেত ও রাখেত হেল যােদর সেঙ্গ িমশেল িনেজর ভাব নষ্ট হয়, পৰ্থেমই তােদর সেঙ্গ েমলা-
েমশা বন্ধ করেত হেব। েকান সমেয়ই তােদর সংস্পেশর্ আসা চলেব না। এবং এর িঠক উেল্টাটা অথর্াত্ সত্সঙ্গ
করেত হেব। সত্সেঙ্গর অেনক গ‌ুণ। যাঁেদর মেনাভাব শ‌ুভ, েকবল তােদর সেঙ্গই েবশী েবশী কের েমলা-েমশা করা
উিচত।

মনেক সব সময় সু িচন্তায় রাখার েচষ্টা করেত হেব এবং আত্মিবশব্াসীও হেত হেব। আত্মিবশব্াসী মন ভীষণ শিক্তশালী।
সব িকছু র মেধয্ ভালটােকই েদেখ। রাজহাঁেসর মত। দু েধ জল িমেশ থাকেল রাজহাঁস দু ধটুকই খায়। জল পেড়
                                                                                      ু
থােক। সারটুকই েনওয়া েকবল সু -মেনর কাজ। েয মন েদাষ-তৰ্ুিট এবং অকতকাযর্তার স্মৃ িতেক অবলমব্ন কের
            ু                                                         ৃ
থােক, েসই মন ঐ জলটুকই িনেয়ই থােক। দু ধ খাওয়া আর হয় না। সু -মনই জীবেনর েশৰ্ষ্ঠ উপহার। আর এই সু -
                       ু
মেনর অিধকারী েয েকবল িনেজই ভাগয্বান ও সু খী তা নয়, এমন মানু েষর সংস্পেশর্ েয আেস েসই চুমব্েকর মত
আকষর্ণ অনু ভব কের। সমস্ত িবশসংসােরর জনয্ এমন মানু ষ এক পরম আশীবর্াদ।

যখনই েকােনা পিরিস্থিতর জনয্ কাউেক দায়ী করার জনয্ মন উদয্ত হেব, তখনই মনেক থামােত হেব। িবচার
                                                                                  ৃ
করেলই েদখেত পাওয়া যােব ঐ পিরিস্থিতর জনয্ সবার আেগ আিমই দায়ী। ভগবান শৰ্ীকষ্ণ বেলেছন, “আৈত্মব
িরপুরাত্মনঃ” অথর্াত্ েতামার মনই েতামার শতৰ্ু। েক বেলেছ েতামার শতৰ্ু বাইের? েতামার শতৰ্ু েতামারই মেন গা
ঢাকা িদেয় বাস করেছ। েতামার সবেচেয় বড় শতৰ্ু েতামার অসংযত, অহংকারী মন। েচষ্টা করেত হেব আত্মিবস্মৃ ত
না হেয় আিম েয শরীর ও মন নই, এসব িকছু র েথেক আলাদা, েসটা ভাল কের েবাঝা এবং মেন রাখা। ওটাই
                                                               ু
েজেগ থাকার উপায়। েকান অবস্থােতই মেনর সেঙ্গ পৰ্তারণা নয়, বন্ধতব্ করেত হেব। িনেজেক ভালভােব েদখার
েচষ্টা, িনেজর িচন্তা-ভাবনােক কাছ েথেক েদখার অভয্াস করেত হেব। মনেক অবশভােব চলেত েদওয়া নয়। মনেক
অবশভােব চলেত েদওয়া হয় বেলই সংসাের এত দু ঃখ-কষ্ট। আমােদর েচষ্টা করেত হেব অবশ মনেক সবেশ
                                                  ু
আনার। েচষ্টা করেত হেব শতৰ্ু মনেক ভালেবেস বন্ধ কের েনওয়ার। েকান অবস্থােতই negative attitude-এর
কােছ িনেজেক সহেজ ভািসেয় না িদেয় মেনর রাশেক একটু েটেন ধের পৰ্শ্ন করেত হেব – ‘আিম যিদ একই কথা,

                                                       56
                                                                                           অঙ্কুর, ২০১১ 

একই মানিসকতার পুনরাবৃ িত্ত কির তেব আিম েকাথায় েপঁৗছােবা? আমার গন্তবয্স্থান যিদ শািন্ত ও আনন্দ হয়, তেব
আমার attitude এবং action িক হওয়া উিচত?’ যতিদন আমরা অেনয্র েদাষ-তৰ্ুিটর পিরবতর্ন করেত চাইব,
ততিদন শািন্ত পাব না। পিরবতর্ন িনেজর মেধয্ই আনেত হেব। অনয্েক পিরবতর্ন করার েচষ্টা করেলই দূ ঃখ েপেত
             ু
হেব। িনেজর ক্ষদৰ্ অহংকােরর উপর িনভর্রশীল হেয় মানু ষ িক েপেয়েছ? কতজনেক পাল্টােত েপেরেছ? ঘের ঘের
এেক অপরেক িনেজর মত কের চালােত িগেয় ঘরগ‌ুেলা েকমন টুকেরা টুকেরা হেয় যােচ্ছ। অহংকার ভােঙ্গ, গেড়
                       ু
না। অহংকার মানু েষর বন্ধ নয়, শতৰ্ু। মেনর মেধয্ েগাপেন লু িকেয় থাকা কাল সাপ। সু ্েযাগ েপেলই েফাঁস কের
উেঠ িবষ েঢেল েদেব।

আমরা মনেক সংযত করেত পািরনা বেল, িজহব্ােকও সংযত করেত না েপের অেনক সময় আেজ-বােজ কথা বেল
অেহতুক মানু ষেক আঘাত কির। বােকয্র অেমাঘ শিক্ত। কথা েয কথার কথা নয়, েস েয এক বৰ্হ্ম-শিক্ত, শ বৰ্হ্ম তা
আমরা পৰ্ায় ভুেলই থািক। আমরা কথার মাধয্েম আশীবর্াদও কির এবং আঘাতও কির। একটু েখয়াল করেলই েদখা
যােব েয আমােদর মেধয্ই অেনেক আেছন যাঁরা অেচতনভােব কটু কথা, পীড়াদায়ক কথা বেল অনয্েক কষ্ট েদন,
েকবল মজা করার জনয্। আমােদর মেন রাখা উিচত েয অনয্েক িনেয় মজা করেত িগেয় মজার সীমা অিতকৰ্ম কের
তােক পীড়া িদেল, েস পীড়া আজ নয়ত কাল িনেজর কােছ িফের আসেবই। যােত আমরা েকা্নভােব অেনয্র পীড়ার
কা্রণ না হই তার জনয্ সজাগ ও সেচতন থাকেত হেব।

েচাখ যখন েদাষ েদখেত অভয্াস্ত হেয় যায় তখন েসই েচাখ সব িকছু েকই েদাষদু ষ্ট েদেখ। এমন দৃ িষ্টর কবেল পড়েল
চলেব না। মনেক এই দৃ িষ্টর কবল েথেক িনষ্কৃিত িদেতই হেব। এর েকােনা িবকল্প েনই। অেনক সময় অেনক িমিষ্ট
কথা, ভালবাসার কথা, সহানু ভুিতর কথা অেনক মেনামািলনয্ দূ র করেত সক্ষম হয়। যােদর মুখ েথেক এমন কথা
ঝের পেড়, তাঁেদর সকেলই শৰ্দ্ধা কের। তাঁরা কখনও পৰ্েয়াজেন তাঁেদর আপনজেনর িবরুেদ্ধ েকােনা মন্তবয্ করেত
চাইেল এমন ভােব বুিঝেয় বেলন, এমন ভাষা বয্বহার কেরন, েয তার েথেক িশক্ষাটুক েনওয়া যায় িকন্তু মেন েকােনা
                                                                           ু
আঘাত লােগ না। তাঁেদর কথা অেনয্র মেনর ক্ষত িনরাময় কের, আঘাত বা ক্ষত সৃ িষ্ট কের না।

িনেজেক মেনর অিভভাবক হেত হেব। েযমন েস্নহময় বাবা-মা িনেজর সন্তানেক সবসময় সত্পেথ সত্ িচন্তা িনেয়
থাকার জনয্ কত সাধয্-সাধনা কেরন, েতমিন িনেজর িচন্তরভাবনার অিভভাবক হেয় সবিকছু র মেধয্ই একটা
সেচতনতা আনেত হেব। সবাই বেল মন চঞ্চল। সবাই বেল িশশ‌ুরা চঞ্চল, েলখাপড়ায় মন েনই, েকবল েখলায় মন।
আমােদর মনও িক িশশ‌ুর মত চঞ্চল নয়? আমােদর বড়েদর মনও িক জগেতর ক্ষণভঙ্গুর সু েখর আশায় িমথয্া েখলায়
মত্ত নয়? িশশ‌ুেক যিদ ভালেবেস বুিঝেয় পৰ্েয়াজন মত েখলার বয্বস্থা কের মনটােক েলখাপড়ায় আনেত পারা যায়,
তেব আমােদর চঞ্চল মনটােক সংসােরর পৰ্েয়াজনীয় কতর্বয্ সম্পেকর্ অবিহত কের েকন বেশ আনেত পারব না?

আত্মিবশব্াসই শিক্ত ও উন্নিতর মূ ল উত্স। এই আত্মিবশব্াসই মানু েষর হতাশ পৰ্ােণ আশার সঞ্চার কের। মেনর
বয্ািধমুিক্তর সব েচেয় বড় ঔষধ েহাল আত্মিবশব্াস। এই আত্মিবশব্ােসর শিক্তেক জাগােতই হেব। েকান সংশয়, িদব্ধা-
                ু                                                             ু
দব্ন্দব্, েকান ক-মানিসকতাই আত্মিবশব্াসী মনেক কাবু করেত পাের না। মানু ষ যখন ক-মেনর দাসতব্ কের তখনই েস
সবেচেয় েবশী কষ্ট পায়। সবই আেছ িকন্তু মেন শািন্ত েনই এমন কথা আজ এেক অপরেক পৰ্ায়ই েশানায়। মেন
শািন্ত েনই মােন হৃদেয় আনন্দ েনই, েপৰ্ম েনই। আকাঙ্ক্ষা আেছ িকন্তু তৃিপ্ত েনই। িনেজর মেন এই িবশব্াস আনেত
হেব েয, ভগবান শৰ্ীকষ্ণ সবসময়ই আমােদর সােথ আেছন। িতিন তাঁর পরম ভক্ত ও িপৰ্য় সখা অজুর্েনর রেথর
                       ৃ
সারিথ হেয়িছেলন। িতিন আমােদরও েদহ-মেনারেথর অচুয্ত সখা ও সারিথ হেয় সবসময় আমােদর সেঙ্গই আেছন।
তাঁর কােছ িনেজেক সমপর্ণ করেত পারেল, দু জেন িমেল েদহ-মেনর েক্ষতৰ্টা ৈতির করেত পারব। তা হেলই পৰ্কত    ৃ
শািন্ত ও আনন্দ পাওয়া যােব। একটা কথা মনেক বুিঝেয় বলেত হেব েয হৃদেয় তাঁর আসেন িতিন জাগৰ্ত হেল,
                                                             ু
তখন আর তয্াগ েভাগ বেল িকছু ই থােক না। আত্মীয়-সব্জন-বন্ধ-বান্ধব সবাই থাকেব, বিহজর্গেতর সব িকছু ই
থাকেব, িকছু ই পিরবতর্ন হেব না, পিরবতর্ন করেত হেব েকবল িনেজর। েসটাই আসল পিরবতর্ন। িনেজ পাল্টােল
জগত্ পাল্টােব।


                                                  57
                                                                                                          অঙ্কুর, ২০১১ 

মনেক শ‌ুভ িদেক িনেয় েযেত হেল, অতীেতর অপৰ্ীিতকর দু ঃখজনক স্মৃ িতগ‌ুলেক ছাড়েতই হেব, কারণ েসই সব
িচন্তাই মানু ষেক দু িশ্চন্তার মেধয্ েঠেল েদয় এবং ভিবষয্েত আরও দু ঃখজনক পিরিস্থিতর সৃ িষ্ট কের। মনেক সবসময়
আনেন্দ রাখার েচষ্টা করেত হেব। মেনর মেধয্ আনেন্দর উত্সব করেত হেব। এর েথেক বড় উত্সব আর িকছু ই
েনই। িনেজর মেধয্ এই উত্সব শ‌ুরু হেল, অেনক েলাক আসেব এই উত্সেব অংশগৰ্হণ করেত। এটাই পৰ্কিতর              ৃ
                                                                                ৃ
িনয়ম। িসদ্ধ মহাত্মােদর সািন্নেধয্ এই সতয্েক উপলি করা যায়। গীতায় ভগবান শৰ্ীকষ্ণ বেলেছন, “মনই বন্ধ, মনইু
শতৰ্ু। তুিম মনেক বন্ধ করেব না শতৰ্ু করেব েসটা েতামার িসদ্ধান্ত।” আমরা যখন মেনর শ‌ুভ, সত্ শিক্তর সেঙ্গ
                          ু
থািক, সত্সেঙ্গ থািক, তখন মন কত বল, কত সাহস, কত আত্মপৰ্তয্য়, উত্সাহ, উদয্ম এবং আনেন্দ ভের ওেঠ।
আমরা সবাই িনরিবিচ্ছন্ন আনন্দ খুঁজিছ। মানবসমাজ আনেন্দর পূ জারী। জগেত েকউ অসু খী হেত চায় না, অসু স্থ
হেত চায় না, আপনজেনর কষ্ট েদখেত চায় না। িকন্তু বাস্তব সতয্ অনয্ কথা বেল।

মজার কথা হল, এই বাস্তবধমর্ী জীবন ধারণ এবং বাস্তববাদী হেয় সামিয়ক, আেপিক্ষক লেক্ষয্র িদেক চলেত চলেত
একটা সময় আসেব তখন েবাঝা যােব বাস্তব ধারণাগ‌ুিল কত অবাস্তব। তখনই মেনর মেধয্ গভীর পৰ্শ্ন জাগেব। জন্ম
েনেব িচরন্তন অভীপ্সা। তখনই েবাঝা যােব, জীবেনর মুল উেদ্দশয্ েকবল ইিন্দৰ্য়ধমর্ী নয়, ইিন্দৰ্য়াতীত, েকবল েদহধমর্ী
নয়, েদহাতীত, েকবল ইহজন্মেকিন্দৰ্ক নয়, শাশব্ত ও সনাতন। তখনই জাগেব অন্তেরর সতয্েক জানার আকলতা।        ু

বায়ু মন্ডেলর েযমন িবিভন্ন স্তর আেছ, েতমিন মেনরও িবিভন্ন স্তর আেছ। মন যখন সাধারণ স্তের থােক, তখন
সাধারণ িজিনষই ভােলা লােগ; গভীর ভাবগ‌ুেলা তখন ভােলা লােগ না, তােত মেনািনেবশ করেত পযর্ন্ত ভয় হয়।
আবার মন যখন উন্নত স্তের থােক, তখন সাধারণ িজিনষগ‌ুেলা আর ভাল লােগনা, িনতান্ত িবরিক্তকর মেন হয়; তখন
উন্নত গভীর ভাবগ‌ুেলাই ভাল লােগ। সাধারণ স্তর েথেক মনেক কৰ্মশ উন্নত স্তের িনেয় েযেত হেব। তাহেল উন্নত
ভাব, আদশর্ ও কাজ ভাল লাগেব। তখন ইচ্ছা করেলও হাল্কা ভাব মেনর মেধয্ আসেব না।

ইচ্ছাশিক্ত বাড়ােত পারেল মনেক সব্বেশ এেন ইচ্ছানু সাের পিরচালনা করা যায়। এই ইচ্ছাশিক্ত িক ভােব বাড়ােনা
যায়? পৰ্থেম েছাট েছাট িবষেয় পৰ্িতজ্ঞা কের তা পালন করেত হেব। এইভােব ধীের ধীের েছাট েছাট পৰ্িতজ্ঞা েথেক
বড় পৰ্িতজ্ঞার িদেক এিগেয় েযেত হেব। তাহেল িভতের আত্মিবশব্াস েজেগ উঠেব। তখন েদখেত পােবা আিম যা
পৰ্িতজ্ঞা করিছ, তাই পালন করেত পারিছ। েয মনেক আেগ বেশ আনেত পারতাম না েসই মনই এখন আেদশ
পালন করেত বয্স্ত। তখন দৃ ঢ় িবশব্াস হেব েয আমার পেক্ষ সব িকছু ই করা সম্ভব। এইভােব আত্মিবশব্াস দৃ ঢ়ভােব
পৰ্িতিষ্ঠত হেল মানু ষ অসাধয্ সাধন করেত পাের, অসম্ভবেক সম্ভব কের তুলেত পাের। সব সময় িনেজেক এবং
িনেজর মনেক েকান না েকান কােজ িনযু ক্ত রাখেত পারেল, মেনর মেধয্ েকান বােজ িচন্তা আসার সম্ভবনা থাকেব
না। মন যখন খািল থােক তখনই বােজ িচন্তা কের। সব্েগর্র পথও আমােদর হােত আবার নরেকর পথও আমােদর
হােত। সু খশািন্ত এবং দু ঃখযন্তৰ্ণা পাওয়ার পথও আমােদরই হােত। অেনয্ িক করেত পাের? আমরা েয েযরকম িচন্তা-
ভাবনা, কাজকমর্ করব আমােদর জীবনও েসভােব গেড় উঠেব।

নামজপ ও সাধন ভজেনর দব্ারা দু িশ্চন্তা, দু ভর্াবনা, মানিসক চঞ্চলতা পৰ্ভৃিত কৰ্েম কৰ্েম িনমূ র্্ল হেয়, িচত্ত িস্থর ও শান্ত
হেত থােক। তেব দু িশ্চন্তা েথেক িনষ্কৃিত পাওয়ার জেনয্ নামজপ করাই হল েশৰ্ষ্ঠ উপায়। নামজপ করেলই সমস্ত
অন্ধকার, সমস্ত অশািন্ত দূ র হেয় যােব। নােমর শিক্ত অিত অসাধারণ। নামই হৃদেয়র সমস্ত জব্ালা-যন্তৰ্ণা দূ র কের
শািন্ত ও আনন্দ দান কের। িঠক িঠক ভােব নাম করেল কখনও েকান অশািন্ত, েকানরকেমর পাপতাপ স্পশর্ করেত
পাের না। এই কথাটা িনেজর অিভজ্ঞতার মাধয্েম েজার িদেয় বলেত পাির। িকছু িদন িঠকভােব খুব িনষ্ঠার সেঙ্গ নাম
করেলইক নােমর অসাধারণ শিক্ত উপলি করা যায়।


                                    ৃ        ৃ    ৃ    ৃ
                               হের কষ্ণ হের কষ্ণ কষ্ণ কষ্ণ হের হের।
                               হের রাম হের রাম রাম রাম হের হের।।

                                                          58
                                                                                                অঙ্কুর, ২০১১ 


              Rabindranath Tagore: in his time and for our time
                                      Sekhar Bandyopadhyay
                                              (Wellington)

       (Transcript of the keynote speech at Tagore’s 150th birth anniversary celebration organised by
                   New Zealand Indian Central Association in Auckland on 7 May 2011)

Nineteen years ago when I came to New Zealand to teach Indian history at Victoria University of
Wellington, my wife remembered to pack a portrait of Rabindranath Tagore in one of our two
suitcases. It still hangs on the wall of my study, like a presiding deity in my shrine, constantly
reminding me of the great cultural heritage of the land I was born in. In other words, I am an
unabashed disciple of Tagore.

I am therefore immensely grateful that you have invited me to speak on this occasion, and be part
of the celebration of the 150th birth anniversary of an individual whose activities and influences
have spanned over three centuries. He was born in the nineteenth century, on 7 May 1861, to
Debendranath Tagore and Sarada Debi. His main activities were in the first half of the twentieth
century – he died on 7 August 1941 at the age of eighty. Even today at the beginning of the
twenty-first century we still consider him relevant and celebrate his birthday. But why?

Before talking about his relevance today, let me briefly mention his achievements. Rabindranath
was born in the famous Tagore family which was at the centre of a cultural movement that India
witnessed in the nineteenth century. His grandfather Dwarakanath, a landlord and an entrepreneur,
was a friend of Rammohun Roy and was thus closely associated with what is known as the
nineteenth century Indian Renaissance. Indians at this time were rediscovering their ancient
civilization and re-examining it in the light of modern reason, which they had learnt from post-
Enlightenment Europe through their encounter with British rule and its education system.
Rabindranath was the finest product of this nineteenth century renaissance from which was born
modern India. His literary genius lifted Indian literary tradition, particularly Bengali literature, to a
new height. He wrote poems, songs, short stories, plays, essays and novels – in other words, his
genius touched almost every genre of Bengali literature. In 1912 he went to England with the
English translation of a collection of his poems. It attracted the attention of William Butler Yeats
and William Rothenstein. The manuscript was published by Macmillan as Gitanjali (Song
offerings) [1912], for which he received the Nobel Prize in literature in 1913. He was the first
Asian, indeed the first non-European, to receive the Nobel Prize. Surprisingly, he had never
completed his formal education. He dropped out of St Xavier’s School in Calcutta at fourteen, and
was then home-schooled. At the age of seventeen, he was sent to London to become either a civil
servant or a barrister. He was admitted to University College, London, but came back within
eighteen months without finishing his degree. He had, however, started publishing his literary
works already from the age of sixteen.

Apart from creative writing, Tagore was also a self-taught musician, and at the very matured age
of late sixties he had started painting. His paintings have been exhibited all over the world. Tagore
was also a man of action. In a poem in Naivedya (Offerings) [1901] he wrote: ‘Deliverance is not
for me in renunciation’. His salvation would come through creative work. The man who refused
formal education became one of the most innovative modern educationists of India. He first started
a school for children at Santiniketan near Calcutta in 1901, and then in 1918 founded a university.
He called it Visva-Bharati, which can be roughly translated as ‘world in India’; it would impart a
truly global humanistic education. He was also an environmentalist. He started his famous
Sriniketan rural development project in 1921. And in between all these activities, he travelled
incessantly – to Europe, USA, Latin America, Japan, China and Southeast Asia – partly for lecture
                                                    59
                                                                                            অঙ্কুর, ২০১১ 

tours and partly to raise funds for his university. In his personal life he faced a series of tragedies,
which, however, failed to slow down his creative work.

Tagore also became actively involved in nationalist politics. At the Congress session in Calcutta in
1896, he first sang Bankimchandra’s famous poem Bande mataram, which later became the
anthem of the nationalist movement in India. His first direct involvement in nationalist politics was
during the Swadeshi movement to protest against the partition of Bengal (1905). It was around this
time that he wrote the poem ‘Amar sonar bangla’ (My golden Bengal), which was later adopted as
the national anthem of Bangladesh. For the Congress session in Calcutta in 1911, he wrote ‘Jana
gana mana’, which later became the national anthem of India. It is unprecedented in world history
that the national anthems of two nation-states are written by one individual. But for Tagore it was
not surprising, for even being a nationalist, he had elevated himself above narrow territoriality and
established himself as a global humanist. For this reason we Bengalis also call him Visvakabi or
the poet of the world. And in this globalism lies his relevance in the twenty-first century.

This brings me to the question with which I had started: why should we remember Tagore in New
Zealand some seventy years after his death. We Bengalis, wherever we are, cannot live without
Tagore, because we grow up by expressing ourselves through his songs. These songs - more than
two thousand of them - are parts of our everyday life, every phase of our social existence. For
every occasion and every emotion there is an appropriate Tagore song through which we can
communicate our thoughts. For Bengalis from two ‘Bengals’, Tagore songs constitute our common
cultural space where we can trace our common roots. But however much we try to monopolise and
thus parochialise Tagore, he is not just for the Bengalis. He should be read by all Indians wherever
they are, and by all human beings living anywhere in this twenty-first century world. I will try to
explain why, by taking a cue from a non-Bengali historian Ramchandra Guha.

Guha is well known for his famous book India after Gandhi (2007). In a recent essay, he has
identified four influential Indians who he thinks were the real makers of modern India: they are
Mahatma Gandhi, Jawaharlal Nehru, B. R. Ambedkar and Rabindranath Tagore. Gandhi led the
national liberation movement, Nehru built new India, Ambedkar wrote its constitution and acted
for the emancipation of its downtrodden - the untouchables. But why Tagore? Because, he was the
philosophical inspiration for both Gandhi and Nehru. And it was because of Tagore that India
could invent the most inclusive and universalist idea of nationhood that did not breed hatred for
others. This universalism was India’s unique civilizational gift to the world. Let me explain.

When Tagore got embroiled in the Swadeshi movement, he saw in it a conflict between two forms
of nationalism: one was exclusive and aggressive, full of hatred, while the other was universalistic,
based on the notion of constructive self-improvement. Tagore could see the dangers of the first
form of nationalism, because the hatred could also turn inward, as it did in India resulting in
Hindu-Muslim conflicts. So his preference was for constructive nationalism, where the welfare of
the people acquired supreme importance. His preference was amply reflected in his famous novel
Ghare Baire (The home and the world) [1915].

This idea of nationalism emanated from his particular understanding of Indian civilization. In a
seminal essay called ‘History of India’ written in 1902, Tagore had spelled out the inclusive nature
of Indian civilization. He argued that India was subjected to a series of foreign invasions by the
Greeks, Scythians, Huns, Arabs, Persians, Afghans and Mongols. But many of these foreigners
later embraced this civilization and in course of time were themselves ‘Indianised’ and left their
mark on Indian art and culture. In a poem called ‘Indian pilgrimage’ (Bharat teertha) - which
appeared in the Bengali version of Gitanjali (1910) but for unknown reasons not in the original
English translation [1912] - Tagore described India as a meeting ground for various kinds of

                                                  60
                                                                                           অঙ্কুর, ২০১১ 

people: ‘From the shore of vast humanity none will turn back or be turned back’, he wrote. It was
in this inclusive idea of nationhood that India could claim her difference from the West – an idea
which Tagore developed fully in his novel Gora (The fair-faced) (1910). One can find resonance
of this idea in Mahatma Gandhi’s writings. In his Hind Swaraj (Indian Home-rule) [1909] Gandhi
wrote: ‘The introduction of foreigners does not necessarily destroy the nation, they merge in it. A
country is one nation only when such a condition obtains in it.’ This universal humanism, this
inclusive way of defining nation is worth pondering over when we debate on national identities in
this age of increasing global circulation of people across state boundaries.

In a letter to his friend C. F. Andrews, Tagore wrote: ‘The idea of India is against the intense
consciousness of the separateness of one’s people from others, which inevitably leads to ceaseless
conflicts.’ In place of exclusive and aggressive nationalism, Tagore dreamt of a federation of
nations where each would be contributing their civilizational values from a position of equality.
The East had a lot to learn from the West, without giving up its tastes and values. And Asia also
had a lot to offer to the world, and did not need to blindly imitate the West. But Tagore lived in a
world where the nationalism of the dominant and the nationalism of the colonised clashed
vehemently. So there were very few takers of his universalism. It was suspect in his own country
and was dubbed as passivity; it was rejected overseas as the feeble voice of a defeated nation. In
1916, he received a rather cold reception in Japan and the USA when he talked about his idea of
universalism and critiqued militant nationalism. But as he wrote in one of his poems, ‘If no one
listens to your call, march alone’ – the song later became a favourite of Mahatma Gandhi, another
lonely warrior.

Spiritually, around this time Tagore was coming closer to the realisation of the universal man,
visvamanab. In one of his letters he wrote: ‘We must go beyond all narrow bounds and look
towards the day when Buddha, Christ and Mohammad will become one.’ But this did not mean
losing all differences. In 1924 when he visited China he told the Chinese people ‘…let us unite, not
in spite of our differences, but through them. For differences can never be wiped away, and life
would be so much the poorer without them. Let all human races keep their own personalities, and
yet come together, not in a uniformity that is dead, but in a unity that is living.’ It is this message
of universalism, world unity and the idea of inclusive and non-aggressive nationhood that make
Tagore relevant in today’s world, torn by xenophobia, hatred and war.

What Tagore prayed for his own country in one of the famous poems in Gitanjali, may indeed be
repeated for all the nations on this planet, and I wish to conclude with that prayer.


Where the mind is without fear and the head is held high;
Where knowledge is free;
Where the world is not broken up into fragments
By narrow domestic walls;
Where the words come out from the depths of truth;
Where tireless striving stretches its arms towards perfection;
Where the clear stream of reason has not lost its way
Into the dreary desert sand of dead habits;
Where the mind is led forward by thee into
Ever-widening thought and action--
Into that heaven of freedom, my Father, let my country awake.




                                                  61
                                                                                                   অঙ্কুর, ২০১১ 
                         আমার নাম েতামার নাম িভেয়ত্নাম িভেয়ত্নাম
                                               তাপস সরকার
                                                 (ওেয়িলংটন)

গত শতা ীর ষাট-সত্তর দশেক যখন িভেয়ত্নােম পৰ্বল               দাই িভেয়ত্এর পৰ্ধান িতনিট রাজবংশ িল, তৰ্ান এবং
যু দ্ধ চলেছ, তখন িশেরানােমর েস্লাগানিট কলকাতায়              েল। এঁেদর সময় (১০০৯-১৫২৭ সন) িছল েদেশর
পৰ্ায়ই েশানা েযত। আেমিরকা িভেয়ত্নােম পৰ্চণ্ড যু দ্ধ         সব্ণর্যুগ। এঁরা িনেজেদর সমৰ্াট বেল অিভিহত করেতন।
                     ু
করেছ। ফেল জনমত ক্ষ , আেমিরকােত েতা বেটই,                    একাদশ েথেক অষ্টাদশ শতা ী পযর্য্ন্ত িভেয়ত্রা দিক্ষণ
কলকাতা ও অনয্ানয্ েদেশও। তখন েথেকই িভেয়ত্নাম                িদেক অগৰ্সর হেত থােক। পৰ্থম পতন হয় চম্পার
আমার মেন গাঁথা হেয় আেছ। তাই এবার যখন দিক্ষণ-                এবং তারপর েচনলার। অবেশেষ েদশটা সংযু ক্ত হল।
পূ বর্ এিশয়ােত যাবার সু েযাগ হল তখন ভাবলাম                  েদেশর বতর্মান রাজধানী হয্ানয়। ১০১০ সেন সমৰ্াট িল
িভেয়ত্নামটাও েদেখ যাই। আমার ভৰ্মণ বৃ ত্তান্তর আেগ           থাই েটা তাঁর রাজধানী েসখােন িনেয় যান। নাম েদন
েদশটার একটু পিরচয় িদই।                                      থান লঙ। তখন েথেক দু -একেশা বছর বাদ িদেয়
                                                            এইটাই েদেশর রাজধানী। ১৮৩১ সেন নাম হল
িভেয়ত্নাম লমব্া িকন্তু সরু েদশ। আয়তেন পৰ্ায়                 হয্ানয়। সম্পৰ্িত এখােন নয়েশা বছেরর পুরােনা এক
জামর্ািনর সমান। উত্তের রাজধানী হয্ানয় েথেক দিক্ষেণ          দু গর্নগরীর ধব্ংসাবেশষ পাওয়া েগেছ।
সবেচেয় জনবহুল শহর েহা িচ িমন নগরী পযর্ন্ত
স্থলপেথ দূ রতব্ সেতরেশা িকেলািমটার, েরলপেথ                  পৰ্ায় দু হাজার বছর আেগ েরাম আর চীেনর বািণজয্
েচৗিতৰ্শ ঘণ্টা। িভেয়ত্নােমর েলাকসংখয্া নয় েকািটর            সংেযাগ িছল। তার িকছু টা েলািহত নদী িদেয় েযত।
একটু কম, স্থান পৃিথবীেত েতর নমব্র। হয্ানেয়র                 কালকৰ্েম তােত ভাঁটা পেড় যায়। েষাড়শ শতা ী েথেক
েলাকসংখয্া িতৰ্শ লক্ষ আর েহা িচ িমন নগরীর ষাট               আবার জলপেথ ইউেরােপর সেঙ্গ সংেযাগ স্থািপত হয়।
লক্ষ।                                                       পৰ্থেম আেস পতুর্গীজরা, তারপের অনয্ানয্ ইউেরাপীয়
                                                            জািত এবং সবর্েশেষ ফরাসীরা। ইউেরাপীয়রা বািণজয্
িভেয়ত্নাম কথািটর অথর্ দিক্ষণ িভেয়ত্। উত্তর                  করেতা আর ধমর্পৰ্চার করেতা। সু িবধার জনয্ তারা
িভেয়ত্নােমর েলািহত নদীর অববািহকায় লাক িভেয়ত্                িভেয়ত্নাম ভাষা েরামান অক্ষের িলখেত আরম্ভ কের।
নােম এক উপজািত এবং পাবর্তয্ অঞ্চেলর আউ িভেয়ত্                                 ূ
                                                            এই িলিপর নাম কেয়াক িনউই। এখন এই িলিপই
বেল একিট উপজািতর সংিমশৰ্েণ িভেয়ত্ জািতর সৃ িষ্ট।            চলেছ। এর আেগ িলিপ িছল চীেন ভাষা েথেক েনওয়া,
এিট েপৗরািণক কািহনী, ঐিতহািসক নয়। লাক                       নাম চু েনাম।
িভেয়ত্েদর রােজয্র নাম ভয্ান লাঙ। ঐিতহািসক যু েগ
খৃষ্টপূ বর্ ২৫৭ সােল আউ িভেয়ত্ েনতা থুক ফান ভয্ান           েষাড়শ শতা ীেত দাই িভেয়েত গৃহযু দ্ধ চলেছ। েশেষ
লাঙ দখল কেরন। নতুন রােজয্র নাম হল আউলাক।                    ফরাসীেদর সাহােযয্ িনউেয়ন রাজারা সারা দাই িভেয়ত্
িভেয়ত্নােমর ইিতহাস তখন েথেক শ‌ুরু। আরও                      জয় কেরন, এবং সমৰ্াট িগয়া লঙ রােজয্র নাম
েদড়েশা বছর পের চীন সমৰ্াট এই রাজয্িটেক জয়                   রাখেলন িভেয়ত্নাম। তাঁর রাজধানীর নাম িছল ফ          ু
কের নাম রাখেলন গাও চী।                                      সু য়ান (বতর্মান িহউেয়)। এই সমৰ্াট খৃষ্টধেমর্র পৰ্িত
                                                            উদার িছেলন। িকন্তু তাঁর বংশধররা িছল খৃষ্টান
চীেনর শাসন িছল ৯৩৮ খৃষ্টা অবিধ। মােঝ মােঝ                   িবেদব্ষী। ফেল রােজয্ িবশৃ ঙ্খলা েদখা িদল। েসই
িবেদৰ্াহ হেয়েছ। িবেদৰ্াহীেদর মেধয্ িতনজন মিহলার             সু েযাগ িনেয় ফরাসীরা িভেয়ত্নাম দখল কের িনল।
নাম উেল্লখেযাগয্ – তৰ্ুঙ ভিগনীদব্য় (৪০-৪৩ সন) এবং           ১৮৮৭ সেন ফরাসী ইেন্দাচীন স্থািপত হয়। ১৯০২ সেন
শৰ্ীমতী িতৰ্উ (২২৫-২৪৮ সন)। এঁরা িভেয়ত্নােমর                রাজধানী হল হয্ানয়। দিক্ষেণ সায়গন অঞ্চেল িছল
ইিতহােস বীরাঙ্গনা বেল খয্াত। এই হাজার বছেরর                 ফরাসীেদর উপিনেবশ েকাচীন চীন, হয্ানেয়র চারপােশ
মেধয্ মধয্ িভেয়ত্নােম চম্পা রাজয্ স্থািপত হেয়েছ, এবং        টংিকং। আন্নােমর (মধয্ িভেয়ত্নাম) িনউেয়ন সমৰ্াটরা
দিক্ষেণ েমকং নদীর অববািহকায় েচনলা রাজয্ গেড়                 িছল ফরাসীেদর আিশৰ্ত।
উেঠেছ। এগ‌ুেলা িকন্তু িভেয়ত্েদর রাজয্ নয়। িভেয়ত্
              ূ
েযাদ্ধা িনও কেয়ন ৯৩৮ সেন বাখডাঙ নদীর যু েদ্ধ                                                     ু
                                                            িভেয়ত্নােমর িবপ্লবী েনতা িনউেয়ন িসন কেঙর জন্ম
চীনােদর হািরেয় েদশ সব্াধীন কের নাম রাখেলন দাই               ১৮৯০ সেন এবং মৃতুয্ ১৯৬৯ সেন। িতিন বাইশ বছর
(েকা) িভেয়ত্ (বৃ হত্তর িভেয়ত্)।
                                                       62
                                                                                                         অঙ্কুর, ২০১১ 
বয়স েথেক েদশতয্াগী। পৰ্থম কেয়ক বছর িছেলন                        সমথর্ক এবং অন্তঘর্াতী। এেদর উত্তর িভেয়ত্নাম পৰ্চুর
আেমিরকােত এবং তারপর ইউেরাপ এবং এিশয়ায়।                          সাহাযয্ করেতা। ফেল িভেয়ত্কঙ আর দিক্ষণ
১৯১৯ সেন িতিন পয্ািরেস যান। েসখােন তখন পৰ্থম                    িভেয়ত্নােমর সঙ্ঘেষর্ উত্তর িভেয়ত্নামও জিড়েয় পেড়।
মহাযু েদ্ধর পর শািন্ত স্থাপেনর জনয্ সব েনতারা                   সু রু হয় িদব্তীয় ইেন্দাচীন যু দ্ধ (১৯৫৪-৭৫), যার আর
এেসেছন। িনউেয়ন িনেজর নাম বদেল নতুন নাম                          এক নাম িভেয়ত্নাম যু দ্ধ।
                       ূ
িনেলন িনউেয়ন আই কেয়াক (েদশেপৰ্মী িনউেয়ন)।
তারপর সমেবত েনতােদর কােছ, িবেশষ কের                             এই যু েদ্ধ উত্তেরর পৰ্ধান সমথর্ক চীন ও রািশয়া এবং
আেমিরকার রাষ্টৰ্পিত উেডৰ্া উইলসেনর কােছ আেবদন                   দিক্ষেণর আেমিরকা। চীন আর রািশয়ার েকান ৈসনয্
করেলন েয িভেয়ত্নামেক সব্ায়ত্তশাসন েদওয়া েহাক।                   যু েদ্ধ নােমিন, িকন্তু পাঁচ লেক্ষর উপর আেমিরকান
বলা বাহুলয্, েনতারা েস আেবদেন কণর্পাত কেরন িন।                  ৈসনয্ যু দ্ধ কেরেছ। আেমিরকার যু দ্ধ পিরচালনার
১৯২০ সেন ফরাসী সাময্বাদী দল গিঠত হয়। িনউেয়ন                     রীিতেত জনমত তােদর িবরুেদ্ধ েযেত লাগেলা, িবেশষ
পৰ্থম েথেকই তার সভয্। এরপর িতিন মেস্কার                         কের তােদর িনেজেদর েদেশ। ফেল অিভযান গ‌ুিটেয়
আন্তজর্ািতক সাময্বাদী সংস্থার সেঙ্গ যু ক্ত হন। ১৯৩০             আেমিরকান ৈসনয্ েদেশ িফের যায়। দু বছেরর মেধয্
সেন িতিন ইেন্দাচীন সাময্বাদী দল গঠেন সাহাযয্                    দিক্ষণ িভেয়ত্নাম পরািজত হয়। ১৯৭৫ সেনর ৩০েশ
কেরন।                                                           এিপৰ্ল দিক্ষণ িভেয়ত্নাম সরকার আত্মসমপর্ণ কের।
                                                                িভেয়ত্নােমর যু দ্ধ েশষ। সায়গেনর নাম রাখা হল েহা
িদব্তীয় মহাযু েদ্ধ, ১৯৪০ সােল জামর্ািন ফৰ্ান্স দখল কের          িচ িমন নগরী। রাষ্টৰ্পিত ভবেনর নাম হল নবসমনব্য়
েনয়। উত্তর ফৰ্ান্স তােদর অধীেন এবং দিক্ষণ ভােগ                  পৰ্াসাদ। ১৯৭৬ সেন সরকারীভােব দু ই েদশ এক হেয়
তােদর আিশৰ্ত িভিচ সরকার স্থািপত হয়। তখন                         েগল।
ফরাসী ইেন্দাচীন িছল িভিচ ফৰ্ােন্সর হােত। তারা
জামর্ািনর, সু তরাং জাপােনর, পরম িমতৰ্। ১৯৪০ সেন                 যু েদ্ধর পর বহুেলাক সাময্বাদী শাসন েছেড় েদশতয্াগ
জাপােনর ইেন্দাচীন অিভযােন িবেশষ েকান যু দ্ধ হয়                  কের। বহু চীনারা চীেন পালাবার েচষ্টা কের। দু ই
িন। সব্াধীনতা সংগৰ্ামীরা িকন্তু ভীষণ ক্ষ হেলন।ু                 েদেশর মেনামািলনয্ সু রু হল। সীমানা িনেয়ও মতান্তর।
১৯৪১ সেন িনউেয়ন এই সব সংগৰ্ামীেদর একতৰ্ কের                     ইিতমেধয্ কেমব্ািডয়ােত চীেনর সহেযািগতায় কট্টর
গড়েলন িভেয়ত্িমন সঙ্ঘ। তখন তাঁর নাম েহা িচ িমন                   সাময্বাদী সরকার স্থািপত হয়। তােদর সােথও সীমানা
(েহা িযিন আেলা আেনন)। িভেয়ত্িমনরা জাপানী আর                     িনেয় মতান্তর। িভেয়ত্নাম েসটা সহয্ করেত না েপের
িভিচ ফৰ্ােন্সর িবেরািধতা করেতা বেল এইসময়                        ১৯৭৮ সেন েদশটা দখল কের েনয়। ১৯৮৯ সেন েস
আেমিরকার কাছ েথেক পৰ্চুর সাহাযয্ পায়।                           দখল েশষ হয়। এইসব কারেণ ১৯৭৯ সেন কেয়ক
                                                                মােসর জনয্ চীন আর িভেয়ত্নােমর যু দ্ধ বােধ। এটা
জাপানী যু দ্ধ েশষ হবার পর ১৯৪৫ সেন িভেয়ত্িমনরা                  তৃতীয় িভেয়ত্নাম যু দ্ধ।
হয্ানয় দখল কের িভেয়ত্নােমর সব্াধীনতা েঘাষণা কের।
ইউেরাপ েথেক সদয্ আগত ফরাসী েসনােদর সেঙ্গ                        িভেয়ত্নাম সরকার যু দ্ধ েজতার পর েগাঁড়া সাময্বাদী
িভেয়ত্িমনেদর যু দ্ধ বাঁধেলা। এইটা পৰ্থম ইেন্দাচীন যু দ্ধ        মেত েদশটােক চালােত েচেয়িছল, িকন্তু সফল হয়িন।
(১৯৪৬-৫৪)। যু েদ্ধ েহের ফরাসীরা চেল যায় এবং                     িভেয়ত্নােমর অিধকাংশ ৈবেদিশক বািণজয্ িছল রািশয়া
ইেন্দাচীন সব্াধীন হয়।                                                           ু
                                                                আর তার বন্ধ রাজয্েদর সেঙ্গ। যখন তােদর
                                                                অথর্ৈনিতক সঙ্কট েদখা িদল, তখন িভেয়ত্নােমর চরম
িভেয়ত্নাম সব্াধীন হেয় দু ভাগ হেয় েগল। উত্তর                     দু রবস্থা। ১৯৮৬ সেন নতুন েনতারা ক্ষমতায় এেস
িভেয়ত্নােম হয্ানয় েথেক েহা িচ িমেনর সাময্বাদী                   েদেশর নীিত বদেল িদেলন। সু রু হল ‘দই মই’ নীিত।
দেলর শাসন এবং দিক্ষেণ সায়গেন েশষ িনউেয়ন                                                        ৃ
                                                                সরকােরর িনয়ন্তৰ্েণ েবসরকারী কিষকাযর্, কলকারখানা
সমৰ্াট বাও দাইএর সরকার। তাঁর পৰ্ধান মন্তৰ্ী িনউও                এবং বয্বসা বািণেজয্র সৃ িষ্ট হল। বহু িবেদশী সংস্থা
িদন দীেয়ম। িকছু িদেনর মেধয্ই বাও দাই রাজয্চুয্ত                 িভেয়ত্নােম লগ্নী আরম্ভ করেলা। এখনও েসই নীিতই
হেলন আর দীেয়ম হেলন রাষ্টৰ্পিত। দু ই েদেশর                       চলেছ, এবং আরও উদার হেয়েছ। েদেশর অবস্থা
শাসনকতর্ারাই িবেরািধতা সহয্ করেত পারেতন না।                     এখন আেগর চাইেত অেনক ভােলা।
ফেল বহুেলাক হতাহত বা কারারুদ্ধ হয়, অেনেক
েদশতয্াগ কের। দিক্ষণ িভেয়ত্নােম িভেয়ত্কঙ বেল                    আমরা িভেয়ত্নােমর ছয়িট জায়গায় িগেয়িছ –- হয্ানয়,
এক েগিরলা বািহনী গেড় উেঠ। এরা সাময্বাদীেদর                      হালঙ উপসাগর, িহউেয়, েহাই আন, িম সন এবং েহা
                                                           63
                                                                                               অঙ্কুর, ২০১১ 
িচ িমন নগরী। পৰ্থেম যাই হয্ানেয়। এখােন দৰ্ষ্টেবয্র          এই েদহ পাহােড়র গ‌ুহায় লু কােনা িছল। যু েদ্ধর পের
মেধয্ েহা িচ িমেনর সমািধমিন্দর, বাসস্থান এবং                সমািধমিন্দের আনা হয়। েহাএর ইচ্ছা িছল েয তাঁর
পৰ্দশর্নশালা অনয্তম। সরকাির মেত েহা িচ িমন                  েদহ দাহ করা েহাক, িকন্তু তাঁর সহকমর্ীরা েস কথা
     ু
িচরকমার এবং তাঁর েকান বয্িক্তগত জীবন েনই। েকউ               েশােনিন। আধু িনক িভেয়ত্নােম েহা িচ িমেনর স্থান
অনয্ মত পৰ্কাশ করেল তার কারাদণ্ড হেত পাের।                  সবার উপের। তাঁর সমািধভবন এখন তীথর্েক্ষতৰ্। েহা
তেব এটা সতয্ েয চীেন থাকার সময় ১৯২৬ সােল েহা                িচ িমেনর পৰ্দশর্নশালােত তাঁর অেনক বয্বহার করা
এক চীনা মিহলােক িবেয় কেরন। ছ’মােসর মেধয্                    িজিনষ এবং ছিব আেছ। আিম েহাএর সেঙ্গ েনহরুর
রাজৈনিতক কারেণ েহােক চীন েছেড় পালােত হয়।                    ছিব খুঁেজিছলাম, িকন্তু পাইিন। পের ইন্টারেনেট
তারপের আর তাঁেদর েদখা হয়িন। ১৯৯২ সােল                       েদখলাম েয ১৭ই অেক্টাবর ১৯৫৪ সেন েনহরু
েহাএর স্তৰ্ীর মৃতুয্ হয়।                                    হয্ানয়েত এেসিছেলন। তার ক’িদন আেগ শহরিট
                                                            ফরাসীেদর হাত েথেক মুক্ত হয়।
হয্ানেয় আমরা পৰ্থেম যাই রাষ্টৰ্পিতর পৰ্াসাদ এবং েহা
িচ িমেনর সমািধমিন্দর েদখেত। রাষ্টৰ্পিতর পৰ্াসাদিট           হয্ানয় িভেয়ত্নােমর এবং সারা ইেন্দাচীেনর পৰ্ধান
পুরােনা ফরাসী বড়লােটর বাড়ী। েহা কখনও েসখােন                 িশক্ষােকন্দৰ্। িবংশ শতা ীর েগাড়ার িদেক এখােন
থােকনিন। ফেল পেরর রাষ্টৰ্পিতরাও েস পৰ্াসাদিট                আধু িনক ধাঁেচর িবশব্িবদয্ালয় স্থািপত হয়। এখােন
বজর্ন কেরন। এখন েসটা সরকারী অিতিথশালা ও                     এখন অজসৰ্ িবশব্িবদয্ালয়, তার মেধয্ কেয়কিট
অভয্থর্না ভবন।                                              েবসরকারী।


েহা িচ িমেনর পৰ্থম বাস েসই পৰ্াসােদর পৰ্াঙ্গেন একটা         পুরােনা শহরিট েহায়ান িকেয়ন হৰ্েদর পােশ। শ‌ুরু
সাধারণ েছাট বাড়ীেত। পের তার পােশ থােমর উপর                  েথেক এটাই বািণজয্েকন্দৰ্। সরু রাস্তা, েমাটর সাইেকল
আর একটা বাড়ী ৈতরী হয়, িভেয়ত্নােমর গৰ্াময্ বাড়ীর             এবং গাড়ীেত ভিতর্। হয্ানেয় আঠােরা লাখ েমাটর
ধাঁেচ। িনচটা ফাঁকা িকন্তু বাঁধােনা। একটা িবরাট েটিবল        সাইেকল এবং েদড়লাখ গাড়ী আেছ। এখােন রাস্তা
আর অেনকগ‌ুেলা েচয়ার রেয়েছ। এখােন মন্তৰ্ীসভার                েপেরােত হেল হাত তুেল আেস্ত আেস্ত এগ‌ুেত হয়।
অিধেবশন বসেতা। এই বাড়ীর পােশ আর একিট বাড়ী                   দাঁড়ােনা চলেব না, িপছু হটা বারণ। েমাটর সাইেকল
আেছ, তার অিধকাংশই মািটর নীেচ, েবামা পড়েল                    আশ পাশ িদেয় পথ কের চেল যােব, গাড়ীও েথেম
ঐখােন আশৰ্য় েনওয়া েহাত। েহা িচ িমন গাড়ী পছন্দ               যােব। পূ রােনা শহেরর বাইের ফরাসীেদর ৈতরী শহর।
করেতন না। তাঁর যাতৰ্া পদবৰ্েজ, িরকশায় িকংবা                 তারও বাইের আধু িনক শহর। সব্াধীন িভেয়ত্নােমর
েঘাড়ায়। তাঁর গয্ােরেজ িকন্তু িতনেট গাড়ী, সবই                ৈতরী। চওড়া রাস্তা, পার হবার রীিত অনয্ আধু িনক
উপহার।                                                      শহেরর মত।

                                                            হয্ানেয় অেনক মিন্দর ও পয্ােগাডা আেছ। একটা
                                                            পয্ােগাডার সমস্ত ভার বহন করেছ একটামাতৰ্ থাম।
                                                                                                 ু
                                                            েদখেল মেন হয় েবাঁটার উপের েফাটা পদ্মফল। এিট
                                                            সমৰ্াট িল থাই টেঙর ৈতরী ১০৪৯ সােল। িতিন নািক
                                                            েদবী েকায়ান ইেনর কাছ েথেক এই মিন্দর ৈতরীর
                                                            সব্প্নােদশ েপেয়িছেলন।




                েহা িচ িমেনর সমািধ

েহা িচ িমেনর সমািধমিন্দর সাদা পাথের ৈতরী,
অেনকটা ওয়ািশংটেন িলংকেনর স্মারক মিন্দেরর মত।
েহাএর মিন্দরিট রািশয়ার অবদান। সামেন উঁচু থােমর
উপর পৰ্াচীন গৰ্ীক ধাঁেচর বাড়ী। িভতের েহাএর
    ৃ
অিবকত েদহ, েসটাও রািশয়ার অবদান। যু েদ্ধর সময়                    সমৰ্াট িল থাই টেঙর ৈতরী এক স্তম্ভ পয্ােগাডা
                                                       64
                                                                                       অঙ্কুর, ২০১১ 
                                 ু
১০৭০ সেন িল সমৰ্াটরা হয্ানেয় কনফিসয়াস এবং তাঁর             কটীর। িভতের ঢুকেল তােদর জীবনযাতৰ্ার ভাল
                                                            ু
পৰ্ধান িশষয্েদর নােম ভয্ান িমউ বেল এক মিন্দর               িনদশর্ন পাওয়া যায়।
স্থাপন কেরন। ছ’বছর পের েসখােন রাজপুতৰ্েদর জনয্
একিট িবশব্িবদয্ালয় স্থাপন করা হয়। পের অনয্ানয্রাও          হয্ানয় েথেক আমরা যাই হালঙ উপসাগের, ১৬৫
েসখােন পড়ার আনু মিত পায়, িবেশষত শক্ত পরীক্ষায়              িকেলািমটার পূ েবর্। জায়গাটা িকরকম? িভেয়ত্নােমর
পাশ করেত পারেল। ১৪৮৪ সেন সমৰ্াট িল থান টঙ                  এক পৰ্াচীন কিব বেলেছন েয দানবরা সমুদৰ্তীের নু িড়
িঠক করেলন েয যারা রাজমেনানীত চারেট শক্ত                    পাথর িনেয় েখলা করিছল, যাবার সময় েসগ‌ুেলা সমুেদৰ্
পরীক্ষায় পাশ করেব তােদর বলা হেব তীেয়ন শী                   েফেল েগেছ। এই নু িড়গ‌ুিল চুনাপাথেরর। উপসাগেরর
(ডক্টেরট) এবং তােদর নাম ও গৰ্ােমর নাম পাথের                মেধয্ অেনক দব্ীপ, পৰ্ায় িতন হাজােরর মত। স্থানীয়
েখাদাই কের ভয্ান িমউেত রাখা হেব। ১৭৭৯ সন                   েলােকরা অবশয্ বেল ১৯৬৯, কারণ েসইটা েহা িচ
অবিধ এই পৰ্থা চালু িছল। িবরািশটা পাথেরর ফলক                িমেনর মৃতুয্র বছর। কেয়কিট বাদ িদেয় সব দব্ীপগ‌ুিলই
এখনও আেছ, পৰ্িতিট কচ্ছেপর িপেঠর উপের।                      েছাট, উচ্চতায় পঞ্চাশ েথেক একশ িমটার আর পৰ্েস্থ
িভেয়ত্রা মেন কের কচ্ছপ ভগবােনর দূ ত এবং                    উচ্চতার ছয়ভােগর একভাগ। দব্ীপগ‌ুিলর নানারকম
িবজ্ঞতার পৰ্িতমূ িতর্। েভতেরর একটা ঘের েসানার              গঠন। কল্পনাশিক্তর েজার থাকেল হািত, মুরগী, মানু ষ
                             ু
কচ্ছপ এবং চার িশষয্সহ কনফিসয়ােসর মূ িতর্ রেয়েছ।            ইতয্ািদর েচহারা েদখা যায়। দু েটা দব্ীপ মুেখামুিখ, েযন
                                                           গভীর দু েখ দু খী।




                                                                   ‘দু জেন মুেখামুিখ, গভীর দু েখ দু খী’
                                                                    হালঙ উপসাগেরর ‘িকিসং কক্স’

                                                           দু েটা বড় দব্ীেপ েলাকবসিত আেছ। তাছাড়া জেলর
     ভয্ান িমউএ কচ্ছেপর িপেঠ পাথেরর ফলক
                                                           উপের ভাসমান (িকন্তু েনাঙর করা) গৰ্াম আেছ, পৰ্ায়
হয্ানেয় কেয়কিট হৰ্দ আেছ। বহুিদন আেগ সবগ‌ুিলই               ১,৬০০ েলাক থােক। অিধকাংশই েজেল। তােদর গৰ্ােম
েলািহত নদীর অংশ িছল এখন আলাদা হৰ্দ। েহায়ান                 ঘরবাড়ী েদাকানপাট খাবার জায়গা, এমনিক েছাটেদর
িকেয়ন হৰ্েদর মেধয্ একটা দব্ীেপ বীর েসনাপিত তৰ্ান               ু
                                                           ইস্কল পযর্য্ন্ত আেছ। েদাকােন পযর্য্টেকেদর জনয্ জামা
হুঙ দাওেয়র িবরাট পৰ্িতমূ িতর্ ও মিন্দর, তীেরর সেঙ্গ        কাপড় গয়না ছিব, সব িকছু ই িবিকৰ্ হেচ্ছ।
লাল েসতু িদেয় সংযু ক্ত। ইিন িভেয়ত্নােমর পৰ্িসদ্ধ           েছেলেমেয়রা গামলা জাতীয় িডিঙেত কের এপাড়া
বীর, ১২৮৮ সােল েনৗ যু েদ্ধ েমােঙ্গালেদর হারান।             ওপাড়া ঘুের েবড়ায়, বড়রা েনৗেকােত চেড়। সব
হৰ্েদর িতনিদেক এখন বহু বাড়ী, েদাকানপাট, খাবার              জায়গায় েদখলাম েমেয়রা কাজ করেছ। শ‌ুনলাম েয
যায়গা রেয়েছ। জায়গাটা খুব জনিপৰ্য়।                          েছেলরা সারা রাত মাছ ধের আর িদেনর েবলায়
                                                           ঘুেমায়, তাই েমেয়রা িদেনর েবলায় সব কাজ কের।
হয্ানেয় উপজািতেদর একটা পৰ্দশর্নশালা আেছ। েসটা              আমােদর েয পৰ্দশর্ক, তার মেত এখােন িকছু িকছু
১৯৯৫ সােল ফরাসীেদর ৈতরী। িভেয়ত্নােম চুয়ান্নিট              েবআইিন অিভবাসী আেছ, অিধকাংশই কেমব্ািডয়া
উপজািত আেছ। ঘেরর েভতের তােদর নানারকম                       েথেক। মােঝ মােঝ পুিলশ আেস, তারা ‘বখিশশ’ িনেয়
িশেল্পর িনদশর্ন, ছিব, ঐিতহািসক িববরণ ইতয্ািদ               চেল যায়। কেয়কজনেক তাড়ায়, িকন্তু তারা আবার
রেয়েছ। বাইের অেনকখািন জায়গা জুেড় তােদর গৰ্াময্             িফের আেস।

                                                      65
                                                                                                      অঙ্কুর, ২০১১ 
সমুেদৰ্ অেনক আধু িনক চীনা জাঙ্ক (জাহাজ) আেছ।                     পৰ্াসাদ আর অন্দরমহল। পৰ্াসােদর িভতের িবনা
আমরা একটােত এক রািতৰ্ িছলাম। েবশ আরামদায়ক।                       অনু মিতেত পৰ্েবশ িনেষধ িছল। ঢুকেল পৰ্াণদন্ড । এই
এটােত কেরই সারা উপসাগর ঘুেরিছ। খাওয়াদাওয়া                        নগরীর ধাঁচটা েবইিজেঙ িনিষদ্ধ নগরীর মতন।
ভালই, তেব সবই সামুিদৰ্ক। অেনক দব্ীপ ফাঁপা, পৰ্চুর                িহউেয়র দু গনগরীর সামেন সাঁইিতৰ্শ িমটার উঁচু
                                                                                 র্
                             ু
গ‌ুহা আেছ। আমরা িথেয়ন কঙ বেল এক গ‌ুহােত                          পতাকাস্তম্ভ। তারপের িনও মন েতারণ। উপরতলায়
িগেয়িছলাম। জল চুঁইেয় চুইেয় চুনা পাথেরর িবরাট
                          ঁ                                      িবরাট বারান্দা, েযখান েথেক সমৰ্াট পৰ্জােদর দশর্ন
িবরাট থাম ৈতরী হেয়েছ, েকানটা মািটর েথেক উপের                     িদেতন। েশষ সমৰ্াট বাও দাই েহা িচ িমন সরকােরর
                                 ু
উেঠেছ আর েকানটা ছাদ েথেক ঝলেছ। অেনকগ‌ুেলা                        আেদেশ এখােনই রাজয্তয্াগ কেরিছেলন। পৰ্েবশদব্ােরর
ঘর, তােত আেলার বাহার। অবশয্ আেলা সব                              পর পৰ্াসাদকক্ষগ‌ুিলেত িছল নানারকম দফতর।
ৈবদু য্িতক এবং রঙেবরেঙর। সু ন্দর েদখায়। শ‌ুনলাম                  তারপের একটা পৰ্াসােদর িপছেন িছল সমৰ্ােটর
অেনক দব্ীেপর মেধয্ েছাট েছাট হৰ্দও আেছ।                          বাসস্থান। ঐ পৰ্াসাদগ‌ুিল ১৯৪৭এর আগ‌ুেন এবং
                                                                 ১৯৬৮ সেনর েটট যু েদ্ধ ধু িলসয্াত্ হেয় েগেছ। শ‌ুধু
হালঙ েথেক হয্ানেয় িফের আমরা রােতৰ্র েটৰ্েন কের                   সমৰ্ােটর গৰ্ন্থাগারিট অক্ষত রেয়েছ। খািনকটা দূ ের
িহউেয় যাই, পৰ্ায় সাতেশা িকেলািমটার। চতুদর্শ শতা ী                সমৰ্ােটর সংগৰ্হশালা।
পযর্য্ন্ত িহউেয় অঞ্চল চম্পা রােজয্র অধীেন িছল।
তারপের এই অঞ্চল িভেয়ত্েদর অিধকাের আেস।                           েটট হেচ্ছ িভেয়ত্েদর নববষর্। ১৯৬৮ সােলর ৩১েশ
েষাড়শ/সপ্তদশ শতা ীর গৃহযু েদ্ধর সময় এই অঞ্চল                     জয্ানু য়ারী (েটেটর িদন) উত্তর িভেয়ত্নামীরা িহউেয়
িনউেয়ন বংেশর দখেল িছল। ১৬৮৭ সােল িনউেয়ন                          এবং দিক্ষেণর বহু শহর আকৰ্মন কের। পাঁচ সপ্তাহ
            ু
রাজারা ফ সু য়ান এ তাঁেদর রাজধানী স্থাপন করেলন।                   যু েদ্ধর পর িহউেয় েথেক উত্তর িভেয়ত্নামীরা িবতািড়ত
সমৰ্াট িগয়া লঙ যখন ফরাসীেদর সাহােযয্ তাঁর রাজয্                  হয়। এই যু েদ্ধ দু গর্নগরীর পৰ্চুর ক্ষিত হয়। েয সব
পুনরুদ্ধার করেলন (১৮০২) তখন েথেক ফ সু য়ান এর
                                      ু                          জায়গা এখনও িটঁেক আেছ েসখােন েবামা, গ‌ুিলেগালার
নাম িহউেয়। এটা তখন েথেক ১৯৪৫ সাল অবিধ                            ছাপ অেনক। এই যু েদ্ধ বহু অসামিরক মানু ষ পৰ্াণ
িনউেয়ন রাজােদর রাজধানী িছল।                                      হািরেয়েছ। অেনকেকই হতয্া করা হেয়িছল। বহু
                                                                 অগভীর কবর পাওয়া েগেছ।
িহউেয় পৰ্ধান দৰ্ষ্টবয্ দু গর্নগরী, িহউেয় রাজােদর পৰ্াসাদ,
সু গন্ধী নদী(সঙ িহউওঙ)র উত্তর তীের। সমৰ্াট িগয়া                  িহউেয় শহেরর আধু িনকতব্ হয্ানেয়র চাইেত কম।
লঙ এই পৰ্াসােদর পত্তন কেরন ১৮০৪ সােল।                            এখনও কেয়কেশা বছেরর পুরােনা পাড়া রেয়েছ।
জায়গাটা েজয্ািতষীেদর িনবর্ািচত। পৰ্াসাদ িনমর্াণ েশষ              এখান েথেক আমরা েগলাম েহাই আেন। েসটা আরও
হয় ১৮৩২ সােল, িগয়া লেঙর মৃতুয্র বােরা বছর পের।                   পুরােনা শহর। এখনও মধয্যুগীয় বন্দর-নগেরর ধাঁচ
১৮৮৩ সাল অবিধ িনউেয়ন রাজারা তাঁেদর সব্াধীনতা                     পাওয়া যায়। আমরা গাড়ীেত েহাই আেন েগিছ, এক
বজায় রাখেত েপেরিছেলন। তারপের কৰ্েম কৰ্েম সমস্ত                   সু ড়ঙ্গ পেথর মধয্ িদেয়, ৬.২৮ িকেলািমটার লমব্া। নাম
েদশটাই ফরাসীেদর হােত চেল যায়।                                    হাই ভয্ান সু ড়ঙ্গ, দিক্ষণ পূ বর্ এিশয়ার সবেচেয় লমব্া
                                                                 সু ড়ঙ্গ পথ।

                                                                 েহাই আেনর পত্তন দু হাজার বছর আেগ চাম
                                                                 উপজািতর হােত। এই চােমেদর রাজয্ িছল চম্পা। এই
                                                                 রাজারা ভারতীয় সভয্তা গৰ্হণ কেরিছেলন। এেদর
                                                                 একিট পৰ্ধান ধমর্স্থান িম সন, েহাই আেনর কােছ।
                                                                 তার কথা পের বলেবা। সপ্তম েথেক দশম শতা ী
                                                                 পযর্য্ন্ত দিক্ষণ-পূ বর্ এিশয়ার মশলাপািতর বয্বসা েহাই
                                                                 আেনর পৰ্ায় একেচিটয়া িছল। এখােন দিক্ষণ, পিশ্চম
                                                                 এবং পূ বর্ এিশয়ার বিণেকরা সমেবত হত েকনােবচার
                  িনও মন েতারণ                                   জনয্।
দু গর্নগরীর চারিদেক চওড়া পৰ্াকার, পিরিধ দশ
িকেলািমটার। পাঁিচেলর িভতরটা মািটর আর বাইের                       পঞ্চদশ শতেক চম্পারােজয্র পতন হয়। একেশা
পাথেরর গাঁথিন। পাঁিচেলর চারিদেক পিরখা, িভতের                     বছেরর মেধয্ েহাই আন আবার মাথা চাড়া িদেয় ওেঠ।
                                                            66
                                                                                                    অঙ্কুর, ২০১১ 
তারপর দু েশা বছর ধের িবরাট বািণজয্েকন্দৰ্, এিশয়া               তাঁরা বাড়ীর মািলক নন। আর একিট বাড়ীর মািলক
আর ইউেরাপীয় বিণকেদর িভড়। এই পেথই খৃষ্টধমর্                     আমােদর ঘুের ঘুের েদখােলন। তাঁেদর বাস আট পুরুষ
দিক্ষণ-পূ বর্ এিশয়ােত আেস। অষ্টাদশ শতা ীর পর                   ধের। েদওয়ােল তাঁর পূ বর্পুরুষেদর অেনক ছিব
েহাই আেনর পতন সু রু হয়। পৰ্ায় িতনেশা বছর ধের                   রেয়েছ। তাঁেদর একজন িবিশষ্ট িশক্ষািবদ আর একজন
েহাই আন িঝিমেয় আেছ, পুরেনা শহর অপিরবিতর্ত।                     এই অঞ্চেলর পৰ্ধান সাময্বাদী েনতা।
েসইটাই পযর্য্টকেদর কােছ িপৰ্য়।
                                                               চম্পারােজয্র কথা আেগই বেলিছ। তােদর একটা
েহাই আন শহর থুেবান নদীর েমাহনার কােছ।                          পৰ্ধান ধমর্স্থান িম সন েহাই আন েথেক পৰ্ায় সত্তর
এককােল বন্দরিট েমাহনার উপের িছল। েসই সমেয়                      িকেলািমটার দিক্ষণ পিশ্চেম। পুরােনা রাজধানী তৰ্া িকৰ্উ
এখােন অেনক চীনা এবং জাপানীেদর বসিত িছল।                        েথেক দশ িকেলািমটার দূ ের। চতুথর্ শতা ী েথেক পৰ্ায়
েহায়াই নদী থুেবােনর উপনদী। েহায়াই-এর একিদেক                    হাজার বছর ধের চম্পার রাজারা এখােন িহন্দু মিন্দর
িছল জাপানীেদর বাস। জাপানীরা পৰ্ায় চারশ বছর                     ৈতরী কেরেছন। এখােন অেনক রাজা এবং বীর
আেগ নদীর উপর একটা ঢাকা েসতু ৈতরী কের, তার                      েযাদ্ধােদর সমািধমিন্দর িছল। যতদূ র জানা েগেছ,
একিদেক পয্ােগাডা। েসতুটা খুবই দশর্নীয়।                         চম্পারাজ পৰ্থম ভদৰ্বমর্ণ এখােন চতুথর্ শতা ীর
                                                               েশেষর িদেক একিট িশবমিন্দর ৈতরী কেরন। দু শ
                                                               বছর পের েস মিন্দর পুেড় যায়। সপ্তম শতা ীেত রাজা
                                                               শম্ভুবমর্ণ েসই মিন্দর পুনরায় স্থাপন কেরন।
                                                               িভেয়ত্নােমর যু েদ্ধর সময় েসই মিন্দর আেমিরকার
                                                               েবামায় ধব্ংস হেয় যায়। এখন পেড় আেছ একটা
                                                               পাথেরর েবদী এবং ভাঙা েদওয়াল। িশবমিন্দর ছাড়াও
                                                                              ু
                                                               কেয়কিট িবষ্ণমিন্দরও আেছ। এক জায়গায় গেণেশর
                                                               মিন্দর আর স্কেন্দর (কািতর্ক) মিন্দর মুেখামুিখ। অেনক
                                                               মূ িতর্ পাওয়া েগেছ। তার মেধয্ গরুড় আর িশেবর
                                                               বাহন নন্দীর মূ িতর্ও আেছ। িম সেনর সংগৰ্হশালায়
                                                               কেয়কিট মূ িতর্ রাখা আেছ। অেনকগ‌ুিল রাখা আেছ
               েহায়াইএর দশর্নীয় েসতু
                                                               দানাংএ এবং পয্ািরেস।
েহাই আেনর পুরােনা শহের পুরােনা বাড়ী, পুরােনা
রাস্তা, েছাট েছাট েদাকান। েসখােন েমাটর গাড়ী
িনিষদ্ধ। েহাই আেনর দিজর্রা িবখয্াত, দু িদেন সু য্ট ৈতরী
কের িদেত পাের। তারা িনভর্রেযাগয্ এবং তােদর
মজুরী কম। শহের পৰ্চুর চীেন এবং জাপানী লণ্ঠন
পাওয়া যায়, রিঙন কাগেজ েমাড়া এবং সু দৃশয্। শ‌ুেনিছ
পুরােনা শহেরর েকান েকান রাস্তায় মােস একিদন
আেলা জব্েল না। েটিলিভশন, ইন্টারেনট সব বন্ধ।
অেনক বাড়ী এই লণ্ঠন িদেয় সাজান। মেন হয়
সব্প্নপূ ্রী।

েহাই আেনর পুরেনা বাড়ীগ‌ুেলা চীেন ধাঁেচর ৈতরী।                                 িম সেনর ভাঙা েদউল
টািলর ঢালু ছাদ, কােঠর েদওয়াল, েসানালী বািনর্শ,
                                                               রাজারা িশবমিন্দেরর সেঙ্গ িশলািলিপও েখাদাই
েদওয়ােল এবং থােম চীনা কারুকাযর্য্। কয্ান্টনী চীনা
                                                               করােতন। কেয়কিট িশলািলিপ চাম ভাষায়, তেব
সিমিতর বাড়ীটা ১৮৮৫ সেন ৈতরী। অেনক সম্ভৰ্ান্ত
                                                               অিধকাংশই সংস্কৃতেত। অক্ষরগ‌ুিল িকন্তু েদবনাগরী
এবং পৰ্িসদ্ধ চীনােদর পৰ্িতমূ িতর্ আেছ। িভতের সু ন্দর
                                                               নয়, দিক্ষণ ভারতীয় ধাঁেচর, বলা হয় পল্লব অক্ষর। েয
কাজ, সু ন্দর বাগান। আমরা িভেয়ত্ বিণকেদর ৈতরী
                                                               মিন্দরগ‌ুিল এখনও আেছ েসগ‌ুেলা দশম শতা ীর পের
দু েটা পুরেনা বসতবাড়ী েদেখিছ। একটা এখন
                                                               ৈতরী। দু ভর্াগয্বশতঃ এই সমেয়র িশলািলিপগ‌ুিলর
সূ িচিশেল্পর কারখানা। েয মিহলা েসখানকার পৰ্ধান
                                                               ভগ্নদশা। েশষ িশলািলিপ ১২৪৩ সােলর। পঞ্চদশ
েসখােন তাঁেদর দশ পুরুষ ধের বাস। এখন অবশয্
                                                          67
                                                                                              অঙ্কুর, ২০১১ 
শতা ীেত পৰ্ায় সমস্ত চম্পা রাজয্ িভেয়ত্রা জয় কের।           আগ‌ুেনর েকান ছাপ েনই। ইঁট েজাড়ার জনয্ েয মািট
িম সন পিরতয্ক্ত হয়। কালকৰ্েম সব ঢাকা পেড় যায়               েথেক ইঁট ৈতরী েসই মািট বয্বহার করা হেয়েছ।
জঙ্গেল। ১৮৯৮ সােল ফরাসী পিণ্ডত এম. িস. পয্ািরস             িশবিলঙ্গগ‌ুিল সবই েগাল এবং পাথেরর। কেয়কিট িলঙ্গ
আবার িম সন খুঁেজ পান। তারপর েথেক মিন্দরগ‌ুিলর              িতন থােকর – নীেচর থাক চারেকানা, বৰ্হ্মার িলঙ্গ;
পুনরুদ্ধার ও সংস্কার চলেছ। এখনও পযর্য্ন্ত একাত্তরিট                                 ু
                                                           মেধয্র থাক আটেকানা, িবষ্ণর; আর উপেররটা েগাল,
মিন্দর পাওয়া েগেছ। িভেয়ত্নাম যু েদ্ধ অেনক মিন্দর           িশেবর।
ধব্ংস হেয় যায়। আিম েবামা িবেস্ফারেণর িবরাট গতর্
েদেখিছ। এখনও আেশপােশ নািক না ফাটা েবামা এবং                চম্পার রাজারা অেনক ঘটনা িলিপবদ্ধ করেতন। েয
অনয্ানয্ িবেস্ফারক মািটর তলায় চাপা পেড় আেছ।                িলিপগ‌ুিল নরম িজিনেসর উপের েলখা েসগ‌ুিল আর
স্থানীয় েলােকরা েসখােন হাঁটেত ভয় পায়।                      েনই, পাথর এবং ইঁেটর উপের েলখা অেনক িলিপ
                                                           িটঁেক আেছ। সবই পঞ্চম েথেক তৰ্েয়াদশ শতা ীর
িম সেনর মিন্দরগ‌ুিলর চারেট ভাগ। ইঁেটর ৈতরী উঁচু            মেধয্ েলখা।
গভর্গৃহ, েযখােন মূ িতর্ অথবা িলঙ্গ বসােনা থােক, নাম
“কলন”। সামেন একটা বড় ঘর, নাম মণ্ডপ। পােশ                   েহাই আন েথেক আমরা যাই েহা িচ িমন নগরীেত,
েদবতার সামগৰ্ী রাখার েকাষগৃহ, যার ছাদ েঘাড়ার               িবমােন। েহা িচ িমন নগরী সায়গন নদীর তীের, সমুদৰ্
িজেনর মত। মিন্দর পাঁিচল িদেয় েঘরা, পৰ্েবশপেথ উঁচু          েথেক ষাট িকেলািমটার দূ ের। এটা েদেশর সবেচেয়
েগাপুরম, খািনকটা দিক্ষণ ভারতীয় মিন্দেরর মত।                বড় শহর এবং পৰ্ধান বন্দর। অতীেত এর নাম িছল
কলন েমরু পবর্েতর পৰ্িতকিত, তাই খুব উঁচু। কলেনর
                          ৃ                                েপৰ্ নকর, েজেলেদর গৰ্াম। েজেলরা অিধকাংশই
উপরটা একটু কারুকাযর্য্ করা, তারপের িশখর। েসটা              কেমব্ািডয়ার েখেমর জাতীয়। কৰ্েম কৰ্েম এটা েখেমর
েদবেলাক। মিন্দেরর তলাটা পাতাল, িভিত্ত চারেকানা,            সামৰ্ােজয্র সবেচেয় বড় বন্দর হেয় দাঁড়ায়। এিদেক
ইঁট বা পাথেরর ৈতরী। তার উপের েদওয়াল উেঠ                    পৰ্চুর িভেয়ত্ উত্তর েথেক দিক্ষেণ আসেত আরম্ভ কের
েগেছ, েসটা মতর্য্েলাক।                                     এবং ফেল েখেমররা সংখয্ালঘু হেয় যায়। এই সময়
                                                           েথেক সায়গন নামটা চালু । সপ্তদশ শতা ীর েশেষ
                                                           িভেয়ত্রা সায়গন দখল কের িগয়া দীন নােম এক
                                                           দু গর্নগরী স্থাপন কের। পের ফরাসীেদর সেঙ্গ যু েদ্ধ
                                                           দু গর্নগরী ধব্ংস হেয় যায়। ফরাসী আমেল সায়গন
                                                           েকাচীন চীেনর রাজধানী িছল। িভেয়ত্নাম সব্াধীন হেয়
                                                           ভাগ হেয় যাবার পর এটা িছল দিক্ষণ িভেয়ত্নােমর
                                                           রাজধানী। িভেয়ত্নাম যু দ্ধ েশষ হবার পর ১৯৭৬ সেন
                                                           সায়গন এবং আেশপােশর অেনকগ‌ুিল জায়গা িনেয়
                                                           নতুন নাম হয় েহা িচ িমন নগরী। এখনও শহেরর
                                                           মধয্াঞ্চলেক স্থানীয় েলােকরা সায়গন বেল থােক।

                                                           দিক্ষণ িভেয়ত্নােমর রাষ্টৰ্পিতর পৰ্াসাদ পাঁচতলা, একটা
                                                           তলা মািটর িনেচ। েসটা িছল িভেয়ত্নােমর যু দ্ধ
                                                           চালাবার েকন্দৰ্। উপের নানারকম দফতর এবং
                                                           বাসস্থান। েয টয্াঙ্কিট পৰ্েবশপথ েভদ কের পৰ্াসােদ
                                                           ঢুেকিছল েসটা এখনও আেছ, নমব্র ৮৪৩। অেনেক
                                                           বেল এটা নকল।
                                       ু
    চম্পারােজয্র িতন থােকর বৰ্হ্মা-িবষ্ণ-িশব-িলঙ্গ

একটা মিন্দর পাথেরর ৈতরী, আর সব মিন্দেরর                    সায়গেনর সবেচেয় বড় গীজর্া েনাতরদাম, পয্ািরেসর
েদওয়াল লাল ইঁেটর। েদওয়ােলর বাইেরর িদেক ইঁেটর               গীজর্ার অনু করেণ ৈতরী। েশষ করেত িতন বছর সময়
উপের অেনক কারুকাযর্য্। েদওয়ােলর িভতর িদকটা                 লােগ, ১৮৮০ সাল পযর্য্ন্ত। সমস্ত রসদপতৰ্ ফৰ্ান্স েথেক
সাধািসধা। অেনেক মেন কেরন েয শ‌ুকেনা ইঁেট মিন্দর            আমদানী। িগজর্ার িশখরদু িট আটান্ন িমটার উঁচু।
ৈতরী কের তার উপের েখাদাই করা হেয়িছল।                       েনাতরদােমর পােশ একেশা বছেরর পুরােনা ডাকঘর।
তারপের পুেরা মিন্দরিট েপাড়ােনা হেয়িছল। িকন্তু              পয্ািরেসর িবখয্াত স্থপিত গ‌ুস্তাভ আইেফল এর নকশা

                                                      68
                                                                                               অঙ্কুর, ২০১১ 
কেরিছেলন। পয্ািরেসর আইেফল টাওয়ােরর নকশাও                    িকেলািমটার। এই সু ড়ঙ্গগ‌ুিল িছল িভেয়ত্কঙ
ওঁর। বাড়ীর িভতরটা গিথক কায়দায়। এখােন                        েগিরলােদর রসদ সরবরােহর পথ, বাসস্থান, রান্নার
পযর্য্টেকেদর জেনয্ নানারকম েদাকানপাট রেয়েছ,                 জায়গা, দফতর, গ‌ুদাম ইতয্ািদ। তখনকার িদেন কিচ ু
একটা ডাকঘরও আেছ।                                            িছল গােছ ঢাকা গৰ্াম। গৰ্ামবাসীরা িদেনর েবলায়
                                                            সু ড়েঙ্গ থাকত আর রােতৰ্ েবিরেয় ওপেরর কাজ
েহা িচ িমন নগরী েদেশর সবেচেয় ধনী শহর। সারা                  এমনিক চাষবাস পযর্য্ন্ত করেতা।
েদেশর েমাট উত্পাদেনর শতকরা িবশ ভাগ, যন্তৰ্িশল্প
উত্পাদেনর শতকরা সাতাশ ভাগ এবং িবেদশী লিগ্নর                 সু ড়ঙ্গগ‌ুিল সরু এবং আঁকাবাঁকা, েগালক ধাঁধাঁর মত।
শতকরা পঁয়িতৰ্শ ভাগ এই শহের। িবেদশী েকাম্পানীরা              পৰ্স্থ িভেয়ত্কঙ েগিরলােদর পেক্ষ যেথষ্ট িকন্তু
এখােন অেনক দফতর এবং কারখানা খুেলেছ।                         আেমিরকানরা েযত আটেক। চুনাপাথের েখাঁড়া েসাজা,
ইেন্টেলর কারখানার লিগ্ন একেশা েকািট আেমিরকান                িকন্তু ধব্স নামার ভয় েনই। সু ড়ঙ্গপথগ‌ুিল কেয়কতলা।
ডলােররও েবশী। এই শহেরর অিধবাসীেদর গড়পড়তা                    আেমিরকানরা উপর তলায় ঢুকেল িভেয়ত্কঙরা নীেচর
আয় েদেশর অিধবাসীেদর আেয়র িতনগ‌ুন।                           তলায়। এই লু েকাচুিরর েখলায় আেমিরকানেদর হার
                                                            বরাবর। েবামা েফেল েফেল গৰ্াম িনিশ্চহ্ন হেয় েগেছ
ফরাসী আমেল ভারতবেষর্র ফরাসীশািসত অঞ্চল েথেক                 িকন্তু সু ড়ঙ্গগ‌ুিল চালু আেছ। েশষপযর্য্ন্ত যখন সু ড়ঙ্গ
িকছু দিক্ষণ ভারতীয় এখােন এেসিছল। তােদর িকছু                 ধব্ংস হল তখন িভেয়ত্কঙরা েফরার। বায়ু চলাচেলর
বংশধর এখনও আেছ। পৰ্ায় আিশ/নবব্ই বছর আেগ                     জনয্ কিতৰ্ম উইিঢিপর মেধয্ গতর্। সু ড়েঙ্গর মুখ ঘাস,
                                                                      ৃ
এরাই সায়গেন মসিজদ এমং ভারতীয় মিন্দর স্থাপন                  লতাপাতা িদেয় ঢাকা, েদখেল েবাঝার উপায় েনই। শ‌ুধু
কের। েসগ‌ুেলা এখনও আেছ এবং চালু ।                           েগিরলা এবং গৰ্ােমর েলােকরা জানেতা েকানটা আসল,
                                                            েকানটা নকল। বহু গ‌ুহােত িছল শািণত িবষাক্ত খুঁিট,
িভেয়ত্নাম যু েদ্ধ িভেয়ত্কঙরা সু ড়ঙ্গপেথর বয্বহার কের        েকাথাও িবেস্ফারেক ভিতর্ ফাঁদ, পড়েল আর রক্ষা েনই।
আেমিরকানেদর িকরকম নােজহাল কেরিছল তা হয়েতা                   গ‌ুহাগ‌ুিলর মুখ ঢাকা। এই সব গ‌ুহায় শ‌ুধু
অেনেকর মেন আেছ। আমরা এরকম একটা সু ড়ঙ্গ-                     আেমিরকানরা পড়েতা। এই সু ড়ঙ্গ পৰ্থম েখাঁড়া হয়
গৰ্াম েদখেত িগেয়িছলাম। শহরতিল অঞ্চেলর পাড়া,                 ১৯৪০-এর দশেক, ফরাসীেদর সেঙ্গ যু েদ্ধর সময়।
       ু
নাম কিচ। সু ড়ঙ্গপথগ‌ুিল অেনক জায়গা জুেড়। যু েদ্ধর           িভেয়ত্নাম যু েদ্ধর সময় আেরা বাড়ােনা হয়। এখন
সময় নািক ওই পথ ধের সায়গন েথেক কেমব্ািডয়ার                   অেনক সু ড়ঙ্গই বন্ধ, েকবল েদখাবার জেনয্ কেয়কিট
সীমানা পযর্য্ন্ত চেল যাওয়া েযত, দূ রতব্ ২৫০                 েখালা আেছ।




                                                ু
                                               কিচর সু রঙ্গ-গৰ্াম
                                                       69
                                                                                              অঙ্কুর, ২০১১ 

                                      ৃ
ঐিতহািসক যু েগ িভেয়ত্েদর েপশা িছল কিষকাযর্য্ এবং          কৰ্মবৃ িদ্ধ বছের শতকরা ৭ (ভারেতর ৮, চীেনর ১০)।
বািণজয্। খিনজ দৰ্বয্ও রপ্তানী হত। চােষর জনয্              কৰ্য়ক্ষমতা ধরেল ২০১০ সেন িভেয়ত্নােমর জনপৰ্িত
বয্বহৃত হত গরু এবং েমাষ। সমােজ এেদর কদর                   আয় ৩,১০০ আেমিরকান ডলার, ভারেতর ৩,৫০০
এত িছল েয রাজারা েগাহতয্া িনিষদ্ধ কের                     চীেনর ৭,৫০০ আর িনউিজলয্ােন্ডর ২৭,০০০। অবশয্
িদেয়িছেলন। ফরাসীরা আসার পর দিক্ষণ িভেয়ত্নােম              মুদৰ্াস্ফীিত রেয়েছ, আর ঘুেষর কথাও েশানা যায়।
 ৃ
কিষকাযর্য্ চলেত থােক, ফরাসীিশেল্পর কাঁচামাল েযাগান        িভেয়ত্নাম আধু িনক েদশ। বড় শহর দু েটায় িগেয় মেন
িদেত। খিনজ দৰ্বয্ও েসইভােব বয্বহৃত হত। উত্তর              হল েয েসখানকার েলাকজন, িবেশষ কের কমবয়সীরা
িভেয়ত্নােমও িকছু িকছু কলকারখানা স্থািপত হয়।               সজীব, পৰ্াণবন্ত আর ভািবষয্ত্মুখী। তােদর চালচলেন
িভেয়ত্নাম যু েদ্ধর ফেল েদেশর অথর্ৈনিতক কাঠােমা            পাশ্চাতয্েদেশর যু বক-যু বতীেদর সেঙ্গ িবেশষ েকান
েভেঙ পেড়। ১৯৮৬ সােলর পর েদশটা েযন পুনজর্ীবন               পাথর্কয্ েনই। েহা িচ িমন নগরীেত আমােদর
পায়। তারপর েথেক উন্নিত হেয় চেলেছ। ২০০৫                    িভেয়ত্নাম সফর েশষ। এরপের আমরা পা বাড়ালাম
েথেক ২০১০ সােলর মেধয্ িভেয়ত্নােমর বাত্সিরক                কেমব্ািডয়ার পেথ।


                                          The Final Try
                                           Dipanwita Das
                                              (Wellington)

New Zealand and England, neck to neck - thirty all. Five more minutes. The pressure is on! I am in
our lounge watching the Rugby World Cup final with my family. My sister is staring at the TV
screen absorbed in the game, mum’s peeking out from the kitchen checking the score and dad’s
sitting on the edge of his seat. My grandparents are watching for all its worth and wise old great
gran is sitting in her wheelchair observing the game.

Now there are two more minutes left of the game and England is on the way to scoring a try. My
heart is beating like a metronome on speed allegro. But just in the last minute a New Zealand
defender blocked the try. There are thirty seconds left now and New Zealand scores a try! The
final whistle blows and every body is so proud of their home team. I look at my family and every
body is jumping with joy except for our great gran who is unable to move much. Her soft warm
eyes are smiling happily and there is a cheesy grin on her lips. I’m super happy and every one is
ecstatic to see the World Cup being handed to the All Blacks’ captain. New Zealand has won the
Rugby World Cup 2011!

I wake up on a chilly winter morning with a huge yawn. I realise that it was all a dream. But how I
wish my dream come true!

                                        Durga Puja 2011
                                             Riya Sarker
                                              (Wellington)

                                           Every year I celebrate Durga puja with my family. We
                                           worship Durga, the Warrior Goddess. Durga Puja
                                           represents the triumph of the good over the evil. This year
                                           I am participating in a song and dance recital ‘Hattima
                                           Tim Tim’. I like it because it changes all of us into birds
                                           and animals such as chicks and frogs. There are Hia, Ria,
                                           Paloma and Devi - apart from me of course in my group.
                                           Hope you will enjoy our dance. See you at the venue!


                                                     70
                                                                                                      অঙ্কুর, ২০১১ 


                                             নীল েনৗেকার েদশ
                                              শাশব্ত বেন্দয্াপাধয্ায়
                                                   (চন্দননগর)
এক

েভারেবলায় দাদু ভাইেয়র পুকরধারটায় বসেল সবুজ জেল নানারকম েখলা েদখা যায়। আকােশ আেলা হেয় ফেট ওঠা
                           ু                                                                  ু
সকালেক ওই জেলর মেধয্ িদেয় েদখেল অনয্রকম লােগ। পৰ্থম সূ েযর্র আেলা খুব নরম কের জেলর ওপরটা ছু েয়     ঁ
েগেলই হাজার হাজার মুেক্তা ঘুম েভেঙ্গ েজেগ ওেঠ। ঝলমল কের েচাখ ধাঁিধেয় েদয়। অল্প অল্প হাওয়া িদেল েছােটা
েছােটা জেলর েঢউ ওেঠ, আেলার েঢউ ওেঠ। অেনক িনচ পযর্ন্ত েদখা যায়। ক্ষেদ ক্ষেদ কােলা মােছর ঝাঁক ভুরভুির
                                                                   ু    ু
েকেট সাঁতের চেল। জলেপাকারা এিদক েসিদক ইকিড়িমকিড় েকেট যায়। গাঢ় হলু দ সাপগ‌ুেলা এঁেকেবঁেক
এঁেকেবঁেক জেল েরখা েটেন েগাটা পুকর ঘুের েবড়ায়। মােঝ মােঝ মুখ তুেলই আবার ডুিবেয় েনয়। পৃিথবীর এই
                                    ু
ঘুমভাঙ্গা মুখ িনষ্পাপ বািলকার মেতাই, েচাখ েফরােত পািরনা। সকাল েথেকই ক’টা মাছরাঙ্গা পুকরপােড়র গােছ
                                                                                       ু
এেস বেস থােক। সবুজ জেল তােদর ঘন নীল ছায়া হাওয়ায় দু েল দু েল ওেঠ। মেন হয় েকােনা েছাট্ট েছেলর ভাসােনা
নীল কাগেজর েনৗেকা।

এমন সময় েগালকদাদু আেসন। ধীর পােয় এেক এেক িসঁিড় েভেঙ্গ জেল েনেম যান। চারপােশর জল দু হােত সিরেয়
আকােশর িদেক একবার তািকেয় একটা ডুব েদন। িকছু ক্ষণ জেলর িনেচ েথেক দম পরীক্ষা কেরন। তারপর পূ বমুেখ
দাঁিড়েয় হােতর আঁজলায় িকছু টা জল তুেল সূ যর্পৰ্ণাম শ‌ুরু কেরন। পৃিথবীর গােয় কয়াশার মেতা জিড়েয় থাকা ঘুেম
                                                                                    ু
েগালকদাদু র মন্তৰ্ িবন্িবন্ কের িমেশ যায়। ওঁ জবাকসু ম সঙ্কাশং... । েগালকদাদু িপতৃপুরুষেদর স্তব কেরন। জল,
                                                   ু
বায়ু , অেন্নর জনয্ তাঁেদর পৰ্ণাম জানান। সমস্ত পৃিথবী েযন এই পূ ণয্ মূ হুতর্িটর জনয্ অেপক্ষা কের থােক। লমব্া, ফসর্া,
েমদহীন শরীরটা জল েছেড় উেঠ েগেল সকাল শ‌ুরু হয়।

একটা সাইেকল এেস থােম পুকরধাের। েছাট্ট লাল সাইেকল, সামেন কােলা জােলর বােস্কট আঁটা। মুেখ বৰ্াশ িনেয়
                           ু
বুকন সাইেকল েথেক নােম। লািফেয় লািফেয় িসঁিড় েভেঙ্গ েনেম অেনকক্ষণ ধের জেল িনেজর মুখ েদেখ। েচােখর
   ু
েগাল েগাল েফৰ্েমর চশমাটা নাড়াচাড়া কের। অদৃ শয্ শতৰ্ুেদর েজাের েজাের মুখ ভয্াংচায়। তারপর নানান আওয়াজ
কের দাঁত মােজ, মুখ েধায়।

সকালেবলায় আর এক জন আেস পুকরপােড়। বয়স েতেরা-েচাদ্দ, নাম সু পৰ্কাশ। বািড় বািড় কাগজ েদয়। সব
                                    ু
কাগজ েদওয়া েশষ হেয় েগেল পুকরধারটায় বেস খুব আড়েমাড়া ভােঙ। তার হাত-পা েছাঁড়া েদেখ মেন হয় খুব
                                 ু
েমাটা েমাটা দিড়দড়া েছঁড়ার এক লড়াইেয় েনেমেছ বুিঝ। তারপর সু পৰ্কাশ বাঁধােনা পুকরপাড়টায় জেলর িদেক িফের
                                                                             ু
একটু শ‌ুেয় েনয়। ওর িমিষ্ট মুখটায় জল েথেক আেলা পেড় িতর্িতর্ কের কাঁেপ। ওর বাবা েনই। মা েসলাই কেরন,
             ু
পৰ্াইমারী ইস্কেল িমড-েড িমল-এর রান্না কেরন। বাড়ীেত আচার, বিড়, পাঁপড় ৈতরী কের িবকৰ্ী কেরন। সু পৰ্কাশ
ক্লাস েসেভেন পেড়।

সু পৰ্কােশর সেঙ্গ িকভােব েযন ভাব হেয় েগেছ বুকেনর। পুকের মুখ েধাওয়া েসের, সাইেকেল আঁটা বােস্কেট বৰ্াশ
                                             ু       ু
ধু েয় েরেখ েস সু পৰ্কােশর কােছ এেস বেস। বেল, এই, বল েদিখ, বুকন। সু পৰ্কাশ একটু েতাতলা। েস বেল, বু-বু-
                                                             ু
        ু
বু-বু-কন।
                       ু
না, হেচ্ছ না। বল বু-ক-ন।
             ু
বু-বু-বব্ু -কন।
ধু স। বুউউউউকন। ু

                                                        71
                                                                                          অঙ্কুর, ২০১১ 

          ু
বব্ু -বু-কন।
আর একটু েচষ্টা কর। হেব।

                       ু                                                        ু
অবেশেষ িঠকমেতা বুকন বেল সু পৰ্কাশ। বেলই পরীক্ষাপােশর একটা গালভরা হািস হােস। বুকন পয্ােন্টর দু পেকট
                   ু                                                        ু ু
েথেক একগাদা িবস্কট েবর কের ভাগ কের খায়। দু একবার আঃ আঃ কের। িতনেট ককর েরােজর সঙ্গী। বুকন         ু
তােদর নাম েরেখেছ েছালা, মটর আর ডালমুট। একখানা কের িবস্কট বরাদ্দ ওেদর। আর িঠকমেতা বুকন বলেত
                                                           ু                              ু
পারায়, সু পৰ্কাশও কেয়কটা িবস্কট পায়। তেব ও জােন যিদ েকানিদন না-ও বলেত পাের, তবু এই িবস্কটকটা মার
                               ু                                                        ু
                                                                       ু
যােব না। িকন্তু ও েচষ্টা কের। পৰ্াণপেন িনেজর িজভেক শাসন কের িঠকমেতা বুকন নামটা উচ্চারণ কের। িদেনর
পৰ্থম আেলার এই দু লর্ভ বন্ধেক খুিশ করার আর েকােনা উপায় জােন না গরীব েছেলটা।
                           ু

দু ই

বুকনেক আেগ িচনতাম না। আমােদর পাড়ারই একটু ধােরর িদেক বািড়। একিদন আমােদর পােশর বািড়র সু মেনর
     ু
   ু
বন্ধ হেয় ও েখলেত আেস। কেয়কিদেনর মেধয্ই িমশ‌ুেক ফসর্া গালেফালা েছেলটা সকেলর মেধয্ একটা মায়া ৈতির
                       ু
কের েফেল। িবেকেল বুকন না এেল গিলরাস্তার েখলা শ‌ুরু হয় না। ওর গালটা একবার না িটপেল অচর্নামািসর
িবেকেলর চা িবসব্াদ লােগ। আজ ও িক করল তা শ‌ুনেব বেল েশাভািদদা পুকরধাের অেপক্ষা কেরন। ওর ভাল নাম
                                                                ু
সতয্িজত্ লািহড়ী। েকউ িজজ্ঞাসা করেল বেল িমথয্াহার িহড়িহড়। আমােক ও পৰ্ায়ই বেল, ধু স্ বাবা-মা িক একটা
েবকার নাম েরেখেছ আমার!
েকন, খারাপ িক ের? সতয্িজত্ রায় েক জািনস?
তািচ্ছেলয্র সু ের ও বেল, সব জািন। সেল না (চেল না)...
তেব িক চেল, রিক?
ধয্ার্, িক েয বল না তুিম। ওটা েতা আমার েবঁিজর নাম।
তেব?
েযমন ধর, জটায়ু ।
িক...!
জটায়ু , জটায়ু । েশােনািন, তুিম েফলু দা পেড়ািন। আর শঙ্কু। েদখেব, বড় হেয়ই আিম িঠক নামটা বদেল েনব।
টাইেটলটাও।
বদ্েল িক নাম রাখিব?
 ু
কমার জটায়ু । ডাকনাম শঙ্কু।

    ু                                                                               ু
বুকেনর বাবা বাইের কাজ কেরন। মােসর েশেষ কেয়কিদেনর জনয্ এেস আবার চেল যান। বুকনেদর বািড়েত ওর
                      ু                                        ু
মা েছােটা ভাই আর ঠাকমা-দাদু েক িনেয় বয্স্ত থােকন। সব িমিলেয় বুকেনরই েপায়াবােরা। সকাল হেতই বৰ্ােশ েপস্ট
লািগেয় সাইেকল িনেয় েবিরেয় পেড়। এ গিল ও গিল চক্কর িদেয় পুকরজেল মুখ েধায়। বািড় িফের একটু পেরই
                                                                 ু
ইস্কেল চেল যায়। পােশর পাড়ায় ইস্কল। েছাট্ট লাল সাইেকল চািলেয় েদেহর-েচেয়-বেড়া একটা বয্াগ িনেয় খুব
      ু                           ু
              ু
বয্স্তভােব বুকন ইস্কেল যায়। হােত ইেল িনক ঘিড়। মােঝ মােঝ সাইেকল থািমেয় ঘিড়টা েদেখ েনয়। একিদন
                   ু
অমনই ঘিড় েদখেছ দাঁিড়েয়, েসই সময় আিম পাশ িদেয় যািচ্ছ। একজন ভদৰ্েলাক ওর হােত ঘিড় েদেখ বলেলন
কটা বােজ বেলা েতা? ও িকছু ক্ষণ ওঁর িদেক তািকেয় েথেক আমার িদেক হাতটা বািড়েয় িদেয় বলল, দাদা একটু
বেল দাও েতা। পের জানলাম ও ঘিড় েদখেতই েশেখিন এখনও।

বুকন যা পেড় বা েশােন তা হােতনােত পৰ্েয়াগ কের েদখেত খুব ভােলাবােস। েযমন েকােত্থেক শ‌ুনল গয্ািলিলওর
   ু
পরীক্ষার কথা। বায়ু শূণয্ একটা কাঁেচর িটউেবর মেধয্ একই উচ্চতা েথেক একটা পালক আর একটা পয়সােক

                                                 72
                                                                                         অঙ্কুর, ২০১১ 

একসেঙ্গ েফলেল তারা একই সােথ িটউেবর িনেচ এেস পেড়। বুকন এই িনেয় খুব ভাবাভািব কের দাদু র কাছ েথেক
                                                       ু
                                                           ু ু
একটা পয়সা িনেয় েদাতলার ছাদ েথেক েসই পয়সা আর একটা ককরছানােক েফেল িদল। িনেচ েঝাপঝাড় থাকায়
 ু ু                                       ু
ককরছানাটা েবঁেচ যায়। িকন্তু মােয়র শাসেন বুকেনর চশমাটা অক্ষত থােকিন েসিদন। ইস্কেল েরাদ্দুের আতসকাঁচ
                                                                               ু
ধরার পরীক্ষা পেড় এেসই ও ঠাকমার েপৰ্সিকৰ্পশন আর ভাইেয়র বাথর্ সািটর্িফেকট পুিড়েয় েফলল। দাদু শীেতর
                               ু
                                                   ু
েরাদ্দুের কাগজ পড়িছেলন। হােত গরম লাগেতই েদেখন বুকন উলেটা িদেক দাঁিড়েয়, হােত আতসকাঁচ। দাদু র িদেক
একগাল েহেস বলল, কাগজ...পুড়েছ। খবেরর কাগেজ ডুেব-থাকা দাদু বয্াপারটা েখয়াল কেরই লািফেয় উঠেলন, এই
েছেলর জনয্ একিদন আমােদর িঠক খুন হেত হেব, এই বেল রাখলাম...। বুকেনর এক মামা বািড়েত মাশরুম চাষ
                                                                   ু
            ু                                                        ু
কেরন। বুকন মামার বািড় িগেয় সবটা েদেখশ‌ুেন আমােদর পাড়ার েখাকা কাকর কাছ েথেক একগাদা খড় েচেয়
িনেয় এল। মােক লু িকেয় িসঁিড়র ঘের মাশরুেমর চাষ শ‌ুরু করল। একিদন ওর মা কাপড় েমলেত িগেয় েদেখন
িসঁিড়র ঘের একটা কােঠর বােক্স একগাদা িভেজ খড়, তা েথেক দু গর্ন্ধ েবেরােচ্ছ। আর অজসৰ্ বয্াঙ চারপােশ
                                                                                       ু
থপথিপেয় েবড়ােচ্ছ। মাশরুেমর বাংলা ‘বয্ােঙর ছাতা’ আর তা বষর্া হেল েদখা যায় জানেত েপের বুকন িভেজ খেড়
একগাদা বয্াঙ েছেড় িদেয়িছল!

একিদন বুকন এেস খুব গম্ভীরমুেখ আমােক বলল, বুঝেল দাদা, মহান েলাকজন আজকাল খুব একটা েনই।
           ু
হঠাত্ মহান েলাকজন?
আমােদর বািড়েতই েদখ, েকউ েনই, মাতৰ্ একজন মােঝ মােঝ আেস।
েকন ের?
নাঃ, িকছু নয়, এই েদখিছ আর ভাবিছ।
তা েকান মহান জন আেসন েতােদর বািড়েত?
আমার িপিস।
িক রকম?
এই েয আমােক িক সু ন্দর একটা জামা িদল কাল। বাবা বলল, িদচ্ছ দাও। িকন্তু এমিনেতই উচ্ছেন্ন েগেছ, এত িকছু
েপেল আরও যােব। জাহান্নেম যােব। তাহেল, তুিমই বেলা আমার কথা িঠক িকনা।

   ু
বুকেনর কােছ েশানা ‘মহত্’ হওয়ার অমন শতর্ মেন পড়েল আজও হাসেত হাসেত েপেট িখল ধের যায়। সামানয্
একটা জামা িপিসেক মহান কের িদেয়েছ েছেলটার েচােখ। আমার েকন জািননা মেন হয়, জামার েথেক িপিসর েস্নহ,
                               ু
আদর এসবই েবশী স্পশর্ কেরিছল বুকনেক। আজকাল েতা আর েতমন কের েকউ ভােলাবােস না...।

েযিদন বুকনেদর জীবনিবজ্ঞান ক্লােস মাকড়সা পড়াল, বুকন পৰ্থম শ‌ুনল পুঞ্জািক্ষর কথা। আমােদর মেতা মাকড়সার
            ু                                             ু
দু েটা েচাখ নয়। বাইের েথেক েদখেত দু েটা েচাখ, আসেল তা অেনক অেনক েচােখর সমিষ্ট। পাড়ার ডাক্তার
অরুণকাকর বািড় িগেয় তার মাইেকৰ্ােস্কােপ ও েদেখ এল মাকড়সার পুঞ্জািক্ষ। আমােক বলায় আিম ইন্টারেনেট
          ু
                               ু
ছিবও েদখলাম অেনক। বুকেনর পৰ্শ্ন, মাকড়সা িক তেব অেনক অেনক েদখেত পায়? মাথার চারধারটা েদখেত
পায়? একিদন িবেকেল পুকরধারটায় েগিছ, বািন্টেক িনেয় ওর মা নামেলন িরক্সা েথেক। বািন্টর েচােখ কােলা চশমা,
                          ু
কািকমার মুখটা িচিন্তত। একজন িজজ্ঞাসা করেত বলেলন বািন্টেক িনেয় ডাক্তার েদখােত িগেয়িছেলন, ওর দু েচােখর
                                                    ু
পাতায় আর আেশপােশ পৰ্চুর েফাঁড়া হেয়েছ। বুকন কােছই েখলিছল। েদৗেড় এেস কািকমােক বলল, ওগ‌ুেলা েফাঁড়া
নয় কািকমা - পুঞ্জািক্ষ, পুঞ্জািক্ষ। িকচ্ছু িচন্তার েনই, আিম ওসব জািন। মাকড়সার আেছ, আজ েদখিছ মানু েষরও
আেছ। তেব বইেত তা েলেখিন। বলেত বলেত বািন্টর কােছ িগেয় বলল, একবার চশমাটা েখাল, েতার পুঞ্জািক্ষটা
েদিখ। অেনক অেনক েদখেত পািচ্ছস তুই এখন? িক িক েদখিছস বল না ের? আচ্ছা মাথা না ঘুিরেয় বল েতা েতার
                       ু     ু               ু
েপছেন েক আসেছ, নাককাক না হাবুলকাক? িক রেঙর জামা পেড়েছ?

বািন্ট আর কািকমা েতা হতভমব্!
                                                 73
                                                                                          অঙ্কুর, ২০১১ 

িতন

রেথর সময় পাড়ার বাচ্চােদর মেধয্ েজার কিম্পিটশন চেল েক কতটা চমক লাগােত পাের তার রথযাতৰ্ায়। এক বছর
সু মন বয্াটািরর আেলা িদেয় রথ সাজােব িঠক কেরেছ। বয্াপারটা নতুনই এেসেছ বাজাের, ওর বাবা েকালকাতা েথেক
িকেন এেন িদেয়েছন। সু মন খুব চুপচাপ আেছ কিদন। বািড় েথেকও েবেরােচ্ছ না, পােছ কথাটা েবিরেয় যায়। গ‌ুলু
আবার নানান রকেমর গােছর পাতা িদেয় সাজােনা িবরাট এক রথ টানেব। সন্তুর রেথ এবার গান বাজেব। আর ওর
                                             ু
ভাই েসন্ট েস্পৰ্ করেব রথ টানার সময়। বুকেনর খবর িকচ্ছু জানা যােচ্ছ না। আমরা েবশ উদ্গৰ্ীব হেয় আিছ।
                                               ু                ু
হঠাত্ই রেথর িদন সকােল হােত েলখা েছাট্ট িচরকট বািড় বািড় িদেয় বুকন তার রথ েদখার জনয্ আমােদর আমন্তৰ্ণ
জািনেয় েগল। সময় – িবেকল পাঁচ ঘিটকা, স্থান – পুকরপােড়র রাস্তা। েবানেক িনেয় আিম, ওিদেক ফচু, অচর্নামািস,
                                                 ু                                      ু
বাবুেদর বািড়র সকেল, পারুলিদদা, েশাভািদদা, সু মন, সু মেনর মা, আরও অেনেক দাঁিড়েয় আিছ। অচর্নামািস
িবেকেলর চা-িবস্কট িনেয় পুকরধাের বেস। হঠাত্ই গিলর েমােড় বুকনেক েদখা েগল। লাল জামা, কােলা পয্ান্ট। এক
                   ু          ু                            ু
                                                                        ু                 ু ু
হােত একটা েকৗেটা, অনয্ হােত একটা সরু িছপ্িট। কােছ আসেত েদখলাম বুকেনর েপাষা দু েটা ককরছানা রথ
               ু
টানেছ। বুকন হােতর িছপ্িট িদেয় মােঝ মােঝ শাসন করেছ ওেদর। অিভনব এই বয্াপার েদেখ আমরা েতা হাঁ।
                                                     ু
বািকেদর পৰ্দশর্নীর উত্সাহ েকমন িনেভ েগল। বুকন েকৗেটা েথেক েমৗিরলেজন্স, এেক্লয়াসর্, হজেমালা আর
চানাচুেরর পৰ্সাদ িদল সকলেক। তারপর পুকরধােরর রাস্তায় কেয়কবার রথটা েটেন ও িফের চলল। এমন সময়
                                           ু
           ু ু                                                       ু
হঠাত্ই ককর ছানাদু েটার েচাখ েগল অচর্নামািসর িবস্কেটর িদেক। বয্াস, বুকেনর সমস্ত শাসন অগৰ্াহয্ কের তারা
                                                   ু
েছাট্ট েছাট্ট পােয় ছু েট েযেতই রথ উল্েট একাকার!

                                                                 ু
একিদন সেন্ধেবলা বারান্দায় দাঁিড়েয় কথা বলিছ একজেনর সেঙ্গ। েদিখ বুকন সাইেকল চািলেয় বকেত বকেত যােচ্ছ
                                                                                ু
একা একাই। ওর সাইেকেলর বােস্কেট একটা সাদা পয্ােকট। যার সেঙ্গ কথা বলিছ েসই বন্ধ বলল, েছেলটা পাগল
নািক ের? আিম বললাম না, না, তেব খুব িবচ্ছু। তা বুকন চেল েগল। আমরা কথা বেল েযেত লাগলাম। খািনকবােদ
                                                 ু
েদিখ খুব েজাের েজাের সাইেকল চািলেয় বুকন আসেছ উল্েটা িদক েথেক। ওর সাইেকেলর বােস্কেট েসই সাদা
                                         ু
পয্ােকটটা। িপছেন আর একটা সাইেকেল ওর বাবা। এখন বুকন চুপ, ওর বাবা খুব বেকেছ ওেক। রােগ অপমােন
                                                      ু
দু ঃেখ বুকেনর মুখটা থমথম করেছ। বুকনরা একটু িগেয়ই িকছু ক্ষণ পের িফের এল। আসার সময় ওর বাবা আমােক
          ু                         ু
                         ু
েদেখ দাঁিড়েয় বলেলন, বুকেনর কান্ড শ‌ুনেব? পড়েত িগেয়িছল, আসার সময় বইেয়র বয্ােগ ভের একটা েঘেয়া
েবড়ালছানা িনেয় এেসেছ েকােত্থেক। তার নািক হাই েটম্পােরচার, রাস্তায় শ‌ুেয় কাঁপিছল। বািড়েত িগেয় হুজ্জু িত
                                                                     ু
ওনােক কিফ কের িদেত হেব, েবড়ালেক খাওয়ােবন। িদেয়িছ আচ্ছা কের বকিন। এই েদেখা, এখন েফরত্ িদেয়
                                  ু
আসিছ। আমরা দু জেনই বুঝলাম, বুকন কার সেঙ্গ বকবক করেত করেত যািচ্ছল তখন।

চার

               ু
িকছু িদন হল বুকন আর আেস না পাড়ায়। ওর সেঙ্গ একই ক্লােস পেড় সু মন। েসও িকছু বলেত পাের না। শ‌ুধু
          ু                                           ু
জানাল বুকেনর বাঁহােত একটা কালিশেট ও েদেখ েফেলেছ। বুকনেক ও িজেজ্ঞস কেরিছল, িকছু েতই িকছু বেলিন।
                             ু
একিদন েদিখ খাঁচাগািড় েচেপ বুকন ইস্কেল যােচ্ছ। আিম ডাকেত েগলাম। িকন্তু েচৗেকা েচৗেকা জােলর ফাঁক িদেয়
                                  ু
ওর শ‌ুকেনা মুখটা আমােক েদেখই অনয্িদেক ঘুের েগল।

এ িনেয় সবাই ক’িদন বলাবিল করেল। তারপর তারপর আেস্ত আেস্ত েথেম েগল। মাসখােনক েকেট েগল। একিদন
                                                       ু
সু মন এেস একটা নীল কাগেজর েপ্লন েদখাল আমােক। বুকন িদেয়েছ। নীল েমাটা কাগজ। েদখলাম তােত একটা
                   ু                                                                           ু
েকাম্পানীর ছাপ। বুকেনর বাবা কাজ কেরন হয়েতা েসখােন। েপ্লনটা েরেখ িদলাম আিম। যখনই েদিখ ওটা, বুকেনর
েগাল েগাল চশমাপরা দু ষ্টূ েচাখদু েটা আর পাকা পাকা কথাগ‌ুেলা েভেস ওেঠ। বুকেনর কথা আমার খুব মেন পেড়।
                                                                         ু
খাঁচা গািড়র িভতর ওর ওই মিলন মুখটা বড় নাড়া েদয়। িনেজর ৈশশব মেন পেড়। একিদন এমনটাই েতা িছলাম;

                                                 74
                                                                                          অঙ্কুর, ২০১১ 

দামাল, অিস্থর েকৗতুহলী। পরীক্ষা কের েদখার েনশায় কত িকছু েভেঙিছ, তারপর মােয়র শাসেনর ভেয় আশৰ্য়
          ু
িনেয়িছ ঠাকমার িপছেন।

যত বড় হেত থািক, তত মেন হয় ভাঙার হাত এবার েকবল গড়ার জনয্ই পৰ্স্তুত হেচ্ছ বুিঝ। িকন্তু অজােন্তই কত
বেড়া কত দামী দু লর্ভ িকছু েভেঙ ধু েলা হেয় যায়, েখয়ালই কির না। বারান্দায় দাঁিড়েয় সু মনেদর েখলা েদখেত
েদখেত উচ্চিকত একটা কণ্ঠসব্র বড্ড মেন পেড়। আর গভীর রােত িচলছােদ মাদু র েপেত যখন আকােশর মুেখামুিখ
শ‌ুই, খুব আলেতা কের বুকন এেস বেস। অিবরত পৰ্শ্ন কের চেল। অবসর েপেল পুেরােনা িদেনর িজিনষপতৰ্ খুঁেজ
                        ু
েপেত েদিখ, নাড়াচাড়া কির। বুকেনর না-আসা আমােক িনেজর হািরেয়-যাওয়া ৈশশব অনু ভব করায়। পুেরােনা
                               ু
চশমােদর খুঁেজ পাই। সাত বছেরর দাঁত েতালার েপৰ্সিকৰ্পশন। ঠাম্মার িপঠ চুলেকােনার প্লািস্টেকর হাত, ওটা িছল
আমােক শাসন করার জনয্ মােয়র অস্তৰ্। ঠাম্মা-দাদু র সেঙ্গ েখলেত বসা লু েডার েবাডর্। েকউই আর েনই আজ।
একটা গ্লাস খুঁেজ পাই। িভতরটা খেয়ির হেয় আেছ। পািখেদর জল খাওয়ােনার গ্লাস। আমােদর েদাতলায় একটা
                                                                                          ু
টািলর চাল িছল। টািলর েখােপ িছল দু েটা পায়রার বাসা। তােদর ধরার জনয্ েছাট্ট লাল উেঠােন ঝিড় উপুর কের
তার িনেচ চাল ছিড়েয় ফাঁদ পাততাম। এসব কােজ েতাতন িছল আমার েদাসর। নানান পািখ আসত। শািলক, ঘুঘু,
পায়রা, িফেঙ, চন্দনা... আরও কত। েদওয়ােলর আড়াল থেক দু েচাখ ভের েদখতাম, ওরা টুকটুক কের চাল খুঁটেছ।
েছােটা েছােটা পােয় লাফ িদেচ্ছ। নরম গলার কাছটায় দানাগ‌ুেলা একটা একটা কের েনেম যােচ্ছ। একটা পািখর
                                                                            ু
গােয় সমুদৰ্জেলর রঙ। একজেনর গলার পালক সূ যর্ােস্তর মত গভীর লাল। একিদন ঝিড়টা সিরেয় িনলাম। আরও
চাল ছিড়েয় িদলাম। আর ওই গ্লােস কের জল েরেখ িদলাম। পািখরা আসত, েখত। বৃ িষ্ট পড়েল চাল জেল িভেজ
      ু
েবলকঁিড়র মেতা ছিড়েয় থাকত লাল উেঠান জুেড়।

টািলর চাল েভেঙ কেব ঢালাই হেয় েগেছ। েতাতন এখন পুণায় চাকির কের। েসই পায়রাদু েটার কথা িনশ্চয়ই কেব
ভুেল েগেছ। গ্লাসটা কােন ধরলাম। েশাঁ েশাঁ শ হল। অিবরল েঢউ ওঠা, েঢউ ভাঙার শ । নােকর কােছ িনেয় শব্াস
টানলাম। মেন হল শয্াওলার গেন্ধ বুক ভের েগল। অেনকিদন আেগ েফেল আসা এক জীবন গভীর জেলর িনচ
েথেক ক্ষীণ ডাক পাঠাল আমােক।

একিদন কােন এল বুেকেনর বিন্দদশার কারণ। ওর ইস্কেলর কােছ দু েটা েছােটা েছােটা েছেল েঘাের। অজয় আর
                                                   ু
                                                                                 ু
সঞ্জয়। দু জেনই পাগল। ওেদর মা-ও পাগল, রাস্তায় রাস্তায় েঘাের। আিম ওেদর িচিন। বুকন েরাজ ইস্কল েথেক
                                                                                          ু
েফরার সময় চুিপচুিপ িনেজর িটিফন ওেদর িদেয় িদত। েকউ জানত না, কেয়ক বছর চেলেছ এটা। একিদন ওর
                                     ু
বাবা বািড় িফের হঠাত্-ই ওেক আনেত ইস্কেল যান। িগেয় েদেখন েছেলর কান্ড। তারপর বািড় এেস বকাঝকা। তাঁর
                                                                                      ু
ধারণা অতয্িধক সব্াধীনতা েপেয় েছেল বেখ যােচ্ছ, অবাধয্ হেয় পড়েছ। পাগলেদর সােথ িমশেছ। বুকেনর েখলা বন্ধ
হেয় েগল। সকােল সাইেকল চািলেয় এেস পুকের দাঁতমাজা হয় না আর। সু পৰ্কাশও আর পুকরধাের এেস বেস না।
                                       ু                                       ু

পাঁচ

েসবার খুব বষর্া। টানা দু িদেনর বৃ িষ্টর পর এক িবেকেল একটু েথেমেছ। আমরা জল েভেঙ জুেটিছ পুকরধাের।ু
েশাভািদদাও লািঠ ঠুকঠুিকেয় েবিড়েয় পেড়েছন। আমরা ধের ধের পুকরপােড় িনেয় আিস তাঁেক। বাবুর দাদু ধু িতটা
                                                             ু
মালেকাঁচা েবঁেধ আমােদর িভেড় এেস বেসন। অচর্নামািস মুিড় েমেখ আেন। সকলেক চা েদয়। পুতুলিদ বেল এর
সেঙ্গ গরম গরম েতেলভাজা হেল দারুণ জমত। িকন্তু আনেব েক? সমস্ত রাস্তা েয জেলর তলায়। সাইেকল চালােত
েগেল েকান সময় চাকা নদর্মায় িগেয় পড়েব। অগতয্া চা-মুিড়ই চলেত থােক। হঠাত্ সু মন েচঁিচেয় ওেঠ, বুকন। েদিখ
                                                                                             ু
                             ু
হােত একটা পয্ােকট িনেয় বুকন এিদেক আসেছ। কােছ আসেতই আমরা ওেক িঘের ধরলাম। ওর েচােখ আবার
েসই পুেরােনা িঝিকিমিক। পয্ােকট েথেক একগাদা নীল কাগজ েবর কের বলল, চল সবাই িমেল েনৗেকা ভাসাই।
বয্াস, বয়স ভুেল, সময় ভুেল সবাই িমেল েনৗেকা গড়েত েলেগ েগলাম। অচর্নামািসও হাত লাগাল, ওর চা জুেড়ােত

                                                 75
                                                                                             অঙ্কুর, ২০১১ 

লাগল কােপ। খািনক বােদ েশাভািদদা বলেলন, কই, আমােক একখানা কাগজ েদ েতা, েদিখ পাির িকনা... েসই
েকান েছােটােবলায় কেরিছ এসব। কাগজ িনেয় েশাভািদদা িদিবয্ একটার পর একটা েনৗেকা বানােত লাগেলন। বাবু
একটা েপন িদেয় যার যার েনৗেকার গােয তার তার নাম িলেখ িদেত লাগল। অেনক েনৗেকা বানােনা হেল আমরা
ভাসােনা শ‌ুরু করলাম।

পুকর আর রাস্তার তফাত্ মুেছ েগেছ পৰ্বল বৃ িষ্টপােত। আমােদর পাড়া পুকেরর পাড়া। রাস্তার েমােড় েমােড় পুকর।
   ু                                                              ু                                ু
সমস্ত পুকেরর জলই উেঠ এেসেছ রাস্তায়। এমনটা মােঝ মােঝ হয়। স্থল ও জেলর পৰ্েভদ মুেছ চারধার েভেস যায়।
         ু
হাওয়ায় েসই জেল েছােটা েছােটা েঢউ ওেঠ। গােয় আমােদর নাম িনেয় নীল কাগেজর েনৗেকারা দূ ের দূ ের েভেস
যায়। ছলাত্ছল জেল তারা টেলামেলা কের। েকােনাটা ডুেব যায়, েকােনাটা েহেল পড়েত পড়েতও সামেল েনয়
িনেজেক। টানা বৃ িষ্ট পড়ায় চারধার তাড়াতািড় অন্ধকার হেয় আেস, জেলর েধাঁয়া ওেঠ। নীল েনৗেকায় িঘের থাকা
এক েদেশ দাঁিড়েয় আমরা বািড় েফরার কথা ভুেল যাই। ওই আেলা-আধাঁিরেত নীল েনৗেকারা আবছায়ায় িমিলেয় যায়
আেস্ত আেস্ত। েকাথায় যায় তারা? বুকেনর মুেখর িদেক তাকাই। েসখােন এক অদ্ভুত েকৗতুহল েখলা কের। আমার
                                  ু
সামেন েথেক জগত্ চরাচর মুেছ যায়। শ‌ুধু গভীর অন্ধকাের ভাসমান বড় এক নীল েনৗেকায় লণ্ঠন জব্েল উেঠ
আমােক ৈশশব নােম এক কল্পেদেশর ইিঙ্গত িদেয় যায়...




পািখেদর স্নান                                                                                      িনঃসব্
শাশব্ত বেন্দয্াপাধয্ায়                                                            শাশব্ত বেন্দয্াপাধয্ায়
(চন্দননগর)
                                                                                              (চন্দননগর)
তার সমস্ত েঢউ অলীক।
                                                                        িবেকল পড়েছ, তুিম গ‌ুিছেয় িনচ্ছ।
তার সমস্ত জল গান।
             ু       ু
সু ের সু ের ফেট ওঠা ফেল                                                         এেক এেক িফরেছ পাড়াঘর,
েভেস যায় আমােদর আঁধার বাগান।                                             শ‌ুধু েতামারই েছেড় যাওয়ার টান।

েস বাগােন পািখ িফের আেস।                                                    মা পােয় পােয় সদরদু য়াের।
লাজুক লাজুক েছােটা পািখ                                                                দু গ্গা্ দু গ্গা ...
েঠাঁেট কের বেয় আেন েভােরর আজান।                                           নরম আঁচলটুক জড়ােনা গলায়।
                                                                                     ু
তার সমস্ত েঢউ অলীক
                                                                                    িবেকল েগাধূ িল পার
আর সমস্ত জল গান
েসই জেল সারা হয় ঊরুভাঙা গাছপালা, আর                                   তুিম যিদ এেকবাের চেল যাও আেলা
ঝলসােনা পািখেদর স্নান।                                                  আমরা সাজাব কােক তুলসীতলায়?

                                                 76
                                                                                                 অঙ্কুর, ২০১১ 
                                              বলাই সােহব
                                                    ু
                                             িদলীপ কমার দাস
                                                 (ওেয়িলংটন)

িবেলর* সােথ আমার দহরম-মহরম চার বছেররও েবশী সমেয়র। েস যখন আমােদর বাড়ীেত পৰ্থম আসেত শ‌ুরু
করল তখন ভাল কের বসেতও েশেখিন। তারপর এই ক’টা বছেরর মেধয্ েস হেয় উেঠেছ বছর পাঁেচেকর একটা
পৰ্ােণাচ্ছল বালক। েস আর তার সঙ্গীসাথীরা আমােদর বাড়ীিটেক কের েরেখেছ কলহােসয্ মুখিরত, আনেন্দ পিরপূ ণর্।
এখন তার আমােদর বাড়ী েছেড় যাবার সময় হল। এেদেশ েষােলা-আঠােরা বছেরর েছেল-েমেয়রা যখন বাবা-মােয়র
আশৰ্য় েছেড় বৃ হত্তর জীবন ও জগেতর আিঙ্গনায় পা েদয় তখন অথবা েদেশ েমেয়েদর িবেয়র পের শব্শ‌ুরবাড়ী যাবার
সময় বাবা-মােয়র মেন েয একটা ‘পািখ-বাসা-েছেড়-যাওয়া-শূ ণয্তা’র অনু ভূিত হয়, আমার মেন এখন িঠক েসই
একই অনু ভূিত। অথচ েস িহসােব িবল আমার েকউই নয়। েস আমার স্তৰ্ীর িশশ‌ুিশক্ষা ও পিরচযর্া বয্বস্থায়
অংশগৰ্হণকারী একিট িশশ‌ু।

িনউিজলয্ােন্ড িশশ‌ুর পিরচযর্া এবং িশক্ষার, িবেশষ কের পৰ্াক-িবদয্ালয় িশক্ষার উপর খুব গ‌ুরুতব্ েদওয়া হয়। পৰ্াক-
িবদয্ালয় িশক্ষা মােন মূ লত েখলা-ধূ লা, নাচ-গান, ছিব আঁকা ইতয্ািদর মাধয্েম িশশ‌ুর সািবর্ক িবকাশ সাধন। তার জনয্
সরকাির-েবসরকাির হেরক রকম বয্বস্থা আেছ। েযেহতু এেদেশ েবশীর ভাগ বাবা-মা দু জেনই বািড়র বাইের কাজ
কেরন এবং েযৗথপিরবােরর চল খুবই কম, তাই েছাট বাচ্চােদর েদখােশানার জনয্ িবেশষ বয্বস্থা গেড় উেঠেছ। িশশ‌ু
পিরচযর্া েকন্দৰ্ (creche) হল এরকম একিট বয্বস্থা। অেনক েকেন্দৰ্ এক দু মাস বয়স েথেকই িশশ‌ুেদর রাখার বয্বস্থা
থােক। অনয্ একিট বয্বস্থা হল িকন্ডারগােটর্ন। সরকারী বয্বস্থাপনার এই েকন্দৰ্গ‌ুিলেত বাচ্চারা সাধারণত িতন/সােড়
িতন বছর বয়স েথেক েযেত শ‌ুরু কের। এই েকন্দৰ্গ‌ুিল ছাড়াও অেনক পৰ্িশক্ষণপৰ্াপ্ত মিহলা বয্িক্তগত উেদয্ােগ
িনেজেদর বাড়ীেত গ‌ুিটকেয়ক িশশ‌ুর রক্ষণােবক্ষণ, পিরচযর্া ও িশক্ষার বয্বস্থা কেরন। অেনক সময় তাঁরা িশশ‌ুকলয্ােণ
িনেয়ািজত েকান েসব্চ্ছােসবী সংস্থার সােথ চুিক্তবদ্ধ হেয় িশশ‌ু পিরচযর্ার কাজিট কের থােকন। এই রকম একিট
েসব্চ্ছােসবী সংস্থা হল Barnardos। এেদর িনেজেদর িশশ‌ু পিরচযর্া েকন্দৰ্ আেছ, আবার পৰ্িশক্ষণপৰ্াপ্ত বয্িক্তগত
উেদয্াগীেদর মাধয্েমও সংস্থািট এই কাজ কের থােক। বয্িক্তগত বয্বস্থায় বাচ্চা অেনক েবশী individual attention
পাবার সু েযাগ পায়। তাই অেনক মা-বাবাই বাচ্চােক creche এ না েরেখ বয্িক্তগত উেদয্াগীেদর ততব্াবধােন রাখেত
পছন্দ কেরন। আমার স্তৰ্ী Barnardos এর সােথ চুিক্তবদ্ধ এরকম একজন িশশ‌ুিশক্ষা কমর্ী।

যাইেহাক, আবার িবেলর কথায় িফের আিস। আমার স্তৰ্ীর ততব্াবধােন থাকা আেরা দু -িতনিট বাচ্চার সােথ িবল খুব
সহেজই খাপ খাইেয় িনল। েদখেত েদখেত পৰ্থেম হামাগ‌ুিড় এবং তারপর টালমাটাল পােয় হাঁটেত শ‌ুরু করল। কথা
েফাটার পর পৰ্থম পৰ্থম েস আমােক ডাকত ‘িবপ’ বেল। তার পর েসটা ‘ডীেপ’ উন্নীত হল। আেরা পের ‘িডলীপ’
এ এবং সবেশেষ ‘আঙ্কল িডলীপ’এ আিম পৰ্েমাশন েপলাম ! িবেলর েচেয় কেয়ক মােসর বড় ‘েকট’* নােম একিট
েমেয় িছল আমার স্তৰ্ীর তত্তব্াবধােন। ওরা যখন আর একটু বড় হেয়েছ, কলম িদেয় কাগেজ আঁিকবুিক কাটেত
িশেখেছ, তখন আমার কােছ আসত ‘ছিব আঁকা’র জনয্ কাগজ িনেত। আিম অেনক সময়ই আমার পড়ার ঘের বেস
বািড় েথেকই কাজ করতাম। তাই এই বাচ্চাগ‌ুিলেক খুব কাছ েথেক েদখার সু েযাগ হেয়েছ। আমার সােথ ওেদর েবশ
ভাব হেয় যায়। ওরা যখন আমার কােছ কাগজ িনেত আসত তখন আিম ওেদর আেস্ত আেস্ত একিট দু িট বাংলা ছড়া
েশখােত শ‌ুরু কির। িবল আর েকট খুব অল্পিদেনর মেধয্ ‘আমরা দু িট ভাই িশেবর গাজন গাই, ঠাকমা েগেছ গয়া  ু
কাশী ডুগডুিগ বাজাই’ ছড়ািট রপ্ত কের িনল। একসময় এমন হল েয আিম ‘ঠাকমা’ বলেলই িবল ‘আমরা ডুিট ভাই’
                                                                          ু
বলেত শ‌ুরু কের িদত। আর যিদ ছড়া বলার মুেড না থাকত তেব বলত ‘েনা থাকমা’। এই ছড়ািট ছাড়াও ওেক
                                                                                 ু
আিম ‘আতা গােছ েতাতা পাখী ডািলম গােছ েমৗ, এত ডািক তবু কথা কয় না েকন েবৗ’ ছড়ািট িশিখেয়িছলাম।
আেধা আেধা সােহবী উচ্চারেণ ওর গলায় ছড়া দু িট শ‌ুনেত খুব ভাল লাগত। বাঙালী বাবা-মােয়রা তােদর েছাট
েছেলেমেয়রা ‘টু ইংকল টুইংকল িলটল স্টার’ আর ‘বয্া বয্া ব্লয্াক িশপ’ বলেত িশখেল একপৰ্কার আত্মপৰ্সাদ অনু ভব
কেরন। েকান সাংস্কৃিতক অনু ষ্ঠােন েছেলেমেয়রা েসগ‌ুিল আবৃ িত্ত করেল েদেখিছ বাবামােয়েদর মুখ আনেন্দ উদ্ভািসত
হেয় ওেঠ। িবল আর েকট যখন েনেচ েনেচ বাংলা ছড়া দু িট বলত তখন আিমও একপৰ্কার িবমলানন্দ অনু ভব
করতাম। ইেচ্ছ িছল আমােদর দু গর্াপূ েজার সাংস্কৃিতক অনু ষ্ঠােন িবলেক িদেয় ছড়া দু েটা আবৃ িত্ত করাব। িকন্তু তা আর
হেয় উঠল না। েস কথায় পের আসিছ।

                                                     77
                                                                                                  অঙ্কুর, ২০১১ 
এিদেক িবল আর েকেটর বয়স পৰ্ায় পাঁচ বছর হেত চলল। এেদেশ বাচ্চােদর বয়স ছ’ বছর পূ ণর্ হেল ইস্কেল যাওয়া   ু
                                                           ু
বাধয্তামূ লক। তেব পাঁচ েপিরেয় ছেয় পা িদেলই পৰ্াইমারী ইস্কেল যাওয়া শ‌ুরু করা যায় এবং েবশীরভাগ বাচ্চাই তা
কের। েকট অবশয্ সােড় িতন বছর বয়স েথেক িদেনর অেধর্কটা সময় িকন্ডারগােটর্েন েযত। বাকী অেধর্কটা িদন
আমােদর বািড়েত থাকত। িবল িকন্ডারগােটর্েন যায়িন, পুেরা সময়টাই আমার গৃিহণীর ‘পাঠশালায়’ েথেকেছ। েদেখিছ
                               ু
িক উত্সাহ িনেয় েছেলেমেয়রা ইস্কল শ‌ুরু করার িদনিটর জনয্ অেপক্ষা কের থােক। এর আেগ জয্াক* এবং িজল*
                                                                       ু
নােম একেজাড়া িপেঠািপিঠ ভাইেবান আমােদর বাড়ীেত আসত। জয্াক স্কল যাওয়া শ‌ুরু করার পর িজেলর বয়স
যখন পাঁেচর কাছাকািছ এল তখন দু ই ভাইেবােন িদন গ‌ুনত আর ক’িদন বািক আেছ িজেলর স্কল শ‌ুরু করেত।   ু
হাঁটেত েবিড়েয় ওেদর সােথ রাস্তায় েদখা হেল জয্াক পৰ্থেমই আমােক জািনেয় িদত আর ক’িদন বািক আেছ। খুব
কাছ েথেক এই পৰ্াণচঞ্চল বাচ্চাগ‌ুিলেক েদেখ উপলি কেরিছ এেদর আনু ষ্ঠািনক িবদয্ারম্ভ কত সব্াভািবক, কত
                   ু
আনন্দময়। ‘ভােলা স্কেল’ ভিতর্র জনয্ মা-বাবার দু িশন্তা েনই, ভিতর্র পরীক্ষার জনয্ বাচ্চােক ‘েতাতাপািখ’ বানােনার
পৰ্েয়াজন হয় না। একবার িক হেয়েছ, িবল পাঁেচর সােথ পাঁচ েযাগ করেত িশেখেছ আর েসই নবল িবদয্ািট
বািড়েত মা-বাবার কােছ জািহর কেরেছ। তােত মা-বাবার দু িশ্চন্তা। তাঁরা চান না পাঁচ বছর বয়স পূ ণর্ হবার আেগই
েছেল পাঁচ আর পাঁেচ েযাগ করেত িশেখ বয়েসর তুলনায় এিগেয় যাক ! ভাবটা হল েযাগ-িবেয়াগ-গ‌ুণ-ভাগ েতা
িশখেবই – তার জনয্ এত তাড়া িকেসর?

একিদন আমােদর বাড়ীেত েপঁৗেছ িবেলর মুখ ভার। েস কােরা সােথ ভাল কের কথা কয় না, তার খুব মন খারাপ।
একটু অনু সন্ধান কের গৃিহণী কারণিট জানেত পারেলন। তা হল আমােদর বাগােনর িকছু আধ-শ‌ুকেনা ফলগােছর ু
                                                                                                  ু
অন্তধর্ান। আমরা বাড়ীর সামেনটায় েবশ িকছু ডািলয়া গাছ লািগেয়িছলাম। গৰ্ীষ্মকােল বাগান আেলা কের তােদর ফল
 ু                                                         ু
ফেট থাকত। তারপর যখন ঠান্ডা পড়েত শ‌ুরু করল তখন পৰ্থেম ফলগ‌ুিল এবং পের গাছগ‌ুিল আেস্ত আেস্ত শ‌ুিকেয়
েযেত লাগল। এক ছু িটর িদেন ঐ আধ-শ‌ুকেনা গাছগ‌ুিলেক েকেট েফেল বাগানিটেক পিরস্কার করলাম। পরিদন েসটা
েদেখই িবেলর মন খারাপ। আর যখন জানল েয আিম এই কমর্িট কেরিছ তখন তার পৰ্িতিকৰ্য়া হল, ‘আঙ্কল িডলীপ
ইজ েভরী নিট’। তারপর েথেক েস আমার সােথ কথা বলেত চায় না, ছড়া বলা েতা দূ েরর কথা।

েছাট্ট এই ঘটনািটর পর উপলি করলাম িবল েতা রবীন্দৰ্নােথর ‘বলাই’-এরই পৰ্িতরূপ। আপনােদর তার কথা
হয়েতা জানা আেছ। ‘বলাই’ গেল্প** রবীন্দৰ্নােথর ভাইেপা হল বলাই। কাকার বাগােনর আপামর গাছপালা এমন
িক আগাছার সােথও তার খুব বন্ধতব্। বাগােনর রাস্তার মােঝ গিজেয় ওঠা (েলখেকর ভাষায় িনলর্জ্জভােব) িশমুলগাছিট
                              ু
তার পৰ্ােণর েদাসর। এক সময় উন্নততর িশক্ষালােভর জনয্ কািকমার েকাল েছেড় মাতৃহীন বলাইেক দূ ের েযেত
হল। েস িকন্তু কািকমােক িচিঠ িলেখ বন্ধ িশমুল গাছিটর খবর েনয়, তার ফেটা পাঠােত বেল। একিদন তার
                                      ু
অনু পিস্থিতর সু েযােগ কাকা ঐ গাছিটেক িদেলন েকেট। তার ফলশৰ্ুিত হল কািকমার দু িদন অন্নজল তয্াগ এবং
কাকার সােথ দীঘর্িদন বাকয্ালাপ বন্ধ।

গাছপালার সােথ িবেলর এই আত্মীয়তা আেগ েতমনভােব েখয়াল কিরিন। এখন িপছন িফের তািকেয় েদিখ
গাছপালার বয্াপাের েস িছল অনয্ েছেলেমেয়েদর েথেক আলাদা। অনয্রা বাগােনর গাছ থেক ফল তুলেল, পাতা
                                                                                   ু
িছঁড়েলও িবল েকান িদন েকান গােছ হাত িদত না। আমার বাগান পিরস্কােরর উত্সাহ তার িশশ‌ু মেন েজার আঘাত
িদল। েস আর আমার কােছ ছড়া বলেত চায় না!

এই েছেলেমেয়রা ‘হািপ লাস্ট েড’র পর যখন গৃিহণীর পাঠশালায় আর আেস না তখন সামিয়ক একটা শূ ণয্তা
অনু ভব করেলও নতুন বাচ্চা পাঠশালায় েযাগ িদেয় েসই শূ ণয্তা পূ রণ কের েদয়। তাছাড়া এইসব েছেলেমেয়েদর
                                                                                      ু
অেনেকই আমােদর পাড়ায় থােক, আমােদর বাড়ীর সামেন িদেয় দলেবঁেধ ৈহ ৈহ করেত করেত ইস্কেল যায়। সু তরাং
মােঝ মােঝই তােদর সােথ েদখা-সাক্ষাত্ হয়। এই িবল সােহবও (বলা ভাল – বলাই সােহবও) আমােদর পাড়ায়
থােক। েস আমােদর বাড়ীর সামেন িদেয়ই ইস্কেল যােব। নতুন পিরেবেশ, নতুন বন্ধেদর সাহচেযর্ আর নতুন
                                          ু                                   ু
অিভজ্ঞতার আনেন্দ আমােদর বাগােনর আধ-শ‌ুকেনা গাছবন্ধেদর হারােনার স্মৃ িত েস খুব তাড়াতািড় ভুেল যােব আশা
                                                  ু
কির।
_____________________
* আসল নাম নয়। **এখন ইন্টারেনেট সমগৰ্ রবীন্দৰ্রচনাবলী পড়া যায়। ‘বলাই’ গেল্পর ওেয়বেপজ হল -
http://www.rabindra-rachanabali.nltr.org/node/2020

                                                     78
                                                                                          অঙ্কুর, ২০১১ 
                                সনাতন ভারতীয় েগাপালন
                                        অমল সানয্াল
                                         (কৰ্াইস্টচাচর্)

মাথর্ার েছাটেছেল নাম তার আথর্ার                                                       ৃ
                                                               যাদেবরা ফেলা কের কেষ্ণর েটকিনক
শ’খােনক গরু িছল েদখােশানা ভার তার।                                 িকছু িদন আথর্ার ৈবষ্ণব েভক িনক।
কাজ নয় যার তার সামলােনা পশ‌ুেদর                               ইিন্ডয়া িগেয় যিদ েদেখ আেস কয় মাস
তাল রাখা সারািদন খাদয্ ও ওষু েধর।                             তাহেল উপায় হয়, অসু িবধা হয় নাশ”।
ঢাল েবেয় পাহােড়র গরুগ‌ুেলা েনেম যায়                                            ***** *****
েপছেনেত ছু েট ছু েট আথর্ার েঘেম যায়।                               আথর্ার ঘুের এেলা কেষ্ণর েদেশেত
                                                                                        ৃ
বৃ িষ্টেত আথর্ার যত বাড়ী েযেত চায়                                  মথুরা ও দব্ারকায় ৈবষ্ণব েবেশেত।
তত েযন গরুগ‌ুেলা েভেজ বেস এক ঠায়।                               ভারতীয় েগাচারণ িশেখ এেস আথর্ার
গরু নয় গাধা সব ভােব বেস আথর্ার                             গরুেদর বেল িদল “যার যার, তার তার”।
গরুেদর িখদমেত ভাজা ভাজা হাড় তার।                                    তারপের ডুেব েগল ভগবত্ িচন্তায়
               ***** *****                                 বেস বেস মালা জেপ, পৰ্ভু-নাম-গান গায়।
অবেশেষ গরুগ‌ুেলা েবেচ িদেত আথর্ার                           মােঝ মােঝ গাছতেল park কের car তার
Trade Me েত post কের িবকৰ্য় বাতর্ার।                            িনিরিবিল হিরনাম জপ কের আথর্ার।
েশেষ েযই েগাটাদু ই খেদ্দর পৰ্ায় িস্থর                          েগামাতারা বাধাহীন শ‌ুেয় বেস দাঁিড়েয়
ISKCON মিন্দের েদখা েপেলা বাবাজীর।                           েকউবা জাবর কােট ধীের মাথা নািড়েয়।
বাবাজীর সংলাপ, “গ‌ুণ কত গােবা তাঁর                           কতগ‌ুেলা পার হেয় েমাটর ওেয় ডাইেন।
 ৃ                 ু
কষ্ণ েগাবধর্ন িবষ্ণর অবতার।                                শহেরেত ঢুেক েঘাের traffic এর লাইেন।
আশী লাখ গরু িতিন অবেহেল চরােতন                                 কতগ‌ুেলা মেল েঘাের কতগ‌ুেলা ইস্কলু
ওরই মােঝ েথেক েথেক কংসেক ডরােতন।                           আথর্ার শ‌ুেন বেল, “it’s OK, it’s cool.”




                                              79
                                                                                               অঙ্কুর, ২০১১ 


                                                 পৰ্তীক্ষা
                                               সু িজত দত্ত
                                               (ওেয়িলংটন)


িবনয় তান্নার জন্ম মালাউইেত। মালাউই আিফৰ্কা মহােদেশর দিক্ষণ-পূ বর্ অংেশ অবিস্থত স্থলেবিষ্টত েছাট্ট একটা েদশ।
িবনেয়র বাবা এেদেশ এেসিছেলন ১৯৩০-এর পর যখন বৃ িটশ-রাজ আিফৰ্কার িবিভন্ন েদেশ েরললাইন পাতার জনয্
ভারত েথেক েলাক িনেয় আেস। েস কাজ যখন েশষ হেয় যায় তখন ভারত েথেক যাঁরা এেসিছেলন তাঁেদর পৰ্ায় সবাই
আিফৰ্কােতই েথেক যান। মালাউইেয়র আবহাওয়া চমত্কার – েবশী গরম নয়, আবার ঠান্ডাও নয়। েলাকজেনর ভীড়
েতমন েনই। খুব শািন্তপূ ণর্ জীবন।

েদশিটর পূ বর্ সীমানায় েলক মালাউই ভারী সু ন্দর। আকাশ পিরস্কার থাকেল েলেকর এপার েথেক ওপার েদখা যায়।
ওপাের েমাজািমব্ক। েছাট েছাট েনৗেকা কের িকছু েলাক েলেক ঘুের ঘুের সারািদন মাছ ধের। তারপর িদেনর েশেষ
মাছভিত্তর্ েনৗেকাগ‌ুেলা তীের িফের আেস। ওখানকার েলােকরা মাছ েখেত খুব পছন্দ কের। সু তরাং অল্প সমেয়র মেধয্ই
সব মাছ িবকৰ্ী হেয় যায়।




                                               েলক মালাউই

িবনেয়র বাবা রােজশ েরলওেয়র কাজ েশষ হেয় েগেল মালাউই েলেকর পােশ বাড়ী করেলন। জায়গািট একিট েছাট
শহর, নাম সািলমা। েরাজকার পৰ্েয়াজনীয় িজিনসপতৰ্ তখন ওখােন পাওয়া েযত না, বড় শহর েথেক আনেত হত।
তখনকার িদেন বােস কের বড় শহের েযেত হেল পাঁচ-ছয় ঘন্টা েলেগ েযত। েছাটেবলা েথেকই রােজেশর বয্বসার
িদেক েঝাঁক িছল। িতিন ভাবেলন এটা একটা সু েযাগ। েরাজকার পৰ্েয়াজনীয় িজিনস িদেয় েদাকান করেল খুব ভাল
চলেব। রােজেশর কল্পনা বাস্তেব পিরণত হল। িতিন একিট েদাকান খুলেলন। খিরদ্দার আসেত শ‌ুরু করল, ভীড় বাড়েত
লাগল।

রােজেশর আসার পর আেরা দু -িতনিট ভারতীয় পিরবার সািলমােত এেস ঘর বাঁধল। ১৯৪০ সাল পযর্ন্ত েসখােন িবদু য্ত্
                                ূ
িছল না। রািতৰ্েবলায় েকেরািসেনর কপী বা েমামবািতই িছল ভরসা। তেব েদেশ তাঁরা েযখােন থাকেতন েসখােনও
একই অবস্থা িছল। সু তরাং েদেশর েছাট শহর েথেক যাঁরা এেসিছেলন তাঁেদর এসব অসু িবধা সইেত কষ্ট হয়িন। েসই
সময় েথেকই আিফৰ্কায় ভারতীয়েদর ভীড় জমেত থােক।

িবনয় জন্ম েথেকই তার বাবােক বয্বসা করেত েদেখেছ। েস িনেজও ধীের ধীের বাবার বয্বসায় জিড়েয় পড়ল।
           ু
পড়ােশানা স্কেলর েশষ ধাপ পযর্ন্ত েপঁৗছােনার আেগই বন্ধ হেয় েগল। িদব্তীয় পৰ্জেন্মর ভারতীয়েদর সবার একটাই

                                                    80
                                                                                                   অঙ্কুর, ২০১১ 

উেদ্দশয্ িছল – বয্বসা বাড়াও, সম্পদ বাড়াও – এেতই জীবেনর সফলতা। তাঁরা রক্ষণশীল ভারতীয় সংস্কার ধের
েরেখিছেলন। িবেয়র সময় হেল েছেলরা েদেশ িগেয় পছন্দ কের জীবনসিঙ্গনী িনেয় আবার িফের আসত।

১৯৭০ সাল েথেক মালাউইেত নতুন আইন চালু হল েয যত ভারতীয় েছাট েছাট শহের বয্বসা করেছ তােদর সবাইেক
বড় শহের চেল আসেত হেব। েছাট শহর বা গৰ্ােম বয্বসা শ‌ুধু মালাউইেয়র ভূ িমপুতৰ্রাই করেত পারেব। েসই েথেক
ভারতীয়েদর বড় শহের বসবাস বাড়েত লাগল। ব্লান্টায়ার, েজামব্া, িললনেগােয় ইতয্ািদ শহের যােদর েযখােন
েযাগােযাগ-জানােশানা িছল তারা েসখােন বসবাস শ‌ুরু করেলন। িবনয় ও তার পিরবার ব্লান্টায়ার চেল এল। নতুন
জায়গায় নতুন জীবন শ‌ুরু হল। রােজশ তখন অবসর িনেয়েছন। তেব নতুন বয্বসায় িবনয়েক পৰ্েয়াজনমত পরামশর্
                                                                    ু
িদেতন। িবনেয়র সংসারও তখন বড় হেয়েছ। েমেয় ফাল্গ‌ুনী আর েছেল আকাশ স্কেল েযেত আরম্ভ কেরেছ।

১৯৮০-র পর েথেক মালাউই-পৰ্বাসী ভারতীয় সমােজর রক্ষণশীল কাঠােমাটা বদলােত শ‌ুরু কের। নতুন পৰ্জেন্মর
             ু
েছেলেমেয়রা স্কেলর গন্ডী েপেরােচ্ছ। এর মেধয্ িকছু িকছু েছেলেমেয় উচ্চিশক্ষার জনয্ ইংলয্ােন্ড যােচ্ছ। ইউেরােপর
অেনক েবশী েখালােমলা সামািজক জীবেনর পৰ্ভাব তােদর ওপর পড়েছ। েছেলেমেয়রা একসেঙ্গ পড়ােশানা কের,
কেলজ িবশব্িবদয্ালেয়র বাইেরও তােদর েমলােমশা েদখােশানা হয়।

                                                                                ু
িবনেয়র েমেয় ফাল্গ‌ুনী পড়ােশানায় ভাল। েস েগৗতম নােম একিট েছেলর সােথ একই স্কেল একই েলেভেল পেড়।
ফাল্গ‌ুনী এবং েগৗতম দু জেনরই িডেবেট খুব নাম আেছ। গত দু বছেরর মেধয্ অেনক পৰ্িতেযািগতা হেয়েছ। তােত অনয্
সবাইেক ওরা হািরেয় িদেয়েছ। এক বছেরর মেধয্ ফাইনয্াল পরীক্ষা হেয় েগেল ফাল্গ‌ুনী িবেদেশ ইউিনভারিসিটেত ভিতর্
হবার েচষ্টা করেব। েগৗতেমর পিরবার বয্বসায়ী নয়। ওর বাবা রেমন েটকিনকয্াল কেলেজর েলকচারার আর মা রাখী
েকান এক পৰ্াইেভট েকাম্পানীেত েসেকৰ্টারীর কাজ কেরন। েগৗতম েযেহতু পড়ােশানায় ভাল, রেমন ও রাখীর ইচ্ছা
েগৗতম ’এ’ েলেভল পাশ করেল তােক ইউিনভারিসিটেত পড়ােনার জনয্ ইংলয্ােন্ড পাঠােনার। কেয়কমাস বােদ ওেদর
ফাইনয্াল পরীক্ষা েশষ হল। এবার ইউিনভারিসিটেত আেবদন করার পালা। ফল েবেরােল েগৰ্ড যা হেব তার উপর
িনভর্র করেব ইউিনভারিসিট এবং িবষয় িনবর্াচন।

                                                          ু                      ু
রেমেনর সেঙ্গ িবনেয়র পিরচয় শ‌ুধু মাতৰ্ তােদর েছেলেমেয়েদর স্কেলর মাধয্েম – হয়েতা স্কেলর েকান েসয্াসাল ফাংশেন,
নয়েতা বা পয্ােরন্টস্ েড েত। অনয্ েকান সামািজক েমলােমশা তােদর মেধয্ েনই, কারণ িবনয় শ‌ুধু তার বয্বসায়ী
মহেলর মেধয্ই েঘারােফরা কের আর রেমেনর েমলােমশা তার িনেজর বৃ িত্তর বৃ েত্তই সীমাবদ্ধ। তাই েগৗতম এবং
ফাল্গ‌ুনীর েদখাশনা স্কেলর বাইের খুবই কম হয়।
                     ু

  ু
স্কেলর পরীক্ষার পর লমব্া ছু িট। ব্লান্টায়ােরর কােছ েলক মােঙ্গািচ - দু ঘন্টার ডৰ্াইভ। ওখােন অেনেক েড-িটৰ্েপ যায়।
েলেক সাঁতার কাটা যায়, স্পীডেবােট েঘারা যায়। আর িপকিনেকর ভাল জায়গা আেছ েলেকর ধাের। এক উইক-এেন্ড
অনয্ দু -একটা পিরবােরর সােথ েগৗতেমর পিরবার এেসিছল মােঙ্গািচ েলেক। িকছু ক্ষণ বােদ ফাল্গ‌ুনী অনয্ একটা গাড়ী
েথেক নামল। েস তার এক বন্ধর পিরবােরর সােথ এেসেছ। েগৗতম ফাল্গ‌ুনীেক েদেখ খুব খুশী হয়। েগৗতেমর বাবা-মা
                               ু
                     ু
ফাল্গ‌ুনীেক েচেনন। স্কেলর েসয্াসাল ফাংশেন আলাপ হেয়েছ। ওেদর মেধয্ ইউিনভারিসিটেত ভিত্তর্ িনেয় কথাবাত্তর্া হয় –
েক কটা ইউিনভারিসিটর সােথ েযাগােযাগ করেছ ইতয্ািদ।

েগৗতেমর মা ফাল্গ‌ুনীেক িজজ্ঞাসা করেলন তার ইউিনভারিসিট যাওয়ার পৰ্স্তুিত কতদূ র। ফাল্গ‌ুনী জানাল েসটা িনভর্র
করেছ েকাথায় ভিত্তর্ হেত পারেব তার উপর। তেব তার বাবা কথা বেল েরেখেছন েচনােশানা েলাকজেনর সােথ। ভিত্তর্
হেত পারেল থাকার বয্বস্থা হেয় যােব। রাখী জানাল েগৗতেমর থাকার বয্বস্থা ভিত্তর্ হেল করা হেব। দু জনেরই ইচ্ছা
লন্ডেন পড়ার। েগৗতম পড়েত চায় অথর্নীিত, ফাল্গ‌ুনী আইন। সারািদন েগৗতম এবং ফাল্গ‌ুনীর মেধয্ পড়ােশানার কথা
ছাড়াও আেরা অেনক কথাবাতর্া হল। এরকম সু েযাগ েতা সাধারণত পাওয়া যায় না! একিট সু ন্দর িদন েলেকর ধাের

                                                      81
                                                                                                   অঙ্কুর, ২০১১ 

কািটেয় সন্ধয্ােবলায় ওরা সকেল বাড়ী িফরল। পরীক্ষার ফল েবেরােল রাখী একিদন তােদর বাড়ীেত আসার জনয্
ফাল্গ‌ুনীেক আগাম িনমন্তৰ্ণ জািনেয় রাখল। েসই সেঙ্গ জানাল তার বাবা, মা আর ভাইেকও আসার কথা বলেব।

েদখেত েদখেত দু সপ্তাহ েকেট েগল, পরীক্ষার ফল েবর হল। দু জেনই খুব ভাল েরজাল্ট কেরেছ। েগৗতম িতনেট ‘এ’
                                                           ু
েপেয়েছ, ফাল্গ‌ুনী দু েটা ‘এ’ আর একটা ‘িব’। েগৗতম লন্ডন স্কল অফ ইেকানিমেক্স অথর্নীিত পড়ার অফার েপল। আর
ফাল্গ‌ুনী সু েযাগ েপল লন্ডেনর িকংস কেলেজ আইন পড়ার। খুবই আনেন্দর বয্াপার। দু ই পিরবার তােদর েছেলেমেয়েদর
                                                        ু
এই সাফলয্ একসেঙ্গ উদযাপন করল। আেরা অেনক বন্ধরা এেসিছল েসই আনন্দ অনু ষ্ঠােন। সন্তানেদর সাফেলয্র
মাধয্েম দু িট িভন্ন বৃ েত্তর পিরবার এেক অেনয্র খুব কাছাকািছ চেল এল। িঠক হল ফাল্গ‌ুনী লন্ডেন তার েছাট কাকা-
কািকমার কােছ থাকেব। েগৗতেমর থাকার বয্বস্থা হল তােদর আত্মীয়-সব্জেনর সহেযািগতায় একজেনর বাড়ীেত েপিয়ং
েগষ্ট িহসােব। েগৗতেমর মা েগৗতমেক লন্ডেন েপঁৗেছ িদেয় েগেলন।

পড়ােশানায় িনেজর িনেজর েক্ষেতৰ্ দু জেনরই পৰ্ভূ ত অগৰ্গিত হল। েদখেত েদখেত দু বছর েকেট েগল। জন্মভূ িম েথেক
বহুদূ ের রক্ষণশীল সমােজর বাধািনেষেধর বাইের দু িট উঠিত বয়েসর েছেলেমেয় সব্ভাবতই অেনক কাছাকািছ চেল এল।
                                                                                             ু
মালাউইেত থাকেতই ভালবাসার েয অঙ্কুেরাদ্গম হেয়িছল লন্ডেন েসিট আেরা পল্লিবত হল। ওেদর স্কল-কেলজ দু েটা
কাছাকািছ। মােঝমােঝই ওেদর েদখাসাক্ষাত্ হত। তখন ওরা ভিবষয্ত সু খসব্েপ্নর জাল বুনত, আর মালাউইেয়র স্মৃ িত ও
িবিভন্ন ঘটনা িনেয় আেলাচনা করত। একটা ঘটনা িছল এরকম। ওেদর েচনােশানা একিট েমেয় তার এক সহপাঠীর
সেঙ্গ খুব জিড়েয় পেড়িছল। েজারদার েপৰ্ম। েমেয়র রক্ষণশীল পিরবােরর কােছ এিট েমােটই গৰ্হণেযাগয্ িছল না।
গ‌ুজব ছড়াল েয ওরা হয়েতা পািলেয় িগেয় িবেয় করেব। বাবা-মা এই অবস্থার আভাষ েপেয় েমেয়িটেক তার কাকার
কােছ দু বাইেত পািঠেয় িদেলন। কেয়ক মাস পের েশানা েগল েমেয়িটর সােথ লন্ডেনর একিট েছেলর িবেয় হেয়
িগেয়েছ। আেলাচনার সু েতৰ্ েগৗতম ফাল্গ‌ুনীেক িজজ্ঞাসা কের ‘েতামােক েকউ দু বাই পাঠােব না েতা?’ তারপের দু জেনই
পৰ্াণভের হােস।

গরেমর ছু িটেত দু জেনই মালাউইেত বািড় এল। আর এক বছেরর মেধয্ই তােদর এই েকাসর্ দু েটা েশষ হেয় যােব।
তারপর ওরা িক করেব তাই িনেয় দু ই পিরবার পিরকল্পনা করেত বসল। েগৗতম েসিদন কিফ েখেত েখেত বলিছল েয
েস আেমিরকােত স্কলারিশেপর জনয্ েচষ্টা করেছ। তার সু প্ত ইচ্ছা স্কলারিশপ েপেল েস ফাল্গ‌ুনীেকও িনেয় যােব। তার
আেগ িবেয়টা েসের েফলেত হেব। দু ই পিরবারই এেত রাজী হেব বেল মেন হয়।

েদখেত েদখেত আেরা একটা শীতকাল চেল েগল। িদন বড় হেত আরম্ভ হল। পরীক্ষার সময় এেস েগল। েগৗতেমর
পরীক্ষা পৰ্থম েশষ হল। ফাল্গ‌ুনীর পেরর সপ্তােহ েশষ হেব। এর মেধয্ মালাউই েথেক তার বাবার েফান এল। বাবা যা
বলেলন তােত ফাল্গ‌ুনী খুব িচিন্তত হেয় পড়ল। তার মােয়র শরীর েবশ িকছু িদন ভাল যােচ্ছ না। দু একবার হাসপাতােল
ভিত্তর্ হেত হেয়িছল। িকন্তু তােতও সব্ােস্থয্র েকান উন্নিত হয়িন। পরীক্ষা েশষ হেতই ফাল্গ‌ুনী পিড় িক মির কের মালাউই
ছু টল। এর পর িক হেব তার সব পূ বর্পিরকল্পনা অিনিশ্চত হেয় েগল।

এিদেক েগৗতম আেমিরকা েথেক স্কলারিশপ েপল। খুব তাড়াতািড় েসখােন েযেত হেব। এ সু েযাগ ছাড়া যােব না।
ফাল্গ‌ুনীর মােয়র অবস্থার েকান পিরবতর্ন েনই। এ সময় মােয়র কােছ ফাল্গ‌ুনীর থাকা একান্ত দরকার। আর িকছু িদন
সময় েপেল আর মা সু স্থ থাকেল ওেদর িবেয়টা হেয় েযত। িঠক হল েগৗতম পেরর সপ্তােহই আেমিরকা চেল যােব।
ফাল্গ‌ুনী এখােনই েকান উিকেলর কােছ আেপৰ্নিটসিশপ শ‌ুরু করেব। সবাই আশা করেছ ফাল্গ‌ুনীর মা িকছু িদেনর মেধয্ই
সু স্থ হেয় উঠেবন। েগৗতেমরও এক বছর পেরই মালাউইেত িফের আসার কথা।

ফাল্গ‌ুনীেক এই অবস্থা েমেন িনেত হেব। তােক েকউ দু বাই পাঠায়িন, িকন্তু ভাগয্ তােক অেপক্ষা করেত বেলেছ। ভােগয্র
ওপর মানু েষর হাত েনই। ফাল্গ‌ুনী পৰ্তীক্ষা করেব েগৗতেমর জনয্। যতিদনই েহাক েস পৰ্তীক্ষা করেব।

                                                      82
                                                                                             অঙ্কুর, ২০১১ 

                               Akal Bodhon: Durga Puja by Sri Ramachandra
                                         [A children’s drama in four acts, adapted from
                                        Kirtibasi Ramayana (Aranya and Lanka Kandas)]
                                                       Sandhya Chatterjee
                                                        (Palmerston North)


                                   Characters: Rama, Sita, Lakshmana, Ravana and Mandodori
                                                  Voice: Brahma and Durga
                                                   Place: Panchabati forest.



                                                         Act I

           (Sita was gathering flowers near her cottage when a golden deer flashed past. Sita was
           spell-bound.)
Sita:      Look! I have never seen such a beautiful golden deer in my life. Can you get it for me,
           please? I’ll make it my pet.
Rama:      It is a beautiful animal. We must catch it, Lakshmana, as Sita is so keen to have it.
Lakshmana: This is not an animal, brother. A deer made of gold cannot play. Do you remember when
           we had a fight with the demons of this forest, and we cut off the nose and ears of
           Surpanakha, the female demon? I think it is her brother Ravana and her nephew Marich,
           who are playing tricks on us, dressed as deer.
Sita:      I want the golden deer, whatever you say!
           (Sita’s dance with the song: Tora je ja balis bhai, amar sonar harin chai),
           (At the end of the dance….)
Rama:      Calm down, Sita! I shall get the deer for you. Have no fear, brother Lakshmana. Look after
           Sita and take care of her; do not leave her whatever happens.
           (Rama leaves. In the background, a voice just like Rama’s is heard: “Ah Sita! Ah
           Lakshmana! Help me! The golden deer was really Marich”)
Sita:      Lakshmana, don’t you hear your brother’s voice? Maybe the demons are trying to harm
           him. Run, go at once to help him out.
Lakshmana: All these are the doings of that demon. Rama would never cry like that.
Sita:      Rama is in danger. You are still not going. Don’t you really care for your brother? You
           don’t love him at all.
Lakhsmana: Oh Princess, don’t be worried. I’ll go. But I’ll draw a circle. Don’t cross this line for any
           reason. You’ll be safe as long as you stay inside the circle. May God protect you!
           (Lakhsmana leaves and Ravana enters. Ravana is covered with a cloth over his king’s
           dress. There is a bowl in his hand)
Ravana:    I am hungry. I didn’t have any food for many days.
Sita:      Oh holy monk, have these fruits and drink and rest here until my husband and brother-in-
           law return.
Ravana:    My daughter, come closer to me. I want to bless you.
           (As Sita steps out of the circle, Ravana seizes her, and pulling her hand, roars…)
Ravana:    I am Ravana, the king of Lanka. Come to Lanka and be my queen. Five thousand slaves
           will be at your service. Leave Rama and follow me.
Sita:      Oh Rama, oh Lakshmana, help me, save me!
           (Sita tries to get away. Ravana drags Sita to his chariot and flies off into the sky).



                                                  83
                                                                                             অঙ্কুর, ২০১১ 
                                                        Act II

           (Enter Rama and Lakshmana)
Rama:      Oh Sita, I am back. There is no golden deer. It was just a trick of Marich, the demon. I am
           safe. Come out of the cottage and see for yourself.
           (Rama finds Sita’s garland outside the cottage and picks it up).
Rama:      Ah brother, why did you leave Sita alone? There is no sign of Sita, only her garland is here.
           Ah Sita!
Lakshmana: Brother, don’t worry about Sita. She must have gone to the river to get some water and
           fruits for us. Stay here. I am going to find Sita.
           (Lakshmana leaves, and enters after a while)
Rama:      Have you found Sita?
Lakshmana: I met big bird Jatayu, the king of eagles. He saw Ravana carrying Sita away. He fought
           with the demon to free her. Alas! Ravana cut off his wings and stabbed him with a sword
           and nearly killed him.
Rama:      I would kill Ravana and bring Sita back. Be prepared for war.
           (Rama and Lakshmana leave)
           Suddenly Brahma’s speaks in the background)
Brahma’s
Voice:     I am Brahma, the creator of the universe. I made Ravana to be born as a demon. It
           happened because of my curse. Beforehand, he was a guard of Baikuntha, my garden. I
           gave him a Deadly Bow so that he could be free from the curse. Ravana’s death will come.
           He will die only if he is struck with an arrow from that Deadly Bow, the Brahma-Astra. He
           will then come back to Heaven. Remember, Goddess Durga is always with him and saves
           him from all danger.

              So, Rama, you will need to have the blessing of Goddess Durga to defeat Ravana. Durga’s
              other name is Basanti Devi. She is worshiped only in the Basanta (spring) season. But
              because it is now just Sarat (autumn), you will need to do Akal Bodhon (worship out of
              season) now. You will need 108 blue lotuses, her favourite flower.

              Seek the help of Sugriva, the monkey king, and his friend Hunuman to fight with Ravana.
              Send Hunuman to somehow procure Ravana’s ‘Deadly Bow’ which is the only weapon that
              can kill him.

                                                       Act III

           (Lanka – Ashoka Garden – Ravana and Sita enter. Ravana forcibly brings her in the
           garden)
Ravana:    Dear Sita, my palace, my garden and my wealth are all yours! Accept me as your husband.
Sita:      I’ll never be your queen. Go away at once. You are an ugly and cruel demon.
Ravana:    You’ll have to marry me within a year. Otherwise, I’ll cut you into pieces and give them
           away to my demons for their meal. I’ll kill Rama and Lakshmana too.
           (Ravana leaves angrily. Sita keeps crying.)
Sita:      I’ll not touch any food or drink until I meet Lord Rama. Oh God, how I wish I were dead!
           (Mandodori, wife of Ravana, enters)
Mandodori: Oh Princess, my sister, don’t be afraid. I am Lanka’s queen and Ravana’s wife. I am
           ashamed of what my husband has done. Nobody is going to harm you. I promise I’ll take
           you back to your husband. Now, have some fruits and drink. Come with me.
           (Sita and Mandodori leave)



                                                  84
                                                                                            অঙ্কুর, ২০১১ 
                                                       Act IV

              (Rama and Lakshmana enter with blue lotuses in their hand, and sit down to offer their
              prayers to Goddess Durga)
Rama:         Ma Durga, give me the strength to fight off Ravana. Take these blue lotuses. My people
              call me ‘Kamalakskha’ or ‘Lotus-eyed’. As there are only 107 lotuses, please take one of
              my eyes as my offering to complete the set of 108. I promise you, I’ll spread the message
              of your kindness across the world.
              (Durga’s voice is heard in the background. Rama and Lakshmana listen curiously)
Goddess
Durga’s
voice:        I am Katyayani, Chandi, Basanti Devi and also Goddess Durga. I am pleased with your
              prayer. There is no need to take your eye out. Rama, my son, have no fear. You have made
              me happy and known to all on earth. Because of you, I will be worshiped in autumn from
              now on.

              Because of his wrongdoing I am angry with Ravana. Ravana will not have my mercy any
              more. Bless you, my son. I give you the Deadly Bow and an arrow. Victory will be yours
              in this war

           (Ravana enters at end of the voice)
Ravana:    Ha, ha, ha! I’ll never die. Nobody can kill me without the Deadly Bow which only I
           possess.
           (Rama and Lakshmana get up. They start fighting with Ravana. Ravana gets wounded, falls
           and dies.)
           (Mandodori enters holding Sita’s hand)
Mandodori: Oh Prince Rama, I am Mandodori, the unfortunate Queen of Lanka. Take your Sita back to
           Ayodhya. Look after her and live happily ever after.
           (Mandodori sees Ravana’s dead body and starts crying)
Mandodori: Oh Ravana, the mighty King of Lanka, I cannot live without you.
Rama:      Oh Queen of Lanka. Do not grieve for Ravana. Go back to your palace. Light a funeral
           pyre and lay Ravana upon it. This fire will keep burning for ever. Because of this Eternal
           Fire, Ravana will be always with you.
           (The petals of flowers shower from above. Ravana stays on the ground. Lakshmana and
           Mandodori utter with folded hands…)
Mandodori
and
Lakshmana: ‘Joy Sita-Ram, Joy Sita-Ram’
Chandi
Stotra
starts:    ‘Ya Devi Sarbabhuteshu………’

                                              The End


                                 With compliments from
                                  “Four Squares”
                               Wainuiomata, Lower Hutt

                                                 85
     অঙ্কুর, ২০১১ 




86
                                                                                                                    অঙ্কুর, ২০১১ 




 THE     SPICE RACK LTD
       Where Quality Comes First!
                                                                      At Tawa Auto Services & Repairs we’re all about
                                                                        supporting communities. So it gives us great
                                                                       pleasure to announce that we are now offering
                                                                                    $40 vehicle WOF’s
                                                                    to all Wellington Durgotsav Committee members.

                                                                      In addition to the above offer, for a limited time
                                                                                     we are also offering
                                                                     vehicle serving starting from $165.00 incl gst.

                                                                             Please contact us to discuss the
                                                                                  terms and conditions.

                                                                             04 232 9128
                                                                                      Unit 3, 98 Main Rd
                                                                                      Tawa, Wellington
                                                                             (Just behind the BP service Station)

         For all your Indian grocery and spice needs
                                                                    We do vehicle servicing, tyres, brakes, batteries,
____________________________________________________________         exhaust, cambelts, clutches, general repairs -
        150 Jackson Street, Petone, Tel 568 4149                    anything automotive. We're your one stop shop.
                               
                               




                                                               87
                                                               অঙ্কুর, ২০১১ 




         Takeaway, Catering and Door Delivery
 Chilli masala masters in a wide variety of Indian and Chinese
 delicacies for lunch and dinner - all available for delivery to your
  door. Some of our favourites are Tandoori, Lamb Rogan Josh
  and Butter Chicken - to name a few. We also cater for parties
     and functions. In the past we catered for Bollywood stars
        ABHISHEK BACHCHAN AND AISHWARYA RAI
 Trading hours:
  11:00am - 2:30pm
  4:30pm – 9:30pm
    (Open 7 days)
    Location:
   462 High Street,
     Lower Hutt.
   (Near Pak ’N Save)
 Phone: 586 4820,
Mobile: 021 071 7412
      Website:
www.chillimasala.co.nz
                                  88
 
 

								
To top